ইরফানের বিস্ময় জাগানিয়া ৪-৩-১-২

চার ওভারের প্রথম তিনটিই মেডেন। উইকেট দুটি। শেষ ওভারের শেষ বলে কেবল দিয়েছেন একটি রান। বিস্ময় জাগানিয়া বোলিংয়ে টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে মিতব্যয়ী বোলিংয়ের রেকর্ড গড়েছেন মোহাম্মদ ইরফান।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 August 2018, 04:50 AM
Updated : 26 August 2018, 04:50 AM

শনিবার ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে বারবাডোজে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসেরবিপক্ষে বারবাডোজ ট্রাইডেন্টসের হয়ে এই কীর্তি গড়েছেন ৭ ফুট ১ ইঞ্চি লম্বা পাকিস্তানিবাঁহাতি পেসার।

টি-টোয়েন্টিতে পুরো ৪ ওভার বোলিং করে সবচেয়ে মিতব্যয়ী বোলিংয়ের আগের রেকর্ডছিল ক্রিস মরিস ও চানাকা ভেলেগেদারার। ২০১৪ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার র‌্যাম স্ল্যাম চ্যালেঞ্জেহাইভেল্ড লায়ন্সের হয়ে ৪ ওভারে ২ রান দিয়েছিলেন ডানহাতি পেসার মরিস। ২০১৫ সালে শ্রীলঙ্কারএসএলসি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে ৪ ওভারে ২ রান দিয়েছিলেন তামিল ইউনিয়নের বাঁহাতি পেসারভেলেগেদারা।

বারবাডোজে শনিবার ইরফানের দল আগে ব্যাট করে তুলতে পেরেছিল ১৪৭ রান। বোলিংয়েরশুরু ইরফানের হাত ধরেই। ইনিংসের প্রথম বলেই ফেরান ক্রিস গেইলকে। ওভারে দেননি কোনো রান।

পরের ওভারে ইরফানের শিকার আরেক বিপজ্জনক ওপেনার এভিন লুইস। উইকেট মেডেন সেটিও।তৃতীয় ওভারেও দেননি কোনো রান। রেকর্ড এটিও। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এই প্রথম কোনো বোলারনিলেন হ্যাটট্রিক মেডেন ওভার।

এর আগে চার ওভারের তিনটি মেডেন নেওয়ার একমাত্র কীর্তি ছিল মরিসের। তবে তারতিন মেডেন টানা ছিল না। প্রথম দুটি ছিল মেডেন, তৃতীয় ওভারে দিয়েছিলেন ২ রান। শেষ ওভারছিল আবার মেডেন। ভেলেগেদারার ৪ ওভারে মেডেন ছিল দুটি।

অবিশ্বাস্যভাবে চার ওভারই মেডেন নেওয়ার খুব কাছে গিয়ছিলেন ইরফান। তার শেষ ওভারেওপ্রথম পাঁচ বলে রান নিতে পারেননি ব্র্যান্ডন কিং। শেষ বলটি ছিল অফ স্টাম্পের বাইরেশর্ট অব লেংথ। মিড অফে ঠেলে একটি রান নেন কিং। তাতে চারটি মেডেন হয়নি, তবে সবচেয়ে কিপটেবোলিংয়ের রেকর্ড হয়ে যায়।

এরপরও অবশ্য জিততে পারেনি ইরফানের দল। তার স্পেল শেষ হওয়ার সময় প্রতিপক্ষেররান ছিল ৭ ওভারে ২ উইকেটে ১৮। কিন্তু ইরফান ছাড়া ভালো করতে পারেননি আর কোনো বোলার।ঝড় তুলে সেন্ট কিটস ৬ উইকেটে জিতে যায় ৭ বল বাকি রেখেই।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক