বাড়ানো হলো ক্রিকেটারদের বেতন ও ম্যাচ ফি

পারফরম্যান্সের গ্রাফ ঊর্ধ্বমুখী। কিন্তু ম্যাচ ফি থমকে ছিল এক জায়গায়। চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের বেতনও অন্যান্য দলের তুলনায় ছিল বেশ বিব্রতকর। অবশেষে সেটি মোটামুটি ভদ্রস্থ পর্যায়ে এলো। ম্যাচ ফিও বাড়ল।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 22 April 2017, 01:19 PM
Updated : 24 April 2017, 11:30 AM

শনিবার বিসিবির পরিচালনা পরিষদের সভায় বেতন ও ম্যাচ ফি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়। সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান।

বেতন-ভাতা সবচেয়ে বেশি দেওয়া হয় ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের। সম্প্রতি ভারতীয় ক্রিকেটারদের বেতন বাড়িয়ে দ্বিগুণ করা হলেও ঠিক সন্তুষ্ট নয় তারা। অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকাতেও বেতনের অঙ্ক খারাপ নয়। বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের কাছে সেসব দেশের বেতনের অঙ্ক ধরা ছোঁয়ার বাইরে। তবে পাকিস্তান-শ্রীলঙ্কার মতো বেতন তারা আশা করতেই পারে। কিন্তু সেটি তো নয়ই, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের বেতন ছিল জিম্বাবুয়ে-আয়ারল্যান্ডের চেয়েও কম!

এবার সেটি মোটামুটি পর্যায়ে এসেছে। চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের পাঁচটি গ্রেডে পারিশ্রমিক দিয়ে থাকে বিসিবি। ‘এ প্লাস’ গ্রেডের ক্রিকেটারদের মাসিক বেতন আগে ছিল আড়াই লাখ টাকা। সেটি বেড়ে এখন হয়েছে ৪ লাখ টাকা।

সিনিয়র ক্রিকেটারদের দাবি যদিও ছিল শীর্ষ গ্রেডের জন্য ৮ লাখ টাকা। তবে আলোচনার পর ৪ লাখে ক্রিকেটাররা মোটামুটি সন্তুষ্টই বলে জানা গেছে।

‘এ’ গ্রেডে থাকা ক্রিকেটারদের বেতন ২ লাখ থেকে বেড়ে হয়েছে ৩ লাখ, ‘বি’ গ্রেডে দেড় লাখ থেকে ২ লাখ, ‘সি’ গ্রেডে ১ লাখ থেকে দেড় লাখ ও ‘ডি’ গ্রেডে ৭৫ হাজার থেকে বেড়ে হয়েছে ১ লাখ।

গতবারের চুক্তিতে শীর্ষ গ্রেডে ছিলেন ৫ সিনিয়র ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজা, মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ।

এবার চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের নাম জানানো হবে পরে। তবে জানা গেছে, চুক্তিবদ্ধ ক্রিকেটারদের সংখ্যা এবার ১৫ থেকে বেড়ে হতে পারে ১৬। চুক্তিতে ঢুকতে পারেন তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, কামরুল ইসলাম রাব্বি ও মোসাদ্দেক হোসেন। বাদ পড়তে পারেন নাসির হোসেন, আরাফাত সানি ও আল আমিন হোসেন।

২০১৩ সালের পর ক্রিকেটারদের ম্যাচ ফি বাড়েনি। এবার ম্যাচ ফি টেস্ট প্রতি ২ লাখ থেকে বেড়ে হয়েছে সাড়ে ৩ লাখ টাকা, ওয়ানডেতে ১ লাখ থেকে ২ লাখ ও টি-টোয়েন্টিতে ৭৫ হাজার থেকে বেড়ে হচ্ছে ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা।

সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না দিলেও জানা গেছে, উন্নতির গ্রাফটা ধরে রাখায় অনুপ্রাণিত করতে ক্রিকেটারদের উইনিং বোনাসও বাড়াচ্ছে বিসিবি। টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ তিন দলের কাউকে হারালে ম্যাচ ফির বাইরেও বোনাস ৩ হাজার মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে হচ্ছে ৪ হাজার মার্কিন ডলার। র‌্যাঙ্কিংয়ের চার থেকে ছয় নম্বর দলকে হারালে বোনাস ২ থেকে বেড়ে হচ্ছে ৩ হাজার ডলার, সাত থেকে নয় নম্বর দলকে হারালে দেড় হাজার থেকে বেড়ে আড়াই হাজার ডলার।

ওয়ানডেতে শীর্ষ তিন দলের কাউকে হারালে আগে বোনাস ছিল দেড় হাজার ডলার। এখন সেটি হচ্ছে আড়াই হাজার। চার থেকে ছয় নম্বরে থাকা দলকে হারানোর জন্য ১ হাজার থেকে বেড়ে ২ হাজার ডলার, সাত থেকে নয় নম্বর দলকে হারালে ৫০০ ডলারের বদলে হচ্ছে ১ হাজার ডলার।

টি-টোয়েন্টিতে এই বোনাস হতে যাচ্ছে যথাক্রমে দেড় হাজার, ১ হাজার ও ৮০০ মার্কিন ডলার।

এছাড়াও মাসিক বেতনের সঙ্গে দায়িত্ব ভাতা হিসেবে অতিরিক্ত কিছু টাকা পান অধিনায়ক ও সহ-অধিনায়কেরা। দায়িত্ব ভাতা এবার অধিনায়কের হতে পারে ২০ হাজার টাকা, সহ-অধিনায়কের ১০ হাজার।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক