অদ্রে হেপবার্নের বিউটি টিপস

মোনেম অপু
Published : 11 Dec 2014, 04:57 PM
Updated : 11 Dec 2014, 04:57 PM

অদ্রে হেপবার্ন চলচ্চিত্রে অভিনয় করে খ্যাতি অর্জন করেন। খুব বেশী সংখ্যক ছবিতে যে অভিনয় করেছেন তা নয়। ১৯২৯ সালের মে মাসে তার জন্ম। ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে সাড়ে ৬৩ বৎসর বয়সে ১৯৯৩ সালের ২০ জানুয়ারি তিনি মারা যান। শেষ জীবনে আর্ত মানবতার সেবাকেই কেরিয়ার হিসেবে বেছে নেন। ১৯৮৮ থেকে ইউনিসেফের হয়ে কাজ করতে শুরু করেন। ইথিওপিয়া, সুদান, সোমালিয়া ইত্যাদি দেশে বিপন্ন শীর্ণকায় শিশুদের মাতৃসম বন্ধু হয়ে উঠেছিলেন তিনি। বাংলাদেশেও এসেছিলেন এই মহান নারী। বাংলার মাছি মাখা মুখের হতদরিদ্র শিশুদেরকে তিনি জড়িয়ে ধরতেন, যেন মাছি বলে দুনিয়ায় কিছুই নেই। অভিনেত্রী ও আর্ত মানবতার এই সেবিকা অনেকের কাছেই, যাকে বলে, প্যারাগন অব বিউটি —সৌন্দর্যের চরমোৎকর্ষের মূর্ত রূপ। তার সৌন্দর্য যেমন দেহের অবয়বে, তেমনই মনের গড়নে। তিনি আমাদের জন্য কিছু বিউটি টিপস রেখে গিয়েছেন, যা কাজে লাগিয়ে আমরা আমাদের ঠোঁট, চোখ, চুল, দেহভঙ্গিমা ইত্যাদিকে সুন্দর করে তুলতে পারি।

আকর্ষণীয় ঠোঁটের জন্য:
কেবল মমতা-ভরা কথা বলুন।

মনোহর চোখের জন্য:
অন্যদের মধ্যে ভালোত্বকে খুঁজে বেড়ান।

মনোরম চুলের জন্য:
কোনো শিশুকে দিনে একবার হলেও চুলে হাত বুলোতে দিন।

ক্ষীণ অঙ্গের জন্য:
ক্ষুধার্তের সাথে খাবার ভাগ করে খান।

মাধুর্যমণ্ডিত ভঙ্গিমার জন্য:
এই বিশ্বাস নিয়ে চলুন যে, চলার পথে আপনি কখনোই একা হয়ে পড়বেন না।


মানুষকেই সর্বাগ্রে
পুনঃস্থাপন করতে হবে,
পুনঃজীবন দিতে হবে,
পুনঃউজ্জীবিত করতে হবে,
পুনঃসুফলা করে তুলতে হবে,
পুনঃউদ্ধার করতে হবে;
কাউকেই ছুড়ে ফেলে দিও না।

কৃতজ্ঞতা স্বীকার: স্টাফ ট্রেইনিং কোর্সের প্রশিক্ষক শ্রদ্ধেয় সালাহুদ্দীন আহমেদের (তিনি এখনও বিটিভি'তে ইংরেজি সংবাদ পাঠ করে থাকেন) নিকট থেকেই এই পোস্টের আইডিয়াটি পাই। তিনি কোর্সের অংশ হিসেবে ওয়ার্কপ্লেস এথিকস-এর উপর ক্লাস নেবার সময় পাওয়ারপয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে একটি হৃদয়-স্পর্শী লেকচার প্রদান করেছিলেন। বর্তমান পোস্টটি তারই একটি অংশকে অবলম্বন করে তৈরি করেছি। তিনি বিষয়টিকে সকলের সাথে শেয়ার করারও অনুরোধ করেছিলেন। পোস্টের মাধ্যমে আমি এখানকার সকলের সাথে শেয়ার করতে চেয়েছি।
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক