নতুনদের নির্ভয় ক্রিকেট খেলার পরামর্শ মাহমুদউল্লাহর

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টির আগে জাতীয় দলের ছয় নতুন ক্রিকেটারের পাশে দাঁড়ালেন মাহমুদউল্লাহ। জানালেন তাদের ওপর আস্থা থাকার কথা। বাংলাদেশ অধিনায়ক পরামর্শ দিলেন নির্ভয় ক্রিকেট খেলার, ব্যর্থতার কথা মাথায় না এনে সময়টা উপভোগ করার।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Feb 2018, 01:29 PM
Updated : 14 Feb 2018, 04:58 PM

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বৃহস্পতিবার প্রথম টি-টোয়েন্টি শুরু হবে বিকাল ৫টায়। তার আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহ জানান, দলের সবাই নতুনদের যতটা সম্ভব নির্ভার রাখার চেষ্টা করছে।

“নতুন খেলোয়াড়দের কথা যদি বলেন, দলে থাকাটা সবারই প্রাপ্য। টি-টোয়েন্টিতে ভয়হীন ক্রিকেট খেলা উচিত। ব্যর্থতা নিয়ে কথা বললে টি-টোয়েন্টিতে সাফল্যের সম্ভাবনা কমে যাবে। তাই আমাদের দলের সবাই ওদের এই বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করছি, ভয় বা ব্যর্থতা নিয়ে চিন্তা না করে ইতিবাচক ক্রিকেট খেলা।”

১৬ সদস্যের দলে ছয় নতুন মুখ আরিফুল হক, আফিফ হোসেন, মেহেদি হাসান, নাজমুল ইসলাম, জাকির হাসান, আবু জায়েদ। মাহমুদউল্লাহর আশা, প্রথম সুযোগেই নিজেদের সামর্থ্যের প্রমাণ দেবেন নতুনরা।

“অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা হচ্ছে, আমার কাছে এ রকম মনে হচ্ছে না। যে ছয় জন নতুন মুখ এসেছে, তারা সবাই প্রতিশ্রুতিশীল। তারা যদি ভালো পারফর্ম করতে পারে তাহলে অনেক দূর যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। দলে জায়গা পাকা করতে এসেছি, এখানে এমন একটা বার্তা আপনি দিতে পারেন।”

“আমাদের দলে যারা নতুন মুখ তাদের সামর্থ্য আছে ভালো করার। ওদের নিয়ে আমি রোমাঞ্চিত। আমার মনে হয়, ওরাও সবাই খুব উদগ্রীব আছে।”

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রায় এক যুগ হতে চলল বাংলাদেশের। এখনও এই সংস্করণ যেন ঠিক বুঝে উঠতে পারেনি তারা। তবে মাহমুদউল্লাহ মনে করেন, এই সংস্করণে সাফল্যের সূত্রটা একটু একটু ধরতে পারছেন তারা।

“টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে মূল ব্যাপারটা হল টেকটিক্যাল বিষয়গুলো ধরা। কোন ব্যাটসম্যান নির্দিষ্ট সময়ে কি খেলতে যাচ্ছে তা চিন্তা করা। একজন বোলার কি চিন্তা করছে তা অনুমান করা। নিজেদের মধ্যে কথাবার্তা বলে, উপস্থিত বুদ্ধি কাজে লাগিয়ে ব্যাপারগুলো বোঝা।”

“টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে আপনাকে উপভোগ করতে হবে। আপনাকে আবহাওয়াটা উপভোগ করতে হবে। সব কিছুই আপনাকে উপভোগ করতে হবে। খুব বেশি কিছু না ভেবে নির্দিষ্ট সময়ে যে কাজটুকু করতে যাচ্ছি তা ঠিক মতো করতে পারলেই যথেষ্ট।”

মার্চে শ্রীলঙ্কায় ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আছে। ২০২০ সালে অস্ট্রেলিয়ায় বিশ্বকাপ। তামিম ইকবালের মতো মাহমুদউল্লাহও মনে করেন, টি-টোয়েন্টি দল গোছানোর কাজ শুরুর এটাই সেরা সময়।

“এই প্রক্রিয়া শুরু করাটা দলের জন্য ভালো একটা ইতিবাচক দিক। আমার মনে হয়, টি-টোয়েন্টির জন্য আমাদের একটা ভারসাম্যপূর্ণ দল বের করতে হবে। যেহেতু আমরা সামনের দিকে এগোচ্ছি, আমাদেরকে এটা বের করতেই হবে।”

“সঠিকভাবে যদি আমাদের স্কিল কাজে লাগাতে করতে পারি, তাহলে আমার বিশ্বাস আমরা ভালো করব। আমি আমার দল নিয়ে বলতে পারি, আমরা বেশ আত্মবিশ্বাসী এই সিরিজ নিয়ে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক