তামিমের কাছে প্রতিটি ইনিংসই শিক্ষা

চন্দিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে আলাদা করে সবচেয়ে বেশি সময় কাটান তামিম ইকবাল। ইদানিং ব্যাটিং কোচ থিলান সামারাবিরাও তার নিয়মিত অনুশীলন সঙ্গী। এর আগে স্টুয়ার্ট ল, জেমি সিডন্সদের সঙ্গেও একান্তে বেশি সময় কাটাতেন তামিমই। শেখার চেষ্টায় ক্লান্তি নেই তার।

ক্রীড়া প্রতিবেদক কার্ডিফ থেকেবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 June 2017, 03:54 PM
Updated : 7 June 2017, 03:54 PM

শিখছেন তামিম নিজেকে দেখেও।ম্যাচ থেকে শিখছেন, নিজের পারফরম্যান্সে শিখছেন। ভুল থেকে শিখছেন, ভালো থেকে শিখছেন।১ রানের হোক বা ১০০ রানের, তার কাছে প্রতিটি ইনিংসই একেকটি শিক্ষাসফর।

“প্রতি ইনিংস থেকেই কিছু নাকিছু শেখার আছে। সেই শিক্ষা পরে কাজে লাগাতে হয়। কাজে না লাগালে কোনো লাভ নেই। আমিচেষ্টা করি প্রতিটি ইনিংস থেকেই কিছু কিছু শেখার। সেটা পরের ইনিংসে কাজে লাগানোর।”

গত বছর দুয়েক ধরেই অসাধারণসময় কাটছে তামিমের। বিশেষ করে ওয়ানডেতে। ২০১৫ বিশ্বকাপ পর্যন্ত ১২৯ ইনিংসে ছিল ৪ সেঞ্চুরি।বিশ্বকাপের পর ২৯ ইনিংসেই সেঞ্চুরি করেছেন ৫টি, অর্ধশতক আরও ৯টি। ক্যারিয়ার গড় ৩৪.৩৮।এই সময়টায় গড় ৫৯.৫৩।

তবে ভালো সময়ে খারাপটা ভুলেযাচ্ছেন না তামিম। ভোলেন না কখনোই। বাজে সময়ে সমালোচলানায় তুলোধুনো করা হয়ছে তাকে।তাই তার দারুণ ফর্মের প্রসঙ্গ উঠতেই বারবার মনে করিয়ে দেন, ক্রিকেট খেলায় খারাপ সময়ওআবার আসতে পারে। বারবার তাই জোর দিয়ে বলেন প্রচেষ্টার কথা।

“গত বছর দুয়েক ভালো যাচ্ছে।তবে ভুল এখনও করি, ভবিষ্যতেও করব। ব্যাপার হলো, যদি সুযোগ আসে, আমার পারফরম্যান্সেযদি দল উপকৃত হয়, চেষ্টা করি সেটা করার। খারাপ-ভালো সবারই যায়। আজ ভালো খেলছি, কালহয়তো খেলতে পারব না। পরশু আবার পারব। তবে যখনই পারি, চেষ্টা থাকবে যেন দলকে জেতাতেপারি।”

তামিমের এই ভাবনা, এই উপলব্ধিরপ্রতিফলনই এখন নিয়মিত পড়ছে ব্যাটিংয়ে, যেখানে স্পষ্ট পরিণত হওয়ার ছাপ!

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক