নিম্ন আদালতে জমা কাজলের জামিননামা, শুক্রবার মুক্তির আশা

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের তিন মামলায় আলোকচিত্র সাংবাদিক শফিকুল ইসলাম কাজলের জামিননামা নিম্ন আদালতে দাখিল করা হয়েছে।

আদালত প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 24 Dec 2020, 05:47 PM
Updated : 24 Dec 2020, 05:47 PM

আর কোনো মামলা না থাকায়তিনি শুক্রবারই কারাগার থেকে মুক্তি পেতে পারেন বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী জায়েদুররহমান।   

এই আইনজীবী বৃহস্পতিবারবিকেলে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের সংশ্লিষ্ট শাখায় জামিননামা জমা দেন।

এ সময় তিনি আদালতপাড়ারসাংবাদিকদের বলেন, “আজ সাংবাদিক কাজলের জামিননামা আদালতে জমা দেওয়া হয়েছে। আশা করছি,আগামীকাল তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পাবেন। উচ্চ আদালতের আদেশ পেতে দেরি হওয়ায় জামিননামাসাবমিট করতে দেরি হয়েছে।”

গত ২৪ নভেম্বর শেরেবাংলানগর থানার ডিজিটাল নিরাপত্তা মামলায় কাজলকে জামিন দেয় হাই কোর্ট। এই মামলায় কাজলকেকেন জামিন দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছিল হাই কোর্ট।

এরপর গত ১৭ ডিসেম্বরবিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের ভার্চুয়াল হাই কোর্টবেঞ্চ হাজারীবাগ ও কামরাঙ্গীরচর থানার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের দুই মামলায় কাজলের জামিনমঞ্জুর করেন।

যুব মহিলা লীগের নেত্রীশামীমা নূর পাপিয়ার ওয়েস্টিন হোটেলকেন্দ্রিক কারবারে ‘জড়িতদের’ নিয়ে একটি প্রতিবেদনপ্রকাশিত হলে গত ৯ মার্চ ঢাকার শেরেবাংলা নগর থানায় মানবজমিনের প্রধান সম্পাদক মতিউররহমান চৌধুরীসহ ৩২ জনের বিরুদ্ধে শেরে বাংলানগর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলাকরেন মাগুরা-১ আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য সাইফুজ্জামান শিখর।

ওই মামলা হওয়ার পরদিনআসামির তালিকায় থাকা শফিকুল ইসলাম কাজল  প্রায়দুই মাস নিখোঁজ ছিলেন। পরে গত ২ মে যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেবিজিবি।

এর মধ্যে ১০ ও ১১ মার্চরাজধানীর হাজারীবাগ ও কামরাঙ্গীরচর থানায় কাজলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আরওদুটি মামলা হয়।

বিজিবির হাতে আটক হওয়ারপর অনুপ্রবেশের অভিযোগে মামলা হয় কাজলের বিরুদ্ধে। পরে ওই মামলায় জামিন হলেও ডিজিটালনিরাপত্তা আইনের মামলায় কারাগারে থাকতে হয় তাকে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক