খবর > কিডজ > নিজে করি

  • ম্যাজিক: ঝাঁকি দিলেই রঙিন

    ম্যাজিক: ঝাঁকি দিলেই রঙিন অনেকগুলো বোতল ভর্তি পানি। বোতলের মুখে ছিপি আঁটা। বাইরে থেকে কোনোভাবেই ভেতরে রঙ ঢোকা সম্ভব না। কিন্তু যখন বোতল ঝাঁকা দেওয়া হবে তখন এক একটা বোতলের পানি একেক রঙ হয়ে যাবে।

  • কাগজ হলো ফুল-পাতা

    কাগজ হলো ফুল-পাতা অরিগ্যামি একটা জাপানী শব্দ। আসলে কি জানো শব্দ এইখানে একটা না, এইখানে শব্দ দুইটা। অরি আর কামি। অরি অর্থ ভাঁজ করা আর কামি কাগজ অর্থ এই অরির সাথে কামি মিলে হয়ে গেলো অরিকামি। এখন আমাদের ভাষায় যেমন সন্ধি আছে শব্দের সাথে শব্দ মিলে উচ্চারণ বদলে যায়। তেমনি অরিকামি হয়ে যায় অরিগ্যামি।

  • কাগজ হলো বাঘ

    কাগজ হলো বাঘ অরিগ্যামি একটা জাপানী শব্দ। আসলে কি জানো শব্দ এইখানে একটা না, এইখানে শব্দ দুইটা। অরি আর কামি। অরি অর্থ ভাঁজ করা আর কামি কাগজ অর্থ এই অরির সাথে কামি মিলে হয়ে গেলো অরিকামি। এখন আমাদের ভাষায় যেমন সন্ধি আছে শব্দের সাথে শব্দ মিলে উচ্চারণ বদলে যায়। তেমনি অরিকামি হয়ে যায় অরিগ্যামি।

  • ভাঁজ করি হাতির মাথা

    ভাঁজ করি হাতির মাথা অরিগ্যামি একটা জাপানী শব্দ। আসলে কি জানো শব্দ এইখানে একটা না, এইখানে শব্দ দুইটা। অরি আর কামি। অরি অর্থ ভাঁজ করা আর কামি কাগজ অর্থ এই অরির সাথে কামি মিলে হয়ে গেলো অরিকামি। এখন আমাদের ভাষায় যেমন সন্ধি আছে শব্দের সাথে শব্দ মিলে উচ্চারণ বদলে যায়। তেমনি অরিকামি হয়ে যায় অরিগ্যামি।

  • অরিগ্যামি খরগোশ

    অরিগ্যামি খরগোশ অরিগ্যামি একটা জাপানী শব্দ। আসলে কি জানো শব্দ এইখানে একটা না, এইখানে শব্দ দুইটা। অরি আর কামি। অরি অর্থ ভাঁজ করা আর কামি কাগজ অর্থ এই অরির সাথে কামি মিলে হয়ে গেলো অরিকামি। এখন আমাদের ভাষায় যেমন সন্ধি আছে শব্দের সাথে শব্দ মিলে উচ্চারণ বদলে যায়। তেমনি অরিকামি হয়ে যায় অরিগ্যামি।

  • ম্যাজিক: টেকসই বেলুন

    ম্যাজিক: টেকসই বেলুন ম্যাজিকের পিছনে সব সময় একটা ‘কৌশল’ থাকে। অস্বাভাবিক কোনো বিষয় যখন স্বাভাবিকভাবে হয় তখন সেটা তো আর এমনি এমনি হতে পারে না তাই না?

  • ধোঁয়ার বলয়

    ধোঁয়ার বলয় আজকে আমরা বানাবো ধোঁয়ার বলয়। এমন এক একটা দিন আসে না যে পড়তে ইচ্ছে করে না, খেলতেও ইচ্ছে করে না, দুষ্টুমি করেও তেমন মজা পাওয়া যায় না? সেরকম দিনে একটু মজার কিছু করে ফেলা যায়। এই অনেকটা নেই কাজ তো খই ভাজের মত আর কি। তবে খই ভাজলে খই মজা করে খেতে পারবে। ধোঁয়ার বলয় থেকে সেরকম কিছুই পাবে না নিছক আনন্দ আর কপাল খারাপ হলে আম্মুর বকুনি ছাড়া। তবে মজা তো মজাই।

  • চরকি ঘুরে হাওয়ায়

    চরকি ঘুরে হাওয়ায় বসন্ত তো এলো বলে একটু বসন্তের সাজে ঘর বাড়ি না সাজালে কেমন হয় বলো দেখি! আজকে আমরা শিখবো কীভাবে সহজেই কাগজ দিয়ে চরকি বানিয়ে ফেলা যায়।

  • ম্যাজিক: কাঠি গেলো কোথায়?

    ম্যাজিক: কাঠি গেলো কোথায়? আজ আমরা যে জাদুটা শিখবো সেটা খুব সরল কিন্তু খুবই আকর্ষণীয়। প্রথমে দেখা যাবে জাদুকরের হাতে একটা ছোট কাঠি। এরপর জাদুকর হাতটা একটা ঝারা দিবে আর কাঠি কই যেন হারিয়ে যাবে। কেউ কেউ অবাক হবে আর কেউ কেউ সন্দেহ করবে জাদুকর বুঝি কাঠিটা কোথাও ছুঁড়ে ফেলেছে। কিন্তু না। সবাইকে অবাক করে আবার হাতে একটা ঝারা দিয়ে জাদুকর কাঠি ফিরিয় নিয়ে আসবে।

  • ম্যাজিক: ভাত নাচে পানিতে

    ম্যাজিক: ভাত নাচে পানিতে একটা গ্লাস নিলে তাতে কিছুটা ভাত ছেড়ে দিলে। ভাতগুলো ভালো মতো পানিতে ডুবেও গেলো। এরপর আঙ্গুল দিয়ে গ্লাসের চারিদিকে এক চিমটি যাদু মন্ত্র ছড়িয়ে দিলে। কী কাণ্ড! ওমনি ভাতগুলো উপরে থেকে নিচে নিচে থেকে উপরে দৌড়াদৌড়ি শুরু করলো!

  • কয়েন দিলো লাফ

    কয়েন দিলো লাফ ম্যাজিকটা খুব সহজ। একটা কাঁচের বোতল। বোতলের মুখে রাখা একটা কয়েন। তুমি বোতলের গা ধরবে আর ধপ করে কয়েনটা লাফ দিয়ে উঠবে।

  • রঙিন একটা মাছ

    রঙিন একটা মাছ আঁকাআঁকি কাজটা বেশ মজার। একটু চেষ্টা করলেই আমরা সুন্দর সুন্দর জিনিস এঁকে ফেলতে পারি। যেমন আমরা আজকে মাছ আঁকা শিখব। ভাবছো মাছ আঁকা বেশ কঠিন। হ্যাঁ তা একটু কঠিন আছে। তবে আমরা একটা সহজ মাছ আঁকা শিখবো। একটা বৃত্ত আর ইংরেজির B লিখতে পারলেই এই মাছ এঁকে ফেলা যাবে।

  • আইসড চকোলেট সোডা

    আইসড চকোলেট সোডা রান্না আর খাওয়া জন্য আমরা সব সময় মা, নানু, দাদী অথবা অন্য কারও উপর নির্ভরশীল থাকি। রান্না কাজটা একটু কঠিনই। এতে আগুন ধরা কাটাকুটি ইত্যাদির বিষয় থাকে তাই তোমরা যারা ছোট তাদের জন্য রান্না করা একটু অনিরাপদ। তবে সহজ কিছু রান্না নিজে নিজে করা যায় আবার বড়দের সামান্য সহযোগিতায়ও করা যায়। কঠিন বলে কাজ থেকে দূরে থাকলে তা বুঝি কখনও সহজ হয়? তাই একটু একটু চেষ্টা করে আমরা কাজগুলো সহজ করে ফেলতে পারি।

  • ম্যাজিক: বাতাসে ভাসা ধাতব বল

    ম্যাজিক: বাতাসে ভাসা ধাতব বল ম্যাজিকের একটা গোপন কথা আছে। সেই গোপন কথাটা হচ্ছে, চোখের ফাঁকি। এই ফাঁকিটা দুরকমের হতে পারে, হয় এখানে বিজ্ঞানের এমন কোনো মূলনীতি আছে যেটা আমাদের দর্শক জানে না অথবা আমরা সবার অলক্ষ্যে এমন কিছু করেছি যেটা দর্শক বুঝতে পারেনি। এর বাইরে ম্যাজিক বলে কিছুই নেই। মন্ত্র বলে তো কিছু নেইই।

  • ঝুলন্ত স্ট্রবেরির বাগান

    ঝুলন্ত স্ট্রবেরির বাগান শীতকাল এলেই মনটা কেমন আনন্দে নেচে উঠে। ঠাণ্ডা বাতাস আর মিষ্টি রোদ মিলে খুব আরামদায়ক একটা অবস্থা তৈরি হয়।

  • ম্যাজিক: শূন্যে ভাসা গ্লাস

    ম্যাজিক: শূন্যে ভাসা গ্লাস আজকে আমরা একটা কাগজের গ্লাসকে শূন্যে ভাসিয়ে দিবো। কীভাবে? কীভাবে আবার, ম্যাজিক দিয়ে! বিশ্বাস হচ্ছে না তো। সে তো হবেই না। কারণ ম্যাজিক বলে সত্যি তো কিছু নেই। ম্যাজিক হচ্ছে ভেলকিবাজি আর চোখের ধাঁধাঁ। সেই ধাঁধাঁটা কীভাবে আমরা উপস্থাপন করবো তাঁর উপরই নির্ভর করছে আমাদের ম্যাজিকের সাফল্য।

  • ম্যাজিক: স্ট্র ঘুরে তোমার ইশারায়

    ম্যাজিক: স্ট্র ঘুরে তোমার ইশারায় ধরো অনেকের সঙ্গে তুমি কোনো রেস্টুরেন্টে খেতে গিয়েছো। সবাই যার যার খাওয়া আর আলাপ নিয়ে ব্যস্ত। সেই সুযোগে তুমি একটি স্ট্রকে একটি বোতলের উপরে আড়াআড়ি ভাবে রাখো। কিছুক্ষণ পরে দেখা যাবে সবাই যার যার খাওয়া আর গল্প বাদ দিয়ে তোমার স্ট্রর দিকে তাকিয়ে আছে।

  • কাঠবিড়ালী চাও?

    কাঠবিড়ালী চাও? কাঠবিড়ালি তো পেয়ারা চায়, তুমি কি সেই কাঠবিড়ালিকে আঁকতে চাও?

  • জুতোর মধ্যে বাগান

    জুতোর মধ্যে বাগান তোমাদের পা যখন বড় হয়ে যায় আর সুন্দর সুন্দর জুতোগুলো যখন ছোট ছোট মনে হয় তখন তোমরা কী করো? জুতোগুলো ফেলে দাও অথবা কাউকে দিয়ে দাও তারপরে খুব মন খারাপ করো। মন খারাপ হবেই বা না কেন? পছন্দের জুতো চোখের সামনে থেকে চলে গেলে কার না মন খারাপ হয়?

  • ম্যাজিক: মার্বেল উধাও

    ম্যাজিক: মার্বেল উধাও দিনে দুপুরে সবার সামনে একটা মার্বেল উধাও হয়ে যাবে। কীভাবে জানতে চাও?

  • গরু আঁকা শিখি

    গরু আঁকা শিখি কোরবানির ঈদ তো গেলোই এখন শুধু কি খাওয়া দাওয়া হবে? ছুটিতে চলো আমরা বরং গরু আঁকাও শিখে ফেলি। গরু আঁকার কথা শুনে আবার ভয় পেয়ো না। গরু দেখতে যতো জটিল আঁকতে তত জটিল নয়। ধাপে ধাপে আকা শিখলে তুমি নিজেই অবাক হবে। ভাববে, আরে! গরু আঁকা এত সহজ!

  • ম্যাজিক: গ্লাসের ভিতরে কয়েন উধাও

    ম্যাজিক: গ্লাসের ভিতরে কয়েন উধাও একটা কয়েনকে একটা গ্লাসের নিচে রাখলে। রাখার আগে গ্লাসটাকে কিছু দিয়ে ঢেকে নিলে। ঢাকার পরে গ্লাসের ঢাকনিটা তুললে... ও মা! কী কাণ্ড! কয়েন কোথায়? গ্লাসের নিচে থেকে কয়েনটা কে নিয়ে গেলো?

  • হাসি খুশি মাছ

    হাসি খুশি মাছ কয়দিনের বৃষ্টিতে নদী নালা কেমন ভরে উঠেছে দেখেছো? বর্ষার শেষে এমনিই জলাশয়গুলো সব টইটুম্বুর ছিলো তার উপর এই নতুন পানি। এত পানিতে মাছেরা নিশ্চয়ই খুব মজায় আছে! নতুন পানিতে পানি ছিটিয়ে খুব খেলাধুলা করছে। আমরা আজকে সেরকম একটি হাসিখুশি রঙিন মাছ আঁকবো।

  • ম্যাজিক: জুড়ে দাও ছবিটি

    ম্যাজিক: জুড়ে দাও ছবিটি একটা ছবিকে কেটে আবার জুড়ে দেওয়ার ম্যাজিক শিখবো আজকে।

  • চতুর্ভুজ থেকে সিংহ

    চতুর্ভুজ থেকে সিংহ তোমরা  কি জানো ছবি আঁকার জন্যে সবসময় যে সঠিক মাপ বা আকারের প্রয়োজন তা কিন্তু নয়। তুমি কোনো কিছুর আকৃতি বদলেও জিনিসটি আঁকতে পারো। যেমন আজ আমরা একটা  চতুর্ভুজ থেকে সিংহ আঁকবো। ভাবছো, সিংহ? সেটি আবার চতুর্ভুজ থেকে কীভাবে হবে?