‘মুস্তাফিজকে অপ্রয়োজনীয় চাপ দেওয়া ঠিক হবে না’

খেলেছেন মোটে ২০ ওয়ানডে আর ৪ টেস্ট। তাতেই মুস্তাফিজুর রহমান হয়ে উঠেছেন বাংলাদেশের বোলিং আক্রমণের সবচেয়ে বড় অস্ত্র। সবচেয়ে বড় ভরসার জায়গাও। এতটাই যে, দুটি ম্যাচে উইকেট না পাওয়াতেই চাওয়া-পাওয়ার হিসাব মেলাচ্ছেন অনেকে!

ক্রীড়া প্রতিবেদক কার্ডিফ থেকেবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 June 2017, 03:12 PM
Updated : 9 June 2017, 08:42 AM

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির আগে ত্রিদেশীয় সিরিজে বেশ ভালো বোলিংই করেছেন মুস্তাফিজ। তিন ম্যাচে নিয়েছিলেন ৭ উইকেট। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৪ উইকেটে জয়ের নায়ক। অবদান ছিল নিউ জিল্যন্ডের বিপক্ষে জয়েও।

চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৯ ওভারে ৫১ রান দিয়ে উইকেটশূন্য, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৫ ওভারে ২৭ রান দিয়ে। সেই প্রভাব বিস্তারী বোলিংটাও ঠিক চোখে পড়েনি।

উইকেট একটা বড় কারণ। দুই ম্যাচেই উইকেটে গ্রিপ পাননি মুস্তাফিজ, কাটার ধরেনি উইকেটে। মাশরাফিও উইকেটের কথাই বললেন। সঙ্গে মনে করিয়ে দিলেন, মুস্তাফিজের বয়স ও অভিজ্ঞতা। দেখালেন ভবিষ্যত স্বপ্নের ছবিটাও।

“মুস্তাফিজ অবশ্যই পেস বোলিংয়ে বিশ্বের সেরাদের একজন। সবসময়ই বিশ্বাস করি। কিন্ত ওর ওপর অপ্রোজনীয় চাপ দেয়া ঠিক হবে না। এখনও ওর শেখার অনেক কিছু আছে। এই ধরনের উইকেটে কিভাবে বোলিং করতে হয়… ওর কাটার ধরলে হয়ত বেশি কার্যকর হয়।”

“এই ধরনের উইকেটে কাটার ধরে কম। কিভাবে বোলিং করতে হবে এখানে, সেটাও শিখবে আস্তে আস্তে। বয়সতো মোটে ১৯-২০। দু বছর পর যখন ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলতে আসবে এখানে, তখন হয়ত এখনকার অভিজ্ঞতা কাজে লাগবে যে এই উইকটে কিভাবে বোলিং করতে হয়। কাটার যখন ধরছে না, মানে অন্য শক্তির জায়গা বাড়তে হবে। তখন আরও বেশি ভালো বোলার হয়ে খেলতে আসবে মুস্তাফিজ।”

ভবিষ্যতের ছবিটা অবশ্যই উজ্জ্বল। তবে নিকট ভবিষ্যতেও কিছু পেলে খারাপ হয় না। এই নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচেই!

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক