জমি ‘দখল’ করতে গিয়ে র‌্যাব সদস্য আটক

রাজধানীর উত্তরখান এলাকায় জমি দখলের চেষ্টার অভিযোগে পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ, যাদের মধ্যে র‌্যাবের দুই সদস্য রয়েছেন।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 June 2014, 05:12 PM
Updated : 8 June 2014, 06:52 PM

ওই জমির মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে। এর মধ্যে বাইরের পক্ষ রোববার দুপুরে জমিতে অবস্থানকারী পক্ষকে উৎখাত করতে গেলে স্থানীয়রা পাঁচজনকে ধরে পুলিশে দেয় বলে উত্তরখান থানার ওসি ইউনুস আলী জানিয়েছেন।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে এদের দুজন র‌্যাব সদস্য বলে জানা যায়।

নারায়ণগঞ্জে সাত খুনে সম্পৃক্ততার অভিযোগের প্রেক্ষাপটে নির্দিষ্ট কাজের বাইরে জমিজমার বিরোধসহ কোনো কাজ না করার ঘোষণা দেয় র‌্যাব। এর দুই সপ্তাহের মধ্যে উত্তরার এই ঘটনা ঘটল।    

তাৎক্ষণিকভাবে এই বিষয়ে র‌্যাবের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

দক্ষিণ ফৌজির বাতান এলাকার কয়েক কাঠার ওই জমি ভোগদখলকারী হুমায়ুন কবির মামুন নামে একজন সেখানে নয়টি ঘর তুলে তা ভাড়া দিয়েছেন। রোকেয়া বেগম নামে এক নারীও ওই জমির মালিকানা দাবি করছেন।

ওসি ইউনুস আলী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “দুপুরের পরে ওই নারী দলবল নিয়ে ওই বাড়িতে হামলা ও ভাংচুর চালিয়ে বাসিন্দাদের বের করে দেয়ার চেষ্টা চালায়। এ সময় স্থানীয়রা তাদের ঘিরে ফেলে পুলিশকে খবর দেয়।”

পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পাঁচজনকে আটক করে। তবে তাদের সঙ্গে থাকা অন্যরা পালিয়ে যায়।

“আটকদের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের এক পর্যায়ে দুজন র‌্যাব সদস্যের পরিচয় পাওয়া যায়,” বলেন ওসি।

আটক দুই র‌্যাব সদস্য হলেন- সেনাবাহিনীর মিজানুর রহমান (৩২) এবং নৌবাহিনীর আবদুল্লাহ আল মাহমুদ (৩০)।

উত্তরখান থানার উপপরিদর্শক কাঞ্চন কুমার সিংহ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এই র‌্যাব সদস্যদের পোস্টিং কোথায়, তা আমরা এখনো জানতে পারিনি।”

গ্রেপ্তার অন্য তিনজন হলেন- জহির উদ্দীন (৩৫), শেখ মোহাম্মদ নাহিদ (৩১) ও রিফাত হক পিয়াল (২০)।

এই ঘটনায় জমির আলী নামে ওই বাড়ির এক তত্ত্বাবধায়ক বাদী হয়ে দ্রুতবিচার আইনে একটি মামলা করেছেন।

তাতে আসামিদের বিরুদ্ধে ভয়ভীতি দেখিয়ে জমি দখলের চেষ্টা ও সম্পত্তি বিনষ্ট করার অভিযোগ আনা হয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক