শিক্ষক হেনস্তায় কার কী দায়, খতিয়ে দেখা হচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নড়াইলে এক শিক্ষককে পুলিশের সামনে জুতার মালা পরানোর ঘটনায় কার কতটুকু গাফিলতি ছিল- তা খতিয়ে দেখার কথা বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 June 2022, 10:47 AM
Updated : 29 June 2022, 11:19 AM

কোরবানির ঈদ সামনে রেখে বুধবার সচিবালয়ে আইনশৃঙ্খলা পর্যালোচনা সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ বিষয়ে কথা বলেন তিনি।

বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য সমালোচনায় থাকা ভারতের বিজেপি নেত্রী নূপুর শর্মার ছবি দিয়ে এক কলেজ ছাত্রের ফেইসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে নড়াইলের ঘটনার সূত্রপাত।

স্থানীয়দের ভাষ্য, গত ১৭ জুন সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনাইটেড কলেজের ওই ছাত্রের পোস্ট দেওয়ার পরদিন কলেজে গেলে কিছু মুসলমান ছাত্র তাকে ওই পোস্ট মুছে ফেলতে বলেন।

ওই সময় ‘অধ্যক্ষ ওই ছাত্রের পক্ষ নিয়েছেন’ এমন কথা রটানো হলে উত্তেজনা তৈরি হয়। অধ্যক্ষ ও দুজন শিক্ষকের মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেওয়া হয়। পুলিশ গেলে স্থানীয়দের সঙ্গে তাদেরও সংঘর্ষ বাঁধে।

ওই সময় ধর্ম অবমাননার অভিযোগ তুলে কলেজের ছাত্র ও স্থানীয়রা ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসের গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেয়। ওই ঘটনার কিছু ছবি ও ভিডিও ফেইসবুকে আসে, যাতে পুলিশের উপস্থিতিও দেখা যায়।

সামাজিক মাধ্যম ও দেশের বিভিন্ন স্থানে এর প্রতিবাদ চলছে। প্রশাসনের সামনে এ ঘটনা ঘটায় নড়াইলের ডিসি-এসপিরও বিচার দাবি করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “দেখুন অকস্মাৎ অনেক ঘটনা ঘটে যায়, যেগুলো হঠাৎ করেই ঘটে যায়। এই ঘটনায় আমরা সত্যিই দুঃখিত, এ ধরনের একজন শিক্ষককে জুতার মালা পরিয়ে দিয়েছে উত্তেজিত জনতা। আমাদের ডিসি-এসপি তাৎক্ষণিকভাবে যে ব্যবস্থা নিয়েছিল…।

“সেখানে এত মানুষের উত্তেজনা হয়েছিল, আমরা যা শুনেছি। তারপরও আসল ঘটনাটা কী হয়েছিল সেটা জেনে আপনাদেরকে জানাব।”

‘ধর্মানুভূতিতে আঘাত’: ভয়ের সংস্কৃতি প্রভাব ফেলছে শ্রেণিকক্ষে

ঘটনাটি খুবই অল্প সময়ের মধ্যে ঘটেছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “মনে হয়েছে, উত্তেজিত জনতা এত বেশি একত্র হয়ে গিয়েছিল, সেখানে ডিসি-এসপির কিছু করার আগেই ঘটনা ঘটে গিয়েছিল। প্রিন্সিপালকে জুতার মালা পরানোর ঘটনা আসলে এটা একটা দুঃখজনক ঘটনা।“

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের বিষয়ে সচেতন থাকার পরামর্শ দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “প্রিন্সিপালকে জুতার মালা পরানোর পর আমরা হঠাৎ করেই দেখছি; আমরা ফেইসবুক নামক যন্ত্রে খুব বেশি নিজের কথা, অন্যের কথা প্রচার করে থাকি কিংবা লাইক দিয়ে থাকি। সেখানে আমরা বলব... না জেনে না শুনে- নিজের কথা না বুঝে ফেইসবুকে কোনো উক্তি বা কমেন্টস না করার জন্য আমি পরামর্শ দেব। “

নড়াইলের ঘটনায় পুলিশের কোনো অবহেলা ছিল কি না- এ প্রশ্নের উত্তরে আসাদুজ্জামান খান বলেন, “আমি তো বলেছি, কেউ কোনো দায়িত্ব অবহেলা করলে- পুলিশ করুক কিংবা আমাদের জেলা প্রশাসক করুক কিংবা যেই করুক, কিংবা কোনো জনপ্রতিনিধি করে থাকুক, সেখানে সবাই ছিল, আমি শুনতে পেয়েছি। সেখানে কার কতখানি গাফিলতি রয়েছে, সেই অনুযায়ী আমরা খতিয়ে দেখছি।”

উত্ত্যক্তের ঘটনায় শাসন করায় গত শনিবার সাভারের হাজি ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে (৩৭) স্টাম্প দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে তারই প্রতিষ্ঠানের দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী। দুই দিন পর ওই শিক্ষকের মৃত্যু ঘটে। বুধবার ভোরে ওই ছাত্রের বাবা উজ্জ্বল হোসেনকে কুষ্টিয়া থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ছাত্রের হাতে শিক্ষক হত্যার এ ঘটনার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “এটা নিয়ে কী বলব...! যারা আমাদের শিক্ষা দেন তাদেরকে যদি ছাত্র হত্যা করে- তাহলে আমাদের কতখানি নৈতিক অবক্ষয় হয়েছে, আপনারাই চিন্তা করুন!

“তবে আমাদের যেটা করণীয়- সেটা করেছি, আমরা তার বাবাকে ধরেছি, শিগগিরই তাকেও ধরব এবং আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা হবে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক