বাংলালিংকের থ্রিজি অক্টোবরে

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম টেলিকম  অপারেটর বাংলালিংকও অক্টোবর থেকে বাণিজ্যিকভাবে মোবাইল ফোনের থ্রিজি সেবা চালুর ঘোষণা দিয়েছে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 Sept 2013, 12:21 PM
Updated : 25 Sept 2013, 02:21 PM

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জিয়াদ সাতারা বুধবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জানান, অক্টোবরে ঢাকা এবং চলতি বছরের মধ্যেই চট্টগাম, সিলেট ও খুলনায় এ সেবা শুরু করছেন তারা।

এ অনুষ্ঠানেই বাংলালিংকের পরীক্ষামূলক থ্রিজি সেবার উদ্বোধন করেন জিয়াদ সাতারা।

গ্রামীণ ফোন, রবি ও এয়ারটেল ইতোমধ্যে জানিয়েছে, অক্টোবরের শুরুতেই নির্দিষ্ট কিছু এলাকায় এ সেবা চালু করবে তারা। গ্রাহকরা তাদের পুরনো সিমেই প্যাকেজ বদলে এ সেবা পাবেন। 

জিয়াদ সাতারা বলেন, “সম্প্রতি বাংলালিংক থ্রিজি লাইসেন্স পেয়েছে। বাংলালিংকের গ্রাহকরা পুরনো সিমেই থ্রিজি সেবা পাবেন।”

বাংলালিংকের মূল প্রতিষ্ঠান ভিম্পেলকম লিমিটেডের গ্রুপ ডেপুটি সিইও ও চিফ অপারেটিং অফিসার ইয়ান এডভার্ড অনুষ্ঠানে বলেন, ভিম্পলকম বাংলাদেশে তাদের ব্যবসা নিয়ে অত্তন্ত আগ্রহী। গ্রাহকদের উন্নত সেবা দিতে বিনিয়োগ অব্যাহত থাকবে।

বিটিআরসির হিসাবে গত জুলাই মাস পর্যন্ত বাংলালিংকের গ্রাহক সংখ্যা ছিল ২ কোটি ৭৩ লাখ।

গত ৮ সেপ্টেম্বর দেশে থ্রিজি তরঙ্গের প্রথম নিলামে অংশ নিয়ে গ্রামীণ ফোন ১০ মেগাহার্টজ এবং বাংলা লিংক, রবি ও এয়ারটেল পাঁচ মেগাহার্টজ করে তরঙ্গ কেনে। 

সে অনুযায়ী প্রতি মেগাহার্টজ ২ কোটি ১০ লাখ ডলার দরে ১০ মেগাহার্টজ তরঙ্গের জন্য গ্রামীণ ফোন সরকারকে পরিশোধ করবে প্রায় ১ হাজার ৬৩২ কোটি টাকা। আর বাকি তিন অপারেটরকে দিতে হবে প্রায় ৮১৬ কোটি টাকা করে।

এই টাকার প্রথম কিস্তি পরিশোধ করে ইতোমধ্যে লাইসেন্স নিয়েছে চার প্রতিষ্ঠান।  

কোনো অপারেটর নয় মাসের মধ্যে দেশের সব বিভাগে থ্রিজি সেবা চালু করতে না পারলে তাদের ৫০ কোটি টাকা জরিমানা গুণতে হবে বলে বিটিআরসি জানিয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক