‘মেহমান পরিচয় দিয়ে বাঁচি বিদ্রোহীদের হাত থেকে’

পরিচয় গোপন করে মেহমান পরিচয় দেওয়ার কারণে বিদ্রোহীদের হাত ধেকে বেঁচে যান মেজর আলমগীর হোসেন দেওয়ান।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 8 Dec 2011, 09:13 AM
Updated : 8 Dec 2011, 09:13 AM
ঢাকা, ডিসেম্বর ০৮ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)- পরিচয় গোপন করে মেহমান পরিচয় দেওয়ার কারণে বিদ্রোহীদের হাত ধেকে বেঁচে যান মেজর আলমগীর হোসেন দেওয়ান।
পিলখানা হত্যামামলায় বৃহস্পতিবার আদালতে সাক্ষী হিসাবে জাবানবন্দি দিতে গিয়ে বেঁচে যাওয়ার বর্ণনা দেন তিনি।
মেজর আলমগীর বলেন, “দরবার হলে গণ্ডগোল শুরু হলে এক সুবেদার আমাকে ধাক্কা দিয়ে চলে যেতে বলে। পরে সেখান থেকে বের হয়ে ঢাকা সেক্টর কার্যালয় চলে যাই, সেখান থেকে বাসায়।
“বাসায় বিদ্রোহীরা ঢুকে পরিচয় জনতে চায়। তখন আমি নিজেকে মেহমান বলে পরিচয় দিই।”
এরপর বিদ্রোহীরা মেজর আলমগীরসহ বাসার সাবাইকে সেন্ট্রাল কোয়াটার গার্ডে নিয়ে আটকে রাখে। বিদ্রাহ শুরুর পর দিন ২৬ ফেব্র“য়ারি (২০০৯) অন্যদের সঙ্গে তারাও মুক্তি পান।
ঢাকার আলীয়া মাদ্রাসা সংলগ্ন মাঠে ঢাকার জজ আদালতের বিশেষ এজলাসে বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত আদালতের কার্যক্রম চলে।
পরে মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক জহুরুল হক ১১ ডিসেম্বর সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত মুলতবি করেন।
আদালতে শুরুতেই সাক্ষী লেফটেন্যান্ট কর্নেল মাকসুদুল হককে জেরা করেন আসামী পক্ষের আইনজীবী এবং আসামি বিডিআর সদস্য মির্জা হাবিবুর রহমান। এরপর মেজর আলমগীর জবানবন্দি দেন।
বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম/এলএইচ/এমআই/২১১০ ঘ.
তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক