বাড়িতে ইয়াবা, হেরোইন: মিরপুরের পলাতক দম্পতির যাবজ্জীবন

ঢাকার মিরপুরের এক বাসা থেকে পাঁচ বছর আগে প্রায় ২০ হাজার ইয়াবা এবং ৩০০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধারের ঘটনায় পলাতক এক দম্পতিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

আদালত প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 June 2022, 01:07 PM
Updated : 29 June 2022, 01:09 PM

বুধবার এ মামলার রায়ে আরও এক আসামিকে ৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন ঢাকার ৩ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মনির কামাল।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত সম্রাট উজ্জ্বল ওরফে উত্তম সাহা ও তার স্ত্রী মোছা. রত্মাকে ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আরেকটি ধারায় এ দুইজনের ১০ বছরের সাজা এবং ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও তিন মাস করে কারাদণ্ড দিয়েছেন বিচারক।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটর মাহবুবুর রহমান জানান, উভয় ধারার সাজা একত্রে চলবে। ফলে তাদের সর্বোচ্চ সাজা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।

এ মামলায় অপর আসামি রিপনকে ৬ বছরের কারাদণ্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাসের সাজা দিয়েছেন বিচারক।

তিন আসামিই পলাতক থাকায় বিচারক তাদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানাসহ সাজা পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৭ সালের ২৩ জুলাই বিকালে মাদকবিরোধী অভিযানে মিরপুর থানাধীন বেগম রোকেয়া স্মরণীর অনামিকা কনকর্ড টাওয়ারের সামনে থেকে চারশ ইয়াবাসহ রিপনকে গ্রেপ্তার করে ডিবি পুলিশ।

তার দেওয়া তথ্যে পরে উজ্জ্বলের বাসায় অভিযান চালিয়ে ১৯ হাজার ৬০০ ইয়াবা এবং ৩০০ গ্রাম হেরোইন উদ্ধার করা হয়। সে সময় উজ্জ্বলের স্ত্রী রত্মাকে আটক করে নিয়ে যায় ডিবি পুলিশ।

ঘটনার দিন মিরপুর জোনাল টিমের এসআই রফিকুজ্জামান মিঞা মাদক আইনে মিরপুর মডেল থানায় এ মামলা দায়ের করেন। পরে রত্না ও রিপন জামিনে বেরিয়ে পালিয়ে যান। উজ্জ্বল এ মামলার শুরু থেকেই পলাতক ছিলেন।

মামলাটি তদন্ত করে ২০১৭ সালের ১ অক্টোবর তাদের নামে অভিযোগপত্র জমা দেন মিরপুর জোনাল টিমের পুলিশ পরিদর্শক মীর রেজাউল ইসলাম। বুধবার তিন আসামিকে দোষী সাব্য্যস্ত করে রায় দিল আদালত।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক