২ দিনেই জিম্বাবুয়েকে হারাল দ. আফ্রিকা

চার দিনের টেস্ট দুই দিনে জিতে নিয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা। দিন-রাতের ম্যাচে গোলাপী বলের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি জিম্বাবুয়ে। প্রথম ইনিংসে অতিথিদের গুঁড়িয়ে দেন মর্নে মর্কেল, দ্বিতীয় ইনিংসে কেশভ মহারাজ।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 27 Dec 2017, 06:02 PM
Updated : 27 Dec 2017, 06:02 PM

প্রথম দিন ৯ উইকেটে ৩০৯ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে দক্ষিণ আফ্রিকা। জবাবে ৬৮ ও ১২১ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। একমাত্র টেস্ট ইনিংস ও ১২০ রানে জেতে এবি ডি ভিলিয়ার্সের দল।

পোর্ট এলিজাবেথের সেন্ট জর্জেস পার্কে বুধবার ৪ উইকেটে ৩০ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে জিম্বাবুয়ে। আগের দিন ১৬ ওভার ব্যাটিং করা অতিথিরা এদিন প্রথম ইনিংসে টিকে মাত্র ১৪.১ ওভার।

আগের দিন ৩ উইকেট নেওয়া মর্নে মর্কেল সাত সকালেই তুলে নেন রায়ান ব্রুল ও সিকান্দার রাজাকে। পাঁচ বছরের অপেক্ষার অবসান হয় মর্কেলের। ২০১২ সালের নভেম্বরের পর প্রথমবারের মতো পান পাঁচ উইকেট। সব মিলিয়ে সপ্তমবারের মতো পেলেন পাঁচ উইকেট।

মর্কেলের ছোবলের পর উইকেট শিকার উৎসবে যোগ দেন অন্য বোলাররাও। আন্দিলে ফেলুকওয়ায়ো তুলে নেন পিটার মুর ও সর্বোচ্চ ২৩ রান করা নাইটওয়াচম্যান কাইল জার্ভিস। কাগিসো রাবাদা ফিরিয়ে দেন গ্রায়েম ক্রেমার ও ক্রিস পোফুকে।

মাত্র ৬৮ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। টেস্টে দেশটির এর চেয়ে কম রানের ইনিংস আছে মাত্র চারটি।

২১ রানে ৫ উইকেট নিয়ে প্রথম ইনিংসের সেরা বোলার মর্কেল।

প্রথম ইনিংসে বিধ্বস্ত হওয়া অতিথিরা দিশা খুঁজে পায়নি দ্বিতীয় ইনিংসেও। ফলোঅন পড় দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে করতে নেমে গুটিয়ে যায় ৪২.৩ ওভারে।

ব্যাটিংয়ে নেমে কনুইয়ে চোট পাওয়ায় মাঠ ছাড়েন প্রথম ইনিংসে গোল্ডেন ডাকের স্বাদ পাওয়া হ্যামিল্টন মাসাকাদজা। তবে চামু চিবাবার সঙ্গে ক্রেইগ আরভিন এগিয়ে নিতে থাকেন দলকে।

দলীয় ৫৪ রানে প্রথম উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে, চিবাবাকে ফিরিয়ে দেন রাবাদা। এই উইকেট দিয়েই ধস নামে অতিথিদের ইনিংসে।

ব্রেন্ডন টেইলরকে ফিরিয়ে উইকেট শিকার শুরু করেন মহারাজ। এই লেগ স্পিনার পরে ফিরিয়ে দেন মাসাকাদজা, সিকান্দার রাজা ও পোফুকে। ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান ব্লেসিং মুজরাবানিকে বোল্ড করে জিম্বাবুয়েকে গুটিয়ে দেন মহারাজ। পঞ্চম সেশন শেষ হতে তখনও বাকি ১৫ মিনিট।

৫৯ রানে ৫ উইকেট নিয়ে স্পিনার মহারাজ দ্বিতীয় ইনিংসে দলের সেরা বোলার। অলরাউন্ডার ফেলুকওয়ায়ো ৩ উইকেট নেন ১৩ রানে। একটি করে উইকেট নেন ফিল্যান্ডার ও রাবাদা। প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়া মর্কেল মাত্র ৪ ওভার বল করে থাকেন উইকেটশূন্য।

প্রথম ইনিংসে ১২৫ রানের ঝকঝকে ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরার পুরস্কার জেতেন এইডেন মারক্রাম।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

দক্ষিণ আফ্রিকা ১ম ইনিংস: ৩০৯/৯, ইনিংস ঘোষণা

জিম্বাবুয়ে ১ম ইনিংস: (প্রথম দিন শেষে ৩০/৪) ৩০.১ ওভারে ৬৮ (মাসাকাদজা ০, চিবাবা ৭, আরভিন ৪, টেইলর ০, ব্রুল ১৬, জার্ভিস ২৩, রাজা ০, মুর ৯, ক্রেমার ২, পোফু ০, মুজারাবানি ৪*; মর্কেল ৫/২১, ফিল্যান্ডার ১/২১, রাবাদা ২/১২, ফেলুকওয়ায়ো ২/১২)

জিম্বাবুয়ে ২য় ইনিংস: ৪২.৩ ওভারে ১২১ (চিবাবা ১৫, মাসাকাদজা ১৩, আরভিন ২৩, টেইলর ১৬, ব্রুল ০, রাজা ৫, মুর ১, ক্রেমার ১৮*, জার্ভিস ৫, পোফু ০, মুজারাবানি ১০; মর্কেল ০/১২, ফিল্যান্ডার ১/১০, মহারাজ ৫/৫৯, রাবাদা ১/১২, ফেলুকওয়ায়ো ৩/১৩)

ফল: ইনিংস ও ১২০ রানে জয়ী দক্ষিণ আফ্রিকা

সিরিজ: ১-০ ব্যবধানে জয়ী দক্ষিণ আফ্রিকা

ম্যান অব দ্য ম্যাচ: এইডেন মারক্রাম

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক