দায়িত্বশীল সাব্বিরে মুগ্ধ স্যামি

ব্যাটে ছিল না রান, মাঠের বাইরের আচরণ প্রশ্নবিদ্ধ। গুরুতর শৃঙ্খলাভঙ্গের ঘটনায় গুণেছেন বড় জরিমানা। সাব্বির রহমান ছিলেন দুঃসময়ের বৃত্তে। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে সেই সাব্বির খেলেছেন দায়িত্বশীল ইনিংস। যেটি মুগ্ধ করেছেন ড্যারেন স্যামিকে। রাজশাহী কিংস অধিনায়ক শোনালেন সাব্বিরের দুঃসময়ে তার ও দলের অন্যদের ভূমিকার গল্প।

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 7 Dec 2016, 05:07 PM
Updated : 7 Dec 2016, 05:08 PM

টুর্নামেন্টে নিজেদের তৃতীয়ম্যাচে দারুণ এক সেঞ্চুরি করেছিলেন সাব্বির। পরের ম্যাচে ৪৬। তার পর থেকে তার ব্যাটেআর দেখা যায়নি বলার মত রান। ‘এ’ প্লাস গ্রেডের ক্রিকেটারের পারফরম্যান্সে দল ছিল হতাশ।সঙ্গে যোগ হয়েছিল মাঠের বাইরের ঘটনায় বড় অঙ্কের জরিমানার ধাক্কা।

দলের গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটারেরদুঃসময় দলের জন্যই ছিল দুর্ভাবনার কারণ। খুলনা টাইটানসকে হারিয়ে ফাইনালে ওঠার পর স্যামিশোনালেন, সেই সময়টা সামলেছেন কিভাবে।

“ওরা বলেছিল কিছু ইস্যু ছিল।আমি সেগুলো সামলেছি। ওর সঙ্গে কথা বলেছি আমি। কথা বলতেই হতো। রাজশাহী কিংস হলো একটাপরিবার। এখানে আমার পর ছেলেদের দেখেই আমি বলেছি যে আমরা ভালো কিছু করব। মালিকপক্ষকেবলেছি যে আমরা একটি মিশন নিয়ে এগোব। আমরা ঠিক করেছিলাম, কোনো কিছুই আমাদের মনোযোগ অন্যদিকেসরাতে পারবে না।”

দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে রাজশাহীরলক্ষ্য ছিল মাত্র ১২৬। রান রেটের চাপ ছিল না। দলও একজনের কাছে চাইছিল দায়িত্বশীল ইনিংস।সব মিলে গেছে সাব্বিরে সঙ্গে। সময় নিয়ে ব্যাট করেছে। এমনিতে আক্রমণাত্মক সাব্বির এদিনঠাণ্ডা মাথায় টিকে থেকেছেন শেষ পর্যন্ত। ৪৩ রানে অপরাজিত ছিলেন ৫২ বল খেলে। মিটেছেদলের প্রয়োজনও। ফাইনালের আগে সাব্বিরের রানে ফেরা স্বস্তি দিচ্ছে স্যামিকে।

“সাব্বির অবশ্যই সবাইকে হতাশকরছিল। বিশেষ করে যেভাবে আউট হচ্ছিল। আজকে মাথা নীচু করে দায়িত্বশীল একটি ইনিংস খেলেছে।ফাইনালের আগে এটা ওকে দারুণ আত্মবিশ্বাস দেবে। আমি ওর ব্যাটিংয়ের ধরন বদলাতে বলিনি,স্রেফ বলেছি দায়িত্ব নিয়ে খেলতে। এটা কোনো ইগোর ব্যাপার নয়। ম্যাচ শেষে আমি ওকে বলেছি,‘দারুণ দায়িত্বশীল ইনিংস। আবার করে দেখাও!”

সাব্বির আবার করে দেখানোরসুযোগ পাবেন শুক্রবার। ফাইনালে রাজশাহীর প্রতিপক্ষ টুর্নামেন্টের হট ফেবারিট ঢাকা ডায়নামাইটস।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক