ব্রাহ্মবাড়িয়ায় র‌্যাবের বিরুদ্ধে হত্যা মামলার নির্দেশ

ব্রাহ্মবাড়িয়ার নবীনগরে এক ব্যবসায়ী নিহতের ঘটনায় র‌্যাব-১৪ এর ভৈরব ক্যাম্পের অধিনায়কসহ নয় সদস্যের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

ব্রাহ্মবাড়িয়া প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 4 June 2014, 07:09 AM
Updated : 4 June 2014, 08:32 AM

নবীনগরথানার ওসিকে এ নির্দেশ দিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম নাজমুননাহার।

গতমাসের শুরুর দিকে নিহত ব্যবসায়ী শাহনূর আলমের ছোট ভাই মেহেদী হাসান গত রোববার জেলাআদালতে এ মামলা করেন।

তারআরজি গ্রহণ করা হবে কি না সে বিষয়ে বুধবার সকালে শুনানি গ্রহণের পর হাকিম এনির্দেশ দেন। 

এব্যাপারে নবীনগর থানার ওসি রূপক কুমার সাহা বলেন, আদালতের নির্দেশনার কথা শুনেছেন।আদেশ হাতে পৌঁছানোর পর মামলা গ্রহণ করে পরবর্তী ব্যবস্থা নিবেন তারা।

মামলায়র‌্যাব-১৪ এর ভৈরব ক্যাম্পের অধিনায়ক মেজর এ জেড এম সাকিব সিদ্দিক ও উপপরিদর্শক মো.এনামুল হকের নাম উল্লেখ করা হয়েছে, বাকিরা অজ্ঞাত পরিচয়ের র‌্যাব সদস্য।

তাদেরসঙ্গে নবীনগরের কৃষ্ণনগরের নজরুল ইসলাম (৫৮) ও আবু তাহের মিয়াকেও (৪৫) মামলায় আসামি করা হয়েছে।

একটি চাঁদাবাজির মামলার আসামি হিসেবে গত ২৯ এপ্রিল শাহনূরআলম (৪২)  ও মহিউদ্দিনকে (৪১) আটক  করে র‌্যাব-১৪ এর একটি দল।

পরে ৬ মে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীনঅবস্থায় শাহনূরের মৃত্যু হয়।

তখন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেল সুপার গিয়াস উদ্দিন বলেন, “১ মেআদালতের মাধ্যমে শাহনূরকে জেল হাজতে গ্রহণ করার সময় তার শরীরে বেশ কিছু ‘আউটইনজুরি’ ছিল।

“একপর্যায়ে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে, তাকে ৪ এপ্রিল ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালেপাঠাই। পরে সেখানে তার অবস্থা আরো খারাপ হলে ওইদিনই কুমিল্লা মেডিকেল কলেজহাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।”

সেখানেই ৬ মে রাতে শাহনূর মারা যান, বলে জানিয়েছিলেন জেলসুপার।

শাহনূর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার বগডর গ্রামেররহিছের ছেলে।  

মৃত্যুর পর তার চাচাতো ভাই এম এ খায়ের বারী বলেন, বাড়িথেকে ধরে নিয়ে যাওয়ার পর র‌্যাবের নির্যাতন  ও মারধরে তার ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জেরসাত খুনে র‌্যাবের তিন কর্মকর্তা গ্রেপ্তার হওয়ার পর কুমিল্লার লাকসামে বিএনপিরদুই নেতাকে অপহরণ করে হত্যার অভিযোগে র‌্যাবের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক