‘নাস্তিক’ ব্লগারদের তওবার দাবিতে সায় কমিটির

ফেইসবুক ও  ব্লগে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্যকারীদের ‘তওবা’ করানোর সুপারিশ করেছে ইসলামী চিন্তাবিদ ও আলেমরা, যাতে সায় জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কর্যালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 31 March 2013, 04:41 AM
Updated : 31 March 2013, 04:41 AM

রোববার কমিটির সঙ্গে বৈঠকে ব্লগ ও ফেইসবুক ইসলাম ও মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে মামলা করে কঠোর শান্তি দেয়ার সুপারিশ করেন।

‘নাস্তিক’ ও অপপ্রচারকারীদের তালিকা দিয়ে আলেমরা বলেন, “এরা তওবা করলে ভাল, নইলে শাস্তির আওতায় আনুন।”

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ইসলামী চিন্তাবিদ ও আলেমদের সঙ্গে বৈঠকে এ সুপারিশের প্রেক্ষিতে কমিটির সভাপতি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাইনউদ্দিন খন্দকার বলেন, “তওবা পড়ার সুযোগ দেয়া যেতে পারে, এর পরও তারা এ অপপ্রচার চালালে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

তিনি বলেন “অপপ্রচারকারীদের চিহ্নিত করে খুব দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে, এজন্যই নানা উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে কমিটি থেকে।”

বৈঠকে দৈনিক আল ইহসানের সম্পাদক আল্লামা মুহাম্মদ মাহবুব আলম নয়টি ব্লগ সাইটের বিরুদ্ধে ইসলাম ধর্মের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানোর অভিযোগ আনেন। ব্লগগুলো হচ্ছে, সামওয়্যার ইন ব্লগ, আমার ব্লগ, মুক্তমনা, নাগরিক ব্লগ, ধর্মকারী, নবযুগ, সচলায়তন, চুতরাপাতা ও মতিকণ্ঠ। 

আল্লামা মুহাম্মদ মাহবুব আলম বিভিন্ন ব্লগ সাইটের ৮৪ জন ‘নাস্তিক ও অপপ্রচারকারী’ ব্লগারের তালিকা কমিটির কাছে হস্তান্তর করেন।

এসব ব্লগারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করে বলেন মাহবুব আলম বলেন, “অনেকে নাস্তিক হতেই পারেন, তবে যারা ধর্মের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।”

কমিটির সভাপতি মাইনউদ্দিন খন্দকার বলেন, “অপপ্রচারকারীদের চিহ্নিত করে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশন (বিটিআরসি) অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছে না বলে অভিযোগ করেন ইসলামী চিন্তাবিদ ও আলেমরা।

তারা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এ অপপ্রচার চালিয়ে আসলেও তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি বিটিআরসি।

ব্লগের উপর ‘সেন্সরশিপ’ আরোপ এবং নরজদারি করার সুপারিশ করেন তারা।

কমিটিতে বিটিআরসির সদস্য লে. কর্নেল রাকিবুল হাসান বলেন, প্রতি মিনিটে হাজার খানেক ব্লগ পোস্ট হচ্ছে, এসব নজরদারী করা অনেক কষ্টসাধ্য।

আপত্তিকর মন্তব্য করা ব্লগারদের ব্লগ বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে বলেও জানান লে. কর্নেল রাকিব।

বিটিআরসির ব্যাখ্যার সমালোচনা করে ইসলামী চিন্তাবিদরা বলেন, “ব্লগ বা ফেইসবুক পেইজ নিয়ে কিছুই বুঝি না তা ঠিক নয়, আমাদের নয়-ছয় বোঝানোর চেষ্টা করবেন না।”

সরকারি হিসেবে দেশে ৪৮টি ব্লগ সাইট থাকলেও সভায় ইসলামী চিন্তাবিদ ও আলেমা জানান, দেশে বর্তমানে প্রায় চারশ’ ব্লগ আছে।

সভায় দৈনিক আল ইহসানের সম্পাদক আল্লামা মুহাম্মদ মাহবুব আলম আরিফ, আলিয়া মাদ্রাসা অধ্যক্ষ ড, ইয়াকুব, ইসলামী ফাউন্ডেশন মোহাদ্দিস মুফতি ওলিউর রহমান খান, ওলামা মাশায়েখ ঐক্যজোট সভাপতি আব্দুল হালিম সেরাজসহ অন্যান্য আলেমরা উপস্থিত ছিলেন।

গত ১৩ মার্চ ফেইসবুক ও ব্লগে ইসলাম ও হযরত মুহম্মদ (সা.) কে নিয়ে অবমাননাকর মন্তব্যকারীদের সনাক্ত ও তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নয় সদস্যের কমিটি করে সরকার। কমিটিতে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি), আইন ও বিচার বিভাগ, তথ্য মন্ত্রণালয়, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি, এনএসআই ও ডিজিএফআইয়ের মহাপরিচালক এবং পুলিশের (স্পেশাল ব্রাঞ্চ) অতিরিক্ত ডিআইজিকে রাখা হয়েছে।

ফেইসবুক ও ব্লগে ‘আপত্তিকর’ মন্তব্য বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে রোববার ই-মেইল ঠিকানা খুলেছে এই কমিটি।

বিটিআরসির তথ্য মতে বর্তমানে বাংলাদেশে প্রায় তিন কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে এবং ফেইসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৩২ লাখের বেশি।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক