চালু হয়নি ঢাবি ওয়েবসাইট, হ্যাকারের বিরুদ্ধে মামলা

হ্যাকারদের কবলে পড়ার পর এক দিন পেরিয়ে গেলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট চালু পারেনি কর্তৃপক্ষ; মামলা হলেও কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

নিজস্ব প্রতিবেদকবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 11 Sept 2015, 03:34 PM
Updated : 11 Sept 2015, 03:34 PM

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষায় ভ্যাট আরোপ নিয়ে ‘চুপ’ কেন- এই প্রশ্ন তুলে বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট ‘হ্যাক’ করা হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে ঢুকে দেখা যায়, প্রচ্ছদে নিজেদের নোটিস টাঙিয়ে দিয়েছে হ্যাকাররা। ওপরে লেখা হয়েছে- ‘হ্যাকড বাই সাইবার ৭১’।

আর শুক্রবার রাতে ওয়েবসাইটে লেখা দেখা যায়- ‘ওয়েবসাইট আন্ডার মেইনটেনেন্স মুড’।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব মাস্টার মোসতাক আহমেদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এখনও ঠিক করা সম্ভব হয়নি। তবে আগামীকালের (শনিবার) মধ্যে এটা ঠিক হয়ে যাবে আশা করি।”

তিনি জানান, ওয়েবসাইটের তথ্যের কোনো ক্ষতি হয়নি। হ্যাকাররা শুধু প্রচ্ছদপৃষ্ঠা বদলে তাদের নোটিস টাঙিয়ে দিয়েছিল।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই শাহবাগ থানায় একটি মামলা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে গোয়েন্দা পুলিশকে। 

মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে শাহবাগ থানার ওসি আবু বকর সিদ্দিক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট যারা হ্যাক করেছে, তাদের চিহ্নিত করা হয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।”

শনিবার থেকে মামলাটি ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) তত্ত্বাবধানে যাবে বলে জানান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক আমজাদ আলী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “যে হ্যাক করেছে তাকে ইতোমধ্যে চিহ্নিত করা হয়েছে। কিন্তু পুরো ঠিকানা না পাওয়ায় তাকে এখনো গ্রেপ্তার সম্ভব হয়নি।”

পুলিশের তদন্তের স্বার্থে তার নাম প্রকাশ করতে রাজি হননি অধ্যাপক আমজাদ। তবে এর পেছনের মূল ব্যক্তি হিসেবে ‘সাইবার ৭১’ এর একজন অ্যাডমিনের নাম ঘুরছে ফেইসবুকে।

প্রক্টর বলেন, “হ্যাক করার পর তিনবার তিন ধরনের নোটিস ওয়েবসাইটে দিয়েছে হ্যাকার। তার ‘স্ক্রিনশট’ সে ফেইসবুকেও দিয়েছে। সেটি দেখেই শিক্ষার্থীরা আমাদের জানিয়েছে।”

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক