স্যামিদের সাফল্যের রহস্য উদযাপন!

বিপিএলে আসার পর সেদিন ছিল ড্যারেন স্যামির প্রথম অনুশীলন। রাজশাহী কিংস অধিনায়ক পরে মুখোমুখি হয়েছিলেন সংবাদ মাধ্যমের। কথা হচ্ছিল ক্যারিবিয়ানদের আনন্দদায়ী সব উদযাপন নিয়ে। স্যামি বলেছিলেন, “কেসরিক উইলিয়ামসের উদযাপন দেখেছো তোমরা? মজা পাবে!”

ক্রীড়া প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Dec 2016, 02:52 PM
Updated : 6 Dec 2016, 02:59 PM

সেই উদযাপন দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে অনেকটা সময়। শুরুর দিকে একটি ম্যাচ খেলে উইকেট পাননি উইলিয়ামস। আর খেলার সুযোগ পাচ্ছিলেন না। মোহাম্মদ সামির চোটে সুযোগ পেলেন প্রাথমিক পর্বের শেষ ম্যাচে। ২ উইকেট নিলেন ১১ রানে, খানিকটা দেখা গেল তার ‘সেলফি’ উদযাপন। মঙ্গলবার এলিমিনেটরে তার বোলিং ও উদযাপন, দুটোই ছিল আপন মহিমায় উদ্ভাসিত।

চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ১১ রানে ৪ উইকেট নিয়ে রাজশাহী কিংসের জয়ের ভিত্তি গড়ে দিয়েছেন উইলিয়ামস। বারবার মেতে উঠেছেন সেলফি উদযাপনে। সেটিকে আবার নতুন মাত্রা দিয়েছেন স্যামি নিজে। সেলফি তোলার ভঙ্গিতে যেমন উদযাপন হয়েছে, তেমনি গ্রুপ ছবি তোলার ভঙ্গিতেও দেখিয়েছে তারা দারণ সব উদযাপন। পরে ২৭ বলে ৫৫ রানের ম্যাচ জেতানো ইনিংস খেলেও স্যামি দেখিয়েছেন ব্যতিক্রমী উদযাপন।

উদযাপনে নিজেরা মেতেছেন, গ্যালারি মাতিয়েছেন। পরে সংবাদ সম্মেলনেও এই দুজন এলেন একসঙ্গে। দুজনের ম্যাচ জেতানো পারফরম্যান্সের আগে উঠল উদযাপনের প্রসঙ্গ। হাসিমুখে স্যামি জানালেন এই উদযাপনের জন্ম রহস্য।

“আমরা সবাই ছবি তুলতে পছন্দ করি। ছেলেদের ইনস্টাগ্রাম পাতায় গেলেই দেখতে পাবেন, সবসময়ই নানা পোজে ছবি আছেই। তো ক্রিকেটেও কেন নয়! ভালো খেললে উদযাপনটাও প্রাণখোলা হয়। ভেবে দেখুন, সেলফি তোলার সময় লোকে কতটা উৎফুল্ল থাকে! আমাদের ব্যাপারটিও তাই।”

দুটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ী ক্যারিবিয়ান অধিনায়কের মতে, এই ধরনের উদযাপন দলকে দারুণভাবে উদ্বুদ্ধ করে।

“আমরা চাই একটা দল হিসেবে খেলতে। এই রকম উদযাপনগুলো দলকে একতাবদ্ধ করে, ঐক্যের আবহ তৈরি করে। যেটির হাত ধরে ধরা দেয় সাফল্য। এই টুর্নামেন্টে আমরা এক সময় অনেক পিছিয়ে পড়েছিলাম, কিন্তু টিম স্পিরিট ছিল বলেই ঘুরে দাঁড়াতে পেরেছি।”

সেলফি, নাকি গ্রুপ ছবি, কোন উদযাপনটি এগিয়ে? সেলফি উদযাপনের উদ্ভাবক উইলিয়ামস এগিয়ে রাখলেন দলীয় উদযাপনটাকেই।

“দলই সব কিছুর আগে। তাই দলীয় ছবি তোলার উদযাপনই এগিয়ে। আমরা জিতি দল হিসেবে, ছবিও তুলি একটি দল হয়েই।”

মাঠের ক্রিকেট আর উদযাপন মিলিয়ে এবারের বিপিএলে সবচেয়ে বিনোদনদায়ী দল হয়ত রাজশাহীই। এলিমিনেটরে জয় নিশ্চিত করেছে, আরও অন্তত একটি ম্যাচে পাওয়া যাবে এমন বিনোদন!

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক