আর্টস-এর দু বছরকিছু বাছাই লেখা

admin
Published : 18 Oct 2009, 02:33 PM
Updated : 18 Oct 2009, 02:33 PM

[আর্টস-এর প্রকাশনা শুরু হয় ২০০৭ সালের ১৮ অক্টোবর। সে অনুসারে আজ ১৮ অক্টোবর ২০০৯-এ আর্টস-এর ২ বছর পূর্ণ হলো। এই ২৪ মাসে আর্টস-এ যে সব লেখা প্রকাশিত হয়েছে তা থেকে ৩০টি রচনার লিংক এখানে সন্নিবেশ হলো। প্রায় দৈবচয়ন পদ্ধতিতে এ বাছাই। কেউ পুরনো কোনো লেখায় হয়তো আগ্রহী হয়ে উঠবেন এমন আশায়ই এ উপস্থাপন। বি. স.]

রচনার পটভূমি
'রামপ্রসাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনাপূর্বক' কবিতা রচনার পটভূমি
নির্মলেন্দু গুণ । ১৮ অক্টোবর ২০০৭

[…] রামপ্রসাদের গান আমাদের এলাকায় খুব প্রচলিত ছিলো। আমার বাবাও রামপ্রসাদের গান গাইতেন।… জগা সাধুর আশ্রমে রামপ্রসাদের গান শুনতে শুনতে হঠাৎ একদিন আমার মনে হলো, এই লোকসুরে আমি যদি কিছু গান লিখি, তো মন্দ হয় না। সাহিত্যের খুব উপকার না হলেও তাতে আমার অন্তর শান্ত হবে। তখন আমি রামপ্রসাদী সুরে কয়েকটি গান লিখি। শুধু রামপ্রসাদী সুরে নয়, রবীন্দ্রসঙ্গীতের সুরেও তখন আমি কিছু গান বেঁধেছিলাম। […]

সাক্ষাৎকার
ফয়েজ আহ্‌মদের সঙ্গে আলাপ
ব্রাত্য রাইসু । ১৮ অক্টোবর ২০০৭

[…] ওরা ঢাকায় আইসা যখন ফুর্তি করে আর গুলশানে বড় দোকানে খায় যখন পোলাপাইনে তখন কৃষকরা ওইখানে মঙ্গায় মারা যায়। এই হইল খবরটা। এখন আমি কইলাম, লোকগুলি কী রকম তোমাদের দেশের যে তারা এই প্রতিরোধ আর করে না। আজকা পঞ্চাশ বছর যাবৎ এই-ই শুনতেছি-মঙ্গা! মঙ্গা! এই ছেলে। ছেলে চটপটে ছেলে, ওইজন্যই জিগ্যেস করছিলাম। তো কয় যে আমাদের দেশে অনেকগুলি ভাগ আছে। এই জমি যেমন আমাদের একটাও না। আমি থাকি চরের ছাপড়ায়। ধান বানবো-টানবো, দিয়া আসবো, কিছু পাবো। খাইয়া-টাইয়া নয় মাস চলে। আর তিন মাস চলে না। […]

আল মাহমুদ ও জয় গোস্বামীর সঙ্গে আলাপ
ব্রাত্য রাইসু | ১৫ নভেম্বর ২০০৭

[…] মাহমুদ : আর আমার কাছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় হলো নারী। এবং এটা অকপটে বলা উচিত।/জয় : এবং সেটা সৌন্দর্য। আপনার কাছে নারী মানে সৌন্দর্য।/রাইসু : মাহমুদ ভাই কি স্বীকার করেন কিনা যে নারী মানেই সৌন্দর্য?/মাহমুদ : না, নারী মানে সৌন্দর্য এটা আমি বলি না। কিন্তু নারী আকর্ষণ করে।/
জয় : না, আমি বলছি কবিতায় এই যে নারীর উদ্দীপনা আপনার মধ্যে যা তৈরি করে তা দিয়ে যে কবিতাটা লেখেন সেটা একটা সৌন্দর্যের উপাসনা।/রাইসু : আল মাহমুদ কী বলতে চাচ্ছেন, সাবজেক্ট হিসাবে নারী না উদ্দীপনার জন্যে নারী? মাহমুদ ভাই কোনটা বলছেন?/মাহমুদ : দুইটাই মিলে মিশে থাকে অবশ্য। […]

[…] তিনি অকৃতদার ছিলেন। খুব ভালো রান্না করতে পারতেন। পারতেন ভালো দাবা খেলতে। সব সময় পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত থাকতেন। অন্যদের পড়ার জন্য নিজের লাইব্রেরি থেকে বই বের করে দিতেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ভালো শিক্ষক সংগ্রহ করা ছিল তাঁর কাজের অন্যতম অংশ। আবার তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি পড়াতেন না। "রাজ্জাক স্যারের কল্লা চাই" বলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মিছিলও হয়েছে। আবার তিনি এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয় অধ্যাপকও হয়েছিলেন। […]

প্রত্নতত্ত্ব
যে কারণে প্রত্নসম্পদ বিদেশ পাঠানোয় বিরোধিতা
শামসুজ্জামান খান । ৪ ফেব্রুয়ারি ২০০৮

[…] বাংলাদেশের প্রত্নসম্পদ সুরক্ষার জন্য মিশরের মতো প্রত্নসম্পদ সুরক্ষা ও তদসংক্রান্ত যাবতীয় কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য একটি সর্বোচ্চ পরিষদ বা জাতীয় কমিশন গঠন করতে হবে। এ সংস্থা হবে স্বশাসিত ও সরকারী নিয়ন্ত্রণমুক্ত। এই সংস্থার প্রথম কাজ হবে একটি নতুন প্রত্নসম্পদ সুরক্ষা নীতিমালা এবং ১৯৬৮ সালের আইনের দুর্বলতা দূর করে একটি নতুন আইন প্রনয়ন করে পার্লামেন্টে পাশ করানো। […]

স্মৃতি
শিক্ষক হুমায়ুন আজাদ, যখন আমি তাঁর ছাত্র
চঞ্চল আশরাফ । ২৫ অক্টোবর ২০০৭

[…] বাংলা বিভাগের করিডোরে দাঁড়িয়ে সিগারেট টানছিলাম। হুমায়ুন আজাদকে আসতে দেখে আমি সিগারেটটা ফেলে জুতা দিয়ে চেপে রাখলাম। উনি কাছে এসে জিগ্যেস করলেন, 'তুমি কি বাংলা বিভাগের ছাত্র?' বললাম, 'হ্যাঁ'। 'সবাই জ্বি বলে, তোমার কি হ্যাঁ বলার অভ্যাস? ভালো। কিন্তু সিগারেট ফেলে দিলে কেন?' আমি চুপ। উনি বললেন, 'নিশ্চয়ই বাবার টাকায় খাও। কিন্তু সিগারেট খাওয়ার সঙ্গে শ্রদ্ধার কোনও সম্পর্ক নেই, যেমন নেই পান খাওয়ার সঙ্গে। বুঝেছ?' বলেই হাঁটা, ডিপার্টমেন্ট অফিসের দিকে। […]

বিচিত্র
সালভাদর দালি: গোঁফ দিয়ে কথা বলা
সুমন রহমান | ১ নভেম্বর ২০০৭

[…] সালভাদর দালি। চিত্রশিল্পী এবং সেলিব্রিটি। কেউ বলেন, আগে সেলিব্রিটি এবং পরে চিত্রশিল্পী! মজার বিষয় হল, দ্বিতীয় মতাবলম্বী যারা তাদের পুরোভাগে দালি স্বয়ং। তিনি একদিন কথাচ্ছলে বলছিলেন, 'সামারে অনেক আমেরিকান ট্যুরিস্ট আমায় দেখতে আসে। তারা কি আমার ছবি দেখতে আসে? মোটেও না! তাদের সবার আগ্রহ আমার গোঁফের ব্যাপারে। মহৎ চিত্রকলার দরকার নাই পাবলিকের, দরকার খালি একটা জম্পেশ গোঁফ।' […]

কবিতা
ছুটপালক
সব্যসাচী সান্যাল । ১৩ ডিসেম্বর ২০০৭


[…] আমি এখন ছবি নিয়ে ভাবছি
সংজ্ঞা নিয়েও
মনে রাখবেন বিরতি যেহেতু নেই
বিরতির সংজ্ঞার ভেতরে বসেই এই এত ভাবাভাবি

–ভাবছি শুধু সোরেন নন
ছবি মাত্রেই নিশ্চিত নিরাপত্তাভিলাষী […]

রাঙামাটি (একটি ভ্রমণ কাহিনি)
ইমরুল হাসান । ১১ সেপ্টেম্বর ২০০৯
[…]
বাস থেকে নামি।
বাসের ভিতর বসে থেকে
পাহাড় দেখতে দেখতে
পেয়ারা খেতে খেতে
এই এতদূর এসেছি, রাঙামাটিতে।

হাঁটু জড়োসড়ো বসে থাকা শেষ।
নিজ পায়ে দাঁড়ালাম, ভূ-মণ্ডলে, পাকা রাস্তার উপর।
রিজার্ভ বাজারের আগে পড়েছি নেমে
দুপুর ১২ টার আগে।

বাস থেকে নেমে গিয়ে আমরা খুশি,
রাঙামাটিতে এসেছি, তাহলে!
[…]

অনুবাদ কবিতা
আরবি কবিতা
সুব্রত অগাস্টিন গোমেজ | ১ জানুয়ারি ২০০৯

[…] লাতিন আমেরিকার কবিতার সঙ্গে আধুনিক আরবি কবিতার একটা বিশেষ মিল আমার নজরে পড়ে। উভয়েরই প্রধান প্রণোদনা রাজনৈতিক — এবং, তা-সত্ত্বেও, তারা অধিকাংশ সময়েই, বাংলাদেশের (ধরা যাক) সত্তরের গরিষ্ঠাংশ কবিতার মতো, চিৎকারসর্বস্ব স্লোগানের ভুসিমালে পর্যবসিত হয় নি। আরবের চামড়ার নীচে তেল নয়, কবিতা প্রবাহিত হয় — এমন কথা কবি নিজার কাব্বানি বলেছিলেন একদা, কবি-বন্ধু রাজু আলাউদ্দিন-এর একটা অনুবাদে দেখেছিলাম যেন। আমি পরে যত পড়েছি আরবি কবিতা, তত এই কথাকে সত্য হ'য়ে উঠতে দেখেছি আমার সংবেদনে। এমনিতে বিশুদ্ধ রাজনৈতিক কবিতার, কবিতা হ'য়ে ওঠাটা প্রায় একটা ডিঙি নৌকায় ক'রে বসফরাস পেরোনোর শামিল… ট্র্যাপিজের মতো প্রায়, একচুল বাঁয়ে হেললে গলাবাজি, আর ডানে হেললে শিল্পবিলাস। […]

অনুবাদ গল্প
এনগুগি ওয়া থিওংগ্'ও-এর গল্প 'ফেরা'
অনুবাদ: শহীদুল জহির । ২৪ মে ২০০৮

[…] সে পাহাড়ের ওপর ওঠে এবং তারপর থামে। সমগ্র সমতলভূমি নিচে শুয়ে ছিল। তার সামনে ছিল নতুন গ্রাম — সারির পর সারি শক্ত মাটির কুঁড়েঘর, যেন দ্রুত বিলীয়মান সূর্যের নিচে ঘাপটি মেরে বসে রয়েছে। বিভিন্ন কুঁড়েঘর থেকে ঘননীল ধোঁয়া পাক খেয়ে উপর দিকে উঠে ঘন কুয়াশা তৈরি করে গ্রামের ওপর ভেসে ছিল। দূরে, গভীর রক্ত-লাল অস্তগামী সূর্য আঙুলের মত আলোর রশ্মি ছড়িয়ে দিচ্ছিল, যা প্রান্তের দিকে পাতলা হয়ে দূরবর্তী পাহাড় ঢেকে রাখা ধূসর কুয়াশার সঙ্গে মিশে যাচ্ছিল। […]

গল্প
সম্পর্ক
তারিক আল বান্না । ২ অক্টোবর ২০০৮
[…] কিন্তু সাইফুলে এইডা কী করলো? অর লেইগা আমি, হেমায়েতপুর থিকা ৮ জনের গ্রুপ অরে আইছে মারতে। আমার পুরান পরিচিত ডাবল মার্ডারের আসামী আব্বাসও আছিলো অগো লগে। একটানে জামার চাইর বুতাম ছিইড়া গেছে—অর লেইগা সিনা পাইতা দিয়া কইছি, যদি একদিনের লেইগাও বন্ধু মনে কইরা থাকছ তাইলে আমার কতা হোন, সাইফুলের গায়ে ফুলের টোক্কা দেওয়ার আগে আমার রক্ত ঝরবো। আব্বাস কয়—রফিক সর, তোর লগে কোনো কাইজ্জা না, কিন্তু অর হিসাব আলাদা, অরে ছাড়ন যাইবো না। বাইজান, আমি সরি নাই। অগো লগে কথা কওয়ার উসিলায় চার দোকানে বইয়া ১৬ টা ডাইল আনাইলাম এক পিচ্চিরে দিয়া, সাইফুলরে চোখের ইশারা করলাম। অয় চামে কাইটা পড়লো, আর আমি আব্বাসেরে বুজায়া হুনায়া আদর-টাদর কৈরা ফেরত পাডাইলাম।' […]

মঙ্গামনস্ক শরীরীমুদ্রা
ইমতিয়ার শামীম । ৬ ডিসেম্বর ২০০৭

[…] নিজের মৃত্যু সম্পর্কে রফিকের এরকম নিশ্চিত ঘোষণায় বাড়ির লোকজনের পরিকল্পনা নিমিষে ভেস্তে যায়। আর আবারও রফিকের মা আর ভাবীর কান্নাকাটির সুর উপচে উঠতে থাকে কণ্ঠনালীর গহ্বর ছাপিয়ে। রফিকের বাবা আয়াতুল কুরসি পড়তে থাকে দিশেহারার মতো। তখন হঠাৎ করেই সবার নজরে আসে রফিকও তার বাবার সঙ্গে গলা মিলিয়ে আয়াতুল কুরসি পড়ে চলেছে। রফিকের বাবার কণ্ঠ বুজে আসে, তখন সে তার স্বরের পাশে আরও একটি স্বরের অস্তিত্ব অনুভব করে, তার আয়াতুল কুরসি পড়া বন্ধ হয়ে যায় এবং সবাই শুনতে পায়, রফিক একা-একাই পড়ে চলেছে 'আয়াতুল কুরসি'। […]

উপন্যাস
লালঘর
ইচক দুয়েন্দে । ১৫ মে ২০০৮

[…] পুরুষদের সঙ্গ আমার ভালো লাগে না। যদিও আমি একজন পুরুষ।…মেয়েদের আমার অনেক অনেক বেশি মানুষ মনে হয়। তাদের হৃদয় আছে। তাদের মন আছে।…এই ঘরটায় এই এতগুলো মানুষের, পুরুষ মানুষের সঙ্গে থেকে আমার দমবন্ধ হয়ে আসছে। এরা সব্বাই আমার বনধু। হ্যাঁ এরা, এরা আমার বনধু। অসহ্য! অসহ্য! আমার ব্রিদিং প্রবলেম হচ্ছে।…এই ঠোলাগুলো ব্রুট। আমার বন্ধুরা ব্রুট। এদের কারো মধ্যেই প্রার্থিত কোমলতা নেই। এরা কেউ সভ্য নয়। […]

চলচ্চিত্র
অন্তরের নীলাভ আলো দিয়ে মুদ্রিত হোক নবীন ছবিমালা
নূরুল আলম আতিক । ২৯ নভেম্বর ২০০৭

[…] অলটারনেটিভ ছবি যতটা আমাদের দর্শকদের মূলস্রোত থেকে দূরবর্তী করেছে, বিদেশে প্রশংসিত বা বিদেশের পয়সায় নির্মিত ছবি আমাদের নৃতাত্ত্বিক ও রাজনৈতিক পরিচয়কে বিদেশীদের প্রয়োজনে ব্যবহৃত হতে দিয়েছে তারও চেয়ে বেশি। এটা এমন একটা গুলামগিরি যা দেশের অশ্লীল ছবির জোয়ারের চেয়েও বেশি প্রাণঘাতি। […]

জার্নাল
অর্থ এবং অনুভবশক্তি
হাসনাত আবদুল হাই । ১৫ জুন ২০০৮

[…] আমি ইংরেজী যতই পড়ি বা লিখি না কেন বাংলা আমার মাতৃভাষা হওয়ায় এবং এই ভাষাতেই দৈনন্দিনের যোগাযোগ সম্পন্ন হওয়ার কারণে আমার অনুভব শক্তি বাংলাভাষার ব্যবহার এবং বাঙালীর সংস্কৃতি অর্থাৎ জীবন-যাপনের সঙ্গে ওৎপ্রোতভাবে জড়িত। আমি ইংরেজী অথবা কোনো বিদেশী শব্দের অনুদিত বাংলা অর্থকে বাঙালী হিসেবে আমার অনুভবের প্রক্রিয়ার মধ্যে নিয়ে প্রচলিত ইংরেজীর তুলনায় ভিন্ন অর্থ এনে দাঁড় করাই। […]

[…] হিন্দু সমাজে জন্ম ও বিকাশ বলে মুসলিম ঐতিহ্যের অনেক কিছুকে রবীন্দ্রনাথের পক্ষে আত্মস্থ করা সম্ভব হয় নি। এই সচেতনতাও রবীন্দ্রনাথের মধ্যে ছিল। সে-জন্যই হয়তো তিনি বলেছিলেন যে তাঁর প্রতিভা 'বিচিত্রগামী' হলেও 'সর্বত্রগামী' হতে পারে নি। ফলে রবীন্দ্রনাথ বাংলাদেশের জাতীয় জীবন-বৈশিষ্ট্যের সমগ্র-প্রবণ হয়েও সমগ্রস্পর্শী হতে পারেন নি। এটুকু ঊনতা তাঁর রয়ে গিয়েছিল।… এই ঊনতাকে সমগ্রতা দেয়ার জন্যই যেন আবির্ভূত হয়েছিলেন নজরুল। […]

একটি ক্ষুদ্র পুরাতন দীর্ঘশ্বাস
সাগুফতা শারমীন তানিয়া । ২৬ জুন ২০০৮

[…] যে দেশে মানুষ মারলে বিচার হয় না সে দেশে প্রাণী (!) নিয়ে ভাবালুতার অবকাশ নেই। ৩২টা চড়ুই পাখি আস্ত মচমচে ভাজা করে বিক্রি হলে কিছু বলার নেই। এলিফ্যান্ট রোডে 'শিকার-অ্যাশ্‌শিকার' বলে পোচার্ড-ম্যালার্ড ইত্যাকার অপূর্ব পাখি ভোজনার্থে বিক্রি হলে কিছু বলার নেই। চিড়িয়াখানার বাঁদরটা ঝিমাতে ঝিমাতে বারবার খাদ্যের বাটিটা উল্টে ঠক্ ঠক্ শব্দ করে খাবার চাইলে কিছু বলার নেই। রানী মাছ কিংবা খল্‌সে মাছ নদীতে আর না থাকলে কিছু বলার নেই। […]

১৯৬৬ সালের অক্টোবর মাসে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্তর্গত মেরিল্যান্ড রাজ্যের অন্তঃপাতী বল্টিমোর শহরে ফরাসি-মার্কিন বুদ্ধিজীবীদের এক বিশেষ সভা বসিয়াছিল। আমাদের এই আলোচনার বিষয়ের সহিত ঐ সভার আলোচ্য বিষয়ের বিশেষ মিল আছে। ফরাসিদেশের বুদ্ধিজীবী মহলে ততদিনে তত্ত্বজ্ঞানের প্রস্থানস্বরূপ 'গঠনতন্ত্র' [structuralism] নামক নতুন প্রস্তাব লইয়া আলোচনা জমিয়া উঠিয়াছে। আর মার্কিনদেশেও ইহার প্রভাব ছড়াইয়া গিয়াছে। তাই ১৯৬৬ সালের এই বল্টিমোর সভার বিষয় ঠিক হইয়াছিল 'গঠনতন্ত্র'। […]

[…] কিন্তু আশ্চর্যের বিষয়, ইতালির এমন ঘটনার একশত বছর আগে প্রায় একই রকম আরেকটি কাহিনীর সন্ধান পাওয়া যায় স্পেনের তেরুয়েলে। অবশ্য স্প্যানিশ আখ্যানে এ কাহিনীর একটু ভিন্নতা লক্ষ করা যায়। রোমিও সেখানে আত্মগোপন করে রয়েছেন, আর জুলিয়েট সেই সময়ে অন্য এক ব্যক্তিকে বিয়ে করে বসেন এবং নতুন বিয়ে করা স্বামীর সাথে আত্মহত্যা করেন। আত্মহত্যার পর তার (জুলিয়েটের আগের) স্বামী এসে তাদেরকে একসঙ্গেই সমাহিত করেন। […]

পুনর্মুদ্রণ
রোদ্দুরের আয়োজনে কবিদের আড্ডা
[…] ১৯৯৫ সালে ছোটপত্রিকা রোদ্দুর-এর সম্পাদক লতিফ সিদ্দিকী কয়েকজন কবিকে নিয়ে জুন মাসের এক সকালবেলায় একটি আড্ডা বসিয়েছিলেন গ্রীন রোডের থিয়েটার সেন্টারে। "প্রজন্মান্তরে কবিতার বদল" — এই ছিল আড্ডার আলোচনার বিষয়। আড্ডার ধর্মানুসারে ফ্যামিলি প্ল্যানিং, আমলা কবি, কবিতার ক্ষতি, রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, জীবনানন্দ, বুদ্ধদেব, আবুল হাসান, পঞ্চাশ, ষাট, কবিতার জনপ্রিয়তা কেন কমে যাচ্ছে…ইত্যাদি নানা প্রসঙ্গ চলে আসে আলোচনায়। প্রবল বৃষ্টিপাতের মধ্যে টিনের চালের নিচে আড্ডা চলে দুপুর পর্যন্ত। উল্লেখ্য, সে আড্ডার তিনজন এখন আর নেই। লতিফ সিদ্দিকী মারা গিয়েছিলেন ক্যান্সারে। পরে কবি আবু কায়সার এবং কবি শামসুর রাহমানও মারা যান। তাঁদের স্মরণে রেখে আড্ডাটি পুনঃপ্রকাশিত হলো। শুরুতে লতিফ সিদ্দিকীর ভূমিকা। […]

পাঠ: বেদের মেয়ে জোস্‌না
ফরহাদ মজহার । ৯ এপ্রিল ২০০৮

[…] একটা উদাহরণ বলি। এটা আশ্চর্যজনকভাবে লক্ষণীয় যে, বাংলাদেশের মতো অনগ্রসর, ও কৃষিপ্রধান দেশগুলোতে সিনেমার নায়িকা মোটা আর স্বাস্থ্যবতী হয়, যা পশ্চিমের সম্পূর্ণ বিপরীত। পশ্চিমের ধনী দেশগুলোতে নায়িকাকে হতে হয় স্লিম, পলকা গা আর অনিবার্যভাবেই চাপা ভাঙা। বিশেষত মাজা হাতের বেড়ের মধ্যে না থাকলে পশ্চিমের কোনো নায়িকা পুরুষ দর্শকের মন কাড়তে সক্ষম হয় না। যৌনতার প্রতীক হয়ে ওঠার ক্ষেত্রে এটা তাদের এক নম্বর গুণ। কিন্তু আমাদের নায়িকার মেদবাহুল্য যৌনতার ভিন্ন সংজ্ঞা খাড়া করে। […]

[…] যেহেতু আমেরিকার বিনোদন ব্যবসা দিনে-দিনে অনেক বেশি হিংস্র ও যুদ্ধপ্রিয় হয়ে উঠছে, এবং আমেরিকার যুদ্ধগুলিও ক্রমশঃ বিনোদন ব্যবসায় রূপ নিচ্ছে; এর মধ্যে বেশ আকর্ষণীয় কিছু অদল-বদলও ঘটে যাচ্ছে।… আড়াই লক্ষ ডলার ব্যয়ে কাতারে নির্মিত যে মঞ্চ থেকে জেনারেল টমি ফ্রাঙ্কস অপারেশন শক এন্ড অ্য সম্পর্কে নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিং দিতেন, সেই মঞ্চের নকশাকারীই আবার ছিলেন ডিজনী, এমজিএম এবং 'সুপ্রভাত আমেরিকা'র মঞ্চের নির্মাতা। […]

ভ্রমণ
হালকা হাওয়ার ভেতর দিয়ে
মুনতাসির মামুন ইমরান । ১ নভেম্বর ২০০৭

[…] সামিটে আগেই পৌছে গেছে শেরপা ঠেন্ডিব। আমরা একে একে উঠে এলাম। বাধনহারা কান্নায় আত্মহারা আমরা, সবাই। কে বাংলাদেশী, কে ভারতীয়, কে তিব্বতী – ভীম শীতে চোখের জলের লোনা স্বাদ সবাই পেলাম তাতে কোন সন্দেহ নাই। দেশের পতাকা হাতে নেয়ার সময় গর্বে হারিয়ে গেল ভয়। এত উঁচুতে আমরা – এত উঁচুতে যে উচ্চতায় কেউ জাতীয় পতাকাকে নিয়ে আসেনি। […]

বর্ষায়, বাদাবনে
মীর ওয়ালীউজ্জামান । ১ অক্টোবর ২০০৮

[…] সৈকতের দিকে বহুদূর অর্থাৎ কিলোমিটার তিনেক খোলা প্রান্তর — টাইগার ফার্ন, সানগ্রাস অঢেল — তার ফাঁকে ফাঁকে শ'য়ে শ'য়ে হরিণ চরছে। আমরা ওই প্রান্তরের মধ্য দিয়ে সিঙ্গল ফাইলে, সামনে-পেছনে রাইফেল ম্যান নিয়ে হেঁটে সৈকতে যাব। নতুন যারা এসেছে, শুনেই থ্রিল্‌ড। ওই হরিণগুলোর মাঝে হাঁটব, কী মজা! রিপার মন্তব্য শুনে রাকিব হেসে ফেলল। তোমাদের কলকাকলি আর পায়ের আওয়াজ পেলেই ওরা নিমেষে উধাও হবে, চকিত পায়ে। এবার চল, রোদ চড়ছে। আমি তাড়া দিলাম। […]

শ্রদ্ধাঞ্জলি
বুদ্ধদেব বসু ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
খোন্দকার আশরাফ হোসেন । ২৮ নভেম্বর ২০০৮

[…] ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের প্রথম দশকের ছাত্রদের একজন বুদ্ধদেব বসু (১৯০৮-১৯৭৪)। ঊনিশ বছর বয়সে অর্থাৎ ১৯২৭ সালে ইংরেজি বিভাগের অনার্স প্রথমবর্ষে ভর্তি হন। চার বছর পর ১৯৩০-এ মাস্টার্স। শুধু সেই আদিকালের নয়, শোনা যায় এতাবৎকালের সেরা ছাত্রদের সেরা তিনি। এমন জনশ্রুতি আছে যে, তিনি ইংরেজি অনার্সে যে মোটনম্বর পেয়েছিলেন, তার রেকর্ড নাকি আজতক কেউ ভাঙতে পারেনি। আমি নিজে ইংরেজি বিভাগের সাথে ছাত্র এবং শিক্ষক হিসেবে চার দশকের বেশি জড়িত আছি, কিন্ত ঐ কিংবদন্তীর সত্যতা চেষ্টা করেও, মহাফেজখানার অপ্রবেশ্যতাহেতু, যাচাই করতে পারিনি। তবে একথা ঠিক, বুদ্ধদেব বসুর তুল্য প্রতিভাবান কাউকে ইংরেজি বিভাগ আজ অব্দি সৃষ্টি করতে পারেনি। […]

সংস্কৃতি
বাংলার যাযাবরে নাট্য
সাইমন জাকারিয়া । ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০০৮

[…] বাংলাদেশের বিভিন্ন প্রান্তে কিছু নাট্যমূলক পরিবেশনা বাড়ি বাড়ি ঘুরে উঠানে বা রাস্তায় এবং বাজারপ্রাঙ্গণ, নদী বা পুকুর ঘাট, এমনকি কৃষিক্ষেত্র, খেলার মাঠ ইত্যাদি বিভিন্ন স্থানে বেশ খোলামেলাভাবে পরিবেশিত হতে দেখা যায়। এ ধরনের নাট্যমূলক শিল্পকে যাযাবরে পরিবেশনা বলা যেতে পারে, ভদ্রভাষায় ভ্রাম্যমাণ পরিবেশনা বললেও অতিশয়োক্তি হবে না। […]

আলোকচিত্র
একই সমুদ্র
স্নিগ্ধা জামান । ১৮ অক্টোবর ২০০৭

[…] এই সামুদ্রিক গুল্ম কুড়িয়ে খুশিদের সংসার চলে। তার পরিবারের সবাই এখন এই কাজ করে। ভাই, ভাইবউ, বোনজামাই, ভাইবোনের বাচ্চারা আর মা। খুশির মা জানায় 'বার্মা' (মিয়ানমার) থেকে লোক আসে এই শুকনা গুল্ম কিনতে। পুরো পরিবারের কুড়ানো গুল্মের দাম পাওয়া যায় কোনো কোনো মাসে দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা। কখনও আরো কম। খুশির স্বামীর কথা জিজ্ঞাসা করলে খুশি সমুদ্রের দিকে তাকিয়ে থাকে কয়েক মুহূর্ত – 'সাগরে নিছে গত বছর। মাছ ধরতে গেছিল, ঝড়ে হারায় গেছে।' […]

প্রবন্ধ
নজরুল: রবীন্দ্রনাথ ও জীবনানন্দের পারস্পরিকতায়
আবদুল মান্নান সৈয়দ | ২৫ মে ২০০৯

[…] নজরুলকে কেন্দ্রে রেখে অগ্রসর হওয়া যাক।… ১৯১৯ সালে সাহিত্যে প্রবেশ করেছিলেন সমবয়সী দুই কবি—নজরুল ও জীবনানন্দ। দুজনেরই—তদানীন্তন প্রায়-সকলেরই কর্মক্ষেত্র থেকে—এঁদেরও—কিন্তু ১৯১৯ সালে দুই স্থান থেকে: নজরুল করাচি থেকে লেখা পাঠিয়ে ছিলেন কলকাতার সওগাত পত্রিকায় আর জীবনানন্দের কবিতাটি প্রকাশিত হয়েছিল বরিশাল থেকে প্রকাশিত ব্রহ্মবাদী পত্রিকায়। সওগাত ছিল অনগ্রসর মুসলমান সমাজের পত্রিকা, ব্রহ্মবাদী ছিল একটেরে ব্রাহ্মসমাজের মুখপত্র—জীবনানন্দের পিতা সত্যানন্দ দাশ ছিলেন যার প্রতিষ্ঠাতা-সম্পাদক। কিন্তু শেষপর্যন্ত নজরুল ও জীবনানন্দ মুসলমান বা ব্রাহ্মসমাজে আটকা থাকেননি—বৃহত্তর বাঙালির হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছেন। […]

সঙ্গীত
গানের 'কত্তা' শচীন দেব বর্মন
আশীষ চক্রবর্ত্তী | ১ নভেম্বর ২০০৭

[…] একজন সেরা পেশাদার সঙ্গীত পরিচালকের মাঝে যেসব গুণ না থাকলেই নয় তার সবই ছিল শচীন দেব বর্মনের। নিজে ক্লাসিক্যালে তালিম নিয়েছেন দীর্ঘদিন। ফলে শিল্পী হিসেবে নিজেকে এমন এক উচ্চতায় নিয়ে গিয়েছিলেন যে একবার (১৯৩৪) অল বেঙ্গল ক্লাসিক্যাল মিউজিক কনফারেন্সে স্বর্ণপদকও লাভ করেন। ফঈয়াজ খান, আলাউদ্দীন খান, ভীষ্মদেব চট্টোপাধ্যায়ের মতো সঙ্গীতগুরুরাও অংশ নিয়েছিলেন সেখানে। […]

বন্ধুদের কাছে লেখাটি ইমেইল করতে নিচের tell a friend বাটন ক্লিক করুন:

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক