জাদুঘরে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন গ্যালারি উদ্বোধন

জাতীয় জাদুঘরে উদ্বোধন করা হয়েছে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন গ্যালারি।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 29 Oct 2016, 02:33 PM
Updated : 29 Oct 2016, 02:33 PM

জাদুঘরের তৃতীয় তলার ৩৫ নম্বর গ্যালারিটিকে সংস্কার কাজের পর শিল্পাচার্যের নামে গ্যালারিটির নামকরণ করা হয়।

শনিবার বিকালে এই গ্যালারির উদ্বোধন করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের সেরা চিত্রকর্মগুলোর অনেকগুলোই ছিল জাদুঘরের এই ৩৫ নম্বর গ্যালারিতে; দর্শনার্থীদের পাশাপাশি চারুশিক্ষার্থীদের নিয়মিত আসা-যাওয়া ছিল সেখানে।

সংস্কার কাজের পর নতুন সাজে গ্যালারিতে জয়নুলের ৪৭টি চিত্রকর্ম, শিল্পাচার্যের ব্যবহার করা বিভিন্ন সরঞ্জামের সঙ্গে রাখা হয়েছে তার জীবনকর্ম নিয়ে ভিডিও ইলাস্ট্রেশন।

উদ্বোধনীর সংক্ষিপ্ত আলোচনা পর্বে অর্থমন্ত্রীর পাশাপাশি অতিথি হিসেবে সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর ও রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা বক্তব্য রাখেন। 

জাদুঘরের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান শিল্পী হাশেম খানের সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরী।

অর্থমন্ত্রী বলেন, “১৯৪৯ সালে জয়নুল আবেদিনের সঙ্গে পরিচয় আমার, যত সময় গড়িয়েছে তা ততই মুগ্ধতা ছড়িয়েছে।”

শিল্পাচার্যের সৃষ্টিকর্মকে ধরে রাখতে শিল্পকলা একাডেমিতেও একটি জয়নুল গ্যালারি নির্মাণের ঘোষণা দেন তিনি।

সংস্কৃতিমন্ত্রী শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালাকে আরও ‘পূর্ণাঙ্গভাবে’ তৈরি করার পাশাপাশি জাতীয় জাদুঘরের জন্য বিদেশ থেকে কিউরেটর আনার আহ্বান জানান।

রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা বলেন, “শিল্পবোদ্ধা ও শিল্পরসিকদের জন্য এ গ্যালারি বড় পাওয়া। তৃণমূল মানুষের কাছে জয়নুলকে ছড়িয়ে দিতে এ গ্যালারি কার্যকর ভূমিকা রাখবে।”

নবনির্মিত জয়নুল গ্যালারির ঢুকতেই দর্শনার্থীদের চোখে পড়বে, সত্তরের জলোচ্ছ্বাসে নিহত মানুষের ছবি ‘মনপুরা ৭০’; ছবিটির জন্য গ্যালারির কেন্দ্রভাগে একটি বৃত্ত তৈরি করা হয়েছে, তারপর ছাদ থেকে ওই বৃত্তের ভেতর ঝোলানা হয়েছে।

এর চারপাশকে চারভাগে ভাগ করে শিল্পাচার্যের ছবিগুলো সাজানো হয়েছে। এর মধ্যে ‘উন্মেষ’, ‘ঋজু জয়নুল’, ‘নতুন আঙ্গিক’ এবং ‘জনগণের শিক্ষক’ রয়েছে।

তেতাল্লিশের দুর্ভিক্ষের ওপর আঁকা ছবিগুলোকেও যথাযোগ্যভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে। এর পাশাপাশি শিল্পাচার্যের শিল্পী জীবনের ধারাবাহিক বিবর্তন রয়েছে গ্যালারিটিতে।

জাদুঘর কর্তৃপক্ষ জানায়, ছবিগুলোকে কাঁচের আড়ালে পাঁচস্তর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সে সঙ্গে এমন আলোকসম্পাত করা হয়েছে, যা আর্কাইভ্যাল ম্যাটেরিয়ালকে ক্ষতিগ্রস্ত করে না।

গ্যালারিটির নতুন সাজের বিষয়টি ‌‘কিউরেট’ করেছে দৃক এবং সহযোগিতা করেছে আইএফআইসি ব্যাংক।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক