প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পাচ্ছে আরও ২৬ হাজার পরিবার

মুজিববর্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী আরও ২৬ হাজার পরিবার পাচ্ছে নতুন ঘর।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 18 July 2022, 09:50 AM
Updated : 18 July 2022, 04:06 PM

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে সংসবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান সরকার প্রধানের মুখ্য সচিব আহমেদ কায়কাউস।

তিনি বলেন বৃহস্পতিবার ঘর উপহার দেওয়ার এ কার্যক্রম উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। সেদিন ২৬ হাজার ২২৯টি ঘর হস্তান্তর করা হবে। এছাড়া আরও ৮ হাজার ৬৬৭টি ঘর নির্মাণাধীন রয়েছে।

মুখ্য সচিব জানান, এর আগে তিন দফায় ১ লাখ ৮৫ হাজার ১২৯টি ঘর পেয়েছেন গৃহহীনরা। এ প্রকল্পে এ পর্যন্ত বরাদ্দ করা অর্থের পরিমাণ ৪ হাজার ২৮ কোটি ৯৬ লাখ টাকা।

প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্মিত মোট একক ঘরের সংখ্যা ১ লাখ ১৭ হাজার ৩২৯টি। বর্তমানে তৃতীয় পর্যায়ে বরাদ্দ হচ্ছে ৬৭ হাজার ৮০০টি। এর মধ্যে গত ২৬ এপ্রিল হস্তান্তর হয় ৩২ হাজার ৯০৪টি।

তৃতীয় পর্যায়ে চরাঞ্চলে বরাদ্দকৃত বিশেষ নকশার ঘরের সংখ্যা ১ হাজার ২৪২টি বলে জানান আহমদ কায়কাউস।

তিনি বলেন, “একক গৃহ নির্মাণের জন্য বিভিন্ন জায়গায় অবৈধ দখলকৃত খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে ৫ হাজার ৫১২ দশমিক ৪ একর। আমরা যদি সেটার আনুমানিক বাজার মূল্য হিসেব করি, তাহলে ২ হাজার ৯৬৭ কোটি ৯ লক্ষ টাকা মূল্যের জমি উদ্ধার করা হয়েছে এবং সেটি বাংলাদেশের ভূমিহীন গৃহহীন পরিবারের মাঝে বণ্টন করা হয়েছে। এছাড়া আমরা ক্রয় করেছি ১৯১ দশমিক ৭৯ একর। এ বাবদ খরচ করা হয়েছে ১৩৪ কোটি ৪৯ লক্ষ টাকা।”

আহমদ কায়কাউস বলেন, আগামী ২১ জুলাই দুটি জেলার সকল উপজেলাসহ ৫২টি উপজেলায় গৃহ হস্তান্তর করা হবে। জেলা দুটি হল পঞ্চগড় ও মাগুরা।

“অর্থাৎ আমরা কিন্তু আগামী ২১ জুলাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে আমরা ঘোষণা করতে পারব, এই দুটি জেলায় আর কোনো ভূমিহীন-গৃহহীন নেই। এটি বাংলাদেশের জন্য বিশাল অর্জন।”

নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতুর নির্মাণের ফলে বাংলাদেশের মানুষের মনোবল ‘আকাশচুম্বী’ হয়েছে মন্তব্য করে মুখ্য সচিব বলেন, “একই সঙ্গে ১০টি উদ্যোগের মাধ্যমে একদিকে যেমন বৃহৎ প্রকল্প প্রতিদিন পর্যায়ক্রমে বাস্তবায়িত হচ্ছে, একই সঙ্গে সমস্ত বাংলাদেশের আনাচে কানাচে মানবতার ছোঁয়া পৌছে যাচ্ছে এই আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে।”

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া বলেন, “৫২টি উপজেলা যে ভূমিহীন-গৃহহীনমুক্ত হল, এই উপজেলাগুলোতে আমাদের মোট ভূমিহীন-গৃহহীন ছিল ১৯ হাজার ৭৮০জন। প্রত্যেকেই এখন ঘর পেয়ে গেলেন।”

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) আহসান কিবরিয়া সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক