নিউমোনিয়ায় কাবু চান্দিমাল

নিউমোনিয়ায় কাবু চান্দিমাল

টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে এখনও চলছে তার মধুচন্দ্রিমা। এর মধ্যেই অসুস্থতার ছোবল। নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি দিনেশ চান্দিমাল। ভারতের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে শ্রীলঙ্কাকে নেতৃত্ব দেবেন রঙ্গনা হেরাথ।

গুনারত্নের ব্যাটে রেকর্ড রান তাড়া করে শ্রীলঙ্কার জয়

গুনারত্নের ব্যাটে রেকর্ড রান তাড়া করে শ্রীলঙ্কার জয়

আগের দিনের অপরাজিত দুই ব্যাটসম্যান ফিরে যান সকালেই। তবুও হাল ছাড়েনি শ্রীলঙ্কা। শুরুতে স্বাগতিকদের পথ দেখান নিরোশান ডিকভেলা। দিলরুয়ান পেরেরাকে নিয়ে বাকিটুকু সারেন আসেলা গুনারত্নে। তাদের দারুণ ব্যাটিংয়ে দেশের মাটিতে রেকর্ড রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতেছে দিনেশ চান্দিমালের দল।

রোমাঞ্চকর শেষের অপেক্ষায় কলম্বো টেস্ট

রোমাঞ্চকর শেষের অপেক্ষায় কলম্বো টেস্ট

সিকান্দার রাজার প্রথম শতকে সিরিজের একমাত্র টেস্টে শ্রীলঙ্কাকে বড় লক্ষ্য দিয়েছে জিম্বাবুয়ে। জিততে হলে রেকর্ড গড়তে হবে দিনেশ চান্দিমালের দলকে। কুসল মেন্ডিসের অপরাজিত অর্ধশতকে সেই আশা বাঁচিয়ে রেখেছে স্বাগতিকরা।

কলম্বোয় চাপে শ্রীলঙ্কা

কলম্বোয় চাপে শ্রীলঙ্কা

প্রথম সেশনে মনে হচ্ছিল উইকেট পুরোপুরি ফ্ল্যাট হয়ে গেছে, জিম্বাবুয়ের বোলিং নির্বিষ। শেষ বেলায় সেখানেই দেখা গেল বিশাল সব টার্ন, কাঁপিয়ে দিলেন গ্রায়েম ক্রিমাররা। ভালো শুরুগুলো কাজে লাগাতে না পেরে দ্বিতীয় দিন শেষে চাপে শ্রীলঙ্কা।

‘বাংলাদেশের উৎসব মাটি করতে চাইব’

‘বাংলাদেশের উৎসব মাটি করতে চাইব’

বোলারদের অনুশীলন ছিল না, ব্যাটিং করেছেন দিনেশ চান্দিমাল, কুসল মেন্ডিসরা। পরের দিন ম্যাচ বলে সংবাদ সম্মেলনের জন্য আসতে হল রঙ্গনা হেরাথকে। অধিনায়ক জানালেন, বাংলাদেশের উৎসব মাটি করতে সম্ভাব্য সব কিছু করবেন তারা।

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আরও ধৈর্য দরকার ছিল: হেরাথ

বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের আরও ধৈর্য দরকার ছিল: হেরাথ

উইকেটে পঞ্চম দিনেও স্পিনারদের জন্য খুব বেশি কিছু ছিল না। শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথ মনে করছেন, বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা ধৈর্য ধরলে গল টেস্টের চিত্রটা ভিন্ন রকমেরও হতে পারত।

হেরাথের নতুন লক্ষ্য

হেরাথের নতুন লক্ষ্য

বাংলাদেশের বিপক্ষে গল টেস্টে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ার সঙ্গে একটি মাইলফলকে পৌঁছেছেন রঙ্গনা হেরাথ। অভিজ্ঞ বাঁহাতি স্পিনারের নজর এখন আরেকটি মাইলফলকে।

‘হেরাথ চ্যাম্পিয়ন বোলার’

‘হেরাথ চ্যাম্পিয়ন বোলার’

তাকে বড় হুমকি মেনেই শ্রীলঙ্কায় গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। তাকে সামলানো নিয়ে আলোচনা, অ্যানালিস্টের গবেষণায় কাঁটাছেড়া নিশ্চয়ই হয়েছে বিস্তর। তার পরও শেষ দিনের ভাগ্য গড়ে দিলেন সেই রঙ্গনা হেরাথই।

তিন ঘণ্টাতেই সব শেষ

তিন ঘণ্টাতেই সব শেষ

শর্ট লেগের ফিল্ডার চোখ সরিয়ে নেওয়ায় দিনের প্রথম বলে কোনোমতে বেঁচে গেলেন সৌম্য সরকার। আসেলা গুনারত্নের দ্বিতীয় বল ব্যাটের বাইরের কানা ফাঁকি দিয়ে বেলস উড়িয়ে দিল। ফিরে গেলেন বাঁহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। দিক হারালো বাংলাদেশ।

যত বেশি সম্ভব রান চান হেরাথ

যত বেশি সম্ভব রান চান হেরাথ

দিনের শুরুতে টস জিতে হেসেছিলেন রঙ্গনা হেরাথ। ৩ উইকেট হারানোর পর সেই হাসি মিলিয়ে যাওয়ার কথা। তবু দিন শেষে টিভি ক্যামেরায় আবার দেখা গেল সেই হাসি। লঙ্কান অধিনায়কের মুখে হাসি ফিরিয়েছেন কুসল মেন্ডিস।

অচেনা বোলিংয়ের সামনে বাংলাদেশ

অচেনা বোলিংয়ের সামনে বাংলাদেশ

টেস্ট সিরিজে প্রায় অচেনা বোলিং লাইনআপ সামলাতে হবে বাংলাদেশ দলকে। শ্রীলঙ্কায় কেবল রঙ্গনা হেরাথের বিপক্ষে খেলার অভিজ্ঞতা আছে মুশফিকুর রহিমদের।

সাকিব, তাইজুল সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ: হেরাথ

সাকিব, তাইজুল সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ: হেরাথ

উইকেট থেকে সহায়তা পেলে গল টেস্টে শ্রীলঙ্কার জন্য সবচেয়ে বড় বিপদ হতে পারেন সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলাম। স্বাগতিক দলের অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথের কাছে সবচেয়ে বড় হুমকি বাংলাদেশের এই দুই স্পিনার।  

সেই ইনিংসই বাংলাদেশের অনুপ্রেরণা

সেই ইনিংসই বাংলাদেশের অনুপ্রেরণা

শ্রীলঙ্কায় টেস্টে বাংলাদেশের হতশ্রী রেকর্ডের মধ্যে উজ্জ্বল ২০১৩ সালের গল টেস্ট। সেবার ৬৩৮ রানের বিশাল সংগ্রহ গড়ে ম্যাচ ড্র করেছিল মুশফিকুর রহিমের দল। টেস্টে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ এই ইনিংসকে অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখছেন অধিনায়ক।

‘শ্রীলঙ্কা সফরে এটিই বাংলাদেশের সেরা দল’

‘শ্রীলঙ্কা সফরে এটিই বাংলাদেশের সেরা দল’

দুদলের লড়াইয়ে ইতিহাসে ‘লড়াই’ হয়েছে কমই। বেশিরভাগ সময়ই ফল ছিল একতরফা। বাংলাদেশের বিপক্ষে ১৬ টেস্টের ১৪টিই জিতেছে শ্রীলঙ্কা, দুটি ড্র। তবে এবার বাতাসে ভিন্ন কিছুর গন্ধ। বাংলাদেশ শ্রীলঙ্কায় গেছে বুক ভরা আশা নিয়ে। টেস্ট জয় তো বটেই, হয়ত টেস্ট সিরিজ জয়ও!

বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কানদের নিয়েই হেরাথের ভয়

বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কানদের নিয়েই হেরাথের ভয়

মাস চারেক আগের ঘটনা। টিম হোটেলে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে সাক্ষাৎকার দিচ্ছিলেন চন্দিকা হাথুরুসিংহে। আগের দিনই ইংল্যান্ডকে হারিয়ে মিরপুর টেস্টে অসাধারণ জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কা দল তখন জিম্বাবুয়েতে। সেখান থেকেই ফোন করে বাংলাদেশ কোচকে অভিনন্দন জানালেন রঙ্গনা হেরাথ। অনেকটা সময় নিয়ে খোঁজ খবর নিলেন বাংলাদেশ দলের।

বাংলাদেশের বিপক্ষে হেরাথই লঙ্কাপতি

বাংলাদেশের বিপক্ষে হেরাথই লঙ্কাপতি

আলোচনায় ছিলেন দিনেশ চান্দিমাল ও উপুল থারাঙ্গাও। তবে রঙ্গনা হেরাথের দিকে পাল্লা হেলে ছিল বেশি। শ্রীলঙ্কান বোর্ড বেছে নিয়েছে অভিজ্ঞ এই স্পিনারকেই। বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে নেতৃত্ব দেবেন হেরাথ।

হেরাথকে সামলাতে পারলেই বড় রান

হেরাথকে সামলাতে পারলেই বড় রান

বাংলাদেশের বিপক্ষে এক সময় নামতা গুণে উইকেট নিয়েছেন মুত্তিয়া মুরালিধরন। চামিন্দা ভাস ছিলেন আতঙ্কের নাম। এমনিতে সাদা পোশাকে সাদামাটা লাসিথ মালিঙ্গা, দিলহারা ফার্নান্দোও বেশ সফল বাংলাদেশের বিপক্ষে। এখন নেই তারা কেউ। স্বস্তির অবকাশ তবু খুব নেই। রঙ্গনা হেরাথ যে আছেন!

এক ঘণ্টায় শেষ জিম্বাবুয়ে

এক ঘণ্টায় শেষ জিম্বাবুয়ে

চতুর্থ দিন শেষে দ্বিতীয় টেস্টের ফল নিয়ে সংশয়ের সুযোগ রাখেননি রঙ্গনা হেরাথ। ৩ উইকেট হাতে থাকা জিম্বাবুয়ে অতিথিদের জয় কতটা দেরি করাতে পারে তাই ছিল দেখার। সেখানে খুব একটা সফল নয় স্বাগতিকরা। পঞ্চম দিন এক ঘণ্টার মধ্যে গুটিয়ে যায় গ্রায়েম ক্রেমারদের ইনিংস। 

হেরাথের ১০ উইকেটে জয়ের কাছে শ্রীলঙ্কা

হেরাথের ১০ উইকেটে জয়ের কাছে শ্রীলঙ্কা

দুই ইনিংসেই ৫ উইকেট করে নিয়ে দ্বিতীয় টেস্টে শ্রীলঙ্কাকে জয়ের পথে রেখেছেন রঙ্গনা হেরাথ। পঞ্চম ও শেষ দিন জিম্বাবুয়ের শেষ তিন উইকেট চাই অতিথিদের। জয়ের জন্য গ্রায়েম ক্রেমারের দলের চাই আরও ৩১১ রান।

মুরালিধরন-স্টেইনের পর হেরাথ

মুরালিধরন-স্টেইনের পর হেরাথ

অপেক্ষা ছিল কেবল এই প্রতিপক্ষেরই। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলার সুযোগই হচ্ছিল না। এবার হলো। প্রথম টেস্টে না পারলেও দ্বিতীয় টেস্টে ঠিকই ধরা দিল ৫ উইকেট। অসাধারণ এক কীর্তিতে রঙ্গনা হেরাথের নাম খোদাই হয়ে গেল টেস্ট ইতিহাসে। ৯টি টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষেই নিলেন ইনিংসে ৫ উইকেট!

ওয়ার্ন-মুরালিধরনকে ছাড়িয়ে হেরাথ

ওয়ার্ন-মুরালিধরনকে ছাড়িয়ে হেরাথ

উইকেট সংখ্যায় মুত্তিয়া মুরালিধরন ও শেন ওয়ার্নের কাছাকাছি যেতে পারবেন না নিশ্চিতভাবেই। তবে একটা জায়গায় ঠিকই কিংবদন্তি দুই স্পিনারকে ছাড়িয়ে গেলেন রঙ্গনা হেরাথ। টেস্টের চতুর্থ ইনিংসে সবচেয়ে বেশি বার ৫ উইকেট তার!

হেরাথের ঘূর্ণিতে শ্রীলঙ্কার ঐতিহাসিক হোয়াইটওয়াশ

হেরাথের ঘূর্ণিতে শ্রীলঙ্কার ঐতিহাসিক হোয়াইটওয়াশ

দিনের প্রথম ওভারটি করতে মিচেল স্টার্ক সময় নিলেন ৬ মিনিটের বেশি। পরের ওভারে জশ হেইজেলউডের শরীরও যেন চলে না। বুট বদলানোর প্রয়োজন হলো। নানা ছুতোয় চলল সময় ক্ষেপণ। রঙ্গনা হেরাথ বুঝি তখন মুচকি হাসছিলেন। এই ভঙ্গুর অস্ট্রেলিয়াকে গুঁড়িয়ে দিতে কতটা সময়ই আর লাগে!

তিনশর ঠিকানায় হেরাথ

তিনশর ঠিকানায় হেরাথ

একটি উইকেটের অপেক্ষায় কেটে গেছে প্রথম দিন। অপেক্ষার প্রহর দীর্ঘায়িত হলো দ্বিতীয় দিনেও। অবশেষে দিনের মাঝামাঝি গড়িয়ে এলো কাঙ্ক্ষিত সেই মুহূর্ত। নিজের বলে স্টিভেন ফিনের ক্যাচটি মুঠোবন্দী করলেন রঙ্গনা হেরাথ নিজেই। পৌঁছলেন ৩০০ টেস্ট উইকেটের  মাইলফলকে।