‘মুরাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে কেন মামলা হচ্ছে না’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া ও শামসুন্নাহার হলের নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে ‘কুরুচিপূর্ণ’ মন্তব্য করায় তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের কুশপুতুল পুড়িয়ে বিক্ষোভ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 6 Dec 2021, 05:34 PM
Updated : 6 Dec 2021, 05:34 PM

বিক্ষোভে থেকে তাকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার আসামি করার দাবিও জানানো হয়। 
সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের নিচে মুরাদ হাসানের কুশপুতুলে জুতাপেটা করে এ কর্মসূচি পালন করেন সংগঠনটির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতা-কর্মীরা।
পরে তারা প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের পদত্যাগ এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

নানা মন্তব্যের জন্য বিতর্কিত মুরাদ হাসানকে পদত্যাগ করতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ দেওয়ার খবর আসার পরপরই এই কর্মসূচি পালিত হয়। তবে কর্মসূচির ঘোষণা আগেই দেওয়া ছিল।

প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান সম্প্রতি সোশাল মিডিয়ায় এক আলোচনায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মেয়েকে নিয়ে বর্ণবিদ্বেষী এবং নারীর প্রতি অবমাননাকর বক্তব্য করেন, যার সমালোচনা হচ্ছে।

এর মধ্যে এক চিত্রনায়িকার সঙ্গে মুরাদের টেলিকথোপকথন সোশাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়লে সোমবার রাতে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, মুরাদকে পদত্যাগ করতে বলা হয়েছে।

একই সময় সোশাল মিডিয়াতে আসা আরেকটি ভিডিওতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া ও শামসুন্নাহার হলের ছাত্রলীগ নেত্রীদের নিয়েও মুরাদকে নারীর প্রতি অবমাননাকর কথা বলতে দেখা যায়।

রাজু ভাস্কর্যের সামনে বিক্ষোভে ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক নুসরাত তাবাসসুম বলেন,“একজন তথ্য প্রতিমন্ত্রী চিত্রনায়িকাকে ডিবি, ডিজিএফআইয়ের দোহাই দিয়ে তুলে এনে তাকে ধর্ষণ করার হুমকি দিচ্ছে। একজন প্রতিমন্ত্রীর কাছ থেকে এরকম ভাষা,কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য আমরা কখনোই আশা করি না।
“আমরা দেখেছি দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে তার কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য। যা শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ই নয়, বাংলাদেশের সকল মেয়েদের জন্য
অপমানজনক। আমরা বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষকে আমরা দেখতে চাই না কোনো পদস্থ চেয়ারে।”

নুসরাত বলেন, “ডিজিটাল আইন নিয়ে এত কিছু শুনি,এখন কেন তার প্রয়োগ দেখি না। কেন তথ্য প্রতিমন্ত্রীর বিচার হবে না? তাকে বিচারের আওতায় আনা না হলে, আমরা নারী শিক্ষার্থীরা সারাদেশে আন্দোলন শুরু করব।”

ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার দপ্তর সম্পাদক সালেহ উদ্দিন সিফাত বলেন, “তাকে অপসারণ করলে হবে না। তিনি যে মন্তব্য করেছেন তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। সুতরাং অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনতে হবে।”
কুশপুতুলে ছাত্রদল নেত্রীদের জুতাপেটা
খালেদা জিয়ার নাতনীতে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্যের জন্য তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের কুশপুতুলে জুতাপেটা করেছে ছাত্রদলের নেত্রীরা।
সোমবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের আহব্বায়ক সদস্য কানেতা ইয়া লাম লাম এবং মানসুরা আলমের নেতৃত্বে একদল নেতা-কর্মী প্রতিমন্ত্রী মুরাদের কুশপুতুলে জুতা পেটা করার পর তা রাজু ভাস্কর্যের সামনে টানিয়ে রাখেন।
সেখানে কানেতা বলেন, “সম্প্রতি তারেক রহমানের কন্যা জাইমা রহমানকে নিয়ে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন ডা. মুরাদ হাসান। এরপর গতকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের নিয়েও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সাধারণ ছাত্রী হিসেবে এই প্রতিবাদ জানিয়েছি। আমরা এই নারীলোভী অসভ্য মানুষটির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক