সড়কে দুর্নীতিকে ‘লাল কার্ড’ দেখাবে শিক্ষার্থীরা

নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের একটি দল শুক্রবারও ঢাকার রামপুরা ব্রিজে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Dec 2021, 08:23 AM
Updated : 3 Dec 2021, 08:23 AM

বেলা ১১টার দিকে তারা একটি মিছিল নিয়ে রামপুরা মোড়ের গোল চত্বরে সড়কের এক পাশে অবস্থান নেয়। সেখানে প্রায় ৪০ মিনিট তারা তাদের নয় দফা দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন।

পরে ওই সমাবেশ থেকে শনিবার দুপুর ১২টায় রামপুরা ব্রিজে অবস্থান নিয়ে সড়ক দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাল কার্ড প্রদর্শনের কর্মসূচি ঘোষণা করেন আন্দোলনকারীদের প্রতিনিধি খিলগাঁও মডেল কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগী সামিয়া।

শিক্ষার্থীদের নেতা সোহাগী সামিয়া বলেন, “দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে আমরা এ আন্দোলন চালিয়ে যাব। সড়কের অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতির কারণে দুর্ঘটনা ঘটছে, আমরা সড়কের দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাল কার্ড দেখাব।"

এইচএসসি পরীক্ষার মধ্যে পরীক্ষার্থীরা যাতে সমস্যায় না পড়েন, সেভাবেই এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

ছুটির দিনে রাস্তায় চাপ কম থাকায় শিক্ষার্থীদের অবস্থানের কারণে যানবাহন চলাচলে বড় ধরনের সমস্যা হয়নি।

এদিকে বিক্ষোভ শেষে শিক্ষার্থীরা মিছিল নিয়ে রামপুরা ব্রিজ থেকে মেরুল বাড্ডার দিকে যাওয়ার সময় রাইদা পরিবহনের একটি বাস থামিয়ে কাগজপত্র পরীক্ষা করতে সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যকে আহ্বান জানান।

ওই পুলিশ সদস্য তখন গায়ে হাত তোলেন বলে অভিযোগ করেন স্থানীয় একটি কলেজের শিক্ষার্থী ইমন হোসেন নাঈম।

তিনি বলেন, “তিনি আমাকে ধাক্কা দিয়ে গলা চেপে ধরে বলেন, ‘তোকে রিমান্ডে নেব’। পরে আমার সহপাঠীরা প্রতিবাদ করলে তিনি সরে যান।”

তবে ঘটনাস্থলে উপস্থিত বাড্ডা থানার উপ পরিদর্শক রমজান আলী দাবি করেন, "কোনো শিক্ষার্থীকে ধাক্কা দেওয়া হয়নি। শিক্ষার্থীদের অভিযোগ সত্য নয়।"

এর আগে বৃহস্পতিবার পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে শিক্ষার্থীরা। পুলিশের ভাষ্য ছিল, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ‘বহিরাগতরা ঢুকে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে’ বলে তাদের কাছে খবর আছে।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি সোহাগী সামিয়া বলেন, “আমাদের ভেতরে যদি কোনো বহিরাগত ঢোকে, তারা যদি রাজনৈতিক সুবিধা নিতে চায়, তাহলে আমাদের নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব পুলিশের। আমাদের যৌক্তিক দাবিতে বাধা দেওয়ার অধিকার নাই।"

সরকার বাসের ভাড়া বাড়ানোর পর থেকে শিক্ষার্থীরা আগের মত অর্ধেক ভাড়া দেওয়ার দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। প্রতিদিনই তারা বিভিন্ন এলাকায় সড়ক আটকে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে।

এর মধ্যে ২৪ নভেম্বর সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের এক শিক্ষার্থী এবং সোমবার রাতে রামপুরায় বাসের চাপায় এক এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত হওয়ায় আন্দোলন নতুন মাত্রা পায়।

ঢাকা পরিবহন মালিক সমিতি মঙ্গলবার সকালে সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষার্থীদের ‘হাফ’ ভাড়ার দাবি মেনে নেওয়ার ঘোষণা দেয়। কিন্তু বিকালে তা প্রত্যাখ্যান করে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন নয় দফা দাবিতে আন্দোলনে থাকা শিক্ষার্থীদের একটি দল।

তাদের দাবি, কেবল ঢাকা মহানগরে নয়, ‘হাফ’ ভাড়া চালু করতে হবে সারা দেশে এবং সকাল ৭টা থেকে রাত ৮টার বদলে তা হতে হবে ২৪ ঘণ্টার জন্য।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক