চারটি কবিতা

shamset_tabrejee
Published : 29 August 2008, 11:44 AM
Updated : 29 August 2008, 11:44 AM

কবিতা লেখার আগে ও পরে

অনুষঙ্গে ওরা মেটাফর
নৈয়ায়িক টানে জাগ্রত,
কিঞ্চিৎ যুক্তিশীলও বটে
চেনে আত্মরচিত কবর।

অনু-সঙ্গে আমিও একদিন
পুরুষতা লিখেছি মাটিতে,
লিখে পরে ভুলে গেছি যথা
ভুলে গিয়ে আবার স্বাধীন।

ঘাসে ঘষা লেগে এইরূপ
মনে হলে বিমূর্ততার
জাগ্রত মেটাফর কাঁদে,
অন্যদিকে কাঁদে নলকূপ

যেথা শুধু লোহা-মাখা পানি
অতৃপ্তের অবৈধ রসুই,
তারই তলে ঘাড় পেতে দিয়ে
জ্বরতপ্ত মাথাখানি ধুই।

৩/৮/২০০৮

খিদে

— এসো কিছু খাই, এইখানে
অন্ধকার সরিয়ে
বাটা-রসুনের গন্ধ-মাখা
বিরুয়ের ভাত

সড়ক কাঁপিয়ে যায় ট্রাক
আপাততঃ আহার না-হয় থাক?

— আমার কিন্তু খিদে ভারী
চোখে কাঁপছে
নিরঞ্জন ইলিশ
ঝোলে ডোবা…মেটাফিজিকাল

সড়ক কাঁপিয়ে যায় ট্রাক
আপাততঃ আহার না-হয় থাক?

— ট্রাক যায়? ট্রাকে ওরা অন্ধ আরোহী?

— আরে না, সামরিক বিধানের বহি!

৩/৮/২০০৮

জর্নালিজম

বলছে বেশ পাকিন্তানের কথা খুব খুব রক্তরঞ্জিত বলছে বলছে বলছে
বলছে চিনদেশের কথা যা-তা বলছে বলছে বলছে
আর আমেরিকার কথা তো বলছেই তা তা থৈ থৈ বলছে বলছে বলছে
ভারতবর্ষেরর কথা বলছে ভারতের, ইন্ডিয়ার, হিন্দুস্তানের
বলছে বলছে বলছে
বলছে বাংলাদেশের কথাও বলছে সম্ভাবনার কিন্তু অকার্যকর
বলছে বলছে বলছে
বলছে আ-কথা কু-কথা টেলিভিশনে রেডিয়োতে সংবাদপত্রে সেমিনারে
বলছে বলছে বলছে
বলছে গলায় রক্ত তুলে, কুঁদে, লাফিয়ে হাত-পা নাচিয়ে বলছে বলছে বলছে
কিন্তু কেউ-ই নেপালের কথা বলছে না এক লাইনও বলছেই না

যত্তসব রাবিশ!

৩/৮/২০০৮

দেশি রাজনীতি

ট্রপিক্যালাইজড করে নাও, হ্যাঁ, পরথমে খুলে,
ছাড়িয়ে, ভাবো না আহা কী মহান আম!

দুধে মিশে যায় যদি, যেতে দাও
দই হয়ে গেলেও-বা মন্দ কী? থার্ড ওয়ার্ল্ড না?

অত শক্ত করে কেউ চোয়াল? গাধা একটা!

প্লিজ সহজ হও, তারপর ছাড়াও
এখন একটু কি নরম লাগছে? লাগছে তো? বেশ!

দেখো, একটু পরেই হবে, ঠিকই হবে
আর যখন হবে
শীর্ষ সমুন্নত রেখে গলা ছেড়ে
গাইতে ভুলো না যেন
সংগ্রামী গান…

৩/৮/২০০৮

তৌফিক ইমরোজ খালিদী
প্রধান সম্পাদক ও প্রকাশক