লতিফ সিদ্দিকীকে বাদ না দিলে দেশ অচল: হেফাজত

হজ নিয়ে মন্তব্যের জন্য মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীকে শাস্তি না দিলে লাগাতার কর্মসূচির মাধ্যমে বাংলাদেশ অচল করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 Sept 2014, 02:41 PM
Updated : 1 Oct 2014, 04:37 AM

গত রোববার নিউ ইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশিদের এক অনুষ্ঠানে লতিফ সিদ্দিকী হজে যাওয়া এবং তাবলিগ জামায়াতের বিরোধিতা করে বক্তব্য দেন।

সোমবার সংবাদপত্রে মন্ত্রীর বক্তব্য প্রকাশের পর বিএনপিসহ বিভিন্ন ইসলামী দলের পক্ষ থেকে তার পদত্যাগ চাওয়া হয়েছে। সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরলে এই বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্য প্রকাশের পর ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তাকে বরখাস্ত করতে সরকারকে আহ্বান জানিয়েছিল হেফাজত।  

তা মনে করিয়ে দিয়ে মঙ্গলবার এই সংগঠনের এক বিবৃতিতে বলা হয়, “আমাদের দেওয়া ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটামের ২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেছে। আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে যদি তাকে অপসারণ করে বিচারের মুখোমুখি করা না হয় তবে লাগাতার কঠোর কর্মসূচি দিয়ে সবকিছু অচল করে দেওয়া হবে।”

লতিফ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে এক সমাবেশে হেফাজতের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মুফতী ফয়জুল্লাহ ব্লাসফেমি আইন করে এই মন্ত্রীকে সেই আইনে প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়ার দাবিও তোলেন।

“কুরআন হাদীসে মুরতাদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। মুসলিম উম্মাহর দাবি, শরীয়তের এই বিধানকে রাষ্ট্রীয় আইন হিসেবে সংসদে পাস করিয়ে ইসলামের প্রকাশ্য শত্রু লতিফ সিদ্দিকীকে ফাঁসি দিতে হবে।”

লতিফ সিদ্দিকীকে দল থেকে বহিষ্কার করে আইনের আওতায় এনে বিচার করতেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

সমাবেশে হেফাজতের কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরার অন্যতম সদস্য মাওলানা জসিম উদ্দীন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রকে ‘খুশি’ করতে মন্ত্রীর মুখে ‘ইসলামবিরোধী’ এই বক্তব্য এসেছে।

“আমেরিকাকে খুশি করতে চাচ্ছেন? সহজে পশ্চিমা বিশ্বের সহানুভূতি পেতে চান? সে সুদূর চিন্তা থেকে ইসলামের বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্যপূর্ণ ধৃষ্টতা দেখাচ্ছেন? তবে দেশে আসবেন না। সেখানেই থাকুন।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক