তামিমের পরামর্শ শুনে সৌম্যর এই সেঞ্চুরি

ভালো শুরুটা হাতছাড়া হতে বসেছিল সৌম্য সরকারের। রোস্টন চেইসকে উড়ানোর চেষ্টায় তুলে দিয়েছিলেন আকাশে। আশেপাশে কোনো ফিল্ডার না থাকায় বেঁচে যান বাঁহাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান। নন স্ট্রাইকার তামিম ইকবাল এগিয়ে গিয়ে কিছু একটা বলেন তরুণ সতীর্থকে। ম্যাচ শেষে সৌম্য জানান, সেই পরামর্শের জন্যই শেষ পর্যন্ত তুলে নিতে পেরেছিলেন সেঞ্চুরি।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Dec 2018, 01:17 PM
Updated : 6 Dec 2018, 01:17 PM

বিকেএসপির তিন নম্বর নম্বর মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে প্রস্তুতি ম্যাচে ৩১ রানে থাকার সময়ে ওই বাজে শট খেলেছিলেন সৌম্য। কিছুক্ষণ ধরে অফ স্পিনার চেইসকে লং অফ দিয়ে ওড়ানোর চেষ্টা করছিলেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। তামিম কথা বলার পর আর তেমন কোনো ঝুঁকি নিতে দেখা যায়নি তাকে।

ম্যাচ শেষে সাংবাদিকদের সৌম্য জানান, অপরাজিত ১০৩ রানের ইনিংস খেলার পথে তামিমের কথায় দারুণভাবে প্রভাবিত হয়েছিলেন তিনি। 

“তামিম ভাই ক্রিজে থাকায় অনেক সুবিধা হয়েছিল। উইকেটে থাকার সময়ে তিনি একটি কথা বলেছিলেন যা বাইরে হয়তো বলতেন না। তো উইকেটে সময় কাটানোর সময় এই কথাগুলো শেখা সহজ হয়। আমি এখন চেষ্টা করছি উইকেটে বেশিক্ষণ থাকার, নিজের শট গুলো আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলার।”

“উনি আমাকে কিছু কথা বলছিলেন, যেগুলো আমার জন্য খুব সহায়ক ছিল। উনার পরামর্শ মতোই ব্যাটিং করেছি। একটা ভুল শট খেলেছিলাম। তখন উনার একটা কথায় আমার মাথাটা আরও খুলে যায়। উইকেটের মধ্যে এই ধরনের কিছু কথা অনেক বেশি সহায়ক হয়ে যায়।”

ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ৯ ওভারে ৮১ রানের উদ্বোধনী জুটিতে বিসিবি একাদশকে ভালো শুরু এনে দিয়েছিলেন তামিম। সৌম্য জানান, অমন দৃঢ় ভিত পাওয়ার পর উইকেটে টিকে থাকলে জেতার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী ছিলেন তিনি।

“রান অনেক আসছিল। প্রথম দশ ওভারে অনেক রান ছিল। তাই রানের কথা না ভেবে ইনিংস বড় করার চেষ্টা করছিলাম। শেষের দিকে গিয়ে মনে হয়েছিল যে, আমি যদি উইকেটে থাকি তাহলে অবশ্যই জিতব। তাই ওই আত্মবিশ্বাস নিয়েই শেষ পর্যন্ত থাকার চেষ্টা করেছি।”

“ইনিংসের শুরুতে আমার তেমন কোনো পরিকল্পনা ছিল না। তামিম ভাই অনেক ভালো খেলছিলেন। প্রত্যেক ওভারে অনেক রান আসছিল। আমি চেষ্টা করছিলাম তাকে সহায়তা দিয়ে যাওয়ার।”

প্রস্তুতি ম্যাচের সেঞ্চুরিতেও জায়গা নিশ্চিত নয় একাদশে। তবে এমন ইনিংসের পর টিকে যাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

“আশা তো সবসময় বড়ই থাকে। আর স্বপ্ন বড় থাকাই তো ভালো। স্বপ্ন আমারও বড় । চেষ্টা করব যে ম্যাচগুলোতে সুযোগ পাব সেগুলোতে ধারাবাহিকতা বজায় রাখার। যেমনটা যাচ্ছে এমনটা রাখতে, সবসময় তো সবার সবকিছু হয় না। সুযোগ পেলে (জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে) শেষ ম্যাচটি যেভাবে খেলেছিলাম তেমনভাবে আত্মবিশ্বাসী থেকে খেলতে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক