তাইজুল, মিরাজের কাছে আরও বেশি চান অধিনায়ক

প্রথম টেস্টে পরিকল্পনা ঠিকঠাক পালন করেছেন মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম। তবে অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম মনে করছেন, তাদের আরও অনেক ভালো করার সামর্থ্য আছে। স্পিন সহায়ক উইকেটে দুই স্পিনারের কাছ থেকে দলের জন্য আরও বেশি অবদান চেয়েছেন তিনি।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 August 2017, 11:45 AM
Updated : 30 August 2017, 03:10 PM

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২০ রানের জয়ে জাদুকরী বোলিংয়ে ১০ উইকেট নেন সাকিব আল হাসান। মিরাজ নেন ৫টি, তাইজুলের শিকার ৪টি।

মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বুধবার ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নে বাংলাদেশ অধিনায়ক দুই স্পিনারের কাছে নিজের চাওয়া সম্পর্কে বলেন।

“(পরিকল্পনা বাস্তবায়ন) আগে থেকে ওরা অবশ্যই একটু ভালো করেছে। তবে আমি মনে করি, এমন উইকেটে ওদের এর চেয়ে আরও অনেক ভালো করার সামর্থ্য আছে।”

“যদিও তারা দুই জন ভালো বোলিং করেছে কিন্তু তাদের কাছ থেকে আমি আরও বেশি চাই। কারণ, এমন উইকেট সব সময় হবে না। এমন উইকেটে সবার নিজের দায়িত্ব ঠিকঠাক পালন করা উচিত। ওরা ওদেরটা করেছে কিন্তু আমার মনে হয়, ওরা আরও ভালো করতে পারবে।”

মুশফিক মনে করেন, দুই স্পিনার লাইন, লেংথে আরও ধারাবাহিক হলে জয়ের ব্যবধান আরও বড় হতে পারতো। চাপ কমত সাকিবের ওপর থেকে।

“ওদের ২৪৪ রানের প্রায় অর্ধেক রানই করেছে ডেভিড ওয়ার্নার। আমরা যদি তাকে ভালো জায়গায় বোলিং করতাম তাহলে ও আরও আগেই আউট হতে পারত।

“সব টেস্টে যে সাকিব একাই ভালো করবে তা নয়। অন্য দুই স্পিনার যদি আরও ভালো বোলিং করে তাহলে সাকিবের ওপর চাপ আরও কম পড়বে। আমার মনে হয়, এভাবে টিম ওয়ার্ক আরও বাড়বে।”

মুশফিক স্পষ্ট করেই বললেন, উপমহাদেশের দল ছাড়া আর যে কারোর বিপক্ষে স্পিন সহায়ক উইকেটে খেলতে চান তিনি। এমন এক ত্রিফলা স্পিন আক্রমণ চান যেখানে প্রতিপক্ষের ভাবতে হবে তিন জনকে নিয়েই।

“সাকিবের উপর এত নির্ভর করা আনফেয়ার। ও যদি দুই/তিন উইকেট নেয়, সবাই বলবে ভালো করছে না। এখন ও যা করছে তা আউটস্ট্যান্ডিং। যা সব সময় করতে পারবে না। আমি চাই, তাইজুল, মিরাজ এমনভাবে সাকিবকে সহায়তা করুক, যেন একজন ব্যাটসম্যানের তাদের তিন জনকেই হুমকি মনে হয়। তারা যেন বাংলাদেশের হয়ে আরো অবদান রাখতে পারে।”

লাইন, লেংথ ঠিক না থাকলে স্পিনারদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেছে সাকিবকে। বিশেষ করে তাইজুলের সঙ্গে তো প্রায় প্রতি ওভারের বিরতিতেই কথা বলেছেন তিনি।

“যেহেতু এক প্রান্তে টানা বোলিং করেছি, আমি উইকেট একটু বেশি রিড করতে পারছিলাম। ব্যাটসম্যানের দুর্বলতা আর শক্তির জায়গাটাও বুঝতে পেরেছিলাম বেশি। আমি এগুলা তাইজুলের সাথে শেয়ার করছিলাম। আমি বলছিলাম, এটা হলে বেটার হবে, ওটা হলে বেটার হবে। ও আমার কথা শুনেছে, সেভাবে করার চেষ্টা করেছে।”

দুই সতীর্থের ওপর অগাথ আস্থা সাকিবের। একই সঙ্গে তিন স্পিনারেরই উন্নতির অনেক জায়গা দেখেন তিনি।

“মিরাজ বিশ্বমানের, তাইজুলও। আমাদের আরও অনেক জায়গা আছে, যেখানে উন্নতি করতে পারলে আরও ভালো কিছু করতে পারব।”

 
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক