চট্টগ্রামে হৃদয়ভাঙা হার

পঞ্চম দিনে দুই উইকেটে ৩৩ রানের কঠিন লক্ষ্যে যেতে পারেনি বাংলাদেশ। সকালে ২১ বল করে স্বাগতিকদের শেষ ২ উইকেট তুলে নিল ইংল্যান্ড। অন্যপ্রান্তে হতাশায় বসে পড়লেন সাব্বির রহমান। চট্টগ্রাম টেস্ট হৃদয় ভাঙল মুশফিকুর রহিমের দলের।

অনীক মিশকাতবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 Oct 2016, 03:57 AM
Updated : 24 Oct 2016, 11:32 AM

৮২তম ওভারে ২৬৩ রানে অলআউট বাংলাদেশ। ২২ রানে জিতে দুই টেস্টের সিরিজে এগিয়ে গেল অ্যালেস্টার কুকের দল। ৬৪ রানে অপরাজিত সাব্বির।

শফিউল ইসলামকে এলবিডব্লিউ করে ম্যাচ শেষ করে দেন বেন স্টোকস। রিভিউ নিয়েছিলেন বাংলাদেশের ১১ নম্বর ব্যাটসম্যান। তবে সিদ্ধান্ত পাল্টায়নি আম্পায়ার কুমার ধর্মসেনার।

বেন স্টোকসের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফিরেন তাইজুল ইসলাম। লেগে খেলতে গিয়ে বলে ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। আম্পায়ার আউট না দিলে রিভিউ নেয় ইংল্যান্ড। তাতে সিদ্ধান্ত পাল্টায়। ৩৩ বলে ১৬ রান করে ফিরে যান তাইজুল। ৮২তম ওভারে তিনি ফিরে যাওয়ার সময় বাংলাদেশের স্কোর ২৬৩/৯। জয়ের জন্য দরকার ২৩ রান।

স্টুয়ার্ট ব্রডের করা দিনের তৃতীয় ওভারে একটি করে রান নেন সাব্বির রহমান ও তাইজুল ইসলাম। তিন ওভারে ১০ রান সংগ্রহ করা স্বাগতিকদের তখন দরকার ২৩ রান।

দিনের দ্বিতীয় ওভারে বেন স্টোকসের প্রথম বল থেকে ১ রান নেন সাব্বির রহমান। তৃতীয় বলে চার হাঁকান তাইজুল ইসলাম। সব মিলিয়ে ৫ রান নিয়ে ৮০ ওভারের পর লক্ষ্যটা ২৫ রানে নামিয়ে আনেন দুই ব্যাটসম্যান।

প্রথম বল থেকে থেকে ঘুরছে এমন উইকেটে রিভার্স সুইংয়ে ভরসা করছেন ইংল্যান্ডের অধিনায়ক অ্যালেস্টার কুক। দিনের দ্বিতীয় ওভারে বেন স্টোকসকে আক্রমণে আনেন তিনি।

স্টুয়ার্ট ব্রডের করা দিনে প্রথম ওভারের প্রথম চার বল থেকে তিন রান নেন সাব্বির রহমান। শেষ দুটি বল দেখেশুনে খেলে টিকে থাকেন তাইজুল ইসলাম।

পঞ্চম দিনের সকালে অভিজ্ঞ পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডের হাতে বল তুলে দেন অ্যালেস্টার কুক। ব্যাটিং প্রান্তে তখন সাব্বির রহমান।

টেস্টের পঞ্চম দিন কোনো লক্ষ্যই সহজ নয়। দুই উইকেটে ৩৩ রানের লক্ষ্য ভীষণ কঠিন। দ্বিতীয় নতুন বলও মাত্র ২ ওভার দূরত্বে। ইংলিশ বোলারদের সঙ্গে স্নায়ুরও পরীক্ষাও দিতে হবে সাব্বির রহমান-তাইজুল ইসলামদের।

ইংল্যান্ডের পেসার স্টুয়ার্ট ব্রড আগের দিন জানান, বাংলাদেশর দুটি ভুলই চট্টগ্রাম টেস্ট তাদের করে দেবে।

১০-১৫ ওভার টিকে থাকলেই বাংলাদেশ জিতবে বলে মনে করেন প্রধান কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে। পঞ্চম দিনে শিষ্যদের প্রথম ১০-১৫ বল দেখেশুনে খেলার পরামর্শ তার। 

সোমবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ৮ উইকেটে ২৫৩ রান নিয়ে পঞ্চম ও শেষ দিনের খেলা শুরু করে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য শেষ দুই উইকেটে স্বাগতিকদের তখন প্রয়োজন ৩৩ রান। বাংলাদেশের আশা হয়ে টিকে থাকা সাব্বির রহমান ৫৯ রানে ও তার সঙ্গী তাইজুল ইসলাম ১১ রানে ব্যাট করতে নামেন।

বাংলাদেশ ২য় ইনিংস (চতুর্থ দিন শেষে): (লক্ষ্য ২৮৬) ৭৮ ওভারে ২৫৩/৮ (তামিম ৯, ইমরুল ৪৩, মুমিনুল ২৭, মাহমুদউল্লাহ ১৭, সাকিব ২৪, মুশফিক ৩৯, সাব্বির ৫৯*, মিরাজ ১, রাব্বি ০, তাইজুল ১১* ; ব্যাটি ৩/৬৫, মইন ২/৬০, ওকস ০/১০, রশিদ ১/৫৫, ব্রড ২/২৬, স্টোকস ০/১৫)।

ইংল্যান্ড ২য় ইনিংস: ২৪০ (কুক ১২, ডাকেট ১৫, রুট ১, ব্যালান্স ৯, মইন ১৪, স্টোকস ৮৫, বেয়ারস্টো ৪৭, ওকস ১৯*, রশিদ ৯, ব্রড ১০, ব্যাটি ৩; মিরাজ ১/৫৮, সাকিব ৫/৮৫, তাইজুল ২/৪১, কামরুল ১/২৪, মাহমুদউল্লাহ ০/৬, শফিউল ১/১০) 

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ২৪৮ (তামিম ৭৮, ইমরুল ২১, মুমিনুল ০, মাহমুদউল্লাহ ৮৫, মুশফিক ৪৮, সাকিব ৩১, শফিউল ২, সাব্বির ১৯, মিরাজ ১, তাইজুল ৩*, কামরুল ০; ব্রড ০/১২, ব্যাটি ১/৫১, ওকস ০/১৫, রশিদ ২/৫৮, মইন ৩/৭৫, স্টোকস ৪/২৬, রুট ০/৫)।

ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২৯৩ (কুক ৪, ডাকেট ১৪, রুট ৪০, ব্যালান্স ১, মইন ৬৮, স্টোকস ১৮, বেয়ারস্টো ৫২, ওকস ৩৬, রশিদ ২৬, ব্রড ১৩, ব্যাটি ১*; শফিউল ০/৩৩, মিরাজ ৬/৮০, কামরুল ০/৪১, সাকিব ২/৪৬, তাইজুল ২/৪৭, সাব্বির ০/১১, মাহমুদউল্লাহ ০/১৭, মুমিনুল ০/০)।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক