তামিমের রেকর্ড গড়া বিধ্বংসী ১৫৭

বৈশাখ মাস হলেও কালবৈশাখীর আনাগোনা খুব একটা নেই। বিকেএসপিতে রোদ ঝলমলে সকাল-দুপুর। তবে ঝড় ঠিকই উঠল ২২ গজে। সেই ঝড়ের নাম তামিম ইকবাল!

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 April 2017, 07:13 AM
Updated : 18 April 2017, 01:11 PM

গত লিগের শেষ ম্যাচে আবাহনীর হয়ে প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে করেছিলেন ১৪২। এবার দল বদলে গেছেন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাবে। কিন্তু লিগ শুরু করলেন যেন ঠিক সেখান থেকেই। ছাড়িয়ে গেলেন সেই ম্যাচ। ছাড়িয়ে গেলেন নিজের সেরাকেও। বিধ্বংসী এক ইনিংসে গড়লেন নতুন রেকর্ড।

এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে নিজের প্রথম ম্যাচেই ১৫৭ রানের অসাধারণ ইনিংস খেললেন তামিম। মঙ্গলবার বিকেএসপি চার নম্বর মাঠে মোহামেডানের হয়ে কলাবাগানের বিপক্ষে খেলেছেন রেকর্ড গড়া এই ইনিংস। তামিমের ১২৫ বলের ইনিংসে ছিল ১৮ চার ও ৭ ছক্কা!

লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে বাংলাদেশের কোনো ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত ইনিংস এটিই। তামিম ছাড়িয়ে গেছেন নিজেকে। ২০০৯ সালে বুলাওয়ায়োতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে করেছিলেন ১৫৪।

গত লিগে পাওয়া নিষেধাজ্ঞার খাঁড়ায় এবার মোহামেডানের প্রথম ম্যাচ খেলতে পারেননি তামিম। এদিন নিজে টস জিতে নামেন ব্যাটিংয়ে। শুরুটায় ছিলেন সাবধানী। প্রথম ৮ ওভারে ছিল না কোনা বাউন্ডারি। নবম ওভারে সঞ্জিত সাহার অফ স্পিনে ছক্কা মেরে ডানা মেলেন। এরপর শুধু উড়ে বেড়ানোর পালা!

৬১ বলে স্পর্শ করেছেন অর্ধশতক। সেখান থেকে ৪১ বলে পরের পঞ্চাশ। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের ত্রয়োদশ সেঞ্চুরি ছুঁয়েছেন ১০২ বলে। বলার অপেক্ষা রাখে না, তামিমের ১৩ সেঞ্চুরিও বাংলাদেশের রেকর্ড।

সেঞ্চুরির পর রীতিমত তাণ্ডব চালান তামিম। ২১ বলে করেন পরের পঞ্চাশ! হ্যামিল্টন মাসাকাদজাকে টানা চার ও ছক্কায় দেড়শ করেন ১২৩ বলে। শেষ পর্যন্ত ১২৫ বলে ১৫৭ করে আউট হয়েছেন সঞ্জিতের বলে।

তামিম সবচেয়ে বেশি ভুগিয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুলকে। ৭ ছক্কার তিনটি মেরেছেন তাকেই। মাসাদাকজা, সঞ্জিত, আবুল হাসান ও শাহবাজ চোহানকে বাকি চারটি। আশরাফুলের ৫ ওভারে এসেছে ৫২ রান।

তামিম ছাড়া মোহামেডানের আর কেউ ৪০ ছুঁতেও পারেনি। তবে টুকটাক কয়েকজনের অবদানে ৫০ ওভারে তুলেছে তারা ৯ উইকেটে ৩০৭।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক