র‌্যাগিং: বুয়েটের আরও ১৪ ছাত্রের শাস্তি

আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের পর আন্দোলনের মুখে র‌্যাগিংয়ে জড়িত আরও ১৪ শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নিয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) কর্তৃপক্ষ।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 5 Dec 2019, 03:46 PM
Updated : 5 Dec 2019, 03:47 PM

তিতুমীরহলের এসব আবাসিক শিক্ষার্থীর মধ্যে আটজনকে বিভিন্ন মেয়াদে একাডেমিক বহিষ্কারের পাশাপাশিহল থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবারবিশ্ববিদ্যালয়ের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়ে বলা হয়, সাম্প্রতিককালে সংঘটিত র‌্যাগিংয়েরঘটনায় জড়িতদের বিষয়ে গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এসেছে এ সিদ্ধান্ত।

বুয়েটেরশেরেবাংলা হলে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের নির্যাতনে গত ৬ অক্টোবর তড়িৎ কৌশল বিভাগেরদ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরারের মৃত্যু হলে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অচল হয়ে পড়ে বুয়েট।তাদের দাবি মেনে বুয়েটে সাংগঠনিক রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হয়; পাশাপাশি নেওয়া হয় আরও কিছুউদ্যোগ।

শিক্ষার্থীদেরদাবির মুখে ২১ নভেম্বর আবরার হত্যার অভিযোগপত্রভুক্ত ২৫ জনসহ ২৬ জনকে বিশ্ববিদ্যালয়থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করে বুয়েট প্রশাসন।

এরপরবিভিন্ন সময় র‌্যাগিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে আরও ২৬ শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কারকরা হয় ২৭ নভেম্বর।

সর্বশেষবুধবার একাডেমিক কার্যক্রম থেকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার এবং তিতুমীর হল থেকে আজীবনেরজন্য মো. তানভীর হাসনাইন, মির্জা মোহাম্মদ গালিব, মো. জাহিদুল ইসলাম, মো. মুস্তাসিনমঈন, আসিফ মাহমুদ, মুনতাসির আহমেদ খান, মহিবুল্লাহ হক মুগ্ধ ও আনফালুর রহমানকে বহিষ্কারকরা হয়।

তাদেরসঙ্গে ছয় শিক্ষার্থীকে বিভিন্ন মেয়াদের জন্য হল থেকে বহিষ্কারের পাশাপাশি ভবিষ্যতেরজন্য সতর্ক করা হয়েছে।

তারাহলেন- মো. জাহিদুল ইসলাম, জিহাদুর রহমান, মো. এহসানুল সাদ, আবিদ–উল কামাল, মোহাম্মদসায়াদ ও মাহমাদুল হাসান রবিন।

এছাড়াহাসিবুল ইসলাম নামে এক শিক্ষার্থীকে ভবিষ্যতের জন্য সতর্ক করা হয়েছে বলে উল্লেখ করাহয় বিজ্ঞপ্তিতে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক