bdnews24.com - Home https://bangla.bdnews24.com/ The RSS feed of bdnews24.com en Bangladesh News 24 Hours Ltd. 2017-09-13 09:34:43.0 2017-09-13 09:34:43.0 Home customGroupedContent 1 2 Home economy_bn অর্থনীতি news-bn 202 1463157 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 21:15:47.0 2018-02-22 21:23:04.0 বাজেটের আকার বাড়লে সেবাও বাড়ে: মুহিত বাজেটের আকার বাড়লে সেবাও বাড়ে: মুহিত সম্পদ বাড়লেও কর সেই অনুপাতে না বাড়ায় আরও বড় বাজেট দিতে পারছেন না অর্থমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল  মুহিত বলেছেন, বাজেট বড় হলে সরকারি সেবারও সম্প্রসারণ ঘটে। false https://bangla.bdnews24.com/economy/article1463157.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/basis-softexpo-03.jpg/ALTERNATES/w300/basis-softexpo-03.jpg
বৃহস্পতিবার বেসিস সফটএক্সপো উদ্বোধনে গিয়ে বড় বাজেটের পক্ষে এই যুক্তি দেখান তিনি।

২০০৯ সালে অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে প্রতি বছরই বাজেটের আকার বাড়াচ্ছেন মুহিত, যা নিয়ে সমালোচনাও রয়েছে।

মুহিত বলেন, “আপনারা গত কয়েক বছরে নিশ্চয় দেখতে পেয়েছেন, বাজেটের আকার বড় হলে পরে কীভাবে সরকার বিভিন্ন রকমের সেবা মানুষকে দিতে পারে।

“এসব সেবা মানবসম্পদের উন্নয়ন করে। ব্যক্তিগতভাবে প্রত্যেকেই তাতে সুযোগ পান। ব্যক্তিগতভাবে সকলেই কিছু না কিছু একটা পায়।”

সম্পদ বাড়লেও কর সেই অনুপাতে না বাড়াটা মুহিতের আরও বড় বাজেট দেওয়ার ক্ষেত্রে অন্তরায় হিসেবে কাজ করছে।

“আমি যথেষ্ট চেষ্টা করেছি বাজেটের আয়তন বাড়াতে। আমাদের জাতীয় সম্পদ যথেষ্ট বেড়েছে, কিন্তু সে অনুপাতে ট্যাক্স বাড়েনি। গত কয়েক বছরে এটাকে (ট্যাক্স জিডিপি অনুপাত) আমরা ৯ শতাংশ থেকে ১২ শতাংশের মতো নিয়ে যেতে পেরেছি। এই হার নেপালের চেয়েও কম। এটা আমাদের জন্য লজ্জার।”

ট্যাক্স-জিডিপি অনুপাতে ২০ শতাংশে নিতে সবাইকে কর দিয়ে আরও ত্যাগ স্বীকারের আহ্বান জানান অর্থমন্ত্রী।

তিনি বলেন, “এই অংশগ্রহণ ও ত্যাগ স্বীকার দেশের জন্য, দেশের উন্নয়নের জন্য, অন্য কোনো কারণে নয়।”

সফটওয়্যার খাতেরও উন্নতির দিকটি তুলে ধরে এই খাতকে আরও সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

“আমি জানতে পেরেছি এটা (রপ্তানি) এখন ৭০০/৮০০ মিলিয়নের (ডলারের) মতো হয়েছে। আমার মনে হয় আরও দুই তিন বছরের মধ্যে তারা ওয়ান বিলিয়নে পৌঁছতে পারবে। ২০২১ সালে এটা হবে বলে আমার মনে হয়।”

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে চার দিনব্যাপী এই প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

বক্তব্য রাখেন বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর এবং সফটএক্সপোর আহ্বায়ক মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল।

]]>
1463155 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/basis-softexpo-03.jpg/ALTERNATES/w300/basis-softexpo-03.jpg 1463156 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/basis-softexpo-02.jpg/ALTERNATES/w300/basis-softexpo-02.jpg
2 2 Home politics_bn রাজনীতি news-bn 198 1463109 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 19:53:15.0 2018-02-22 20:01:01.0 কোরআনেও এতিমের হক দিতে বলা হয়েছে: হাসিনা কোরআনেও এতিমের হক দিতে বলা হয়েছে: হাসিনা সরকারি এতিম তহবিলের টাকা আত্মসাতের জন্য দণ্ডিত খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আন্দোলন করায় বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সরকারি এতিম তহবিলের টাকা আত্মসাতের জন্য দণ্ডিত খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আন্দোলন করায় বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। false https://bangla.bdnews24.com/politics/article1463109.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajshahi-01.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajshahi-01.jpg
বিএনপি চেয়ারপারসনের ‘অপরাধের’ মাত্রা বোঝাতে মুসলমানদের ধর্মীয় গ্রন্থ কোরআন শরীফরক উদ্ধৃত করে তিনি বলেছেন, “কোরআন শরীফেও বলা আছে, এতিমের টাকা চুরি করো না, এতিমের ভাগ এতিমকে দাও। 

“২৭ বছরে এতিমের ভাগ এতিমকে দিতে পারে নাই। সেই টাকা তার নিজের কাছে রেখে দিয়েছে। আর তারই শাস্তি আজকে সে ভোগ করছে।”

জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট মামলায় এতিম তহবিলের ২ কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের জন্য সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া ও তার ছেলে তারেক রহমানসহ ছয়জনকে কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। গত ৮ ফেব্রুয়ারি এই মামলায় রায় ঘোষণার পর থেকে কারাগারে বন্দি আছেন খালেদা জিয়া।  

তার মুক্তি দাবিতে বিক্ষোভ, অবস্থান, মানববন্ধন, অনশন ও স্বাক্ষর সংগ্রহসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি।

এই আন্দোলনের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “আজকে বিএনপি নেতারা আন্দোলন করে, কিসের আন্দোলন? টাকা চুরি করে তাদের নেত্রী জেলে গেছে। সেই জন্য আন্দোলন, চোরের জন্য।”

রাজশাহী সরকারি মাদ্রাসা মাঠে বৃহস্পতিবার বিকালে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় বক্তব্যে একথা বলেন তিনি। খালেদা জিয়া কারাগারে যাওয়ার পর এটাই ছিল তার প্রথম জনসভা।

শেখ হাসিনা বলেন, “বিএনপি মানুষের কল্যাণ করতে পারে না, লুটপাট করে খেতে পারে। সেই ’৯১ সালে এতিমখানা তৈরি করবে বলে বিদেশ থেকে টাকা এনেছে। কিন্তু সেই এতিমখানা কই? কেউ এতিমখানার ঠিকানা জানে না। সে টাকা নয় ছয় করে, লুটপাট করে খেয়েছে।

“আমার প্রশ্ন, এতিমখানার ঠিকানাটা কোথায়? সেই ঠিকানা দিতে পারে নাই। সেখানে কয়জন এতিম আছে? তার কোনো সংখ্যা নাই।এতিমরা কী একটা টাকাও পেয়েছে এ পর্যন্ত? পায় নাই।”

এতিমদের জন্য জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে বগুড়ার গাবতলীতে নয় বিঘা জমি কেনা হলেও সেখানে কোনো ভবন তৈরি হয়নি।

বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এতিমদের তহবিলের ওই টাকা ব্যাংকে গচ্ছিত আছে এবং সুদে আসলে তা অনেক বেড়েছে। 

এ প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, “আজ প্রায় ২৬-২৭ বছর পর তারা বলে, না টাকা তো আছে। সুদে আসলে বেড়েছে।তারা বলে, এতিমের টাকা আছে। সুদ বেড়েছে। সুদ বাড়লে সুদ খেয়েছে কে?

“এতিমের টাকা সুদ আসলে বেড়েছে। আর তা ভোগ করেছে খালেদা জিয়া ও তার পরিবার। এতিমের তো ভাগ্যের পরিবর্তন হয় না। তাদের বঞ্চিত করেছে।”

তিনি বলেন, “এতিমের টাকা এতিমের হাতে যায় নাই। সে টাকা লুট করে খেয়ে নিয়ে … আজকে মামলা দিয়েছে কে? মামলা দিয়েছে তত্ত্বাবধায়ক সরকার। সেই মামলায় আজকে তার সাজা হয়েছে, সে গ্রেপ্তার হয়েছে।

“লুট করা, চুরি করা- এটাই তাদের চরিত্র।”

রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ এইচ এম খায়রুজ্জামানের সভাপতিত্বে এই জনসভা হয়। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার আমলে ২০০১ থেকে ২০০৬ সাল মেয়াদে রাজনৈতিক সহিংসতায় নিহত আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের তালিকা সেখানে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

২০০৯ সাল থেকে দেশে হওয়া উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে এর ধারাবাহিকতা রক্ষায় একাদশ সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীকে ভোট চান তিনি।

জনসভায় উপস্থিত সবাইকে হাত তুলে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার ওয়াদা করান আওয়ামী লীগ সভানেত্রী।  

]]>
1463108 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajshahi-01.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajshahi-01.jpg 1463037 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajsahi-al-meeting-00.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajsahi-al-meeting-00.jpg 1463110 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajshahi-21.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajshahi-21.jpg 1463111 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajshahi-24.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajshahi-24.jpg 1463112 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajshahi-09.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajshahi-09.jpg
3 2 Home politics_bn রাজনীতি news-bn 198 1462912 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 12:18:36.0 2018-02-22 19:33:11.0 খালেদার জরিমানা স্থগিত, জামিনে আরো অপেক্ষা খালেদার জরিমানা স্থগিত, জামিনে আরো অপেক্ষা জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজার রায়ের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে নিম্ন আদালতের দেওয়া অর্থদণ্ড স্থগিত করেছে হাই কোর্ট। জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজার রায়ের বিরুদ্ধে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আপিল আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করে নিম্ন আদালতের দেওয়া অর্থদণ্ড আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত স্থগিত করেছে হাই কোর্ট। false https://bangla.bdnews24.com/politics/article1462912.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/08/khaleda-zia-old_dhaka_jail_08022018-0003.jpg/ALTERNATES/w300/Khaleda-Zia-Old_Dhaka_Jail_08022018-0003.jpg জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের পর আদালত থেকে কারাগারের পথে খালেদা জিয়া (ফাইল ছবি)
তবে পাঁচ বছরের দণ্ড নিয়ে কারাগারে থাকা খালেদা জিয়া এ মামলায় জামিন পাবেন কি না- তা জানতে রোববার পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

আপিলের গ্রহণযোগ্যতার শুনানি করে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সহিদুল করিমের হাই কোর্ট বেঞ্চ বৃহস্পতিবার এই আদেশ দেয়।

আদালত বলেছে, আপিল শুনানির জন্য আদেশ পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালত থেকে মামলার নথি হাই কোর্টে পাঠাতে হবে।

এদিন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের ওপর শুনানি শুরু হলেও দুদকের সময়ের আবেদনে রোববার বেলা ২টায় শুনানির নতুন সময় ঠিক করে দিয়েছে আদালত।  

ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আখতারুজ্জামান গত ৮ ফেব্রুয়ারি এ মামলার রায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন।

খালেদা জিয়ার ছেলে তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামির প্রত্যেককে ১০ বছরের জেল এবং আসামিদের প্রত্যেককে ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার করে জরিমানা করা হয় রায়ে।

পূর্ণাঙ্গ রায়ে বলা হয়, সরকারি এতিম তহবিলের টাকা এতিমদের কল্যাণে ব্যয় না করে পরস্পর যোগসাজশে আত্মসাৎ করে খালেদা জিয়াসহ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার আসামিরা রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধ করেছেন।

১১৬৮ পৃষ্ঠার ওই রায়ের সত্যায়িত অনুলিপি হাতে পাওয়ার পর গত ২০ ফেব্রুয়ারি হাই কোর্টে আপিল করেন বিএনপি চেয়ারপারসনের আইনজীবীরা।

আদালত খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের মঙ্গলবারই রাষ্ট্রপক্ষ ও দুদককে আপিল ও জামিন আবেদনের কপি সরবরাহ করতে বললেও আসামিপক্ষের অন্যতম আইনজীবী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল অনুলিপি হস্তান্তর করেন বৃহস্পতিবার সকালে।

মূল রায়সহ ১২২৩ পৃষ্ঠার আপিল আবেদনে ৪৪টি যুক্তি দেখিয়ে খালেদা জিয়ার খালাস চাওয়া হয়। আর ৮৮০ পৃষ্ঠার জামিন আবেদনের মধ্যে ৪৮ পৃষ্ঠাজুড়ে ৩২টি যুক্তিতে খালেদা জিয়ার মুক্তি চাওয়া হয়।

শুনানির সময় হট্টগোল

আপিলের গ্রহণযোগ্যতার শুনানির জন্য দুই পক্ষের আইনজীবীরাই সকালে আদালতে উপস্থিত হন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবীদের মধ্যে ছিলেন মওদুদ আহমদ, জমির উদ্দিন সরকার, খন্দকার মাহবুব হোসেন, জয়নুল আবেদীন, আব্দুর রেজাক খান, মাহবুব উদ্দিন খোকন, সানা উল্লা মিয়া, আমিনুল হক, রাগীব রউফ চৌধুরী, সগীর হোসেন লিয়ন ও ব্যারিস্টার এ কে এম এহসানুর রহমান। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ কয়েকজন বিএনপি নেতাকেও আদালতে দেখা যায়।

অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল মুরাদ রেজা ও মোমতাজ উদ্দিন ফকির এবং ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফরহাদ আহম্মেদ। দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খূরশীদ আলম খান ও মোশারফ হোসেন কাজল। 
 
সকাল সাড়ে ১০টায় আদালত বসলে খালেদা জিয়ার আইনজীবী মাহাবুব উদ্দিন খোকন আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এরপর রাষ্ট্রপক্ষে ফরহাদ আহম্মেদ বলেন, তারা খুব অল্প সময় আগে আসামিপক্ষের কাছ থেকে কপি পেয়েছেন। শুনানির আগে তাদের সময় প্রয়োজন।

রাষ্ট্রপক্ষ বেলা ২টা পর্যন্ত সময় চাইলেও বিচারক শুনানির জন্য বেলা ১২টায় সময় ঠিক করে দেন।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে দুই পক্ষের আইনজীবীদের আদালতে উপস্থিত দেখে জ্যেষ্ঠ বিচারক বলেন, যেহেতু দুই পক্ষই উপস্থিত আছে, সেহেতু আগেই শুনানি শুরু হতে পারে।

কিন্তু আসামিপক্ষ এ সময় একজন জ্যেষ্ঠ আইনজীবীর জন্য কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার কথা বলে।  

এই অপেক্ষার মধ্যেই বিএনপিপন্থি আইনজীবীদের ব্যাপক ভিড়ের কারণে আদালতে হট্টগোল তৈরি হয়। খালেদা জিয়ার জ্যেষ্ঠ আইনজীবীদেরও ওই ভিড় পেরিয়ে এজলাসে পৌঁছাতে বেগ পেতে হয়।

এ সময় অ্যাটর্নি জেনারেল দাঁড়িয়ে আদালতকে বলেন, এভাবে শুনানি করা সম্ভব না। তিনি দুই পক্ষেই আইনজীবীর সংখ্যা সীমিত করে দিতে অনুরোধ করেন।

বিচারক এ বিষয়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল আবেদীনের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তিনিও সহমত প্রকাশ করেন।

এসময় আদালত কক্ষে হৈ চৈ-হট্টগোল আরও বেড়ে গেলে উভয় পক্ষকে পরিস্থিতি সামাল দিতে বলে পৌনে ১২টায় আদালত ১০ মিনিট বিরতিতে যায়।

আদালত নেমে গেলে হট্টগোল আরও বেড়ে যায়। এসময় খালেদা জিয়ার আইনজীবী জমির উদ্দিন সরকার ও রেজাক খান আদালত কক্ষের দরজাতেই আটকা পড়েন। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলকে আসন থেকে উঠে পরিস্থিতি সামাল দিতে দেখা যায়। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশারফ হোসেনও তার সঙ্গে ছিলেন।

দশ মিনিট পর ঠিক ১২টায় আদালত বসলে জয়নুল আবেদীন দাঁড়িয়ে বলেন, তাদের জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা উপস্থিত রয়েছেন। আপিলটি শুনানি করবেন এ জে মোহাম্মদ আলী।

সংশোধিত ফৌজদারি আইনের ১০(১) ধারায় আপিলটি করা হয়েছে জানিয়ে এ জে মোহাম্মদ আলী তা শুনানির জন্য গ্রহণ করার আবেদন করেন।

আপিল গ্রহণ করা হলে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন দেওয়া হবে বলে জানান এই আইনজীবী।

নথি দেখে বিচারক বলেন, “ফৌজদারি কার্যবিধি অনুযায়ী সাজা বা দণ্ড স্থগিতের বিধান আছে। কনভিকশন কি স্থগিত করা যায়? ক্রিমিনাল অ্যাক্ট ল অ্যামেন্ডম্যান্ড অ্যাক্টে কনভিকশন স্থগিতের বিধান নাই। আপনারা তো সাজা স্থগিতের পাশাপশি কনভিকশনও স্থগিত চেয়েছেন।”

মোহাম্মদ আলী বলেন, “সাধারণত এটা একটা প্রথা। সেজন্য এটা আমরা চেয়েছি।”

এরপর আদালত আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করে আদেশ দেয়।

দুর্নীতির দায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ৫ বছর সাজা

সাজার রায়ের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল

খালেদা রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধী: আদালত

 

জামিন শুনানি

আদালত আপিল আবেদন শুনানির জন্য গ্রহণ করার পর খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন শুনানির জন্য ওঠে।

এ জে মোহাম্মদ আলী বলেন, “পনের দিন ধরে তিনি (খালেদা জিয়া) কাস্টডিতে আছেন। যেহেতু তাকে লঘু সাজা দেওয়া হয়েছে, সেজন্য আমরা তার জামিন চাইছি। বয়স, সামাজিক অবস্থান বিবেচনায় তিনি জামিন পাওয়ার অধিকার রাখেন।” 

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এ সময় দাঁড়িয়ে বলেন, “আপিল ইতোমধ্যে আদালত গ্রহণ করেছে। আজ সকালে আমরা জামিন আবেদন পেয়েছি। রেকর্ড আসার পরই বিষয়টি (জামিন আবেদন) নিয়ে শুনানি করা হোক।”

এ সময় বিচারক বলে, “আপিলকারীর সাজা তো কম। আদালতের রীতি আছে পাঁচ-সাত বছর বা তার কম সাজা কম হলে জামিন দেওয়ার। তারা তো অন মেরিট বেইল চাচ্ছে না।”

দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, ফৌজদারি আইনে নারী হিসেবে আদালত জামিনের বিষয়টি বিবেচনা করতে পারে। কিন্তু দুদক আইনে সে সুযোগ নেই। জামিনের আবেদন অনেক বড়, যুক্তিও দেওয়া হয়েছে অনেক। কার্যতালিকায় এনেই শুনানি করা হোক।

এ সময় এ জে মোহাম্মদ আলী বলেন, সাধারণত কম সাজা হলে আপিল করলে জামিন দিয়ে দেওয়া হয়।

বিচারক এ সময় বলেন, “আপিল বিভাগের অনেক আদেশ আছে, কম সাজা হলে জামিন দিয়ে দেওয়া হয়। কিন্তু সেগুলো এসব স্পেশাল আইন প্রণয়নের আগে। যেহেতু দুদক আইনে আছে তাদের যুক্তিসঙ্গত সময় দেওয়ার, তাই আমরা রোববার দুপুর ২টায় শুনানির জন্য রাখলাম।”

জামিন আবেদনের যুক্তি

খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জানান, ৩২টি গ্রাউন্ডে জামিন আবেদনটি করা হয়েছে। ৪৮ পৃষ্ঠার গ্রাউন্ড ও মামলার আনুষঙ্গিক নথিপত্রসহ জামিন আবেদনটি মোট ৮৮০ পৃষ্ঠার।

জামিন আবেদনের যুক্তিতে বলা হয়েছে, আবেদনকারীর বয়স ৭৩ বছর। তিনি শারীকিভাবে বিভিন্ন জাটিলতায় ভুগছেন। তিনি ৩০ বছর ধরে গেঁটেবাত, ২০ বছর ধরে ডায়াবেটিস, ১০ বছর ধরে উচ্চ রক্তচাপ ও রক্তে আয়রন ঘাটতিতে ভুগছেন।

১৯৯৭ সালে খালেদা জিয়ার বাঁ হাঁটু এবং ২০০২ সালে ডান হাঁটু প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। এ কারণে তার গিঁটে ব্যথা হয়, যা প্রচণ্ড যন্ত্রণাদায়ক। এ কারণে তাকে হাঁটাহাঁটি না করার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। শারীরিক এসব জাটিলতার কারণ বিবেচনায় নিয়ে জামিন মঞ্জুর করার আর্জি জানানো হয়েছে আবেদনে।

আরেক যুক্তিতে বলা হয়েছে, উপমহাদেশ ও দেশের উচ্চ আদালতের দীর্ঘ ঐতিহ্য অনুযায়ী, আসামি নারী হলে তার অনুকূলে জামিন বিবেচনা করা হয়।

রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বীদের নির্মূলের জন্য ২০০৭-০৮ সালে সেনা সমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট মামলাটি করেছিল দাবি করে জামিনের আরেক যুক্তিতে বলা হয়, মামলার প্রথম অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা জামিন আবেদনকারীর বিরুদ্ধে অভিযোগের কোনো প্রমাণ খুঁজে পায়নি।

“তাছাড়া জামিন আবেদনকারী বাংলাদেশের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির চেয়ারপারসন। বিচারিক আদালত  এ বিষয়টি উপেক্ষা করেছে। যে মামলায় তাকে সাজা দেওয়া হয়েছে তা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, তাকে হয়রানী করার জন্য। ফলে তার জামিন আবেদন গ্রহণের সবিনয় আর্জি জানাচ্ছি।”

শুনানির পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিএনপি নেতা ও খালেদা জিয়ার আইনজীবী মওদুদ আহমদ বলেন, আগামী রোববার খালেদা জিয়া জামিন পাবেন বলে তিনি আশা করছেন।  

“আদালত যা ভাল মনে করেছে সেটাই করেছে। আমরাও সেটা মেনে নিয়েছি। আগামী রোববার খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের ওপর শুনানি হবে। আমরা আশা করছি ওইদিনই আদালত তাকে জামিন দেবে।”

আর খুরশীদ আলম খান বলেন, “যেহেতু দুর্নীতি দমন কমিশন এই মামলার বাদী, এই আইনেই বলা আছে, দুর্নীতি দমন কমিশনের বিরুদ্ধে কোনো প্রতিকার চাইতে গেলে কমিশনকে তা শুনতে হবে। যেহেতু জামিন আবেদনটি বিশাল। সেখানে ৩২টি গ্রাউন্ড আছে, মমলার এফআইরসহ আবেদনটি মোট ৮৮০ পৃষ্ঠার, তাই যুক্তিসঙ্গত সময় চাইলাম। আদালত আমাদের যুক্তি শুনে আগামী রোববার বেলা ২টায় শুনানির জন্য রেখেছে।”

]]>
1457756 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/08/khaleda-zia-old_dhaka_jail_08022018-0003.jpg/ALTERNATES/w300/Khaleda-Zia-Old_Dhaka_Jail_08022018-0003.jpg জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের পর আদালত থেকে কারাগারের পথে খালেদা জিয়া (ফাইল ছবি)
4 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1463033 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 18:06:18.0 2018-02-22 19:15:40.0 মার্চ থেকে ফের ১০ টাকায় চাল মার্চ থেকে ফের ১০ টাকায় চাল আগামী মার্চ মাস থেকে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির ‘খাদ্যবান্ধব’ কর্মসূচি আবার শুরু হচ্ছে। আগামী মার্চ মাস থেকে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির ‘খাদ্যবান্ধব’ কর্মসূচি আবার শুরু হচ্ছে। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1463033.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/food-minister-1.jpg/ALTERNATES/w300/food-minister-1.jpg https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2016/09/10/gopalgonj--1-.jpg/ALTERNATES/w300/Gopalgonj-%281%29.jpg
এই কর্মসূচির আওতায় অতি দরিদ্র ৫০ লাখ পরিবারকে ১০ টাকা কেজি দরে মাসে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়। সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর এবং মার্চ ও এপ্রিল এই পাঁচ মাস ১০ টাকা কেজিতে চাল পান দরিদ্ররা।

খাদ্য অধিদপ্তরে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেন, “প্রাকৃতিক দুর্যোগে ফসল নষ্ট হওয়ায় গত বছরের সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বর মাসে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি সাময়িকভাবে বন্ধ ছিল। সেই অবস্থা থেকে বের হয়ে এসেছি।

“চলতি বছরের মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত এ কার্যক্রম আবার শুরু হবে এবং ভবিষ্যতেও তা চলবে।”

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলায় ‘খাদ্যবান্ধব’ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কর্মসূচি শুরুর পর বিত্তবানদের নামে ১০ টাকা চালের কার্ড বিতরণের অভিযোগের পাশাপাশি নানা অনিয়মে বেশ কয়েকজনের ডিলারশিপ বাতিল করা হয়।  

সে সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই কর্মসূচিতে অনিয়মের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছিলেন।

মন্ত্রী কামরুল বলেন, “চাল বিতরণ কার্যক্রমে কোনো ধরনের অসাদুপায় বা দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করা হবে।”

খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে বছরে সাড়ে সাত হাজার মেট্রিক টন চাল লাগবে বলে তিনি বলেন, “বর্তমানে সরকারি গুদামে ১৪ লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন খাদ্যশস্য মজুদ আছে। এর মধ্যে ১০ লাখ ৪০ হাজার টন চাল এবং তিন লাখ ৮০ টন গম। এ সপ্তাহের মধ্যে রেকর্ড পরিমাণ ১৬ লাখ মেট্রিক টন খাদ্যশস্য মজুদ হয়ে যাবে।”

কামরুল জানান, চলতি আমন মৌসুমে ছয় লাখ মেট্রিক টন চাল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। ইতোমধ্যে পাঁচ লাখ ৪০ হাজার মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করা হয়েছে, বাকিটাও নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সংগ্রহ করা হবে।

২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, “২০১৭ সালে হাওর অঞ্চলে হঠাৎ অতি বন্যা এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগে ১২ লাখ টন খাদ্যশস্য সংগ্রহ করার কথা থাকলেও সংগ্রহ করতে পেরেছিলাম মাত্র আড়াই লাখ টন।

“তখন সরকারের গুদামে খাদ্যশস্যের মজুদ এক লাখ ৩০ হাজার টনে নেমে এসেছিল। চালের একটি চরম সঙ্কট দেখা দিয়েছিল।”

কৃষকদের কথা বিবেচনায় রেখে চালের কেজি ৪০ টাকার নিচে হওয়া উচিত নয় বলে সাংবাদিকদের প্রশ্নে মত দেন খাদ্যমন্ত্রী।

খাদ্য সচিব শাহবুদ্দিন আহমদ, খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বদরুল হাসান ছাড়াও খাদ্য অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

]]>
1463087 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/food-minister-1.jpg/ALTERNATES/w300/food-minister-1.jpg 1210548 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2016/09/07/pid9766.jpg/ALTERNATES/w300/PID9766.jpg ২০১৬ সালের ৭ সেপ্টেম্বর ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
5 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1462920 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 13:11:07.0 2018-02-22 15:14:08.0 দুর্নীতির ধারণাসূচকে বাংলাদেশের উন্নতি দুর্নীতির ধারণাসূচকে বাংলাদেশের উন্নতি ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল প্রকাশিত ‘দুর্নীতির ধারণাসূচকে’ এ বছর বাংলাদেশের অবস্থানের সামান্য উন্নতি হয়েছে। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল প্রকাশিত ‘দুর্নীতির ধারণাসূচকে’ এ বছর বাংলাদেশের অবস্থানের সামান্য উন্নতি হয়েছে। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1462920.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/tib-corruption-index-02.jpg/ALTERNATES/w300/tib-corruption-index-02.jpg
বিশ্বের ১৮০টি দেশ ও অঞ্চলের ২০১৭ সালের দুর্নীতির পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে বার্লিনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান টিআই বৃহস্পতিবার এই সূচক প্রকাশ করেছে।

সূচকের ঊর্ধ্বক্রম অনুযায়ী (ভাল থেকে খারাপ) বাংলাদেশের অবস্থান এবার ১৪৩ নম্বরে। গতবার ১৭৬টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৪৫ নম্বরে।

আবার অধঃক্রম অনুযায়ী (খারাপ থেকে ভালো) বিবেচনা করলে বাংলাদেশ আগের ১৫তম অবস্থান থেকে এবার ১৭তম অবস্থানে উঠে এসেছে।

১০০ ভিত্তিতে এই সূচকে বাংলাদেশের স্কোর এবার ২ পয়েন্ট বেড়ে ২৮ হয়েছে। এই স্কেলে শূন্য স্কোরকে দুর্নীতির ব্যাপকতার ধারণায় সবচেয়ে বেশি দুর্নীতিগ্রস্ত এবং ১০০ স্কোরকে সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত বা সর্বোচ্চ সুশাসনের দেশ হিসাবে বিবেচনা করা হয়।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বৃহস্পতিবার ধানমন্ডির মাইডাস সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এবারের প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক এবং বাংলাদেশের দুর্নীতির পরস্থিতি তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, “ধারণাসূচকে বাংলাদেশ হয়ত দুই ধাপ এগিয়েছে, কিন্তু এটা মোটা দাগে আশার সঞ্চার করে না। কারণ দক্ষিণ এশিয়ায় কেবল আফগানিস্তানের থেকে আমরা এগিয়ে আছি। আর এশিয়া-প্যাসিফিক অঞ্চলেও নিচের দিক থেকে আমাদের অবস্থান চতুর্থ।

“অন্যদিকে আমাদের এগিয়ে যাওয়া কিছুটা উর্ধ্বগামী হলেও সেটা স্থায়িত্বশীল ও দ্রুত নয়।”

টিআই এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, তালিকায় এবারও সবচেয়ে খারাপ অবস্থায় আছে আফ্রিকার দেশ সোমালিয়া; তাদের স্কোর গতবারের তুলনায় ১ পয়েন্ট কমে হয়েছে ৯।

এরপরে রয়েছে যথাক্রমে সাউথ সুদান, সিরিয়া, আফগানিস্তান, ইয়েমেন, সুদান, লিবিয়া, উত্তর কোরিয়া, গিনি-বিসাউ, ইকুয়েটোরিয়াল গিনি, ভেনেজুয়েলা ও ইরাক।

অন্যদিকে সর্বোচ্চ ৮৯ স্কোর নিয়ে তালিকায় সবচেয়ে ভালো অবস্থানে আছে নিউ জিল্যান্ড। এর পরে রয়েছে ডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, নরওয়ে, সুইজারল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, সুইডেন, কানাডা, লুক্সেমবুর্গ, নেদারল্যান্ডস ও  যুক্তরাজ্য।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে এবারের সূচকে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে আছে ভুটান। ৬৭ স্কোর নিয়ে ভুটানের অবস্থান সূচকের ঊর্ধ্বক্রম অনুযায়ী ২৬ নম্বরে। এরপর ভারত ৮১ (স্কোর ৪০), শ্রীলঙ্কা ৯১ (স্কোর ৩৮), মালদ্বীপ ১১২ (স্কোর ৩৩), পাকিস্তান ১১৭ (৩২), নেপাল ১২২ (স্কোর ৩১) এবং যুদ্ধ বিধ্বস্ত আফগানিস্তান ১৭৭তম (স্কোর ১৫) অবস্থানে রয়েছে।

২৮ স্কোরে বাংলাদেশের সঙ্গে একই অবস্থানের রয়েছে- গুয়াতেমালা, কেনিয়া, লেবানন ও মৌরিতানিয়া।

আইনি, প্রাতিষ্ঠানিক ও নীতি কাঠামোতে তুলনামূলকভাবে সুদৃঢ় অবস্থানের কারণে বাংলাদেশ এবার সূচকে সামান্য এগিয়েছে মন্তব্য করে ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ই-প্রকিউরমেন্টসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ডিজিটাইজেশনও এক্ষেত্রে ফল দিয়েছে।

“কিন্তু সেই নীতি প্রয়োগে ঘাটতি, ব্যাংকিং ও অর্থনৈতিক খাতসহ বিভিন্ন খাতে ক্রমবর্ধমান অনৈতিক প্রভাব বিস্তার, অনিয়ম ও দুর্নীতি ও বিশৃঙ্খলায় জড়িত ও সহায়তাকারীদের বিচারের আওতায় আনতে তথা জবাবদিহিতা নিশ্চিতে উল্লেখযোগ্য সাফল্য না পাওয়ায় আমরা আরও ভালো করতে পারিনি।”

নির্বাচনী বছরে সূচকের এই অগ্রগতি কোনো প্রভাব ফেলবে কি-না, এমন প্রশ্নে ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “প্রভাব ফেলার বিষয় আমরা মাথায় রাখি না। নির্বাচনে এর সুফল আসে কি-না সেটার চেয়ে বড় কথা হচ্ছে, আমরা এই অগ্রগতিতে সন্তুষ্ট না। বিব্রতকরভাবে কেবল আফগানিস্তানের থেকে এগিয়ে।”

দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজার রায় সূচকের অগ্রগতিতে ভূমিকা রেখেছে কি-না এমন প্রশ্নে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক বলেন, “এই সূচকটি ওই মামলার রায় হওয়ার আগেই হয়েছে, ২০১৭ সালের তথ্য নিয়ে। এটার প্রভাব পড়ে কি-না সেটা পরেরবার দেখা যাবে।

“তবে এখন আমরা যদি বলি, সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে বিচারের আওতায় আনার মাধ্যমে বাংলাদেশে আইনের চোখে সবাই সমান হয়ে গেছে- তা কিন্তু নয়। এর ধারাবাহিকতা যদি না রাখতে পারি অন্য সবক্ষেত্রে, তাহলে দুর্নীতি ও এর বিচার নিয়ে জনমনে প্রশ্ন থেকেই যাবে।”

টিআইবির করা বিভিন্ন জরিপ ও ফলাফল দুর্নীতির এই ধারণা সূচক প্রণয়নে কোনো ভূমিকা রাখে না দাবি করে টিআইবি নির্বাহী বলেন, বিশ্বব্যাপী মোট ১৩টি প্রতিষ্ঠানের জরিপ ও গবেষণার উপর ভিত্তি করে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল এই সূচক প্রণয়ন করে।

তিনি জানান, বাংলাদেশের ক্ষেত্রে আটটি জরিপের সাহায্য নেওয়া হয়েছে। তার মধ্যে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের ‘এক্সিকিউটিভ ওপিনিয়ন সার্ভে’, ইকোনমিক ইন্টেলিজেন্স ইউনিটের ‘কান্ট্রি রিস্ক অ্যাসেসমেন্ট’, ওয়ার্ল্ড জাস্টিস প্রজেক্টের ‘রুল অব ল’ ইনডেক্স’, পলিটিক্যাল রিস্ক সার্ভের ‘ইন্টারন্যাশনাল কান্ট্রি রিস্ক গাইড’, বার্টেলসম্যান ফাউন্ডেশনের ‘ট্রান্সফরমেশন ইনডেক্স’ এবং বিশ্ব ব্যাংকের ‘কান্ট্রি পলিসি অ্যান্ড ইনস্টিটিউশনাল অ্যাসেসমেন্টের’ তথ্য এক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা রেখেছে।

]]>
1462926 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/tib-corruption-index-02.jpg/ALTERNATES/w300/tib-corruption-index-02.jpg 1462925 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/tib-corruption-index-03.jpg/ALTERNATES/w300/tib-corruption-index-03.jpg
6 2 Home business_bn বাণিজ্য news-bn 213 1463175 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 22:00:57.0 2018-02-22 22:01:03.0 আন্তর্জাতিক কলরেট পুনর্নির্ধারণ আন্তর্জাতিক কলরেট পুনর্নির্ধারণ আন্তর্জাতিক ইনকার্মিং কলের টার্মিনেশন রেট পুনর্নির্ধারণ করেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। আন্তর্জাতিক ইনকার্মিং কলের টার্মিনেশন রেট পুনর্নির্ধারণ করেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি। false https://bangla.bdnews24.com/business/article1463175.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2013/04/02/btrc-logo-tm.jpg/ALTERNATES/w300/BTRC-logo-tm.jpg
সর্বনিম্ন পৌনে দুই সেন্ট (০.০১৭৫ মার্কিন ডলার) এবং সর্বোচ্চ আড়াই সেন্ট (০.০২৫০ মার্কিন ডলার) কল টার্মিনেশন রেট পুননির্র্ধারণ করে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সব মোবাইল ফোন অপারেটর, আইজিডব্লিউ এবং আইসিএক্সের নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে চিঠি দিয়েছে বিটিআরসি।

চিঠিতে বলা হয়েছে, সর্বনিম্ন কল টার্মিনেশন রেটের ভিত্তিতে রাজস্ব ভাগাভাগি হবে।পত্র জারি অর্থাৎ বৃহস্পতিবার থেকেই এ সিদ্ধান্ত কার‌্যকর হচ্ছে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

এছাড়া চিঠিতে বলা হয়, বৈদেশিক মুদ্রা আহরণে বিটিসিএলসহ সব আইজিডব্লিউ অপারেটর কমিশন নির্ধারিত সীমানায় সর্বোচ্চ রেটে আন্তর্জাতিক কল টার্মিনেশন করবে। এর ব্যত্যয় হলে দেশে বৈদেশিক মুদ্রা কম আনা হয়েছে বলে গণ্য হবে এবং প্রয়োজনে বিটিআরসি এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সহায়তা নেবে।

অপারেটররা বলছে, এ সিদ্ধান্তে আইজিডব্লিউ অপারেটরদের আয়ের পথ আরেক ধাপ বাড়ল। এর ফলে বৈধপথে আন্তর্জাতিক কলের পরিমাণ কমে যাবে এবং ওটিটি (ভাইবার, হোয়াটঅ্যাপস ইত্যাদি) কল বাড়বে ফলে অপারেটরদের রাজস্ব কমবে বলেও আশংকা প্রকাশ করেছে তারা।

তবে বিটিআরসি চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “বিষয়টা অনেকটা পরীক্ষামূলকভাবে নেওয়া হয়েছে। বিটিআরসি ইচ্ছা করলে যে কোনো সময় এই কলরেট পুনর্নির্ধারণ করতে পারবে।”

বর্তমানে আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগে ‘ইনকামিং কল টার্মিনেশন রেট’ সর্বনিম্ন দেড় সেন্ট থেকে সর্বোচ্চ সাড়ে ৩ সেন্ট।

আন্তর্জাতিক কল পরিচালনায় কর্তৃত্ব পাওয়া আইজিডব্লিউ অপারেটরদের ফোরাম ‘আইওএফ’ ২০১৫ সালের অগাস্ট থেকে এই হার দেড় সেন্ট থেকে বাড়িয়ে দুই সেন্ট নির্ধারণ করে।

তখন ‘ইনকামিং কল টার্মিনেশন রেট’ বাড়লেও সরকার, ইন্টার এক্সচেঞ্জ অপারেটর (আইসিএক্স) এবং মোবাইল অপারেটদের মধ্যে দেড় সেন্ট দাম ধরেই রাজস্ব ভাগাভাগি হচ্ছে এবং বাড়তি ৫ সেন্ট (০.০০৫ ডলার) যাচ্ছে আইজিডব্লিউ অপারেটরদের হাতে।

কল টার্মিনেশন রেট দুই সেন্ট করার পর বৈধ পথে কলের পরিমাণ কমে আসে, ফলশ্রুতিতে সরকার ও অন্যান্য অপারেটরদের আয়ও কমে যায় বলে গত বছর বিটিআরসির এক  প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। দৈনিক ১১ কোটি কল নেমে আসে সাড়ে সাত কোটিতে।

এ ঘটনার পর কল কমে আসায় এবং অবৈধ পথে কলের সংখ্যা বাড়ায় সরকার দৈনিক প্রায় দুই কোটি টাকা করে রাজস্ব হারাচ্ছে বলেও ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছিল।

বর্তমানে রাজস্ব আয়ের ৪০ শতাংশ বিটিআরসি, ২০ শতাংশ আইজিডব্লিউ, ১৭ দশমিক ৫ শতাংশ আইসিএক্স এবং ২২ দশমিক ৫ শতাংশ এএনএস পায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোবাইল ফোন অপারেটরদের একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেছেন, এ সিদ্ধান্তে প্রাথমিকভাবে মনে হতে পারে ইন্টার এক্সচেঞ্জ অপারেটর (আইসিএক্স) এবং মোবাইল অপারেটদের মধ্যে দেড় সেন্ট দাম থেকে পৌনে দুই সেন্ট হিসেবে রাজস্ব ভাগাভাগিতে লাভ বাড়বে।

তবে এ ধারণা ঠিক নয় জানিয়ে তারা বলছেন, সর্বোচ্চ কল টার্মিনেশন রেট আড়াই সেন্ট করাতে (আগে দুই সেন্ট হিসেবে ছিল) আইজিডব্লউ অপারেটররা বেশি দামে কল আনবে, দাম বেশি হওয়াতে অবৈধ পথে কল বাড়বে এতে বৈধপথে কলের পরিমাণ কমে যাবে, কল কম আসাতে রাজস্বও কমে যাবে।

এ সিদ্ধান্তে আইজিডব্লউ অপারেটরদের সেলিং ২৫ শতাংশ বৃদ্ধি হওয়ায় আয়ের পথ আরেক ধাপ বাড়ল বলে মনে করছে মোবাইল ফোন অপারেটররা। সরকার যদি পৌনে দুই সেন্ট ফ্ল্যাট রেট হিসেবে সিদ্ধান্ত নেয় তাহলে এ সমস্যা থাকবে না বলেও জানিয়েছে অপারেটররা।

]]>
7 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1462967 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 14:59:46.0 2018-02-22 15:07:07.0 শিক্ষা প্রশাসনের আলোচিত ২৩ কর্মকর্তাকে বদলি শিক্ষা প্রশাসনের আলোচিত ২৩ কর্মকর্তাকে ঢাকার বাইরে বদলি শিক্ষা প্রশাসনের কর্মকর্তা হিসেবে দীর্ঘ দিন ধরে ঢাকায় কর্মরত বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের ২৩ জনকে রাজধানীর বাইরে বদলি করেছে সরকার। শিক্ষা প্রশাসনের কর্মকর্তা হিসেবে দীর্ঘ দিন ধরে ঢাকায় কর্মরত বিসিএস শিক্ষা ক্যাডারের ২৩ জনকে রাজধানীর বাইরে বদলি করেছে সরকার। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1462967.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2016/06/22/education-ministry-of-bangl.jpg/ALTERNATES/w300/Education-ministry-of-bangl.jpg
এর মধ্যে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সাবেক সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস), ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক ও বিদ্যালয় পরিদর্শক, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) পরিচালক, উপ-পরিচালক ও সহকারী পরিচালক; জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) এবং পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা রয়েছেন।

মাউশির আটজন, ঢাকা বোর্ডের ছয় জন, এনসিটিবির নয়জন, পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের একজন এবং ঢাকার বাইরের কয়েকটি শিক্ষা বোর্ডের ছয় কর্মকর্তাকে বদলি করে বৃহস্পতিবার আদেশ জারি করেছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ।

প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে তীব্র সমালোচনার মধ্যে এসএসসি পরীক্ষা শেষ হওয়ার আগেই শিক্ষা মন্ত্রণালয় এই ব্যবস্থা নিল।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, শিক্ষা প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তা প্রভাব খাটিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে ঢাকায় পোস্টিং টিকিয়ে রেখেছিলেন। তাদের কারও কারও বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতিতে জড়ানোরও অভিযোগ এসেছে বিভিন্ন সময়ে।

ঢাকার বাইরে যেতে হচ্ছে যাদের

 

মাউশির পরিচালক (মনিটরিং অ্যান্ড ইভালুয়েশন উইং) মো. সেলিম, উপ-পরিচালক (হিসাব ও নিরীক্ষা) মো. ফজলে এলাহী, উপ-পরিচালক (কলেজ-২) মো. মেসবাহ উদ্দিন সরকার, উপ-পরিচালক এস এম কামাল উদ্দিনকে বদলি করে ঢাকার বাইরে পাঠানো হয়েছে।

মাউশির উপ-পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম সিদ্দিকি, সহকারী পরিচালক (কলেজ-৪) জাকির হোসেন, উপপরিচালক (প্রশিক্ষণ) খ ম রাশেদুল হাসান এবং সহকারী পরিচালক (কলেজ-২) মোহাম্মদ দেলোয়ার হোসেনকেও বদলি করেছে সরকার।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক আশফাকুস সালেহীন, বিদ্যালয় পরিদর্শক এ টি এম মঈনুল হোসেন, উপসচিব মোহাম্মদ নাজমুল হক, উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাসুদা বেগম, কলেজ উপ-পরিদর্শক মন্মথ রঞ্জন বাড়ৈ (শিক্ষামন্ত্রীর সাবেক এপিএস) এবং উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক অদ্বৈত কুমার রায়কে ঢাকার বাইরে পাঠনো হয়েছে।

এনসিটিবির সম্পাদক দিলরুবা আহমেদ, বিশেষজ্ঞ ফাতেমা নাসিমা আক্তার, বিশেষজ্ঞ মনিরা বেগম ও শাহীনারা বেগম রয়েছেন বদলি হওয়া কর্মকর্তাদের মধ্যে।

এনসিটিবির গবেষণা কর্মকর্তা মারুফা বেগম, মো. হাবিবুল্লাহ ও মোহাম্মদ শাহ আলম এবং উৎপাদন নিয়ন্ত্রক মো. আব্দুল মজিদ ছাড়াও পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী শিক্ষা পরিদর্শক মো. কাওসার হোসেনকে বদলি করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রশ্ন ফাঁসে শিক্ষা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার অভিযোগের মধ্যে সাম্প্রতিক সময়ে সংবাদ মাধ্যমে আসা প্রতিবেদনে এই কর্মকর্তাদের কয়েকজনের নামও এসেছে।   

]]>
1172379 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2016/06/22/education-ministry-of-bangl.jpg/ALTERNATES/w300/Education-ministry-of-bangl.jpg
8 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1463118 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 20:09:52.0 2018-02-22 20:09:52.0 এফবিআইর ডিএনএ বিশ্লেষণ প্রযুক্তি পেল পুলিশ এফবিআইর ডিএনএ বিশ্লেষণ প্রযুক্তি পেল পুলিশ নানা তদন্তে ডিএনএ বিশ্লেষণে যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই যে প্রযুক্তি ব্যবহার করে, তা এখন ব্যবহার করতে পারবে বাংলাদেশ পুলিশ। নানা তদন্তে ডিএনএ বিশ্লেষণে যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই যে প্রযুক্তি ব্যবহার করে, তা এখন ব্যবহার করতে পারবে বাংলাদেশ পুলিশ। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1463118.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/codis.jpg/ALTERNATES/w300/codis.jpg
বৃহস্পতিবার পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি) এই প্রযুক্তি পেয়েছে, যা অপরাধী ধরতে সংস্থার সক্ষমতা আরও বাড়িয়ে তুলবে।

এ উপলক্ষে সিআইডি সদর দপ্তরে এক অনুষ্ঠানে ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের হাই কমিশনার মার্শা বার্নিকাট বলেন, “এর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ বিশ্বে ৫১টি দেশের কাতারভুক্ত হল, যাদের সিওডি্আই‌এস (কম্বাইন্ড ডিএনএ ইনডেক্স সিস্টেম) রয়েছে।”

এফবিআইর এই সফটঅয়্যারটি এখন পুলিশ তাদের ডিএনএ গবেষণাগারে ব্যবহার করবে। এটি অপরাধ দমনে কার্যকর বলে মন্তব্য করেন বার্নিকাট।

অনুষ্ঠানে সিআইডির ডিআইজি লুৎফর রহমান মণ্ডল বলেন, এই প্রযুক্তি অপরাধীদের দ্রুত শনাক্তে বড় ভূমিকা রাখবে।

তিনি বলেন, “এখন আমরা যে প্রযুক্তি ব্যবহার করছি, তা হচ্ছে ল্যাবরেটরি ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এলআইএমএস), এতে কোনো ডাটাবেইস সুবিধা নেই। তাই সিওডি্আই‌এস পেয়ে এখন ডিএনএ প্রোফাইলের ডাটাবেইস করতে পারব আমরা, যা ভবিষ্যতে কাজে লাগবে।”

এই সফটঅয়্যার পরিচালনায় বাংলাদেশের পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও যুক্তরাষ্ট্র করছে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজিপি মো. সাইফুল ইসলাম যুক্তরাষ্ট্রকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এই প্রযুক্তি বাংলাদেশ পুলিশের কাজের মান আরও বাড়িয়ে দেবে।

বার্নিকাট বলেন, অমীমাংসিত অপরাধের রহস্যোদ্ঘাটনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে সিওডি্আই‌এস।

তবে যেহেতু নমুনার উপর ভিত্তি করে এটি কাজ করে সেহেতু ঘটনাস্থল থেকে নমুনা সংগ্রহে সতর্ক এবং দায়িত্বশীল থাকার পরামর্শ পুলিশকে দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত আইজিপি মোখলেছুর রহমানও ছিলেন।

]]>
9 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1463129 নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 20:24:43.0 2018-02-22 20:24:43.0 ‘তরুণদের কথাসাহিত্যে উঠে আসছে সমাজ ব্যবস্থার চিত্র’ ‘তরুণদের কথাসাহিত্যে উঠে আসছে সমাজ ব্যবস্থার চিত্র’ সমসাময়িক সমাজ বাস্তবতা, অর্থনীতি ও রাজনীতির প্রেক্ষাপটকে ঘিরে তরুণ লেখকরা তাদের লেখায় সময়ের গল্প তুলে আনছেন বলে মন্তব্য করেছেন আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনে যোগ দিতে আসা বিভিন্ন দেশের কথাসাহিত্যিকরা। সমসাময়িক সমাজ বাস্তবতা, অর্থনীতি ও রাজনীতির প্রেক্ষাপটকে ঘিরে তরুণ লেখকরা তাদের লেখায় সময়ের গল্প তুলে আনছেন বলে মন্তব্য করেছেন আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনে যোগ দিতে আসা বিভিন্ন দেশের কথাসাহিত্যিকরা। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1463129.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/book-fair-day-22.jpg/ALTERNATES/w300/Book-fair-day-22.jpg
অমর একুশে বইমেলা উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আয়োজন করেছে এই আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলন।

বৃহস্পতিবার সকালে একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে উদ্বোধন হয় এই সম্মেলনের। এতে ‘দক্ষিণ এশিয়ার কথাসাহিত্য’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে কথাসাহিত্যের নানা দিক নিয়ে আলোচনা করেন বাংলাদেশের কথাসাহিত্যিক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, অনুবাদক অধ্যাপক খালিকুজ্জামান ইলিয়াস, শ্রীলঙ্কার সাহিত্যিক ও এমিরেটাস অধ্যাপক জি বি দিশানায়েক, কলম্বিয়ার কথাসাহিত্যিক আন্দ্রেজ মাউরিসিয়ো মুনজ। মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন রিফাত মুনিম।

সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, “সাহিত্যে যখন পোস্ট মর্ডানিজমের কথা বলছি, তখন তরুণদের ছোট গল্প নিয়ে কথা বলতে হয়। বাংলা সাহিত্যের তরুণদের ছোট গল্পে দেশের সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট উঠে আসছে। একইসঙ্গে উঠে আসছে অর্থনীতি ও জনজীবনের গুরুত্বপূর্ণ নানা ইস্যু। স্বতন্ত্র ভাষ্যে তারা রচনা করে চলেছেন দেশ-কালের কথা।

“তবে একটা ব্যাপার লক্ষ্য করছি, ইতিহাসভিত্তিক বয়ানে তারা যখন নেরেটিভ ভয়েসের আশ্রয় নিচ্ছে, তখন তাদের মধ্যে সিদ্ধান্তহীনতাও দেখা যায়। অবশ্য কে কিভাবে ইতিহাস বয়ান করবে, এটা তার একান্ত ব্যক্তিগত স্বাধীনতা।”

সাহিত্যে একুশে পদকজয়ী এই কথাসাহিত্যিক মনে করেন, দক্ষিণ এশিয় কথাসাহিত্য এখন ‘বাস্তবতামুখী’ হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক ভাষার কথাসাহিত্য নিয়ে তিনি বলেন,  “নেপাল ও ভারতের উড়িষ্যা অঞ্চলের অনেক কথাসাহিত্য রয়েছে, যা সত্যিই চমকপ্রদ। কিন্তু সেগুলোর অনুবাদ আমরা পাইনি।  দক্ষিণ এশিয় সাহিত্যের আরো অনেক অনুবাদ হওয়া প্রয়োজন। অনুবাদের ক্ষেত্রে সোর্স ল্যাঙ্গুয়েজ ও টার্গেট ল্যাঙ্গুয়েজের প্রতি আমাদের আরো অনেক যত্নবান হতে হবে।”

তার কথার সূত্র ধরেই জে বি দিশানায়েক বলেন, “সিংহলা, তামিল, ইংরেজি- এই তিন ভাষায় কথা বললেও আমাদের দেশের কথাসাহিত্যে লোকজ অনেক ভাষার প্রভাব রয়েছে। আঠার শতকের আগে বিভিন্ন রাজাদের শাসনামলে পালি ও সংস্কৃত ভাষার চর্চা ছিল। আশপাশের রাজত্বের সঙ্গে যে বার্তা আদানপ্রদান হত, সেগুলোও কিন্তু পরে আমাদের কথাসাহিত্যের উপাদান হয়েছে।

“হ্যাঁ ইংরেজি ভাষার প্রভাবে সাহিত্যের বিস্তার হয়েছে, কিন্তু আমরা খুব সযত্নে সেসব ভাষার অক্ষরগুলো নিয়েও গবেষণা করি।”

আন্দ্রেজ মাউরিসিয়ো মুনজ প্রয়াত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের সাহিত্য পাঠের অভিজ্ঞতার কথা জানান।

তিনি বলেন, “হুমায়ূনের চরিত্রগুলো কাগজের বুক থেকে উপচে বাস্তবেও কেমন প্রভাব পড়েছিল, তার প্রমাণ পাই তার ‘বাকের ভাই’ চরিত্রটির মাধ্যমে।”

তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশের কথাসাহিত্যের সঙ্গে কলম্বিয়ার কথাসাহিত্যের একটি প্রভাব রয়েছে। এমনকি দক্ষিণ আমেরিকার দেশটির কথাসাহিত্য কিছু ক্ষেত্রে বাংলা কথাসাহিত্যের কাছে ‘ঋণী’ বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার সকালে উদ্বোধনী অধিবেশনে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. ফকরুল আলম। আলোচক ছিলেন ভারতের অনুবাদক ও গবেষক রাধা চক্রবর্তী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন ইমেরিটাস অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম।

সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্বে অনুষ্ঠিত হয় দক্ষিণ এশিয়ার কথাসাহিত্য বিষয়ে ভারতীয় অধ্যাপক ও লেখক অরুণা চক্রবর্তী এবং বাংলাদেশের ড. ফিরদৌস আজিমের আলাপচারিতা।

জোঁড়াসাকোর ঠাকুরবাড়ির  অন্দরমহলের নারীদের জীবন নিয়ে নানা সাহিত্য রচনা করেছেন অরুণা। অনুবাদ করেছেন সুনীল চক্রবর্তীর ‘প্রথম আলো’।

 আলাপচারিতায় তিনি বলেন, “জোঁড়াসাকোর ঠাকুরবাড়ি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে দেখলাম, অন্দরমহলের নারীদের নিয়ে কথাবার্তা অনেক কম। ঠাকুরবাড়িতে নারীদের একটি সাহিত্যপত্রিকা ছিল, নাম ‘ভারতী’। সে পত্রিকাতে ঠাকুরবাড়ির নারীদের কথা যা লেখা হত, তাতে কিন্তু অনেক ঘটনাই প্রকাশিত হত না। পরে দেখলাম ইন্দিরা দেবী চৌধুরাণী লিখেছেন, তার পিসিমার বিয়েতে তার মা জ্ঞানদানন্দিনীর বিয়ের গয়না দিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তখন নারীদের প্রতি সামাজিক দৃষ্টিকোণ সম্পর্কে ধারণা পাই।”

ভারতীয় উপমহাদেশের সাহিত্যে তারকাখ্যাতিতে ‍পুরুষদের প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

“উপমহাদেশের অনেক নারী চরিত্র রয়েছেন, যারা নিজ অবস্থান থেকে সমাজ বদলে অবদান রেখে গেছেন। কিন্তু তাদের কথা উপন্যাস, গল্পে খুব কম এসেছে।”


এর আগে পহেলা ফেব্রুয়ারি গ্রন্থমেলার উদ্বোধনী দিনেই আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাংলা একাডেমির জনসংযোগ বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, মেলার ২২তম দিন পর্যন্ত আসা ৬৪৬২টি নতুন বইয়ের মধ্যে ছোট গল্পের বই এসেছে ৫১৪টি, উপন্যাস এসেছে ৫১৬টি, রচনাবলী ও সংকলন এসেছে ১৫টি,নাটকের বই এসেছে ১৬টি।

শুক্রবার বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে দক্ষিণ এশিয়ার কবিতা শীর্ষক আলোচনাপর্ব। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন অধ্যাপক কায়সার হক। আলোচনায় অংশ নেবেন নেপালের লেখক আভি সুবেদি,  কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, অধ্যাপক সোনিয়া নিশাত আমিন এবং সাদাফ সায্।

বেলা ১২টায় দক্ষিণ এশিয়ার ভাষা এবং অনুবাদ  শীর্ষক সমাপনী আলোচনা পর্বে বক্তব্য উপস্থাপন করবেন অধ্যাপক আবদুস সেলিম। আলোচনায় অংশ নেবেন রাশিদ আসকারী, ফায়েজা হাসানাত এবং জি এইচ হাবীব।

সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ পুরস্কার

বইমেলার ২২তম দিনে দেওয়া হয়েছে বাংলা একাডেমি পরিচালিত সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ পুরস্কার। এবার এই পুরস্কারটি পেয়েছেন কানাডা-প্রবাসী কবি মাসুদ খান এবং যুক্তরাজ্য-প্রবাসী কবি মুজিব ইরম। সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর পুরস্কারটি তুলে দেন। এই পুরস্কারের অর্থমূল্য ৫০ হাজার টাকা।

অনুষ্ঠানে মাসুদ খান অনুপস্থিত থাকায় তার পক্ষে পুরস্কার গ্রহণ করেন বাংলা একাডেমির কর্মকর্তা সাইমন জাকারিয়া।

]]>
1463128 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/book-fair-day-22.jpg/ALTERNATES/w300/Book-fair-day-22.jpg 1463127 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/book-fair-day-22--1.jpg/ALTERNATES/w300/Book-fair-day-22--1.jpg
10 2 Home politics_bn রাজনীতি news-bn 198 1463034 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 18:13:25.0 2018-02-22 18:13:25.0 বিএনপির ‘কালো পতাকা’ কর্মসূচি থেকে মিছিল বাদ বিএনপির ‘কালো পতাকা’ কর্মসূচি থেকে মিছিল বাদ খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে শনিবার ঢাকার ‘কালো পতাকা’ কর্মসূচির ধরন বদলেছে বিএনপি। খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে শনিবার ঢাকার ‘কালো পতাকা’ কর্মসূচির ধরন বদলেছে বিএনপি। false https://bangla.bdnews24.com/politics/article1463034.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/08/bnp-office-paltan.jpg/ALTERNATES/w300/bnp-office-paltan.jpg বিএনপির এখনকার কর্মসূচিগুলো দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়কেন্দ্রিক
বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, সেদিন কালো পতাকা মিছিলের পরিবর্তনে কালো পতাকা প্রদর্শন করবেন তারা।

দুর্নীতির মামলায় আদালত গত ৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসনকে সাজা দেওয়ার পর তার মুক্তি দাবিতে ধারাবাহিক কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি।

রোববার ঢাকায় সমাবেশ করতে চাইলেও পুলিশের অনুমতি না পাওয়ায় তার প্রতিবাদে শনিবার কালো পতাকা মিছিলের কর্মসূচি দিয়েছিল বিএনপি।

তার ধরন বদলানোর কথা জানিয়ে রিজভী বলেন, “ঢাকায় যে সমাবেশ করার কথা ছিল, পুলিশ করতে না দেওয়ার পৈশাচিক জিজ্ঞাসার প্রতিবাদে আমরা শনিবার ঢাকায় কালো পতাকা মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলাম। এর একটু সংশোধনী হবে। সেদিন কালো পতাকা মিছিল না হয়ে হবে কালো পতাকা প্রদর্শন।”

বিএনপির আন্দোলনের সক্ষমতা নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতাদের প্রশ্ন তুলে আসার মধ্যে কর্মসূচির ধরন বদলানোর বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখে পড়েন রিজভী।

জবাবে তিনি বলেন, “আমরা মনে করি, কালো পতাকা প্রদর্শন কর্মসূচির ব্যাপকতা অনেক বেশি। এতে সাধারণ মানুষও অংশ নিতে পারবে। গৃহে, দোকানে বিভিন্ন  জায়গায় মানুষজন কালো পতাকা উত্তোলন করতে পারবেন।”

ভাষা শহীদ দিবস উপলক্ষে ২৩ ফেব্রুয়ারি বিকালে রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনা সভার কর্মসূচির কথাও জানান রিজভী।

নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনে রিজভীর সঙ্গে ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবুল খায়ের ভুঁইয়া, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, কেন্দ্রীয় নেতা তাইফুল ইসলাম টিপু, মুনির হোসেন, বেলাল আহমেদ, ইশতিয়াক আজিজ উলফাৎ প্রমুখ।

]]>
1457426 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/08/bnp-office-paltan.jpg/ALTERNATES/w300/bnp-office-paltan.jpg বিএনপির এখনকার কর্মসূচিগুলো দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়কেন্দ্রিক
11 2 Home politics_bn রাজনীতি news-bn 198 1463151 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 21:00:47.0 2018-02-22 21:18:54.0 পাকিস্তানের দিকে তাকান: খালেদার দণ্ড নিয়ে প্রশ্নকারীদের মেনন পাকিস্তানের দিকে তাকান: খালেদার দণ্ড নিয়ে প্রশ্নকারীদের মেনন খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড দিয়ে যারা প্রশ্ন তুলছেন তাদের পাকিস্তানের দিকে তাকাতে বলেছেন আওয়ামী লীগের শরীক দল ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড দিয়ে যারা প্রশ্ন তুলছেন তাদের পাকিস্তানের দিকে তাকাতে বলেছেন আওয়ামী লীগের জোটশরিক দল ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন। false https://bangla.bdnews24.com/politics/article1463151.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/10/29/06_menon_vnsc_reunion_251215_0002.jpg/ALTERNATES/w300/06_Menon_VNSC_Reunion_251215_0002.jpg রাশেদ খান মেনন (ফাইল ছবি)
বৃহস্পতিবার এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “দুর্নীতির দায়ে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে পদত্যাগ করতে হয়েছে। সেই দেশের সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে- তার দলীয় প্রধানের পদসহ কোনো পদে তিনি থাকতে পারবেন না। এই পাকিস্তানকে আমরা গালি দিচ্ছি, আর পাকিস্তানপ্রেমীরা বলছে- বেগম জিয়াকে আটকে রাখা হয়েছে।”

খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে ১৯৯১ সালে বিদেশ থেকে প্রধানমন্ত্রীর এতিম তহবিলে আসা দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতে পাঁচ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হয়েছেন তিনি।

এর সমালোচনা করে বিএনপি নেতারা বলছেন, তাদের নেত্রীর সাজা ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’। নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই এটা করা হয়েছে।

সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, খালেদা জিয়ার কারাদণ্ড হওয়ার পেছনে ‘রাজনৈতিক কোনো উদ্দেশ্য নেই’।

“দুর্নীতির কারণে খালেদা জিয়া দণ্ডপ্রাপ্ত হয়েছেন। বলা হচ্ছে- দুই কোটি টাকার জন্য সেখানে সাজা দেওয়া ঠিক হয়েছে? এর পেছনে নাকি রাজনৈতিক উদ্দেশ্য আছে। আমি বলি, দুর্নীতি কোনো ছোট-বড় না, এক টাকার ‍দুর্নীতি বা দুই কোটি টাকার দুর্নীতি, কোটি কোটি টাকার দুর্নীতিও দুর্নীতি।”

জিয়াউর রহমান দুর্নীতিকে ‘প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিয়েছিলেন’ মন্তব্য করে তিনি বলেন, “পরবর্তীতে এরশাদ দুর্নীতিকে শিল্পে রূপ দিয়েছিলেন। আজকে সেই দুর্নীতি সমস্ত দেশজুড়ে, সমস্ত মানুষের মানসিকতায়, মানুষের ভাবনায়।”

“তারা (তরুণরা) পরীক্ষা দিয়ে বেরিয়ে একটি ফ্ল্যাটের সন্ধান করেন, একটি গাড়ির সন্ধান করেন। এটা পেতে গেলে যে সোজা পথে পাওয়া যাবে না, সেটাও তারা ‍বোঝেন। ভোগবাদী চিন্তা- প্রদর্শনবাদী চিন্তা চলছে। তারপরও বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, আরও এগিয়ে যাবে।”

প্যারাডাইস পেপার্স ও পানামা পেপার্সে অর্থাপাচারকারীদের নাম এলেও তদন্ত না হওয়া ‘দুর্ভাগ্যজনক’ বলে মন্তব্য করেন মন্ত্রী মেনন।

তিনি বলেন, “’৭৪ সালে চারজন কোটিপতি ছিল, আজকে এক লাখ ২৫ হাজার কোটিপতি। এই কোটিপতি কেবল কোটিপতি নয়, এই কোটিপতি হচ্ছে কোটি কোটিপতি। তারা এই দেশে সম্পদ রাখে না, তারা দেশের বাইরে নিয়ে যায়।

“আজকে প্যারাডাইস পেপার্সে পাই, আমরা পানামা পেপার্সে পাই যে, অফশোর বিনিয়োগের নামে আমাদের দেশের লোকেরা বিদেশে টাকা পাঠিয়েছে। সবচেয়ে দুর্ভাগ্য সেই বিদেশে পাচারের বিষয়ে আমরা কোনো তদন্ত দেখছি না। পাকিস্তানের মতো লুটেরার দেশে পানামা ও প্যারাডাইস পেপার্সের বিষয়ে তদন্ত হচ্ছে।”

যে পরিমাণ অর্থ পাচার হয়েছে তা দেশের তিন বছরের জাতীয় বাজেটের সমান বলে অর্থমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্য উদ্ধৃত করেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী মেনন।

দেশে আয় ‘বৈষম্য’ প্রকটরূপ ধারণ করেছে এবং ধনী-গরিবের পার্থক্য ‘পাহাড় সমান’ দাঁড়িয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার বিকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবে ওয়ার্কার্স পার্টির আয়োজনে ‘স্বাধীন জনগণতান্ত্রিতক পূর্বাংলা কর্মসূচি থেকে জাতীয় মুক্তি সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন মেনন।

এতে সিপিবির প্রেসিডিয়াম সদস্য হায়দার আকবর খান রনোর লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা আলী আহমেদ এনামুল হক।

সভায় অন্যদের মধ্যে জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) একাংশের মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, গবেষক শামসুল হুদা, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিটব্য্যুরো সদস্য মাহমুদুল হাসান মানিক বক্তব্য দেন।

]]>
1414354 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/10/29/06_menon_vnsc_reunion_251215_0002.jpg/ALTERNATES/w300/06_Menon_VNSC_Reunion_251215_0002.jpg রাশেদ খান মেনন (ফাইল ছবি)
12 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1463177 মো. শফি উল্লাহ, সৌদি আরব প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম মো. শফি উল্লাহ, সৌদি আরব প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 22:03:57.0 2018-02-22 22:03:57.0 বাংলাদেশ ওআইসি লেবার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত বাংলাদেশ ওআইসি লেবার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত সৌদি আরবের জেদ্দায় ওআইসি শ্রম মন্ত্রীদের চতুর্থ ইসলামী সম্মেলনে দুই বছরের জন্য সংস্থাটির লেবার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। সৌদি আরবের জেদ্দায় ওআইসি শ্রম মন্ত্রীদের চতুর্থ ইসলামী সম্মেলনে দুই বছরের জন্য সংস্থাটির লেবার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে বাংলাদেশ। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1463177.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/oic-labor-summit-ed.jpg/ALTERNATES/w300/oic-labor-summit-ed.jpg
এবারের সম্মেলনের আয়োজক সৌদি আরব এই কাউন্সিলের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে।  

সৌদি আরবের শ্রম ও সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয় এবং ইসলামী সহযোগিতা সংস্থা (ওআইসি) যৌথভাবে ‘মানবসম্পদ উন্নয়নের জন্য একটি সাধারণ কৌশল প্রণয়ন’ বিষয়ে সম্মেলনটির আয়োজন করে।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সকালে জেদ্দায় ওআইসি শ্রম মন্ত্রীদের সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি যোগ দেন। সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ এবং জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটের কনসাল জেনারেল বোরহান উদ্দিনও এতে অংশ নেন।

এ সময় মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সদস্য রাষ্ট্রগুলির মধ্যে শ্রম, কর্মসংস্থান ও সামাজিক সুরক্ষা সহযোগিতার জন্য ওআইসি ফ্রেমওয়ার্কের কার্যকারিতা বাড়ানোর আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, “কর্মক্ষেত্রে পেশাগত নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্যের উপর গুরুত্ব বাড়াতে হবে, শ্রম ও পেশাগত প্রশিক্ষণ পর্যবেক্ষকের জন্য 'দক্ষতা ব্যাংক', আইনি সুরক্ষা এবং শ্রম বাজার আইন, সামাজিক নিরাপত্তা সুরক্ষা জোরদার করতে হবে।”

সম্মেলনের পাশাপাশি মন্ত্রী সৌদি আরবের শ্রম ও সামাজিক উন্নয়ন বিষয়ক মন্ত্রী আলি বিন নাসের আল গাফির সাথে বৈঠক করেন। প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী এ সময় বাংলাদেশের অভিবাসী শ্রমিকদের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন এবং দক্ষ শ্রমিক নিয়োগে সহায়তা কামনা করেন।

এর আগে বুধবার শ্রম মন্ত্রীদের চতুর্থ ইসলামী সম্মেলনের জন্য সিনিয়র অফিসারদের প্রস্তুতিমূলক বৈঠকের উদ্বোধনী অধিবেশন শুরু হয়। এতে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহপরিচালক জুলহাস আহমেদ এবং বাংলাদেশ দূতাবাসের উপ-মিশন প্রধান নজরুল ইসলামসহ দূতাবাসের অন্যান্য কর্মকর্তারা যোগ দেন।

]]>
1463176 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/oic-labor-summit-ed.jpg/ALTERNATES/w300/oic-labor-summit-ed.jpg
13 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1462955 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 14:29:57.0 2018-02-22 15:28:50.0 গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে হবে: প্রধানমন্ত্রী গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত রাখতে হবে: সেনাবাহিনীকে প্রধানমন্ত্রী রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বের সুরক্ষার পাশাপাশি দেশের গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখতে সেনাবাহিনীকে সদা প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বের সুরক্ষার পাশাপাশি দেশের গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখতে সেনাবাহিনীকে সদা প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1462955.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-natore-02.jpg/ALTERNATES/w300/pm-natore-02.jpg
তিনি বলেছেন, “দেশের গণতান্ত্রিক ও সাংবিধানিক ধারা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি আধুনিক, উন্নত ও সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে সেনাবাহিনীকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে হবে।… আমরা চাই দেশে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় থাকুক।”

বৃহস্পতিবার নাটোরের কাদিরাবাদ সেনানিবাসে কোর অব ইঞ্জিনিয়ার্সের ষষ্ঠ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের সরকারপ্রধানের এ আহ্বান আসে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত সেনা কর্মকর্তাদের উদ্দেশে  প্রধানমন্ত্রী বলেন, “পবিত্র সংবিধান এবং দেশের সার্বভৌমত্ব সুরক্ষায় আপনাদের ঐক্যবদ্ধ থেকে অভ্যন্তরীণ বা বাহ্যিক যে কোনো হুমকি মোকাবিলায় সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হবে।”

ইঞ্জিনিয়ারিং কোরকে সেনাবাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ ও ঐতিহ্যবাহী অংশ হিসাবে বর্ণনা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই কোরে ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড ও ডিভ ইঞ্জিনিয়ার ব্যাটালিয়ন গঠনের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

ইঞ্জিনিয়ার সেন্টার অ্যান্ড স্কুল অফ মিলিটারি ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে রিক্রুট প্রশিক্ষণের সক্ষমতা বৃদ্ধি পাওয়ার কথাও অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

রামু ও উখিয়ায় সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত বৌদ্ধ বিহার ও মন্দির সংস্কারে সেনাবাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, “দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনী একাগ্রতা, কর্মদক্ষতা এবং নানাবিধ জনসেবামূলক কর্মকাণ্ডের জন্য সার্বজনীন আস্থা ও গ্রহণযোগ্যতা অর্জন করেছে।… জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী মিশনে সেনা সদস্যদের গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা দেশের ভাবমূর্তি বিশ্বে উজ্জ্বল করেছে।”

যে কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও দুর্ঘটনায় দুর্গতদের সাহায্য ও সহযোগিতা করে সশস্ত্র বাহিনী ‘অনন্য দৃষ্টান্ত’ স্থাপন করেছে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।

উন্নত, পেশাদার এবং প্রশিক্ষিত সেনাবাহিনী গড়ে তুলতে ১৯৭৪ সালে প্রতিরক্ষা নীতিমালা প্রণয়ন করার কথা মনে করিয়ে দিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, “জাতির পিতা প্রণীত নীতিমালার আলোকে আমরা ‘আর্মড ফোর্সেস গোল-২০৩০’ প্রণয়ন করে সেনাবাহিনীর উন্নয়ন ও আধুনিকায়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছি।”

সেনাবাহিনীর উন্নয়ন ও কল্যাণে বিভিন্ন সময়ে আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া উদ্যোগের কথাও প্রধানমন্ত্রী তার ব্ক্তব্যে তুলে ধরেন।   

তিনি বলেন, “২০০৯ সাল থেকে গত নয় বছরে আমরা সেনাবাহিনীর অবকাঠামোগত পরিবর্তনের পাশাপাশি সক্ষমতা বহুলাংশে বৃদ্ধি করেছি।”

সেনাবাহিনীতে নতুন পদাতিক ডিভিশন ও ব্রিগেড প্রতিষ্ঠাসহ অত্যাধুনিক অস্ত্রশস্ত্র ও সরঞ্জাম সজ্জিত করা হয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আন্তরিক প্রচেষ্টায় সেনাসদস্যদের জীবনমানের উন্নতি হয়েছে।

“আমরা সেনাবাহিনীর সকল পদবির সৈনিকদের উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাসহ তাদের জন্য বাসস্থান, মেস, এসএম ব্যারাক নির্মাণ করেছি। বেতন ও রেশন বৃদ্ধিসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করেছি।”

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেওয়ার আগে প্রধানমন্ত্রী গার্ড পরিদর্শন ও সালাম গ্রহণ করেন।

প্রধানমন্ত্রী সকালে কাদিরাবাদ সেনানিবাসে পৌঁছালে সেনাপ্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক তাকে স্বাগত জানান।

নাটোর থেকে রাজশাহীতে যান প্রধানমন্ত্রী। সেখানে মাদ্রাসা ময়দানে দুপুরে আওয়ামী লীগের জনসভায় তার ভাষণ দেওয়ার কথা রয়েছে।

]]>
1462982 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-natore-02.jpg/ALTERNATES/w300/pm-natore-02.jpg 1462981 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-natore-01.jpg/ALTERNATES/w300/pm-natore-01.jpg 1462984 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-natore-03.jpg/ALTERNATES/w300/pm-natore-03.jpg
14 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1463106 গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 19:45:09.0 2018-02-22 19:45:32.0 গোপালগঞ্জে সংঘর্ষে মাইক্রোবাস চুরমার, নিহত ৩ গোপালগঞ্জে সংঘর্ষে মাইক্রোবাস চুরমার, নিহত ৩ গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। গোপালগঞ্জ সদর উপজেলায় বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1463106.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2018/02/22/gopalganj-road-crash.jpg/ALTERNATES/w300/Gopalganj-Road-Crash.jpg
সদর উপজেলার গোপীনাথপুর পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের পরিদর্শক হযরত আলী জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে গোপীনাথপুর পরমাণু কৃষি গবেষণাকেন্দ্রের সামনে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে দুইজন হলেন - ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গা উপজেলার হ্যালেঞ্চা গ্রামের পুলিশের এসআই কবির আহম্মেদের ছেলে তানভীর আহম্মেদ জুয়েল (২৪), একই জেলার বোয়ালমারী উপজেলা সদরের কামাল মোল্লার ছেলে ইমরান (২০)। অন্যজনের বয়স আনুমানিক ২৮ বছর বলে জানালেও পুলিশ তার পরিচয় বলতে পারেনি।

পরিদর্শক হযরত বলেন, ঢাকাগামী ইমাদ পরিবহনের যাত্রবাহী বাসের সঙ্গে বিপরীত দিক থেকে আসা মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই দুইজন মারা যান। আরেকজনকে উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হলেও তারও মৃত্যু হয়। হতাহতরা সবাই মাইক্রোবাসের যাত্রী ছিলেন। মাইক্রোবাসটিতে এই তিনজনই ছিলেন।

]]>
1463105 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2018/02/22/gopalganj-road-crash.jpg/ALTERNATES/w300/Gopalganj-Road-Crash.jpg
15 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1463039 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 18:28:15.0 2018-02-22 18:28:15.0 রাজশাহীতে ৩৫ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী রাজশাহীতে ৩৫ উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী আটটি নতুন থানাসহ রাজশাহীতে ২১টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ১৩টি প্রকল্পের ভিত্তিফলক উন্মোচন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আটটি নতুন থানাসহ রাজশাহীতে ২১টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ১৩টি প্রকল্পের ভিত্তিফলক উন্মোচন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1463039.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajsahi-al-meeting-00.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajsahi-al-meeting-00.jpg
বৃহস্পতিবার রাজশাহী সফরে নগরীর মাদ্রাসা ময়দানে মহানগর ও জেলা আওয়ামী লীগের এক জনসভায় অংশ নিয়ে তিনি বক্তৃতাও করেন।

আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে গত নয় বছরে রাজশাহীতে শেখ হাসিনার পঞ্চম সফর এটি। এ উপলক্ষে রাজশাহী শহর সাজানো হয় মনোরম সাজে।

নাটোরের কাদিরাবাদ সেনানিবাসে এক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার পর বিকালে রাজশাহীর মাদ্রাসা ময়দানে জনসভাস্থলে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। এরপর তিনি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিফলক উন্মোচন করেন।

উদ্বোধন হওয়া আটটি নতুন থানা হল- রাজশাহীর চন্দ্রিমা থানা, কাশিয়াডাঙ্গা থানা, কাটাখালী থানা, এয়ারপোর্ট থানা, পবা থানা, কর্ণহার থানা, দামকুড়া থানা ও বেলপুকুর থানা।

এছাড়া বোয়ালিয়ায় বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজের চারতলা অ্যাকাডেমিক ভবন ও শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান ডিগ্রি কলেজের পাঁচতলা অ্যাকাডেমিক ভবন, পবায় দামকুড়া হাট কলেজের চারতলা অ্যাকাডেমিক ভবন, বাঘায় আড়ানী ডিগ্রি কলেজের চারতলা অ্যাকাডেমিক ভবন, তানোরে আব্দুল করিম সরকার ডিগ্রি কলেজের চারতলা অ্যাকাডেমিক ভবন, বাগমারা কলেজের চারতলা অ্যাকাডেমিক ভবন, পুঠিয়ায় বিড়ালদহ কলেজের চারতলা অ্যাকাডেমিক ভবনের উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা।

পুঠিয়া উপজেলায় বারনই নদীতে রাবার ড্যাম, রাজশাহী (নর্থ) ফায়ার সার্ভিস স্টেশন, রাজশাহী নওহাটা ফায়ার স্টেশন, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড সার্ভে ইন্সটিটিউট, গোদাগাড়ী উপজেলার সম্প্রসারিত প্রশাসনিক ভবন ও হল রুম এবং রাজশাহী বিভাগীয় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কার্যালয়ের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। 

এছাড়া রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজের ছয়তলা ছাত্রীনিবাস, কাশিয়াডাঙ্গা ৩৩/১১ কেভি ২ ১০/১৩.৩৩ এমভিএ উপকেন্দ্র, মহেরচণ্ডী ৩৩/১১ কেভি ২ ১০/১৩.৩৩ এমভিএ উপকেন্দ্র, রাজশাহী-নওগাঁ প্রধান সড়ক থেকে মোহনপুর রাজশাহী-নাটোর সড়ক পর্যন্ত পূর্ব-পশ্চিম সংযোগ সড়কে ৩২৪ দশমিক ৫০ মিটার ফ্লাইওভার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটার, চারঘাট উপজেলার কৃষ্ণপুর থেকে জাহাঙ্গীরাবাদ সড়কে ৯৬ মিটার গার্ডার ব্রিজ, গোদাগাড়ী উপজেলার বড়গাছি ও রাজাবাড়ী ইউনিয়ন ভূমি অফিস, চারঘাট উপজেলার চারঘাট ও নন্দনগাছি ইউনিয়ন ভূমি অফিস, রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন, দূর্গাপুর উপজেলার মাড়িয়া ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ কেন্দ্র এবং বেসরকারি শাহ মখদুম মেডিকেল কলেজের অ্যাকাডেমিক ভবন নির্মাণের ভিত্তিফলক উন্মোচন করেন শেখ হাসিনা।

]]>
1463037 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajsahi-al-meeting-00.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajsahi-al-meeting-00.jpg 1463038 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/pm-rajsahi-al-meeting-01.jpg/ALTERNATES/w300/pm-rajsahi-al-meeting-01.jpg
16 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1463080 শরীয়তপুর প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম শরীয়তপুর প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 18:56:27.0 2018-02-22 19:46:06.0 শরীয়তপুরে ট্রাক খাদে, নিহত ৩ শরীয়তপুরে ট্রাক খাদে, নিহত ৩ শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায় মালবাহী ট্রাক খাদে পড়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আরও অন্তত চারজন আহত হয়েছেন। শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায় মালবাহী ট্রাক খাদে পড়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে; এ দুর্ঘটনায় আরও অন্তত চারজন আহত হয়েছেন। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1463080.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2017/09/15/shariatpur-map.jpg/ALTERNATES/w300/Shariatpur-map.jpg
জেলার গোসাইরহাট সার্কেলের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার খায়রুল হাসান জানান, ভেদরগঞ্জ উপজেলার নারায়ণপুরে বৃহস্পতিবার বেলা ২টার দিকে চাঁদপুর-শরীয়তপুর সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন - জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার মদন কোপাল গ্রামের হাতেম মিয়ার ছেলে হালিম (২২), চরনান্দিনা গ্রামের হারেছের ছেলে সাদ্দাম (২২) ও শাহজামান।

হতাহতরা সবাই জামালপুরের বাসিন্দা ও ওই ট্রাকের শ্রমিক।

স্থানীয়রা বলেন, চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ থেকে আসা লোহার পাইপবোঝাই ট্রাকটি ফরিদপুর যাচ্ছিল। নারায়ণপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় মোড় ঘুরতে গিয়ে পাশের খাদে পড়ে যায়।

খবর পেয়ে শরীয়তপুর ফায়ার সার্ভিস ও ভেদরগঞ্জ থানার পুলিশ গিয়ে ট্রাকের নিচে আটকে পড়া নিহতদের চার ঘণ্টার চেষ্টায় উদ্ধার করে বলে জানান ভেদরগঞ্জ থানার ওসি মেহেদী হাসান।

তিনি বলেন, আহতদের মধ্যে জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার মদন কোপাল গ্রামের বাহাউদ্দিন (৩০), হায়দার আলী (৩৫) ও চরকৃষ্টপুর গ্রামের মঞ্জরুল ইসলাম ও সাইদুল ইসলামকে (৩৫) ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. সাব্বির আহম্মেদ বলেন, “দুর্ঘটনায় ট্রাকের নিচে তিনজন চাপা পড়ে মারা গেছেন। আহতদের উদ্ধার করেছি। তাদের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।”

]]>
17 2 Home business_bn বাণিজ্য news-bn 213 1463001 নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 16:49:37.0 2018-02-22 16:49:37.0 ২৮০ কোটি টাকা লোকসান রবির ২৮০ কোটি টাকা লোকসান রবির গ্রাহক ও রাজস্ব বাড়ার পরও ২০১৭ সালে মুনাফা দেখাতে পারেনি দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল অপারেটর রবি। গ্রাহক ও রাজস্ব বাড়ার পরও ২০১৭ সালে মুনাফা দেখাতে পারেনি দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল অপারেটর রবি। false https://bangla.bdnews24.com/business/article1463001.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/09/robi-iffice.jpg/ALTERNATES/w300/Robi-Iffice.jpg
নেটওয়ার্ক উন্নয়নে ব্যাপক বিনিয়োগের পাশাপাশি বাজার, রেগুলেটরি ও পরিচালন সংক্রান্ত ব্যয়ের কারণে গতবছর এ কোম্পানির মোট ক্ষতির পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৮০ কোটি টাকা।

রবির বার্ষিক আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশের তথ্য জানিয়ে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ডেটা ও ভয়েস সেবার মূল্য নিয়ে বাজারে তীব্র প্রতিযোগিতা ২০১৭ সালে তাদের ব্যবসায়িক ফলাফলে ‘বিরূপ প্রভাব’ ফেলেছে।

“বর্তমান ত্রুটিপূর্ণ মূল্য কাঠামোর কারণে পণ্য ও সেবার আগ্রাসী মূল্য নির্ধারণ এবং এক খাতের আয় দিয়ে অন্য খাতের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়েছে বাজারে। ফলে বাজারে সুস্থ প্রতিযোগিতা না থাকায় চলমান সঙ্কট আরও ঘনীভূত হচ্ছে।”

রবি বলছে, উচ্চ হারে কর আরোপের ফলে তুলনামূলক ছোট কোম্পানিগুলোর ব্যবসায়িক ফলাফলে চাপ তৈরি হচ্ছে।

“ফোরজির যুগে প্রবেশ করেছে দেশ। কিন্তু রবির ব্যবসায়িক ফলাফল এই ইঙ্গিত দিচ্ছে যে, ডিজিটাল বিপ্লব আনতে মোবাইল ফোন অপারেটরদের বিনিয়োগের সক্ষমতা ক্ষীণ হয়ে আসছে।”

রবির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, “দেশের সেরা নেটওয়ার্কে পরিণত হওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে রবি। ফোরজি ও এমএনপি নিয়ে আলোচিত এই সময়ে আমাদের বিশ্বাস, আমরা আমাদের গ্রাহকদের আরও ডেটা স্পিড ও শক্তিশালী নেটওয়ার্ক দিতে পারব।”

এক নজরে রবির ব্যবসায়িক ফলাফল

>> ২০১৭ সালে রবিতে যোগ হয়েছে ৯১ লাখ নতুন গ্রাহক। মোট গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ কোটি ২৯ লাখে, যা দেশের মোট মোবাইল ফোন গ্রাহকের ২৯ দশমিক ৬ শতাংশ। এর মধ্যে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫৬ দশমিক ৬ শতাংশ।

>> গতবছর রবির মোট আয় হয়েছে ৬ হাজার ৮৩০ কোটি টাকা। এয়ারটেলের সঙ্গে একীভূত হওয়ার পর ২০১৬ সালের তুলনায় ২০১৭ সালে রাজস্ব বেড়েছে ২৯ দশমিক ৭ শতাংশ।

>> নেটওয়ার্ক ব্যবস্থাপনায় বাড়তি ব্যয়ের কারণে ১৯ শতাংশ মার্জিনসহ পরিচালন মুনাফার (ইবিআইটিডিএ) পরিমাণ ছিল ১৩০০ কোটি টাকা।

>> নেটওয়ার্ক খাতে বিনিয়োগের ফলে কর পরবর্তী লোকসানের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৮০ কোটি টাকা।

>> ২০১৭ সালে দেশজুড়ে টুজি/৩.৫জি নেটওয়ার্ক বিস্তৃতিতে রবির মূলধনী বিনিয়োগ হয়েছে ২৪০০ কোটি টাকা।

>> রবি গতবছর রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়েছে ২ হাজার ৮৯০ কোটি টাকা, যা কোম্পানির মোট রাজস্বের ৪২ দশমিক ৩ শতাংশ।  

‘ইয়ুথ ব্র্যান্ড’ হিসেবে এয়ারটেল ও ‘ডিজিটাল’ ব্র্যান্ড হিসেবে রবির ব্র্যান্ডিংয়ের ফলে ২০১৭ সালে রবির গ্রাহক সংখ্যা ২৬ দশমকি ৮ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানানো হয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।  

সেখানে বলা হয়, ১৯৯৭ সালে কার্যক্রম শুরুর পর থেকে রবি এ পর্যন্ত রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়েছে ২০ হাজার ৭৮০ কোটি টাকা। একই সময়ে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ হিসেবে দিয়েছে ২৯০ কোটি টাকা।

]]>
1457913 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/09/robi-iffice.jpg/ALTERNATES/w300/Robi-Iffice.jpg
18 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1462963 কক্সবাজার প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কক্সবাজার প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 14:42:56.0 2018-02-22 14:42:56.0 টেকনাফে ১১ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি টেকনাফে ১১ লাখ ইয়াবা উদ্ধার কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে ১১ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি। কক্সবাজারের টেকনাফ থেকে ১১ লাখ ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1462963.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/coxs-bazar-yaba.jpg/ALTERNATES/w300/coxs-bazar-yaba.jpg
বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে উপজেলার সাবরাং ইউনিয়নের সাগর উপকূলবর্তী খুরেরমুখ এলাকা থেকে এ ইয়াবা উদ্ধার করা হয় বলে বিজিবির টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এস এম আরিফুল ইসলাম জানান।

তবে এসময় পাচারকারীদের কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

বিজিবি অধিনায়ক বলেন, সাগরপথে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার বড় একটি চালান আসার খবরে বিজিবির একটি দল বুধবার সন্ধ্যা থেকে খুরেরমুখ শ্মশানঘাট সংলগ্ন এলাকায় অবস্থান নেয়। বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে মিয়ানমার থেকে আসা একটি নৌকা কূলের কাছাকাছি এলে তিনজন লোক মাথায় বস্তা নিয়ে দ্রুত নেমে পড়ে।

“পরে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়ক অতিক্রম করে জনবসতি এলাকায় প্রবেশের সময় বস্তা বহনকারী তিনজনকে থামার নির্দেশ দেয় বিজিবির টহল। তখন মাথায় থাকা পাঁচটি বস্তা ফেলে দিয়ে জঙ্গলের ভেতর দিয়ে পালিয়ে যায় তারা।”

বস্তাগুলো উদ্ধার তার ভেতরে ১১ লাখ ২০ হাজার ইয়াবা পাওয়া যায়, যার মূল্য ৩৩ কোটি ৬০ লাখ টাকা বলে জানান এ বিজিবি কর্মকর্তা।

উদ্ধার করা ইয়াবা বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়ন দপ্তরে রাখা হয়েছে।

]]>
1462962 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/coxs-bazar-yaba.jpg/ALTERNATES/w300/coxs-bazar-yaba.jpg
19 2 Home world_bn বিশ্ব news-bn 200 1462985 নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিউজ ডেস্ক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 15:34:59.0 2018-02-22 15:39:04.0 মেলানিয়ার বাবা-মায়ের গ্রিনকার্ড পাওয়া নিয়ে প্রশ্ন মেলানিয়ার বাবা-মায়ের গ্রিনকার্ড পাওয়া নিয়ে প্রশ্ন মেলানিয়ার বাবা-মা কীভাবে এবং কখন তাদের ‘গ্রিন কার্ড’ পেয়েছেন তা জানাতে অস্বীকার করেছেন তাদের আইনজীবী। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘চেইন মাইগ্রেশনের’ তীব্র বিরোধী; কিন্তু তার স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প একজন অভিবাসী এবং মেলানিয়ার বাবা-মা এখন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন কার্ডধারী বাসিন্দা। false https://bangla.bdnews24.com/world/article1462985.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/melania-trump.jpg/ALTERNATES/w300/Melania-Trump.jpg
কিন্তু তারা কোন প্রক্রিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের ছাড়পত্র পেয়েছেন, এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে মার্কিন গণমাধ্যমগুলো।

ফার্স্ট লেডি মেলানিয়ার বাবা-মা যুক্তরাষ্ট্রের বৈধ ও স্থায়ী বাসিন্দা হিসেবে ছাড়পত্র পেয়েছেন এবং তারা নাগরিকত্ব পাওয়ার কাছাকাছি রয়েছেন বলে বিষয়টি সম্পর্কে অবগতদের বরাতে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট, নিউ ইয়র্ক টাইমস, সিএনএন।

যদিও মেলানিয়ার বাবা-মা কীভাবে এবং কখন তাদের ‘গ্রিন কার্ড’ পেয়েছেন তা জানাতে অস্বীকার করেছেন তাদের আইনজীবী, জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট।

যুক্তরাষ্ট্রের অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মেলানিয়ার বাবা ভিক্টর কাভস ও মা আমালিজা কাভস খুব সম্ভবত পারিবারিক পুনরেকত্রীকরণ প্রক্রিয়াতেই যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের ছাড়পত্র পেয়েছেন, যে প্রক্রিয়াকে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প উপহাস করে ‘চেইন মাইগ্রেশন’ অভিহিত করে আসছেন। তিনি এ প্রক্রিয়া বন্ধ করে দেওয়ার প্রস্তাব করেছেন।

ফার্স্ট লেডি ও তার পরিবারের প্রতিনিধিত্ব করা নিউ ইয়র্কভিত্তিক আইনজীবী মাইকেল ওয়াইল্ডসের ভাষ্য, স্লোভেনিয়ার সাবেক বাসিন্দা কাভসরা গ্রিন কার্ড নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছেন।    

তিনি বলেছেন, “আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি, মেলানিয়া ট্রাম্পের বাবা-মা বৈধভাবেই যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী বাসিন্দা হয়েছেন। পরিবারটি প্রশাসনের অংশ না হওয়ায় তারা তাদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তার প্রতি শ্রদ্ধা দেখানোর অনুরোধ করেছেন, তাই এই বিষয়ে আমি আর কোনো মন্তব্য করবো না।”

কাভসদের অভিবাসন তথ্য সম্পর্কে জ্ঞাত এক ব্যক্তির ভাষ্য অনুযায়ী, কাভসরা যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকত্বের শপথ নেওয়ার অনুষ্ঠানের অপেক্ষায় আছেন। নাগরিকত্বের আবেদন করার আগে স্থায়ী বাসিন্দাদের সাধারণত গ্রিন কার্ড নিয়েই পাঁচ বছর থাকতে হয়।

কাভসরা কবে প্রথম যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন তা স্পষ্ট না হলেও ২০০৭ সালের শেষ দিকে সরকারি নথিতে ভিক্টর কাভসের ঠিকানা ছিল ফ্লোরিডায় ট্রাম্পের পাম বিচের বিলাসবহুল মার-আ-লাগো অবকাশ কেন্দ্র।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারে ট্রাম্প অভিবাসনবিরোধী কট্টর অবস্থান নিলে তার শ্বশুর-শাশুড়ির যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের বিষয়টি প্রথম আলোচনায় আসে।

গত মাসে প্রেসিডেন্ট দশককাল ধরে চলে আসা পারিবারিক পুনরেকত্রীকরণ নীতিতে বাবা-মা ও সহোদরদের মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে থাকার পথ বন্ধ করার প্রস্তাব করলে বিষয়টি নিয়ে ফের আলোচনা শুরু হয়।

দীর্ঘদিন ধরেই ট্রাম্প এ পারিবারিক পুনরেকত্রীকরণ প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে সরব। গত মাসে স্টেট অব দ্য ইউনিয়নের ভাষণে প্রেসিডেন্ট এ ‘চেইন মাইগ্রেশন’ পদ্ধতিকে আমেরিকানদের জীবনধারণ ও নিরাপত্তার জন্য হুমকি হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে অভিবাসী হওয়া ব্যক্তিরা কেবল তাদের স্বামী/স্ত্রী ও অপ্রাপ্তবয়স্ক শিশুদেরই যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে আসার অনুমতি পেতে পারেন বলেও মত ট্রাম্পের।

ট্রাম্প সমালোচনা করলেও তার শ্বশুর-শাশুড়ি পারিবারিক পুনরেকত্রীকরণ পদ্ধতিতেই যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে বসবাসের অনুমতি পেয়েছেন বলে ধারণা অভিবাসন বিশেষজ্ঞদের।

নিউ ইয়র্ক ইমিগ্রেশন ল ফার্মের অংশীদার ম্যাথিউ কোলকেন জানান, দুই উপায়ে ট্রাম্পের শ্বশুর- শাশুড়ি গ্রিন কার্ড পেতে পারেন। একটি হচ্ছে- তাদের মেয়ে মেলানি কিংবা চাকরিদাতা কারও জামিনের মাধ্যমে।

গ্রিন কার্ড পাওয়ার দ্বিতীয় উপায় হচ্ছে- এমন কোনো কাজের জন্য অন্য দেশের নাগরিকদের নিয়ে আসা, যা যুক্তরাষ্ট্রের কোনো নাগরিক পারেন না।

কাভসরা দুজনই যুক্তরাষ্ট্রে আসার আগেই অবসর নিয়েছিলেন বলে খবর মার্কিন গণমাধ্যমের। ৭৩ বছর বয়সী ভিক্টর কাভস স্লোভেনিয়ায় শোফার ও গাড়ি বিক্রেতার কাজ করতেন, ৭১ বছরের আমালিজা ছিলেন টেক্সটাইল কারখানার প্যাটার্ন মেকার।

অভিবাসীদের বাবা-মারও যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে থাকার উপায় থাকায় ফার্স্ট লেডি মেলানিয়ার জামিনেই ভিক্টর ও আমালিজা গ্রিন কার্ড পেয়েছেন বলে ধারণা মার্কিন ইমিগ্রেশন লইয়ারস অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি ডেভিড লিডপোল্ডের।

বিদেশিরা চাইলে শরণার্থী হিসেবে কিংবা অন্যান্য মানবিক কর্মসূচির মাধ্যমেও যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসের সুযোগ পেতে পারেন বলে ডিপার্টমেন্ট অব হোমল্যান্ড সিকিউরিটির বরাত দিয়ে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট।

হোয়াইট হাউস এবং ফার্স্ট লেডির মুখপাত্র কাভসদের যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

কাভসদের যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে বসবাসের ব্যাপারে খোঁজখবরের মধ্যেই মার্কিন গণমাধ্যম ফার্স্ট লেডি মেলানিয়ার নাগরিকত্ব পাওয়ার ইতিহাসেও আলো ফেলছে।

মেলানিয়ার আইনজীবী ওয়াইল্ডস জানান, ১৯৯৬ সালে ফার্স্ট লেডি স্লোভেনিয়া থেকে প্রথম মডেলিংয়ের কাজে যুক্তরাষ্ট্রে আসেন। প্রথম দফায় তিনি দর্শনার্থী ভিসায় যুক্তরাষ্ট্রে আসেন, পরে পান কাজ করার অনুমতি। ২০০০ সালে  ট্রাম্প মডেলিংয়ে ‘অসাধারণ দক্ষতা’ দেখানো মেলানিয়ার গ্রিন কার্ডের জামিনদার হন।

যুক্তরাষ্ট্রে কাজ করার অনুমতি পাওয়ার আগে মেলানিয়াকে ১৯৯৬ সালেই ট্রাম্প ১০টি মডেলিং কাজের জন্য অর্থ দিয়েছিলেন বলে গত বছর এক প্রতিবেদনে জানা গিয়েছিল। যদিও কোন ‘বিশেষ দক্ষতা’র কারণে মেলানিয়া গ্রিন কার্ডের যোগ্য বিবেচিত হয়েছিলেন তা জানা যায়নি।

নোবেল পুরষ্কার জয়ীদের মতো বিশেষ ক্ষেত্রে দক্ষ ব্যক্তিরাই সাধারণত এ বিবেচনায় যুক্তরাষ্ট্রে বৈধভাবে থাকার অনুমতি পান।

ট্রাম্পের সঙ্গে পরিচয়ের কয়েক বছর পর ২০০১ সালে গ্রিন কার্ড পেয়েছিলেন মেলানিয়া, এরপর ২০০৬ সালে পান মার্কিন নাগরিকত্ব। মেলানিয়া যুক্তরাষ্ট্রে চলে আসার পর তার বাবা-মাও স্লোভেনিয়া ছাড়েন, যদিও ২০০৭ এর আগেই তারা যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের সরকারি নথিতে ওই বছরই ভিক্টর কাভসের ঠিকানা হিসেবে মার-আ-লগোর নাম আসে, তার নামে ফ্লোরিডাভিত্তিক মার্সিডিজ-বেঞ্জের একটি গাড়িও ওই সময়ই নিবন্ধিত হয়।

কেবল বাবা-মাই নন, মেলানিয়ার বড় বোন ইনেসও পরে যুক্তরাষ্ট্রে চলে আসেন। এখন তিনি নিউ ইয়র্কের পার্ক অ্যাভিনিউতে ট্রাম্পের মালিকানাধীন অ্যাপার্টমেন্টে থাকছেন।

ছেলে ব্যারনকে নিয়ে গত গ্রীষ্মে মেলানিয়া হোয়াইট হাউসে আসার পর থেকে তারা বাবা-মাকেও ওয়াশিংটনে নিয়মিত দেখা যেতে থাকে বলে ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

কয়েক বছর আগে ট্রাম্পের শ্বশুর-শাশুড়ি তাদের গ্রিন কার্ডের আবেদন কী অবস্থায় আছে, তা দেখতে সিনেটর চার্লস ই শুমারের দপ্তরে যোগাযোগ করেছিল বলেও এ বিষয়ের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এক ব্যক্তি জানিয়েছেন। অভিবাসন প্রত্যাশীদের জন্য কাজ করা ডেমোক্রেট নেতা শুমারের মতো অনেকের কাছেই এ ধরনের অনুরোধ নিয়মিত আসে।

ট্রাম্পের শ্বশুর-শাশুড়ির অনুরোধ বিষয়ে সিনেটে সংখ্যালঘু দলের নেতা শুমারের দপ্তর কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

গত ৩০ জানুয়ারি স্টেট অব দ্য ইউনিয়নের ভাষণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অভিবাসন বিষয়ে তার চার-দফা পরিকল্পনার কথা জানান, যেখানে ‘চেইন মাইগ্রেশন’ বাতিল করে মেধার ভিত্তিতে অভিবাসী নির্বাচনের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল।

“এখনকার ভঙ্গুর প্রক্রিয়ায় একজন অভিবাসীই কার্যত তার অসংখ্য আত্মীয়কে নিয়ে আসতে পারে। আমাদের পরিকল্পনায়, আমরা কেবল অভিবাসীর স্ত্রী/স্বামী ও অপ্রাপ্তবয়স্ক সন্তানকে জামিনের প্রস্তাব করছি। গুরুত্বপূর্ণ এ সংস্কার কেবল আমাদের অর্থনীতির জন্য নয়, প্রয়োজন আমাদের নিরাপত্তা ও ভবিষ্যতের জন্যও,” বলেন ট্রাম্প।

গত ৬ ফেব্রুয়ারি টুইটারে ফের অবস্থান স্পষ্ট করেন ট্রাম্প।

“আমাদের প্রয়োজন, ২১ শতকের মেধার ভিত্তিতে অভিবাসন প্রক্রিয়া। চেইন মাইগ্রেশন এবং ভিসা লটারি হল বাতিল প্রক্রিয়া, যেগুলো আমাদের অর্থনীতি ও জাতীয় নিরাপত্তাকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে,” বলেন তিনি।

ডেমোক্রেটদের পাশাপাশি অনেক রিপাবলিকানও ট্রাম্পের এ অবস্থানের বিরোধিতা করছেন। গত সপ্তাহে রিপাবলিকান সাংসদ চার্লস ই গ্রাসলির একটি প্রস্তাব মার্কিন সিনেটে খারিজ হয়ে গেছে; হোয়াইট হাউসের সমর্থনপুষ্ট ওই প্রস্তাবে অভিবাসন বিষয়ে ট্রাম্পের পরিকল্পনাগুলোও অন্তর্ভুক্ত ছিল।

]]>
1462910 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/02/22/melania-trump.jpg/ALTERNATES/w300/Melania-Trump.jpg
20 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1462915 নোয়াখালী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নোয়াখালী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-02-22 12:43:20.0 2018-02-22 15:51:54.0 চাটখিলে পুলিশ পরিচয়ে কিশোরীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ পুলিশ পরিচয়ে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলায় পুলিশ পরিচয়ে এক কিশোরীকে (১৫) তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলায় পুলিশ পরিচয়ে এক কিশোরীকে (১৫) তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় এক যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1462915.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2016/04/30/rape-ed.jpg/ALTERNATES/w300/rape-ed.jpg
উপজেলার হাটপুকুরিয়া ইউনিয়নের রমাপুর গ্রামে এ ঘটনায় মামলা হলেও পুলিশ আসামিদের গ্রেপ্তার করছে না বলে অভিযোগ মেয়েটির পরিবারের। তাছাড়া মামলা করায় তাদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ তাদের।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালেরর আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) আনোয়ারুল আজিম বলেন, মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। গত ১৮ ফেব্রুয়ারি মেডিকেল বোর্ড মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেছে।

তবে ওই প্রতিবেদনে কী রয়েছে তা জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেন তিনি।

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

সাহাপুর ইউনিয়নের বক্তারপুর গ্রামের ওই কিশোরীর মা বলেন, গত ৭ ফেব্রুয়ারি মেয়ে রমাপুর গ্রামে মামা বাড়িতে বেড়াতে যায়। রাতে নোয়াখলা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মজিবুর রহমান শরীফসহ ছয় যুবক পুলিশ পরিচয়ে তাকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের পর বাড়ির পাশে ফেলে যায়।

তিনি অভিযোগ করেন, এ ঘটনা চাটখিল থানায় মামলা করতে চাইলে পুলিশ প্রথমে মামলা নেয়নি। পরে ১০ ফেব্রুয়ারি মজিবুর রহমান শরীফের নাম বাদ দিয়ে মামলা নেয় পুলিশ।

মামলা করায় মঙ্গলবার রাতে সন্ত্রাসীরা তাদের বাড়িতে এসে হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটায় এবং হত্যার হুমকি দিয়ে যায় বলে অভিযোগ করে ওই কিশোরীর মা।

চাটখিল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইকবাল বাহার চৌধুরী বলেন, গত ১১ ফেব্রুয়ারি নোয়াখালীর ৩ নম্বর আমলী আদালতের  জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম এ কে এম রৌশন জাহান নারী ও ‍শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২২ ধারায় ওই কিশোরীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন।

“এরপর মামলার তদন্তে নোয়াখলা ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি মজিবুর রহমান শরীফসহ অপর দুই জনকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। তাদের বাড়ি নোয়াখলা ইউনিয়নের ইসলামিয়া বাজার এলাকায়। তদন্তের স্বার্থে অপর দুইজনের পরিচয় গোপন রাখা হয়েছে।

“তবে এই তিনজনই পুলিশের নজরদারিতে রয়েছে। সময় মতো তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে।”

আসামির নাম থেকে শরীফকে বাদ দেওয়ার কথা অস্বীকার করে চাটখিল থানার ওসি জহিরুল আনোয়ার বলেন, বাদী শরীফের নাম দেয়ই নাই; বাদ দেওয়ার প্রশ্ন আসে না। ১০ ফেব্রুয়ারি ওই কিশোরীর মা বাদী হয়ে দুইজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত পরিচয় আরও চারজনকে আসামি করে ধর্ষণের মামলা করেছেন।

বাদীর বাড়িতে বোমা বিস্ফোরণের বিষয়ে তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ বোমা বিস্ফোরণের কোনো আলামত পায়নি। আর হুমকির বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।”

এ ব্যাপারে চাটখিল উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক চাটখিল পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ উল্লাহ পাঠোয়ারী বলেন, যুবলীগ নামধারী একটি পক্ষ সংগঠনের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার জন্যে এই ধরনের অপপ্রচার চালাতে পারে।

“তবে কারো বিরুদ্ধে এই ধরনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগের সত্যতা পেলে তার দায়িত্ব সংগঠন নেবে না।”

]]>