পুলিশি অভিযানের মধ্যে ঢাকায় ১০ তলা থেকে পড়ে প্রকৌশলীর মৃত্যু

ঢাকার একটি বহুতল ভবনে স্পা সেন্টারে পুলিশের অভিযানের মধ্যে ওই ভবন থেকে পড়ে এক প্রকৌশলীর মৃত্যু হয়েছে।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 25 June 2022, 04:52 PM
Updated : 25 June 2022, 04:52 PM

পুলিশ বলছে, বনানীর আউয়াল সেন্টারের ১০ম তলায় ‘অনৈতিক’ কাজের খবরে অভিযান চালানো হয়েছিল। তখন ওই প্রকৌশলী ওই তলা থেকে লাফিয়ে পড়েন।

তবে নিহত নাসির উদ্দিনের স্বজনদের সন্দেহ, তাকে ফেলে হত্যা করা হয়েছে।

নাসির মোংলা বন্দরের উপসহকারী প্রকৌশলী ছিলেন। তিনি স্ত্রীকে নিয়ে খুলনায় থাকতেন। ঢাকার মাতুয়াইলের বাসিন্দা তিনি।

আউয়াল সেন্টারের দশম তলা থেকে শুক্রবার রাতে পড়ে মৃত্যু হয় নাসিরের। এ ঘটনায় বনানী থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছেন তার ভগ্নিপতি মাহমুদুল হক।

তবে সেই মামলার এজাহারের সব বক্তব্যের সঙ্গে একমত নন জানিয়ে মাহমুদুল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমি ওসি সাহেবকে বলছি, নাসির এমন ছেলে যে সে ওখানে যেতেই পারে না। আমাদের সন্দেহ তাকে কেউ হত্যা করে এ নাটক সাজিয়েছে।”

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, শনিবার সকাল ১০টায় শ্যালক নাসিরকে বাদী ফোন করলে একজন পুলিশ কর্মকর্তা ফোন ধরে জানান যে নাসির নিহত হয়েছেন। খবর শুনে বনানী থানায় এসে মাহমুদুল পুলিশের কাছ থেকে জানতে পারেন যে, নাসির শুক্রবার রাতে ‘ব্যক্তিগত কাজে’ আউয়াল সেন্টারের ১০ তলায় গিয়েছিলেন।

ওই সময় পুলিশ একই তলায় অবস্থিত ‘স্পা সেন্টারে’ অভিযান চালায়। তখন নাসির পালিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে একটি জানালা দিয়ে লাফ দিলে তিনি দুই ভবনের মাঝে পড়ে যান বলে পুলিশের ভাষ্য।

পুলিশ দুই ভবনের মাঝ থেকে তাকে উদ্ধারে ব্যর্থ হলে ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। এরপর উদ্ধার করে নাসিরকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা মৃত ঘোষণা করেন।

মামলার বাদী মাহমুদুল বলছেন, “এখানে অন্য কোনো ঘটনা আছে বলে আমরা সন্দেহ করি। আমরা ওসি সাহেবকে বিষয়টা বলেছি। নাসির পাঁচ ওয়াক্ত নামাজি, ও সেইরকম ছেলেই না। সে ওখানে কেন গেল সেটাই পরিষ্কার না।

“নাসিরের অফিসিয়াল কিছু মামলা চলছিল। এ নিয়ে বিরোধের কিছু কথা নাসির বিভিন্ন সময় স্বজনদেরও জানিয়েছে। আমার ধারণা, ওখানে কোনো মামলার বিষয়ে নাসিরকে নিয়ে গিয়ে তাকে হত্যা করা হয়েছে।”

বনানী থানার ওসি নূরে আযম মিয়া বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সেখানে একটা স্পা সেন্টারে অনৈতিক কাজ চলছে- এমন খবরে পুলিশ অভিযান চালায়। ওই অভিযানে ১৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। অভিযানের সময়ই জানালা দিয়ে লাফিয়ে নিচে পড়েন নাসির।”

নাসির সেখানে কেন বা কার সঙ্গে গিয়েছিলেন, সে বিষয়ে কোনো তথ্য পাওয়া গেছে কি না- জানতে চাইলে ওসি বলেন, “আমরা সন্দেহ করি তিনি স্পা সেন্টারে গিয়েছিলেন। পরে জানালা দিয়ে নেমে পালানোর সময় তিনি পড়ে যান।”

নাসিরকে হত্যা করা হয়েছে পরিবারের এমন দাবির বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তা আযম বলেন, “তারা তো বলতেই পারে। তবে আমরা পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক