কিশোরগঞ্জ নির্বাচন: ২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল

কিশোরগঞ্জ-১ আসনে নির্বাচনে জাতীয় পার্টির মো. মোস্তাইন বিল্লাহ ও গণতন্ত্রী পার্টির ভুপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধিবিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম
Published : 3 Feb 2019, 11:42 AM
Updated : 3 Feb 2019, 11:42 AM

রোববার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ে তাদের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়।

মনোনয়নপত্র দাখিল করা তিনজনের মধ্যে শুধু আওয়ামী লীগ প্রার্থী সৈয়দা জাকিয়া নূরের মনোনয়নপত্রই বৈধ ঘোষণা করা হয়। পেশায় চিকিৎসক সৈয়দা জাকিয়া নূর প্রয়াত সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের ছোট বোন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসন থেকে জয়ী হয়েছিলেন আওয়ামী লীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক জনপ্রশাসন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। নির্বাচনের সময় তিনি অসুস্থ ছিলেন; শপথ গ্রহণের আগে গত ৩ জানুয়ারি ব্যাংককের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

এরপর আসনটি শূন্য ঘোষণা করে নতুন তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন।  

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী রোববার দুপুর ১২টায় জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র বাছাই কার্যক্রম শুরু হয়।

কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম, প্রার্থী এবং তাদের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে মনোনয়নপত্র বাছাই করা হয়।

বছাই শেষে সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী বলেন, জাতীয় পার্টির প্রার্থী মো. মোস্তাইন বিল্লাহ  মনোনয়নপত্রে নিজেকে স্বশিক্ষিত বলে উল্লেখ করলেও ভোটার তালিকার তথ্যে স্নাতক উত্তীর্ণ হিসেবে উল্লেখ ছিল। এ গড়মিলের কারণে তার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

অপরদিকে প্রদত্ত হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় গণতন্ত্রী পার্টির প্রার্থী ভুপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়।

এদিকে, জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাইন বিল্লাহ ও গনতন্ত্রী পার্টির জেলা সভাপতি ভুপেন্দ্র চন্দ্র ভৌমিক দোলন রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে আপিল করবেন বলে জানিয়েছেন।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ৩১ জানুয়ারি ছিল মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিন। রোববার (৩ ফেব্রুয়ারি) ছিল মনোনয়নপত্র বাছাইয়ের দিন। আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। ভোট গ্রহণ হবে ২৮ ফেব্রুয়ারি।  

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক