আশ্রয় কেন্দ্রে যাচেছ ফেনীর আতংকিত মানুষ

ফেনীতে বুধবার সন্ধ্যা থেকে আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে শুরু করেছে স্থানীয় জনগণ।

ফেনী প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 May 2013, 10:01 AM
Updated : 15 May 2013, 10:02 AM

বিকেল থেকে উপকুলীয় উপজেলাসহ জেলার সবর্ত্র ঘুর্ণিঝড় মহাসেনের প্রভাবে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হলেও সন্ধ্যা থেকে বৃষ্টি বেড়ে গেছে।

ফেনী জেলা প্রশাসক মোঃ হুমায়ুন কবির খোন্দকার জানান, আশ্রয়কেন্দ্রে ওঠা কোন মানুষ যেন রাতে অভুক্ত না থাকে সে জন্য তাদেরকে চিড়া-মুড়িসহ শুকনো খাবার ও পানি সরবরাহের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

মেডিকেল টিমসহ সব ধরনের প্রস্তুতি রাখা হয়েছে।

উপকূলীয় এলাকার বেড়ীবাঁধের ভেতরে-বাইরের সমস্ত এলাকায় স্বেচ্ছাসেবকরা মাইকযোগে ঘুর্ণিঝড়ের ৭ নং বিপদ সংকেত সম্পর্কে প্রচার করে এবং বেড়ীবাঁধের বাইরে বসবাসকারী লোকজনকে আশ্রয়কেন্দ্র গুলোতে উঠতে সহযোগীতা করছে।

ঘুর্ণিঝড় মোকাবেলায় জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পযার্প্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

উপজেলার চর চান্দিয়া, চর দরবেশ, আমিরাবাদ ও সোনাগাজী সদর ইউনিয়নে প্রশাসনিক কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও রেডক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবীরা তৎপর রয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী পরিস্থিতিতে সড়কে যেন কোন ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি না হয় সে বিষয়ে সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বন করা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় সংক্রান্ত সকল তথ্যের জন্য জেলা প্রশাসকের কাযার্লয়ের কন্ট্রোল রুমের ০১৭১৩১৮৭৩০৯ এবং ০৩৩১৭৪১৩৩ নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য আহবান জানানো হয়েছে।

জেলার সোনাগাজী উপজেলার সমুদ্র উপকূলবর্তী ৪টি ইউনিয়নে দেড় লাখেরও বেশি মানুষ বসবার করে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক