টিপাইমুখ বাঁধ নির্মাণের আগে যৌথ সমীক্ষা চাই: লন্ডনে সম্মেলনে অভিমত

একতরফাভাবে টিপাইমুখে বাঁধ নির্মাণ করা হলে তা পরিবেশ, জীববৈচিত্র ও আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে মারাত্মক প্রভাব ফেলবে। বাংলাদেশসহ উত্তর-পূর্ব ভারতের অনেক মানুষের জীবিকা এতে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। লন্ডনে এক সম্মেলনে এ আশঙ্কা ব্যক্ত করা হয়েছে। বিস্তারিত জানাচ্ছেন সৈয়দ নাহাস পাশা।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 August 2009, 05:48 AM
Updated : 11 August 2009, 05:48 AM
সৈয়দ নাহাস পাশা, লন্ডন থেকে
ঢাকা, আগস্ট ১১ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- ভারতের একতরফা টিপাইমুখ বাঁধ নির্মাণ পরিবেশ, জীববৈচিত্র ও আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে মারাত্মক প্রভাব ফেলবে এবং বাংলাদেশসহ উত্তর-পূর্ব ভারতের মানুষের জীবিকা ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে লন্ডনে এক সম্মেলনে আশঙ্কা ব্যক্ত করা হয়েছে।
রোববার লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স এ ভয়েস ফর জাস্টিস (ভিজেএফ) ওয়ার্ল্ড ফোরাম সম্মেলনটির আয়োজন করে।
সম্মেলনে টিপাইমুখে কোনও বাঁধ নির্মাণের আগে সম্ভাব্য পরিবেশগত বিপর্যয় এড়াতে এর একটি নায্য সমাধানে যৌথ সমীক্ষা করতে বাংলাদেশ এবং ভারত সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।
ওই ধরনের কোনও বাঁধ নির্মাণের আগে উজানের দেশ হিসেবে ভারতের বাংলাদেশের সঙ্গে পরামর্শ করার নৈতিক ও আইনগত বাধ্যবাধকতা রয়েছে বলেও উল্লেখ করা হয় সম্মেলনে।
ভিজেএফ ওয়ার্ল্ড ফোরাম একটি বৈশ্বিক মানবাধিকার ও ন্যায় বিচার বিষয়ক সংস্থা হিসেবে কাজ করছে।
সম্মেলনে সংগঠনের আহবায়ক ড. হাসানাত হুসেইন এমবিই সভাপতিত্ব করেন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ব্রিটেনের ট্রেজারি মন্ত্রী ইস্ট হ্যামের এমপি স্টিফেন টিমস লন্ডনে সম্মেলনটির আয়োজন করায় আয়োজকদের অভিনন্দন জানান।
ব্রিটিশ সরকার সব সময়ই বিশ্বের নির্যাতিত লোকের পাশে দাঁড়িয়েছে মন্তব্য করে মানবাধিকার এবং গরীব ও প্রান্তিক মানুষের ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য ভিজেএফ'র মতো সংস্থার সঙ্গে কাজ করার পুনর্নিশ্চয়তা দেন তিনি।
লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিক্স এ ওয়ার্ল্ড ফোরামের প্রথম সম্মেলন ছিল এটি। সংস্থাটির ইউরোপ, আমেরিকা, কানাডা ও এশীয় শাখার সহযোগিতায় আয়োজিত এ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে প্রবাসী বাংলাদেশী শিক্ষাবিদ, গবেষক, ভিজেএফ সদস্য এবং বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ স
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক