‘আমার চেয়ে বেশি হতাশ কেউ নয়’, ক্যাচ ছাড়া নিয়ে হাসান

তুমুল আলোচনা-সমালোচনায়, কাঠগড়ায় তোলার পর্বের পালা চলার মধ্যেই অবশেষে শোনা গেল হাসান আলির কথা। বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ক্যাচ নিতে না পারা পাকিস্তানি এই পেসার বললেন, সবচেয়ে বেশি হতাশ তিনিই। শোনালেন তিনি বাজে সময় পেছনে ফেলে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয়।

স্পোর্টস ডেস্কবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 14 Nov 2021, 05:41 AM
Updated : 14 Nov 2021, 08:20 AM

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার রান তাড়ায় ১৯তম ওভারে ক্যাচটি ছাড়েন হাসান। শাহিন শাহ আফ্রিদির বলে স্লগ করেন ম্যাথু ওয়েড। মিড উইকেটে দৌড়ে বলের নিচে যাওয়ার চেষ্টায় একটু বেশি এগিয়ে যান হাসান। বল তার হাতে লেগে পড়ে যায় মাঠে।

জীবন পাওয়ার পরের তিন বলেই টানা তিনটি দুর্দান্ত ছক্কায় অস্ট্রেলিয়াকে জয় এনে দেন ওয়েড। টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে সেমি-ফাইনালে ওঠা পাকিস্তান ছিটকে যায় শিরোপার লড়াই থেকে।

হাসান সেদিন বল হাতেও ছিলেন বেশ খরুচে। তবে ক্যাচ ছেড়েই মূলত অনেকের কাছে হয়ে ওঠেন খলনায়ক। পাকিস্তানের হারের পেছনে তার দিকেই আঙুল তোলা হয় বেশি।

সেমি-ফাইনাল থেকে বাদ পড়ে শনিবার বাংলাদেশে চলে আসে পাকিস্তান দল দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে। দলের সঙ্গে ঢাকায় আসেন হাসানও। এখান থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই পেসার জানালেন ওই ম্যাচের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া।

“আমি জানি, আপনারা সবাই হতাশ, কারণ আমার পারফরম্যান্স আমাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে পারিনি। তবে আমার চেয়ে বেশি হতাশ কেউ নয়। আমার প্রতি প্রত্যাশা বদলাবেন না। পাকিস্তান ক্রিকেটকে সম্ভব সেরা পর্যায়ে সেবা করতে চাই আমি। কাজেই কঠোর পরিশ্রমে ফিরছি।”

“এই সময়টা আমাকে আরও শক্তিশালী করবে। সবাইকে ধন্যবাদ সব বার্তা, টুইট, পোস্ট, ফোন কল ও প্রার্থনার জন্য।”

হাসান অবশ্য পাশে পাচ্ছেন বর্তমান-সাবেক ক্রিকেটারদের অনেককেই। ওই ক্যাচ ছাড়ার পরপরই মাঠে শোয়েব মালিক ছুটে গিয়ে তাকে উজ্জীবিত করার চেষ্টা করেন। ওয়াসিম আকরামের মতো সাবেকরা তাকে সাহস জোগান। অধিনায়ক বাবর আজম ম্যাচ শেষে তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় ওই ক্যাচ মিসকে হারের কারণ বললেও পরে ড্রেসিং রুমে বলেন, কারও দিকে যেন আঙুল তোলা না হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক