কোচের চাওয়া পাওয়ার হিটিং ও ফিল্ডিংয়ে উন্নতি

উন্নতির ছাপ স্পষ্ট। পায়ের নিচে জমি শক্ত হতেও শুরু করেছে। তবে টি-টোয়েন্টিতে সমীহ জাগানিয়া শক্তি হয়ে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ। সেই লক্ষ্য পূরণের পথ পাড়ি দিতে স্টিভ রোডেসের চাওয়া, পাওয়ার হিটিং ও ফিল্ডিংয়ে দ্রুত উন্নতি করা।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Dec 2018, 01:21 PM
Updated : 16 Dec 2018, 01:21 PM

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের ভাষাটা বুঝতেই অনেকটা সময় লেগে গিয়েছিল বাংলাদেশের। সেই ভাষা মন্থরগতিতে হলেও রপ্ত হতে শুরু করেছে দল। এ বছর যদিও ১৩ টি-টোয়েন্টির কেবল ৪টিই জিতেছে বাংলাদেশ, এরপরও ছিল দারুণ কিছু সাফল্য। মার্চে শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের ফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ। অগাস্টে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এসেছিল সিরিজ জয়।

তবে এই সাফল্যের মাঝে আছে আফগানিস্তানের কাছে সিরিজে হোয়াইটওয়াশড হওয়ার অভিজ্ঞতা। শ্রীলঙ্কার কাছে হারার স্বাদ। র‌্যাঙ্কিংয়েও বাংলাদেশ পড়ে আছে এখনও দশে।

টি-টোয়েন্টিতে উন্নতির পথে রোডস চিহ্নিত করেছেন দুটি জায়গা, যেখানে উন্নতি চান সবচেয়ে বেশি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর আগের দিন বাংলাদেশ কোচ জানালেন তার চাওয়া।

“এখানে দায়িত্ব নেওয়ার পর টি-টোয়েন্টি দলে তাকিয়ে কয়েকটি দিক লক্ষ্য করেছি। পাওয়ার হিটিংয়ের ব্যাপারটি নজরে এসেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিয়ানরা যেমন দারুণ শক্তিশালী, অনেক জোরে মারতে পারে। মিসহিটও ছক্কা হয়ে যায়। আমার মনে হয়েছে, আমরাও এটি নিয়ে কাজ করতে পারি।”

“এমন নয় বাংলাদেশ তা পারে না। ছেলেরা অনেকবারই দারুণ সব ছক্কা মেরে আমাকে চমকে দিয়েছে। আজকেও অনুশীলনে দেখেছেন, লম্বা লম্বা শট খেলছিল ছেলেরা। এটি এমন একটি দিক, যেখানে আমরা নিশ্চিতভাবেই উন্নতি করছি। কিন্তু আরও অনেক উন্নতির জায়গা আছে।”

ফিল্ডিংয়ে সাম্প্রতিক সময়ে খুব একটা ভালো করতে পারেনি বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজেও ক্যাচ পড়েছে অনেক। কোচ জোর দিতে চান এখানেও।

“ফিল্ডিং নিয়ে আমরা কঠোর পরিশ্রম করছি। এই মূহুর্তে, বাংলাদেশের ক্রিকেটের কয়েকজন অবশ্যই বিশ্বের সেরা অ্যাথলেটদের কাতারে নেই। ঘাটতি কিছু আছে। নিজেদের দিনে আমরা হয়তো খুব ভালো ফিল্ডিং করছি। তবে আরও ধারাবাহিক হতে হবে, যেটি আমরা খুব করে চাই।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক