সেন্ট কিটসের জয়ে মাহমুদউল্লাহর ঝড়

বোলিং ভালো করলেও আগের ম্যাচগুলোয় সেভাবে কথা বলেনি ব্যাট। অবশেষে মাহমুদউল্লাহ দেখালেন তার ব্যাটিং ঝলক। খেললেন শেষ সময়ের দাবি মেটানো দুর্দান্ত এক ক্যামিও ইনিংস। পাশাপাশি ক্রিস গেইল ও রাসি ফন ডান ডুসেনের ঝড়ে দারুণ জয় পেল সেন্ট কিটস।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Sept 2018, 06:10 AM
Updated : 3 Sept 2018, 06:10 AM

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে রোববার জ্যামাইকা তালাহওয়াসকে ৭ উইকেটে হারিয়েছেসেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস। এই জয় নিশ্চিত করেছে তাদের প্লে অফ পর্বে খেলাও।

সেন্ট কিটসের ওয়ার্নার পার্কে এদিন বোলিং পাননি মাহমুদউল্লাহ। রান তাড়ায়দুটি করে চার ও ছক্কায় তার ১১ বলে ২৮ রানের অপরাজিত ইনিংসে দল পার হয়েছে শেষের বৈতরণী।

ম্যাচের প্রথম ভাগে এদিন ঝড় তুলেছিল জ্যামাইকার ব্যাটসম্যানরা। ৪০ বলে৮৪ রানের বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন রভম্যান পাওয়েল। গ্লেন ফিলিপস করেন ২৯ বলে ৪০, ডেভিডমিলার ২০ বলে ৩২। জ্যামাইকা ২০ ওভারে তোলে ২০৬ রান।

সেন্ট কিটসের রান তাড়ায় ওপেনার এভিন লুইস ফেরেন রান না করেই। তবে আরেকপাশে ঝড় তোলেন ক্রিস গেইল। তিনে নামা ফন ডার ডুসেনও ছুটতে থাকেন পরিস্থিতির দাবি মিটিয়ে।

তবে বাধা হয় দাঁড়ায় বৃষ্টি। ৬.৩ ওভারে ৬৫ রান তোলার পর খেলা বন্ধ হয়বৃষ্টিতে। আবার যখন খেলা শুরু হলো, ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে সেন্ট কিটসের প্রয়োজন তখনআর ৪.৩ ওভারে ৫৩ রান।

বৃষ্টির পর প্রথম বলেই ছক্কা মেরে শুরু করেছিলেন গেইল। কিন্তু এক বলপরই আউট হয়ে যান ২৪ বলে ৪১ রান করে।

পরের ওভারের প্রথম বলে বেন কাটিং ফিরে যান শূন্য রানে। অ্যাডাম জ্যাম্পারকরা ওই ওভার থেকে আসেনি বাউন্ডারি। শেষ ৩ ওভারে সেন্ট কিটসের প্রয়োজন ছিল ৪৩ রান।

সেই সমীকরণ মেলান ফন ডার ডুসেন ও মাহমুদউল্লাহ। ওশান টমাসের ওভারের প্রথমদুই বলেই ছক্কা মারেন ফন ডান ডুসেন। পরের বলে সিঙ্গেল। পরের দুই বলে মাহমুদউল্লাহরব্যাটে আসে বাউন্ডারি। শেষ বলে বিশাল ছক্কা। এক ওভারেই ২৭ রান।

পরের ওভারে লেগ স্পিনার জ্যাম্পাকে এক্সট্রা কাভার দিয়ে দারুণ ছক্কায়মাহমুদউল্লাহ অনেকটাই নিশ্চিত করে দেন দলের জয়। শেষ পর্যন্ত সেন্ট কিটস জিতে যায় ৫বল বাকি রেখেই।

২৪ বলে ৪৫ রানের অপরাজিত ইনিংসে ম্যাচ সেরা দক্ষিণ আফ্রিকান ব্যাটসম্যানফন ডার ডুসেন।

এশিয়া কাপের বাংলাদেশ দলে যোগ দেওয়ার আগে সেন্ট কিটসের হয় আর একটি ম্যাচখেলবেন মাহমুদউল্লাহ।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক