সিরিজ বোমা: হাইকোর্টের বিভক্ত আদেশ

২০০৫ সালের ১৭ অগাস্ট দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ঝিনাইদহের ২১ জেএমবি সদস্যের মৃত্যুদণ্ডাদেশ নিয়ে বিভক্ত আদেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 17 July 2011, 08:19 AM
Updated : 17 July 2011, 08:19 AM
ঢাকা, জুলাই ১৭ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- ২০০৫ সালের ১৭ অগাস্ট দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় মৃত্যুদণ্ডাদেশপ্রাপ্ত ঝিনাইদহের ২১ জেএমবি সদস্যের মৃত্যুদণ্ডাদেশ নিয়ে বিভক্ত আদেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।
রোববার শুনানি শেষে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চের জ্যেষ্ঠ বিচারপতি সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল করিম সবাইকে খালাস দিয়ে দেন। একই বেঞ্চের অপর বিচারপতি আবদুর রব ১৪ জনের মৃত্যুদণ্ড কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং অপর সাতজনকে খালাস দেন।
ওই বেঞ্চের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আব্দুল মান্নান মোহন সাংবাদিকদের বলেন, এখন এই রায়টি প্রধান বিচারপতির কাছে পাঠানো হবে। নিয়ম অনুযায়ী তৃতীয় বেঞ্চে এর নিষ্পত্তি হবে।
সাক্ষ্য-প্রমাণ অনুযায়ী তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় জ্যেষ্ঠ বিচারপতি দণ্ডপ্রাপ্ত এই ২১ জনকে খালাস দেন।
তিনি জানান, খালাস দেওয়া সাত জনের নাম মামলার অভিযোগপত্র থেকে প্রত্যাহারের জন্য তদন্ত কর্মকর্তা সুপারিশ করেছিলেন। আদালত ওই সুপারিশ নামঞ্জুর করে সবার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে।
অপর বিচারপতি এই বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে ওই সাতজনকে খালাস দেন। বাকিদের বয়স কম বিষয়টি বিবেচনা করে ফাঁসির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়।
বিচারপতি আবদুর রবের রায়ে যাবজ্জীবন সাজা পাওয়া জেএমবি সদস্যরা হলেন- তরিকুল ইসলাম ওরফে রিংকু, মনিরুল ইসলাম ওরফে মোখলেসুর, নাসরুল্লাহ ওরফে শান্তি ওরফে চান্নু, রোকনুজ্জামান ওরফে মিথুন, আবু তালেব আনসারী ওরফে বাবুল আনসারী, মোহন (পলাতক), মামুনুর রশিদ ওরফে মামুন, মুহিদ, মোজাম্মেল হক ওরফে মোজাম, তুহিন রেজা (পলাতক), সবুজ আলী ওরফে সবুজ, আমিরুল, ফারুক হুসাইন ও মতিন মেহেদি ওরফে মতিমুল ইসলাম ওরফে মাহবুব মতিন ওরফে মতিমুল হক (পলাতক)।
একই বিচারপতির রায়ে খালাস পাওয়া সাত জন হলেন, জহিরুল আল মামুন ওরফে চাঁদ, বিল্লাল হোসেন, সদরুদ্দিন, বরজেল হোসেন ওরফে বরজেল, আজিজুর রহমান, ইউসুফ আলী ও আজিম উদ্দিন।
২০০৫ সালের ১৭ অগাস্ট দেশব্যাপী সিরিজ বোমা হামলা হয়। ওই দিন ২১ জনকে আসামি করে ঝিনাইদহ সদর থানার উপ-পরিদর্শক লুৎফর রহমান একটি মামলা দায়ের করেন।
২০০৬ সালের ২৮ ফেব্র"য়ারি ঝিনাইদহের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল এই ২১ জনকে মৃত্যুদণ্ড দেয়।
বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এসএন/এএল/কেএমএস/২০২১ ঘ.