শেখ হাসিনার এক ‘ফুঁ-য়ে’ আনিসুল হক ‘নেতা’

মেয়র পদে আওয়ামী লীগ সমর্থন দেওয়ায় শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতার শেষ নেই আনিসুল হকের।

গোলাম মুজতবা ধ্রুববিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 April 2015, 07:06 PM
Updated : 16 April 2015, 05:44 AM

বুধবার এক মতবিনিময় সভায় বক্তব্যেও নিজের কৃতজ্ঞতার প্রকাশ ঘটিয়েছেন আকস্মিকভাবেই ভোটের মাঠে আসা এই ব্যবসায়ী।

“শেখ হাসিনা যার দিকে তাকিয়ে হাসেন, তার জীবন বদলে যায়। তার এক ফুঁ-তে আমি হঠাৎ করে নেতা হয়ে গেলাম। কিন্তু সাবধান! সাবধান! সাবধান! যার দিকে তাকিয়ে একটু মন খারাপ করবেন, তার কিন্তু খানা বন্ধ।”

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সমর্থিত এই মেয়র প্রার্থী রাজধানীর খামারবাড়ি এলাকার কৃষিবিদ ইন্সটিটিউট মিলনায়তনে যুবলীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় অনুষ্ঠানে একথা বলেন।

যুবলীগ নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে আনিসুল হক বলেন, “শেখ হাসিনা একটা স্বপ্ন দেখেছেন, আনিসুল হককে মেয়র হিসেবে দেখতে চান। তিনি কি হারতে পারেন “

এই সময় উপস্থিত যুবলীগ নেতা-কর্মীরা ‘না’ বলে চিৎকার করে উঠেন।

এরপর তিনি বলেন, “তাহলে কী করতে হবে? প্রপার ওয়েতে জিততে হবে। একার পক্ষে জেতা সম্ভব না। যুবলীগ না হলে নির্বাচনে জেতা যায় না।”

এই সময় আবার মিলনায়তনে করতালি ও ঘড়ি প্রতীকের পক্ষে স্লোগান তোলেন সবাই।

এফবিসিসিআইয়ের সাবেক সভাপতি আনিসুল হকের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিএনপি ঢাকা উত্তরে সমর্থন দিয়েছে ব্যবসায়ীদের এই শীর্ষ সংগঠনের সাবেক আরেক সভাপতি আব্দুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ আউয়ালকে।  

ব্যবসায়ী আনিসুল হক সভায় বলেন, “বলা হচ্ছে, আমি নাকি অনেক বড় লোক। মেয়র হলে নাকি গরিবের কথা বলতে পারব না। যারা এইসব বলে, ওরা জানে না আমার জীবনের কষ্ট।

“ওরা জানে না আমার মা কষ্ট করে আমার বাবার প্যান্ট রিফু করে দিতেন, একটা প্যান্ট কিনতেন না। ওরা জানে না যে আমি বাবার ৬৪ হাজার টাকা নিয়ে জীবন শুরু করতে গিয়ে এক রাতে দেউলিয়া হয়ে গিয়েছিলাম।”

মতবিনিময় সভায় নিজের আড়াই বছর বেকার থাকার কথাও জানান বিজিএমইএর সাবেক এই সভাপতি।

সভায় যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী ভোটে জিততে যুবলীগ নেতা-কর্মীদের জনগণের কাছে যাওয়ার আহ্বান জানান। 

“বর্তমান সরকারকে ক্ষমতায় রাখার রাজনৈতিক গুরুত্ব জনগণকে বোঝাতে হবে। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের কথা জনগণের কাছে তুলে ধরতে হবে।”

কয়েকজন মন্ত্রীর ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ জনগণ পছন্দ করছে না বলেও মন্তব্য সরকার সমর্থক এই নেতা।

সভায় সাবেক মন্ত্রী ফারুক খান, যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগ সভাপতি মাঈনুল হোসেন খান নিখিল, সাধারণ সম্পাদক ইসমাইল হোসেনও ছিলেন।

এই মতবিনিময়ের আগে সকালে আনিসুল হক বনশ্রী মডেল স্কুল, খিলগাঁও, রামপুরা, হাজীপাড়া, চৌধুরীপাড়ায় জনসংযোগ চালান। সভার পর বিকালে তিনি নাখালপাড়া এমপি হোস্টেল গেইট ও রাতে উত্তরা এলাকায় প্রচার চালান।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক