বিজয় উচ্ছ্বাসে মুখর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

তারুণ্যকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে উৎসবমুখর পরিবেশে বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে।

ঢাকা  বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 16 Dec 2015, 06:38 PM
Updated : 16 Dec 2015, 07:14 PM

বাঙালির মুক্তির সংগ্রামে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সক্রিয় ভূমিকার কারণে একাত্তরে পাকিস্তানি বাহিনীর আক্রমণের প্রথম লক্ষ্যবস্তু হয়েছিল এই বিশ্ববিদ্যালয়টি।

সেই গণহত্যা স্মরণ করেই বুধবার সকাল থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হয় বিজয়ের ৪৪তম বার্ষিকীর অনুষ্ঠান, যা চলে সন্ধ্যা গড়িয়ে রাত পর্যন্ত।

সকালে ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের বিজয় শোভাযাত্রা বের হয়, বিকালে খেলার মাঠে হয় বিজয় উৎসব, সন্ধ্যায় মল চত্বরে চলে বিজয় কনসার্ট।

এছাড়া টিএসসিতে সাংবাদিক সমিতির ‘রোড টু ইন্ডিপেন্ডেন্স ১৯৭১’ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনী এবং টিএসসি সড়ক দ্বীপে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও ছিল।

এসব অনুষ্ঠানে অংশ নিতে সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে নামে মানুষের ঢল। প্রায় সবার পরনে জাতীয় পতাকার রঙের পোশাক এবং মুখে আল্পনায় ক্যাম্পাস দিনভর ছিল বর্ণিল।

সকাল সাড়ে ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে শুরু হয় বিজয় শোভাযাত্রা; এর প্রতিপাদ্য ছিল- ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের পথে জঙ্গিবাদকে দাঁড়াও রুখে’।

শোভাযাত্রার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, “কিছু অন্ধকার শক্তি- জঙ্গিবাদী, মৌলবাদী, সাম্প্রদায়িক শক্তি আমাদের পেছনে পাঠাতে চায়; কিন্তু আমাদের সাংস্কৃতিক শক্তি দিয়ে, শুভবুদ্ধি ও কল্যাণের শক্তি দিয়ে তাদের আমরা প্রতিহত করব।”

দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ নতুন প্রজন্মকে সঙ্গে নিয়ে একাত্তরের মতো ঐক্যবদ্ধ থাকলে কোনো অন্ধকার শক্তি জাতিকে পেছনে ঠেলে দিতে পারবে না বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ে শারীরিক চর্চা কেন্দ্রের খেলার মাঠে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও ছায়ানট যৌথভাবে বিজয় উৎসব আয়োজন করে।

জাতীয় পতাকার আদলে মাঠের মাঝখানের লাল বৃত্তের মধ্যে বর্গাকার উঁচু মঞ্চে সাতটি গানে নৃত্য পরিবেশন করে নৃত্যনন্দন, ছায়ানট বাংলাদেশ ব্রতচারী সমিতি ও ভাবনা শিল্পীগোষ্ঠী। চারপাশে সবুজ গালিচায় সবুজ পোশাকে ছিলেন গাইয়েরা।  

‘মুখে বাংলা, বুকে বাংলা, আমার সোনার বাংলা” এই আহ্বানের মধ্য দিয়ে এই অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর জাতীয় সংগীতের সঙ্গে জাতীয় পতাকা তোলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অ্যধাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। মঞ্চে ছিলেন ছায়ানটের সভাপতি সানজীদা খাতুন ও দীপ্ত টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী জাহিদুল হাসান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির আয়োজনে টিএসসিতে ‘রোড টু ইন্ডিপেন্ডেন্স ১৯৭১’ শীর্ষক আলোকচিত্র প্রদর্শনীর পাশাপাশি টিএসসিতে স্বোপার্জিত স্বাধীনতা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারে সামনেও ছিল মুক্তিযুদ্ধের আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন।

বিকালে বিশ্ববিদ্যালযের মল চত্বরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ আয়োজিত বিজয় কনসার্টে জেমস, মিলা ও পুলক এবং ব্যান্ড দল অর্জন মুগ্ধ করেন স্রোতাদের।