স্বাধীনতা সুবর্ণ জয়ন্তীতে অর্ধশত নারী কবির কণ্ঠস্বর

শান্তা মারিয়াশান্তা মারিয়া
Published : 2 July 2022, 07:54 AM
Updated : 2 July 2022, 07:54 AM


অ্যারাইজ আউট অব দ্য লক
কবির জেন্ডার কি কবিতার জন্য ভিন্ন কোন মাত্রা বয়ে আনে? যে কোন শিল্পের মতো কবিতাও কি জেন্ডার নিরপেক্ষ নয়? কবি কি অর্ধনারীশ্বর হয়ে ওঠেন না যখন তিনি সৃষ্টি করেন ঋক? আচ্ছা, এ আলোচনা আপাতত মুলতুবী রেখে হাতে তুলে নেই সম্প্রতি প্রকাশিত একটি বই। 'অ্যারাইজ আউট অব দ্য লক' নামে বইটিতে ৫০ জন বাংলাদেশী নারী কবির কবিতার ইংরেজি অনুবাদ সংকলিত হয়েছে। নিঃসন্দেহে সমকালীন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকাশনা এটি। বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এই সুপরিকল্পিত প্রকাশনার তাৎপর্য অবশ্যই ব্যাপক।

এখানে সুফিয়া কামাল(১৯১১-১৯৯৯) থেকে শুরু করে শ্বেতা শতাব্দী এষ(১৯৯২)এর মতো নবীনতম কবির কবিতাও স্থান পেয়েছে। ফলে গত পঞ্চাশ ষাট বছরে বাংলাদেশের কবিতার নারী কণ্ঠস্বরকে চিনে নেয়া যাচ্ছে। অভিনন্দনযোগ্য এবং উল্লেখ করার মতো কাজটি করেছেন আমাদের দেশের বিখ্যাত লেখক, সমালোচক ও অনুবাদক আলম খোরশেদ এবং হায়দ্রাবাদনিবাসী ভারতের প্রখ্যাত কবি, অনুবাদক ও সাহিত্যের শিক্ষক নবীনা দাস। বইটিতে নবীনা দাশের ভূমিকা এবং ঢাকা লিট ফেস্টের পরিচালক কবি সাদাফ সিদ্দিকীর মুখবন্ধ যোগ করেছে ভিন্ন মাত্রা।

প্রথমেই দেখা যাক এই ৫০ জন নারী কবির নাম। সুফিয়া কামাল, খালেদা এদিব চৌধুরী, আনোয়ারা সৈয়দ হক, ফরিদা মজিদ, মেহেরুন্নেসা, জিনাত আরা রফিক, সুরাইয়া খানম, রুবি রহমান, কাজী রোজী, জরিনা আখতার, শামীম আজাদ, নাসরীন নঈম, দিলারা হাফিজ, অঞ্জনা সাহা, নুরুন্নাহার শিরীন, নাসিমা সুলতানা, শাহজাদি আনজুমান আরা, ঝর্না রহমান, তসলিমা নাসরিন, রহিমা আখতার কল্পনা, ফেরদৌস নাহার, বিলোরা চৌধুরি, শাহনাজ নাসরীন, কচি রেজা, লিসা গাজী, শাহনাজ মুন্নি, শেলী নাজ, নাহার মনিকা, আয়শা ঝর্না, শান্তা মারিয়া, মেঘ অদিতি, মণিকা চক্রবর্তী, অলকা নন্দিতা, ফারহানা রহমান, জুনান নাশিত, নাহিদা আশরাফী, অদিতি ফাল্গুনী, রহিমা আফরোজ মুন্নি, নভেরা হোসেন, জাহানারা পারভীন, শাকিরা পারভীন, সাবেরা তাবাসসুম, আসমা বীথি, নীতু পূর্ণা, আসমা অধরা, আফরোজা সোমা, রিমঝিম আহমেদ, শাফিনূর শাফিন, মাহি ফ্লোরা এবং শ্বেতা শতাব্দী এষ। শেষ প্রচ্ছদে মন্তব্য লিখেছেন বিশিষ্ট অনুবাদক ও প্রকাশক ডেবোরাহ স্মিথ এবং কবি ও অনুবাদক বিবেক নারায়ণন।

প্রত্যেক কবির দুটি করে কবিতার ইংরেজি অনুবাদ রয়েছে বইতে। প্রত্যেক কবির সংক্ষিপ্ত পরিচিতিও রয়েছে। কবিতাগুলোর অনুবাদ করেছেন নবীনা দাস। আর সার্বিক সম্পাদনা করেছেন আলম খোরশেদ।


অনুবাদ সবসময়েই সাহিত্যিক আদান প্রদানের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কাজ। বিশ্বের অনেক গুণী লেখকের লেখা বাংলায় অনুবাদ হয়। কিন্তু বাংলাভাষায় লেখা সাহিত্য অন্য ভাষায় অনুবাদ হয় তুলনামূলকভাবে কম। ব্যক্তি উদ্যোগে কোন কোন কবি হয়তো নিজের কবিতা অন্যভাষায় অনুবাদে প্রয়াসী হন। কিন্তু এইভাবে ব্যাপক পরিসরে ৫০জন কবির কবিতার অনুবাদ চমকপ্রদ ঘটনা নিঃসন্দেহে। সম্পাদক আলম খোরশেদের এই কাজ বাংলা সাহিত্যকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার ক্ষেত্রে একটি মাইল ফলক হিসেবে বিবেচিত হওয়ার দাবি রাখে। অনুবাদক নবীনা দাসও প্রশংসার অধিকারী। অত্যন্ত যত্ন নিয়ে মূল লেখার সৌরভ অক্ষুণ্ন রেখে এই বিপুল শ্রমসাধ্য কাজ করেছেন তিনি। আর কে না জানে, কবিতার অনুবাদ হলো যাবতীয় অনুবাদ কর্মের মধ্যে কঠিনতম।

গত ষাট সত্তর বছরে বাংলাদেশের সমাজ জীবনে বিপুল পরিবর্তন এসেছে। ১৯৫২র ভাষা আন্দোলন, ১৯৬৯ এর গণ অভ্যুত্থান, ১৯৭১ এর মহান মুক্তিযুদ্ধ আমাদের রাষ্ট্রীয় ও সমাজ জীবনকে আমূল পরিবর্তিত করেছে। স্বাধীনতা পরবর্তিকালে স্বাধীন বাংলাদেশের কবিদের কণ্ঠস্বরে ফুটে উঠেছে নতুন সমাজের ডাক। আশির দশকের কবিদের কাব্যভাবনাতেও প্রতিফলিত হয়েছে মূল্যবোধের পরিবর্তন ও দোলাচল। সোভিয়েতের পতনের পর আদর্শিক ক্ষেত্রে সারা বিশ্বেই এক বিপুল পরিবর্তন ও ওলটপালট লক্ষ্য করা যায়, যার ছাপ পড়ে লেখায়। নব্বই দশকে বাংলাদেশের কবিদের লেখাও তার ব্যতিক্রম নয়। নতুন শতকে কবিরা নতুন জীবন দর্শন নিয়ে ভেবেছেন, লিখেছেন, লিখছেন।
কাব্য সংকলন এই কাল পরিক্রমাকে তুলে ধরে। সেই সঙ্গে নারীর অন্তর-জীবনের পরিবর্তন, নতুন চোখে বিশ্ব দেখার বিষয়গুলো তো রয়েছেই। সবমিলিয়ে এই বই সমকালীন প্রকাশনায় যেমন গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ তেমনি আগামি দিনেও কালের সাক্ষী হিসেবে বিবেচিত হবে।

বাংলাদেশের কিংবদন্তিসম ভাস্কর নভেরা আহমেদের ভাস্কর্য অবলম্বনে প্রচ্ছদ অত্যন্ত রুচিশীলতার পরিচায়ক। বালেসটিয়ের প্রেস, সেনচুরিয়ন হাউজ, লন্ডন থেকে প্রকাশিত বইটি আন্তর্জাতিকভাবে বাংলা কবিতাকে পৌঁছে দেয়ার গুরুদায়িত্ব পালন করছে। সংগ্রহে রাখার মতো এই বইটি পাঠককে উপহার দেয়ায় বিশিষ্ট লেখক ও সম্পাদক আলম খোরশেদকে ধন্যবাদ জানাতেই হয়। বইটি প্রকাশ হয়েছে ২০২২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি।
উৎসুক পাঠকের জন্য আমাজনের লিংকটিও যোগ করলাম।
…https://balestier.com/…/liter…/arise-out-of-the-lock/..

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক