‘মূল কাজ করে দিয়েছে পোলার্ড’

বারবার রঙ পাল্টানো ম্যাচে ঢাকা ডায়নামাইটসের জয়ের নায়ক জহুরুল ইসলাম। ঠাণ্ডা মাথায় দায়িত্বশীল ইনিংস খেলায় পেয়েছেন প্রতিপক্ষ কোচ মাহেলা জয়াবর্ধনের প্রশংসা। তবে জহুরুল মনে করছেন, ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিয়েছেন কাইরন পোলার্ড।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Nov 2017, 12:39 PM
Updated : 14 Nov 2017, 12:41 PM

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয়ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার খুলনা টাইটান্সকে ৪ উইকেটে হারিয়ে বিপিএলের পয়েন্ট তালিকারশীর্ষে উঠে এসেছে শিরোপাধারী ঢাকা।

রোমাঞ্চকর ম্যাচে এক বল হাতেরেখে পাওয়া জয়ে জহুরুল সবচেয়ে বড় ভূমিকা দেখেন টর্নেডো ইনিংস খেলা পোলার্ডের। নবম ওভারে৪১ রানে পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি ক্রিজে আসার সময় প্রয়োজন ছিল আরও ১১৬ রান।

এক সময়ে আস্কিং রান রেট সাড়ে১৪ রানের কাছাকাছি যায়। সেখান থেকে হাতের নাগালে নিয়ে আসেন পোলার্ড। ম্যাচ শেষে সংবাদসম্মেলনে জহুরুল জানান, ক্যারিবিয়ান ব্যাটসম্যানের অমন ইনিংস ছাড়া ম্যাচে ফেরা সম্ভবছিল না।

“মূল কাজ করে দিয়েছে পোলার্ড।তখন রান রেট (প্রয়োজনীয়) ছিল সাড়ে ১৪। আমাদের জন্য কাজটি খুবই কঠিন। আমরা হয়ত ক্যালকুলেশনকরে ৮-৯ করে করতে পারব। পোলার্ডের ইনিংসটিই ম্যাচে আসলে আমাদের এত দূর নিয়ে এসেছে।পরে আমি আর (মোসাদ্দেক হোসেন) সৈকত ঠিক করেছিলাম শেষ পর্যন্ত খেলব।”  

পোলার্ডের বিদায়ের পর তরুণমোসাদ্দেককে নিয়ে ম্যাচ শেষ করে আসেন জহুরুল।    

“খুবই ভালো লাগছে। আমদের যেব্যাটিং লাইন আপ, এখানে সুযোগ পাওয়া খুবই কঠিন। স্থানীয়রা খুব একটা সুযোগই পাইনি আগে।কারণ বিদেশিদের শক্তির জায়গা বেশি, টি-টোয়েন্টিতে ওরা খুবই ভালো ব্যাটসম্যান।”

বিস্ফোরক সব ব্যাটসম্যানেঠাসা ঢাকার ব্যাটিং লাইন আপ। শুরুতে নামিয়ে দেওয়া হয় সুনিল নারাইনকে। ঝড় তোলার জন্যআছেন এভিন লুইস, শহিদ আফ্রিদি, ক্যামেরন ডেলপোর্ট। স্থানীয়দের সুযোগ পাওয়া একটু কঠিনই।সেই সুযোগ কাজে লাগাতে পারায় দারুণ খুশি জহুরুল।

“আজকে প্রথমবার বড় চাপে পড়েগিয়েছিলাম। ২৪ রানে ৪ উইকেট ছিল, আমি যখন নামলাম। আমাদের মত ক্রিকেটারদের জন্য এটিএকটি সুযোগ শেষ পর্যন্ত খেলার।”

পোলার্ডের বিদায়ের পর খুলনারম্যাচে ফেরার একটা সুযোগ এসেছিল। দলটির কোচ জয়াবর্ধনে মনে করেন, সে সময়ে ব্যবধান গড়েদিয়েছে জহুরুল।

“আমি মনে করি, জহুরুল দায়িত্বশীলব্যাটিং করেছে। থিতু এক জন ব্যাটসম্যান শেষ পর্যন্ত ক্রিজে ছিল। ওর ইনিংসটা খুব গুরুত্বপূর্ণছিল। এটা খুব ভালো একটা রান তাড়া ছিল।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক