জঙ্গিবিরোধী কমিটিতে সবার প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিতে ডিসিদের নির্দেশ

গুলশান ও শোলাকিয়ায় হামলার পর তৃণমূল পর্যায়ে জঙ্গিবাদবিরোধী কমিটিগুলোকে সক্রিয় করার যে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, তাতে সব স্তরের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে জেলা প্রশাসকদের নির্দেশ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 26 July 2016, 01:39 PM
Updated : 26 July 2016, 01:39 PM

জেলা প্রশাসক সম্মেলনের প্রথম দিন মঙ্গলবার জেলা পর্যায়ের নির্বাহী কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে এই নির্দেশ দেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উদ্বোধনের পর সম্মেলনের প্রথম দিন স্বরাষ্ট্র ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কার্য অধিবেশন হয়।

জেলা প্রশাসকদের কী নির্দেশনা দিয়েছেন- সাংবাদিকদের প্রশ্নে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “প্রতিটি জেলা সদর থেকে ইউনিয়ন পর্য‌ন্ত সন্ত্রাসবিরোধী যে সংগঠনগুলো (কমিটি) তৈরি করছেন, সেগুলো যেন সমাজের সর্বস্তরের মানুষদের নিয়ে করা হয় এবং কীভাবে করা হচ্ছে সেটা যেন সব সময় মনিটরং করা হয়।”

গুলশান হামলার পর প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নানা নির্দেশনা দিয়েছেন। একই নির্দেশনা পুনরায় দেওয়া হয়েছে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

“জেলা প্রশাসকরা এটা করার জন্য প্রস্তুত আছেন এবং তারা এ বিষয়ে আগেই নির্দেশনা পেয়ে কাজ শুরু করেছেন।”

জেলা প্রশাসকরা তাদের কী ধরনের সমস্যার কথা জানিয়েছে- জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান কামাল বলেন, “যেসব স্থানে পুলিশের ব্যারাক দিতে পারিনি, ঘর করতে পারিনি, সেগুলো বলেছে। অন্যান্য বিষয়ে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী ভালো কাজ করছে তার প্রশংসা করেছে।”

মুক্তিযুদ্ধবিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজ্জামেল হক সাংবাদিকদের বলেন, “স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সফলভাবে জঙ্গি দমন করতে সক্ষম হয়েছে, কেন পেরেছে কারণ জনগন এই সমস্ত খবর সরবরাহ করেছে এবং জনগণ সম্পৃক্ত বলেই সম্ভব হচ্ছে।”

কার্যঅধিবেশন বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আগামী দুই মাসের মধ্যে স্বীকৃত ও সঠিক মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। সারাদেশে মুক্তিযুদ্ধকালে সম্মুখ যুদ্ধের স্থান ও বধ্যভূমিতে স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হবে। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ জালিয়াতি প্রতিরোধে ৮ ধরনের বারকোড সম্বলিত সনদ প্রবর্তনের ব্যবস্থা করা হবে।

মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নিয়ে মঙ্গলবার জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলন শুরু হয়। চার দিনের এই সম্মেলনে এবার ১৮টি কার্য-অধিবেশনে ৩৩৬টি প্রস্তাবের উপর আলোচনা হওয়ার কথা রয়েছে।

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক