সিনহা হত্যা: হাই কোর্টে প্রদীপ ও লিয়াকতের আপিল

সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হত্যা মামলায় বিচারিক আদালতের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে আপিল করেছেন মৃত্যুদণ্ডের দুই আসামি টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের সাবেক পরিদর্শক লিয়াকত আলী।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 15 Feb 2022, 04:32 PM
Updated : 15 Feb 2022, 04:32 PM

প্রদীপ কুমার বিচারিক আদালতের রায় বাতিল চেয়ে সোমবার এবং লিয়াকত আলী খালাস চেয়ে রোববার হাই কোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই আবেদন করেছেন বলে তাদের আইনজীবীরা জানিয়েছেন।

ওসি প্রদীপের আইনজীবী রানা দাশগুপ্ত মঙ্গলবার বলেন, “যে রায় এবং আদেশটি দেওয়া হয়েছে, সেটি প্রসিকিউশন এবং আসামিপক্ষের দাখিল করা নথিপত্র, যুক্তি, জবানবন্দির সুষ্ঠু বিচার বিশ্লেষণ করে দেওয়া হয়নি। রায়ে যে দণ্ড এবং সাজা দেওয়া হয়েছে, তা অত্যান্ত তাড়াহুড়ো করে দেওয়া হয়েছে। যে কারণে বিচারিক আদালতের রায় এবং আদেশ শুনানিক্রমে বাতিল ও রদ চেয়েছি আমরা।“

লিয়াকতের আপিলে কী চাওয়া হয়েছে জানতে চাইলে তার আইনজীবী এস এম শাহজাহান বলেন, “এটা এখন বলা যাবে না। তবে এটুকু বলতে পারি খালাস চেয়ে আপিলটি দায়ের করা হয়েছে।”

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ ইসমাইল গত ৩১ জানুয়ারি এ মামলার রায়ে প্রদীপ ও লিয়াকতকে মৃত্যদণ্ড দেন। পাশাপাশি তিন পুলিশ সদস্য এবং পুলিশের তিন সোর্সকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন।

পরে দুই আসামির মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য গত ৮ ফেব্রুয়ারি রায়সহ নথিপত্র ‘ডেথ রেফারেন্স’ হিসেবে হাই কোর্টে আসে।

২০২০ সালের ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের শামলাপুর চেকপোস্টে গুলি করে হত্যা করা হয় সিনহাকে। সেনাবাহিনী থেকে স্বেচ্ছায় অবসর নেওয়ার পর কয়েকজন তরুণকে সঙ্গে নিয়ে ভ্রমণ বিষয়ক তথ্যচিত্র বানানোর জন্য কক্সবাজারে গিয়েছিলেন তিনি।

টেকনাফে মাদকবিরোধী অভিযানের নামে ওসি প্রদীপের বন্দুকযুদ্ধে ছদ্মাবরণে হত্যা এবং চাঁদাবাজির ঘটনা জেনে যাওয়ায় সিনহাকে পরিকল্পিতভাবে প্রদীপ হত্যা করেন বলে আদালতের রায়ে উঠে এসেছে।

মামলার ১৫ আসামির মধ্যে বাকি চার পুলিশ সদস্য এবং তিন এপিবিএন সদস্যকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়েছে রায়ে।

পুরনো খবর:

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক