নোয়াখালী-১ আসনের নির্বাচনে শনিবার শেষ প্রচারণা

নোয়াখালী-১ (সোনাইমুড়ি-চাটখিল) আসনে সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সোমবার। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহণ চলবে। আইন অনুযায়ী, শনিবার মধ্যরাত থেকে এ নির্বাচনী এলাকায় সব ধরনের নির্বাচনী প্রচার বন্ধ থাকবে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 10 Jan 2009, 09:24 AM
Updated : 10 Jan 2009, 09:24 AM
ঢাকা, জানুয়ারি ১০ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- নোয়াখালী-১ (সোনাইমুড়ি-চাটখিল) আসনে সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ সোমবার। সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহণ চলবে। আইন অনুযায়ী, শনিবার মধ্যরাত থেকে এ নির্বাচনী এলাকায় সব ধরনের নির্বাচনী প্রচার বন্ধ থাকবে।
নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের উপ সচিব (নির্বাচন) মিহির সারওয়ার মোর্শেদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, "১০ জানুয়ারি রাত ১২টা থেকে এ নির্বাচনী এলাকায় কোনও জনসভা বা মিছিল করা যাবে না। ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পর পরবর্তী ৪৮ঘণ্টা এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।"
শনিবার রাত ১২টা থেকে ১২ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত এ নির্বাচনী এলাকায় সকল ধরণের যন্ত্রচালিত যানবাহন চলাচলও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। অটোরিক্সা, ট্যাক্সিক্যাব, মাইক্রোবাস, জীপ, পিক-আপ, কার, বাস, ট্রাক ও টেম্পোর ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে।
এছাড়া পুরো নির্বাচনী এলাকায় শনিবার মধ্যরাত থেকে ১৪ জানুয়ারি মধ্যরাত পর্যন্ত মোটর সাইকেল চলাচল সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।
তবে বৈধ পরিচয়পত্রধারী দেশি-বিদেশি নির্বাচন পর্যবেক্ষক, সাংবাদিক, নির্বাচনী কাজে নিয়োজিত কর্মকর্তা-কর্মচারী, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর সদস্য, বৈধ পরিদর্শক, অ্যাম্বুলেন্স, বিদ্যুৎ, গ্যাস, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের কাজে নিয়োজিত যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।
এছাড়া রিটার্নিং অফিসারের অনুমতি সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বা তাদের নির্বাচনী এজেন্টের গাড়ি, জরুরি পণ্য সরবরাহসহ অন্যান্য কাজে যান চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা যাবে।
অন্যসব আসনের সঙ্গে ২৯ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ হওয়ার কথা থাকলেও গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতি ও মহাজোট প্রার্থী নুরুল ইসলামের মৃত্যুর কারণে নোয়াখালী-১ আসনের নির্বাচন স্থগিত করে কমিশন। গত ২৩ ডিসেম্বর এ আসনের জন্য নতুন করে তফসিল ঘোষণা করা হয়। বাকি ২৯৯ আসনের নির্বাচন গত ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়।
মিহির সারওয়ার মোর্শেদ জানান, নোয়াখালী-১ আসনে মোট ১১জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।
প্রার্থীরা হলেন- মহাজোট মনোনীত আওয়ামী লীগ নেতা এইচ এম ইব্রাহীম (নৌকা), চার দলীয় জোট মনোনীত বিএনপি নেতা ব্যারিস্টার এএম মাহবুব উদ্দিন খোকন (ধানের শীষ), ইসলামী আন্দোলনের আব্দুর রহিম (হাত পাখা), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) দ্বীন মোহাম্মদ ভূঁইয়া (তারা), জাতীয় পার্টির মাহবুবুর রহমান (লাঙ্গল), কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের মো. আমীন উল্লাহ (গামছা), খেলাফত আন্দোলনের মো. জিয়াউল হক (বটগাছ), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) মো. মোশারফ হোসেন (আম), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) মো. হারুন রশিদ (মশাল) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার আল আমিন (তালা) ও গোলাম মাওলা (আনারস)।
মোট ২ লাখ ৪৭ হাজার ৪০৭ জন ভোটার জাতীয় সংসদের জন্য নোয়াখালী-১ আসনের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন।
বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এমএইচসি/জেকে/এসকে/২১২৬ঘ.
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক