বিশ্বকাপ সেমি-ফাইনালে চোখ রেখে রোডসের পরিকল্পনা

ওয়ানডে ক্রিকেটে সব অলিগলি বাংলাদেশের চেনা। এই সংস্করণে দারুণ একটি দল আছে স্টিভ রোডসের হাতে। আগামী ছয় মাস কিভাবে কাজে লাগিয়ে এই দলকে নক আউট পর্বে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত করা যায় তার কর্মপরিকল্পনা ঠিক করছেন বাংলাদেশের প্রধান কোচ।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Dec 2018, 11:58 AM
Updated : 16 Dec 2018, 07:46 PM

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে চলতি বছর শেষ হবে বাংলাদেশের। তাদের পরের মিশন নিউ জিল্যান্ডে, সেখানে খেলবে তিনটি করে টেস্ট ও ওয়ানডে। রোডসের প্রথম লক্ষ্য হবে নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্টে সিরিজের জন্য সম্ভাব্য সবচেয়ে ভালো প্রস্তুতি।

“আমার মনে হয়, নিউ জিল্যান্ড সফর খুব কঠিন হবে। ওরা খুব ভালো একটি দল আর তিন সংস্করণে খুব ভালো খেলছে। সেখানে আমরা টেস্ট ও ওয়ানডে সিরিজ খেলব। আমরা জানি যে, দেশের বাইরে আমাদের টেস্টে উন্নতি করতে হবে। এবার আমরা একটু ভালো প্রস্তুতি নেওয়ার আশা করছি।”

ইংল্যান্ডে হতে যাওয়া আগামী বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও স্বাগতিকদের সঙ্গে একটি ত্রিদেশীয় সিরিজে খেলবে বাংলাদেশ। রোডস মনে করেন, আত্মবিশ্বাস নিয়ে বিশ্বকাপে যেতে এই সিরিজ ভালো করা হবে খুব গুরুত্বপূর্ণ।

“আয়ারল্যান্ডে যাওয়ার পর আমরা চাইব সব সঠিক পথে এগিয়ে যাক। যদি ত্রিদেশীয় সিরিজটা ভালো কাটে আমরা আত্মবিশ্বাস নিয়ে বিশ্বকাপে যেতে পারব।”

২০১৫ বিশ্বকাপের পর থেকে ওয়ানডে ক্রিকেটে বেশ সফল বাংলাদেশ। এই সময়ে ১২টি দ্বি-পাক্ষিক সিরিজের আটটিতে জিতেছে তারা, ড্র করেছে একটিতে। দলে খুব বেশি পরিবর্তন হয়নি। অভিজ্ঞ একটি দল থাকায় বিশ্বকাপে ভালো করার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী প্রধান কোচ।

“আমাদের ওয়ানডে দলটি বেশ অভিজ্ঞ। মাশরাফি, মাহমুদউল্লাহ, তামিম, সাকিব, মুশফিক, মুস্তাফিজ ওয়ানডেতে নিয়মিত খেলছে।”

“আমরা কি করতে পারবো তার কোনো অনুমান আমি করতে যাচ্ছি না। তবে শুরুতে আমি নক আউট পর্বে যেতে চাইব, পরে ফাইনালে। অবশ্যই তা এই দেশের জন্য হবে অসাধারণ।”

বিশ্বকাপে ভালো করতে মোমেন্টাম পাওয়া খুব জরুরি মনে করেন রোডস।

“বিশ্বকাপে ভালো শুরুটা হবে গুরুত্বপূর্ণ। তবে টুর্নামেন্টের শেষ দিকে গিয়ে আমরা কি করবো সেটা আরও বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমি দেখেছি অনেক দল বাজে শুরুর পর মাঝপথে ছন্দ পেয়ে নক আউট পর্ব নিশ্চিত করেছে। আর নক আউট পর্ব শুরু করেছে আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে থেকে।”

“আমি বলছি না, চল প্রথম কয়েকটা ম্যাচ না জিতি। অবশ্যই আমি সব ম্যাচ জিততে চাই। তবে আপনি যদি শুরুতে সংগ্রাম করেন তবুও মোমেন্টাম পাওয়ার জন্য আপনার হাতে যথেষ্ট ম্যাচ থাকবে। যদি আপনি মোমেন্টাম আর আত্মবিশ্বাস পেয়ে যান টুর্নামেন্টে এগিয়ে যেতে পারবেন যা পরের পর্যায়ের জন্য হবে খুব ভালো একটি ব্যাপার।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক