বিশ্ববিদ্যালয়ে মনোবিজ্ঞানী নিয়োগ চান ইউজিসি চেয়ারম্যান

শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মধ্যে ‘বৈরিভাব’ ঠেকাতে বিশ্ববিদ্যালয়ে নৈতিক শিক্ষা যোগ করার পাশাপাশি একজন মনোবিজ্ঞানী নিয়োগের তাগিদ দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্চুরী কমিশন- ইউজিসি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দিল আফরোজা বেগম।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 30 June 2022, 12:29 PM
Updated : 30 June 2022, 12:29 PM

বৃহস্পতিবার সিটিজেন চার্টার নিয়ে ইউজিসির এক কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এমন আ্হ্বান জানান।

শিক্ষার্থীদের আচরণ মূল্যায়নে নম্বর বরাদ্দ রাখতেও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের প্রতি পরামর্শ দিয়ে দিল আফরোজা বলেন, “শিক্ষার্থীরা কেন সহিংস আচরণ করছে, আচরণের বিচ্যুতি কেন ঘটছে, সেটি শিক্ষকদের খতিয়ে দেখতে হবে।

“শিক্ষার্থীদের কাউন্সেলিং সেবা নিশ্চিত করতে হবে। এজন্য সব বিশ্ববিদ্যালয়ে একজন মনোবিজ্ঞানী বা ছাত্র উপদেষ্টা নিয়োগের ব্যবস্থা করতে হবে।”

শিক্ষককে হেনস্থা করার ঘটনায় বুধবার সাময়িক বহিষ্কার হয়েছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী। উত্তরপত্র ‘চুরি করে’ তা নিয়ে ‘মজা করে’ ফেইসবুকে পোস্ট দিয়ে শাস্তির মুখে পড়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক শিক্ষার্থী।

এছাড়া সাভারে শিক্ষার্থীর আঘাতে শিক্ষকের মৃত্যু ও নড়াইলে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়িয়ে শিক্ষককে জুতার মালা পড়ানোর ঘটনা নাড়া দিয়েছে দেশবাসীকে।

সাম্প্রতিক সময়ে প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায় পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মাঝে মূল্যবোধের অবক্ষয় দেখা যাচ্ছে বলে মনে করেন ইউজিসি চেয়ারম্যান।

শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের মধ্যে ‘অভিভাবকতুল্য’ ও ‘বন্ধুসুলভ’ সম্পর্কের পরিবর্তে ‘বৈরিভাব বিরাজ করছে’ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “শিক্ষার্থীদের নৈতিক অধঃপতন ঠেকাতে সব বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যক্রমে নৈতিক শিক্ষার বিষয়টি ‍যুক্ত করা জরুরি।

“পাশাপাশি বিভাগের সহশিক্ষা কার্যক্রমে শিক্ষার্থীদের আচরণের বিভিন্ন দিক মূল্যায়নে কোর্স শিক্ষকরা নম্বর বরাদ্দের ব্যবস্থা করতে পারেন।”

বিশ্ববিদ্যালয়ে এখন সাংস্কৃতিক চর্চা হয় না মন্তব্য করে ইউজিসি’র এ সদস্য বলেন, “অনেক বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষার্থীরা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করাকে পড়ালেখার ক্ষতি মনে করেন।

“মুক্ত চিন্তা বিকাশের পরিবেশ তৈরি ও সাংস্কৃতিক চর্চা বৃদ্ধিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।”

বিশ্ববিদ্যালয়ে দ্রুত ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে দিল আফরোজা বেগম বলেন, “এইচএসসি পরীক্ষার পরে কোন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণ ও পাঠদান শুরু হবে সেটি সুনির্দিষ্ট করা নেই। এ কারণে একজন শিক্ষার্থীকে এক থেকে দুই বছর মূল্যবান সময় নষ্ট করতে হচ্ছে।

“শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া ঠিকমতো হচ্ছে কিনা, গুণগত শিক্ষা পাচ্ছে কিনা, একইসঙ্গে র‌্যাংকিংয়ে যাওয়ার শর্তগুলো পূরণের দিকেও বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে নজর দিতে হবে।”

ইউজিসি সচিব ড. ফেরদৌস জামানের সভাপতিত্বে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক