bdnews24.com - Home https://bangla.bdnews24.com/ The RSS feed of bdnews24.com en Bangladesh News 24 Hours Ltd. 2017-09-13 09:34:43.0 2017-09-13 09:34:43.0 Home customGroupedContent 1 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550761 ওবায়দুর মাসুম, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ওবায়দুর মাসুম, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 16:39:29.0 2018-10-16 20:07:27.0 ভগীরথপুরে দুই ‘জঙ্গি’ নিহত অপারেশন গর্ডিয়ান নট: ভগীরথপুরে দুই ‘জঙ্গি’ নিহত নরসিংদীর ভগীরথপুরে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের একটি আস্তানায় সোয়াটের অভিযান শেষে পাওয়া গেছে দুটি লাশ। নরসিংদীর ভগীরথপুরে সন্দেহভাজন জঙ্গিদের একটি আস্তানায় সোয়াটের অভিযান শেষে দুইজনের লাশ উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550761.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/bhagirathpur-militant-house-16102018-0001.jpg/ALTERNATES/w300/bhagirathpur-militant-house-16102018-0001.jpg পুলিশ বলছে, ভগিরথপুরের এই বাড়ির পঞ্চম তলায় আস্তানা গেড়েছিল দুই জঙ্গি। ছবি: ওবায়দুর মাসুম
পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেছেন, নিহতদের একজন নারী, অন্যজন পুরুষ। দুজনেরই বয়স ত্রিশের কোঠায়। তবে তাদের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

নিহত দুজন ‘নব্য জেএমবির’ সদস্য এবং ওই বাড়িতে অবস্থান নিয়ে তারা ‘নাশকতার পরিকল্পনা’ করছিল বলে এই পুলিশ কর্মকর্তার ধারণা।

ভগীরথপুরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের দুইশ মিটারের মধ্যে পাঁচতলা ওই বাড়ির পাশাপাশি মাধবদীতে সাত তলা একটি বাড়ি ঘিরে সোমবার রাত ৯টার দিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এই অভিযান শুরু হয়।

সব প্রস্তুতি শেষে মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ভগীরথপুরের ‘জঙ্গি আস্তানায়’ শুরু হয় সোয়াটের চূড়ান্ত অভিযান ‘অপারেশন গর্ডিয়ান নট’।  

বেশ কিছু সময় গোলাগুলির পর বিকাল ৪টার পর মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের সামনে এসে দুইজনের লাশ পাওয়ার কথা জানান।

ছবি: ওবায়দুর মাসুম

ছবি: ওবায়দুর মাসুম

তিনি বলেন, “নিহত দুজনের শরীরে অনেক ক্ষত ছিল। যা দেখে আমরা ধারণা করছি বোমার আঘাতে তারা নিহত হতে পারে অথবা গুলির আঘাতেও হতে পারে।” 

পাঁচ তলা ওই ভবনের পঞ্চম তলায় অভিযান শেষে একটি আগ্নেয়াস্ত্র পাওয়া গেছে এবং চারটি বোমার বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে বলে জানান মনিরুল।

তিনি বলেন, “ওখানে তারা চারটি বোমা তৈরি করে রেখেছিল। তো থেকেই আমরা বুঝতে পারি যে তাদের কোনো পরিকল্পনা ছিল। কোনো বড় ধরনের নাশকতার প্রস্তুতি তাদের ছিল।"

ভগীরথপুরের এ বাড়ি থেকে মোটামুটি দুই কিলোমিটার দূরত্বে মাধবদীর ছোট গদাইরচরের যে বাড়িটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ঘিরে রেখেছে, সেখানেও ‘একাধিক জঙ্গি’ থাকার তথ্য রয়েছে পুলিশের কাছে।

সেখানে সোয়াট অভিযান চালাবে কি না জানতে চাইলে মনিরুল বলেন, “আমরা তাদেরকে আত্মসমর্পণ করার আহ্বান জানাব। যদি আত্মসমর্পণ করে তাহলে অভিযান চালানোর প্রয়োজন হবে না। আর অভিযান কখন চালানো হবে সে বিষয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব। "

ভগীরথপুর ও মাধবদীর দুই বাড়ির ‘জঙ্গিদের’ মধ্যে ‘সংশ্লিষ্টতা’ আছে বলেও তথ্য পাওয়ার কথা জানান কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান।

ছবি: ওবায়দুর মাসুম

ছবি: ওবায়দুর মাসুম

১৯ ঘণ্টার অভিযান

মাধবদী পৌরসভার ছোট গদাইরচরের সাত তলা নিলুফা ভিলার মালিক হাজী মো. আফজাল হোসেন নামের এক ব্যক্তি। ভবনটির প্রথম থেকে তৃতীয় তলা পর্যন্ত রয়েছে মিফতাহুল জান্নাহ মহিলা মাদ্রাসা। ওই ভবনের পঞ্চম তলার একটি ফ্ল্যাটে জঙ্গিরা অবস্থান করছে বলে পুলিশের ধারণা।

আর মেহেরপাড়া ইউনিয়নের ভগীরথপুরে পাঁচ তলা বাড়িটির মালিক বিল্লাল হোসেন নামের এক কাপড় ব্যবসায়ী। ওই ভবনে অভিযান শেষে পঞ্চম তলায় ফ্ল্যাট থেকে সন্দেহভাজন দুই জঙ্গির লাশ পাওয়ার কথা জানিয়েছে পুলিশ।

দুটি বাসাই এ মাসের ৭ তারিখে ভাড়া নেওয়া হয়েছে বলে বাড়ির মালিকদের পক্ষ থেকে পুলিশকে জানানো হয়েছে।

নরসিংদীর পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, জঙ্গিদের অবস্থানের খবর পেয়ে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট ও পুলিশ সদরদপ্তরের ল ফুল ইন্টারসেপশন সেলের (এলআইসি) সদস্যরা সোমবার রাত ৯টার দিকে ওই দুই বাড়ি ঘিরে ফেলে।

পরে র‌্যাব তাদের সঙ্গে যোগ দেয়। মঙ্গলবার ভোরে সোয়াট সদস্যরা নরসিংদীতে পৌঁছান। সকালে আসেন  বোমা নিষ্ক্রিয়কারী দলের সদস্যরা। ভগীরথপুরে শুরু হয় অভিযানের প্রস্তুতি।

ছবি: ওবায়দুর মাসুম

ছবি: ওবায়দুর মাসুম

এদিকে বাড়ি দুটি ঘিরে ফেলার পর পুলিশ সকালে আশপাশের বাসার বাসিন্দাদের সরিয়ে নেয়; ৫০০ গজের মধ্যে জারি করা হয় ১৪৪ ধারা। মাইকিং করে স্থানীয়দের সতর্ক করা হয়, যাতে তারা বের না হন।

সকালে দুই বাড়ির গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়। ফায়ার ব্রিগেডের গাড়ি এনে রাখা হয় দুই বাড়ির কাছাকাছি। একদল চিকিৎসককেও ভগীরথপুরের বাড়ির কাছে রাখা হয়।

সকাল সাড়ে ৯টার পরে পুলিশের ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি আবদুল্লাহ আল মামুন এবং কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম ঘটনাস্থলে আসেন।

মনিরুল সে সময় সাংবাদিকদের বলেন, ভগীরথপুরের ওই বাড়িতে একাধিক জঙ্গি আছে বলে তারা নিশ্চিত হয়েছেন। তাদের কাছে কী ধরনের অস্ত্র বা বিস্ফোরক থাকতে পারে সে বিষয়েও ধারণা পেয়েছেন। সোয়াট অভিযান শুরুর আগে তারা ‘জঙ্গিদের’ সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন, যাতে তারা আত্মসমর্পণ করে।

সন্দেহভাজন জঙ্গিরা পুলিশের আহ্বানে ‘সাড়া না দেওয়ায়’ সোয়াট সদস্যরা অভিযান শুরুর প্রস্তুতি নেন। এরপর বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ওই বাড়ির দিক থেকে থেমে থেমে গুলির শব্দ আসতে থাকে।

এই অভিযানের মধ্যেই সেখানে উপস্থিত হন পুলিশ মহাপরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারী। তিনি জানান, সোয়াটের এই জঙ্গিবিরোধী অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছে ‘অপারেশন গর্ডিয়ান নট’।

সাংবাদিকদের তিনি বলেন, "ভেতরে একাধিক লোক অবস্থান করছে। আমাদের সদস্যরা তাদেরকে আত্মসমর্পণ করার আহ্বান জানিয়েছিল। কিন্তু তারা সাড়া দেয়নি। নানাভাবে চেষ্টা করা হচ্ছে। কিন্তু এ ভবনের জঙ্গিরা আমাদের চেয়ে সুবিধাজনক অবস্থানে আছে। যে কারণে এই অভিযানটা একটু কঠিন হচ্ছে। আমাদের সদস্যদের লক্ষ্য করে জঙ্গিরা গুলি চালিয়েছে। পুলিশও গুলি চালিয়েছে। এখানে অভিযান শেষ হলে মাধবদীর ওই বাড়িতে অভিযানের প্রস্তুতি নেওয়া হবে।"

বক্তব্য শেষে বেলা আড়াইটার দিকে ঢাকায় ফিরে যান আইজিপি। বিকাল ৪টার পর কাউন্টার টেরোরিজমের মনিরুল ভগীরথপুরের অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

এর আগে গত ৫ অক্টোবর চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক লাগোয়া এক বাড়িতে র‌্যাবের অভিযানে গোলাগুলি ও বিস্ফোরণের পর দুই জনের ছিন্নভিন্ন লাশ পাওয়া যায়।

প্রায় আট ঘণ্টার ওই অভিযান শেষে সেখান থেকে তিনটি পিস্তল, একটি একে-২২ রাইফেল ও বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়।

]]>
1550817 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/bhagirathpur-militant-house-16102018-0001.jpg/ALTERNATES/w300/bhagirathpur-militant-house-16102018-0001.jpg পুলিশ বলছে, ভগিরথপুরের এই বাড়ির পঞ্চম তলায় আস্তানা গেড়েছিল দুই জঙ্গি। ছবি: ওবায়দুর মাসুম 1550661 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/norsingdi-terror-05.jpg/ALTERNATES/w300/Norsingdi-terror-05.jpg ছবি: ওবায়দুর মাসুম 1550662 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/norsingdi-terror-04.jpg/ALTERNATES/w300/Norsingdi-terror-04.jpg ছবি: ওবায়দুর মাসুম 1550649 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/norsingdi-terror-01.jpg/ALTERNATES/w300/Norsingdi-terror-01.jpg ছবি: ওবায়দুর মাসুম 1550650 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/norsingdi-terror-02.jpg/ALTERNATES/w300/Norsingdi-terror-02.jpg ছবি: ওবায়দুর মাসুম 1550844 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/madhabdee--militant-house-16102018-0001.jpg/ALTERNATES/w300/madhabdee+-militant-house-16102018-0001.jpg মাধবদীর এই বাড়ি এখনও ঘিরে রেখেছে পুলিশ 1550651 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/norsingdi-terror-03.jpg/ALTERNATES/w300/Norsingdi-terror-03.jpg ছবি: ওবায়দুর মাসুম
2 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550841 নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 19:05:21.0 2018-10-16 21:36:08.0 অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা চান দুদক চেয়ারম্যান সাংবাদিকদের কাছে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন চান দুদক চেয়ারম্যান সদ্য প্রণীত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কিছু ধারা অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশের পথ বন্ধ করে দিয়েছে বলে সংবাদকর্মীদের অভিযোগের মধ্যে সাংবাদিকদের কাছে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন চাইলেন ইকবাল মাহমুদ। সদ্য প্রণীত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কিছু ধারা অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশের পথ বন্ধ করে দিয়েছে বলে সংবাদকর্মীদের অভিযোগের মধ্যে সাংবাদিকদের কাছে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন চাইলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550841.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/acc-chairman.jpg/ALTERNATES/w300/acc-chairman.jpg বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে সাংবাদিকদের জন্য অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিংয়ের তিন তিনের এক প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ
তিনি বলেছেন, “সাংবাদিকতার মূল বিষয় হচ্ছে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা। এ সাংবাদিকতা চলমান থাকুক। আপনারা নিরুৎসাহিত হবেন না।”

মঙ্গলবার ঢাকায় বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে সাংবাদিকদের জন্য অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিংয়ের তিন দিনের এক প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে দুর্নীতি প্রতিরোধে অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের গুরুত্ব তুলে ধরেন দুদক চেয়ারম্যান।

তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, “অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে সত্য প্রকাশ করবেন। আমি আপনাদের পক্ষে বলতে চাই, আমার বিরুদ্ধেই হোক, দুদকের বিরুদ্ধে হোক, কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে; আপনারা লিখবেন। অনুসন্ধানের তথ্য যদি আপনারা না দেন তাহলে প্রতিষ্ঠান চলবে না।

“আপনারা যদি আমাকে চ্যালেঞ্জ না করেন, আমি শুধরাব না। আপনারা প্রশ্ন করবেন, কিছু উত্তর দেব, সব প্রশ্নের উত্তর হয়ত আমি দেব না, দিতেও পারব না।”

ইন্টারনেটে নাগরিকদের বিচরণে সুরক্ষা দেওয়ার উদ্দেশ্যে সম্প্রতি যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে, তার কয়েকটি ধারা নিয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের আপত্তি রয়েছে। অধিকারকর্মীরাও বলছেন, এতে স্বাধীনভাবে মত প্রকাশের অধিকার খর্ব হবে। ওই ধারাগুলো সংশোধনের দাবিতে সোমবার মানববন্ধনে করেছে সম্পাদক পরিষদ।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে দুদক চেয়ারম্যান বলেন, “৫৭ ধারা বা ডিজিটাল আইন সম্পর্কে তেমন ধারণা নেই। তবে আপনাদের ভয়ের কোনো কারণ নেই। দুদকের প্রাতিষ্ঠানিক বিষয় নিয়ে অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করবেন, দুদক এসব সংবাদকে স্বাগত জানাবে।

“দুদকের পক্ষ থেকে কোনো প্রতিবেদনের জন্য কোনো মামলা-টামলা হবে না। এমনকি এখন পর্যন্ত কোনো প্রতিবেদনের জন্য দুদকের পক্ষ থেকে প্রতিবাদও করা হয়নি। অনুসন্ধান করবেন, আপনাদের কোনো ভয় নেই। নির্ভয়ে আপনারা অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা করবেন।”

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রসঙ্গ টেনে পিআইবির মহাপরিচালক শাহ আলমগীর বলেন, "সাংবাদিকতা কোনো আইন দিয়ে থেমে থাকেনি। আইন করে কোনো ভালো কাজকে আটকানো যাবে না। আইন হয় খারাপদের জন্য। কাজেই আইন নিয়ে ভীত হওয়ার কোন কারণ নেই।”

অনুষ্ঠানে বাসসের প্রধান সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, দুদক সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকদের সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদও বক্তব্য দেন।

]]>
1550840 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/acc-chairman.jpg/ALTERNATES/w300/acc-chairman.jpg বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে সাংবাদিকদের জন্য অনুসন্ধানমূলক রিপোর্টিংয়ের তিন তিনের এক প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ
3 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550873 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 19:53:17.0 2018-10-16 19:53:17.0 ক্ষুরা রোগের কার্যকর টিকা দেশেই উদ্ভাবন ক্ষুরা রোগের কার্যকর টিকা দেশেই উদ্ভাবন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের গবেষক দল বাংলাদেশে সঞ্চরণশীল ভাইরাস দিয়ে গবাদি পশুর ক্ষুরা রোগ প্রতিরোধের কার্যকর টিকা উদ্ভাবন করেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মো. আনোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে ১৭ সদস্যের গবেষক দল বাংলাদেশে সঞ্চরণশীল ভাইরাস দিয়ে গবাদি পশুর ক্ষুরা রোগ প্রতিরোধের কার্যকর টিকা উদ্ভাবন করেছেন। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550873.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/foot-mouth-disease-vaccine.jpg/ALTERNATES/w300/Foot-Mouth-Disease-Vaccine.jpg
এই টিকার পেটেন্ট পেতে গত ১ অক্টোবর বাংলাদেশের পেটেন্টস, ডিজাইনস ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তরে আবেদন করা হয়েছে এবং ভারতে আবেদন দাখিলের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ মঙ্গলবার ঢাকায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

ক্ষুরা রোগ গবাদি পশুর একটি অন্যতম প্রধান সংক্রামক রোগ, যাতে গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া, শুকরসহ অন্যান্য প্রাণী আক্রান্ত হয়ে থাকে।

প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ২০১৭ সালের হিসেব অনুযায়ী, বাংলাদেশে ক্ষুরা রোগের প্রতি সংবেদনশীল গৃহপালিত প্রাণীর সংখ্যা প্রায় ৫ কোটি ৫১ লাখ।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের উচ্চ শিক্ষা মানোন্নয়ন প্রকল্পের (হেকেপ) আওতায় এই টিকা উদ্ভাবনে গবেষণা হয়। এজন্য ল্যাব স্থাপনসহ আনুষঙ্গিক ব্যয় মেটাতে অনুজীব বিজ্ঞান বিভাগকে দুটি উপ-প্রকল্পের আওতায় হেকেপ ১০ কোটি ৪৫ লাখ টাকা দেয়।

মন্ত্রী নাহিদ বলেন, “ক্ষুরা রোগ বাংলাদেশে গবাদি প্রাণীর একটি অন্যতম প্রধান সংক্রামক ব্যাধি। এ রোগের কারণে বাংলাদেশে প্রতিবছর ১২৫ মিলিয়ন ডলার ক্ষতি হয়।”

ক্ষুরা রোগ প্রতিরোধে ব্যবহৃত টিকা প্রধানত আমদানি করা হয় জানিয়ে নাহিদ বলেন, এসব টিকা উৎপাদনে যে ভাইরাস ব্যবহৃত হয় তা এদেশে বিদ্যমান ভাইরাস থেকে ভিন্ন কিংবা টিকাতে পর্যাপ্ত পরিমাণ এন্টিজেন না থাকায় প্রায়ই সেগুলো কাজ করে না।

“উদ্ভাবিত এই টিকা বাংলাদেশে বিদ্যমান ক্ষুরা রোগের তিন ধরনের ভাইরাসের সকল প্রকার সংক্রমণ থেকে গবাদি প্রাণীকে অত্যন্ত সফলভাবে সুরক্ষা দিতে সক্ষম হবে এবং এর মূল্য বাজারে প্রচলিত ভ্যাকসিনের চেয়ে অনেক কম হবে।”

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “বাংলাদেশে সঞ্চরণশীল ভাইরাস দ্বারা টিকা উদ্ভাবন প্রাণিসম্পদ গবেষণায় একটি মাইলফলক। প্রাণিসম্পদ উন্নয়নে ও সুরক্ষায় এ টিকা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।”

‘ট্রাইভ্যালেন্ট’ এই টিকা তৈরিতে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে এবং খামারি পর্যায়ে প্রতিমাত্রা টিকা ৬০-৭০ টাকার মধ্যে সরবরাহ করা সম্ভব হবে বলে জানান নাহিদ।

গবেষক দলের প্রধান ঢাবি অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন বর্তমানে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যর দায়িত্বে আছেন।

সংবাদ সম্মেলনে গবেষণা দলের সব সদস্যকে সঙ্গে নিয়ে টিকা উদ্ভাবন সংক্রান্ত তথ্য-উপাত্ত বিস্তারিতভাবে তুলে ধরার পাশাপাশি এ সংক্রান্ত নানা প্রশ্নের জবাব দেন অধ্যাপক আনোয়ার।

তিনি জানান, ক্ষুরা রোগের টিকা উদ্ভাবনে গবেষণার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগে অত্যাধুনিক গবেষণাগার তৈরি করে সেখানেই গবেষণা করা হয়।

ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, হেকেপ পরিচালক গৌরাঙ্গ চন্দ্র মোহান্ত, ইউজিসির সদস্য ইউসুফ আলী মোল্লা ও আক্তার হোসেন এবং অধ্যাপক জাফর ইকবাল অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন।

]]>
1550872 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/foot-mouth-disease-vaccine.jpg/ALTERNATES/w300/Foot-Mouth-Disease-Vaccine.jpg 1550871 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/khura-rog.jpg/ALTERNATES/w300/Khura-Rog.jpg
4 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550745 সুমন মাহবুব, রিয়াদ থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম সুমন মাহবুব, রিয়াদ থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 16:11:22.0 2018-10-16 22:30:42.0 সৌদি আরব পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী সৌদি আরব পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে সৌদি আরব পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে চার দিনের সফরে সৌদি আরব পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550745.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/pm-airport-16102018.jpg/ALTERNATES/w300/PM-Airport-16102018.jpg ঢাকায় শাহজালাল বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিদায় দেন মন্ত্রী ও ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা- ছবি: সাইফুল ইসলাম কল্লোল
মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজ ‘অরুণ আলো’ প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে সৌদি আরবের পথে রওনা হয়।

সৌদি আরবের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা ৫১ মিনিটে রিয়াদের কিং খালিদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উড়োজাহাজটি অবতরণ করে।

বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়। সেখানে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান রিয়াদের গভর্নর এবং সেদেশে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসিহ্। 

এই সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী, পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক, আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর বেসরকারি খাত বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, তার স্ত্রী সৈয়দা রুবাবা রহমান এবং প্রধানমন্ত্রীর পরিবারের কয়েকজন সদস্য।

ঢাকায় বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানিয়েছিলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমদ, সড়ক পরিবেহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বেসরকারি বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী এ কে এম শাহজাহান কামালসহ ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা।

সৌদি আরবে চলতি বছর এটি প্রধানমন্ত্রীর দ্বিতীয় সফর। সফর শেষে আগামী শুক্রবার তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

আগামী ১৮ অক্টোবর তিনি মক্কায় ওমরাহ পালন করবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ সফরের সময় সৌদি আরবের সঙ্গে প্রতিরক্ষা এবং তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে সমঝোতা স্মারকে সই হবে।

সফরে সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এছাড়া প্রধানমন্ত্রী রিয়াদে নিজস্ব জমিতে নবনির্মিত বাংলাদেশ দূতাবাস ভবনের উদ্বোধন এবং জেদ্দায় বাংলাদেশ কনসুলেট ভবনের ভিত্তি স্থাপন করবেন।

সফরের শুরুতে বুধবার সকালে কাউন্সিল অফ সৌদি চেম্বার আয়োজিত একটি সেমিনারে অংশ নেবেন শেখ হাসিনা।

১৭ অক্টোবর রাতে তিনি মদিনা যাবেন। সেখানে তিনি মসজিদে নববীতে নামাজ পড়বেন এবং মহানবীর (স.) রওজা জিয়ারত করবেন। 

গত এপ্রিলে সৌদি আরবসহ ২২ দেশের সঙ্গে ‘গাল্ফ শিল্ড-১’ নামে একটি সামরিক মহড়ায় অংশ নেয় বাংলাদেশ। সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণে ওই মহড়ার সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এছাড়া গতবছর মে মাসে তিনি ‘আরব ইসলামিক আমেরিকান সামিটে’ যোগ দেন এবং ওমরাহ পালন করেন। 

]]>
1550901 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/pm-airport-16102018.jpg/ALTERNATES/w300/PM-Airport-16102018.jpg ঢাকায় শাহজালাল বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বিদায় দেন মন্ত্রী ও ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা- ছবি: সাইফুল ইসলাম কল্লোল
5 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550671 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 12:18:50.0 2018-10-16 20:55:34.0 খালেদার রায় ২৯ অক্টোবর জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি: খালেদার রায় ২৯ অক্টোবর বিএনপি চেয়ারপারসন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া দাতব্য ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে সোয়া তিন কোটি টাকা লেনদেনের মামলার রায় জানা যাবে ২৯ অক্টোবর। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া দাতব্য ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে সোয়া তিন কোটি টাকা লেনদেনের মামলার রায় জানা যাবে ২৯ অক্টোবর। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550671.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/01/25/01_khaleda_zia_250118_0002.jpg/ALTERNATES/w300/01_Khaleda_zia_250118_0002.jpg ফাইল ছবি
ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ মো. আখতারুজ্জামান আট বছর আগে দুদকের দায়ের করা এ মামলার বিচারিক কার্যক্রমের সমাপ্তি ঘোষণা করে মঙ্গলবার রায়ের এই দিন ঠিক করে দেন।

এ মামলার শেষ পর্যায়ের কার্যক্রম চলছে ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতরে বসানো জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাসে।

এ কারাগারেই আরেকটি ভবনে গত ফেব্রুয়ারি থেকে বন্দি ছিলেন জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের সাজাপ্রাপ্ত সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া। কিছুদিন আগে সেখান থেকে চিকিৎসার জন্য তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেওয়া হয়।

সাড়ে আট মাসের মাথায় খালেদার বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দুর্নীতি মামলার রায় হতে যাচ্ছে, যেখানে দোষী প্রমাণিত হলে তার সর্বোচ্চ সাত বছরের সাজা হতে পারে বলে এ মামলার বাদী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) কৌঁসুলি মোশাররফ হোসেন কাজল জানিয়েছেন।

কয়েকটি ধার্য তারিখে আসামিপক্ষ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন না করায় বিচারের এ অংশটি বাদ দিয়েই রায়ের তারিখ নির্ধারণের জন্য আদালতে আবেদন করেছিল রাষ্ট্রপক্ষ।

বিচারক মঙ্গলবার তার আদেশে বলেন, “আসামিপক্ষ নানা কারণ দেখিয়ে যুতক্ততর্ক উপস্থাপন করেন নাই, কালক্ষেপণ করেছেন। সেজন্য প্রসিকিউশন যে আবেদন করেছে সে আবেদন মঞ্জুর করা হল। আগামী ২৯ অক্টোবর এ মামলা রায়ের জন্য থাকবে। খালেদা জিয়া সেদিন পর্যন্ত জামিনে থাকবেন।”

এ মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সুযোগ না থাকলেও ন্যায়বিচারের স্বার্থে আসামিপক্ষকে সে সুযোগ দেওেয়া হয়েছিল বলে আদেশে উল্লেখ করেন বিচারক।

অন্যদিকে খালেদা জিয়ার অন্যতম আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া আদেশের পর সাংবাদিকদের বলেন, “বেআইনিভাবে এ আদেশ দেওয়া হয়েছে। আমরা এ বিষয়ে উচ্চ আদালতে যাব।”

এ মামলার চার আসামির মধ্যে খালেদা জিয়ার সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী পলাতক। হারিছের তখনকার সহকারী একান্ত সচিব ও বিআইডব্লিউটিএর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকার সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান আছেন কারাগারে।

খালেদাকে নির্দোষ দাবি করে তার দল বিএনপি বরাবরই বলে আসছে, ‘রাজনৈতিক উদ্দেশ্য’ থেকে তাদের নেত্রীর বিরুদ্ধে এই ‘মিথ্যা’ মামলা করিয়েছে আওয়ামী লীগ সরকার।

আদালত রায়ের তারিখ ঠিক করে দেওয়ার পর বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের বলেন, “এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয় বাংলাদেশে বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে, সরকার যে নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে এটা তারই একটি প্রমাণ।”

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

শেষ দিনের শুনানি

এ মামলায় দুদকের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষ হলেও খালেদা জিয়াসহ তিন আসামির যুক্তিতর্ক শুনানি শুরু করতে পারেনি আদালত। বার বার তারিখ দেওয়ার পরও আসামিপক্ষের আসামিরা যুক্তিতর্ক শুরু না করায় গত ২৬ সেপ্টেম্বর যুক্তিতর্ক ছাড়াই রায়ের তারিখ ঘোষণার আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার পর আদালতের কার্যক্রমের শুরু হলে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল প্রথমে বক্তব্য দেন। তিনি যুক্তিতর্ক ছাড়াই রায়ের তারিখ ঘোষণার জন্য প্রসিকিউশনের আবেদনের উপর আদেশ দেওয়ার আর্জি জানান।

এরপর আসামিপক্ষের আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া আদালতে বলেন, খালেদা জিয়ার অনুপস্থিতিতে এ মামলার বিচার চালানোর আদেশ চ্যালেঞ্জ করে তারা হাই কোর্টে গিয়েছিলেন। কিন্তু হাই কোর্ট তা খারিজ করে দেওয়ায় তারা আপিল বিভাগে যাবেন।

“আপিল বিভাগে কী নিষ্পত্তি হয় সেটা আমরা দেখি। আমরা এখনো রায়ের সার্টিফায়েড কপি পাইনি। আপিল বিভাগে নিষ্পত্তির জন্য সময় প্রার্থনা করছি আমরা।”

খালেদার আরেক আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, “আদেশে হাই কোর্টে বলেছেন, খালেদা জিয়া আদালতে এসে মামলার কার্যক্রমে অংশ নেবেন বলে তারা মনে করেন। যেহেতু খালেদা জিয়া অসুস্থ, তিনি সুস্থ হলে অবশ্যই আদালতে আসবেন।”

এরপর দুই পক্ষ থেকে শুনানি নিয়ে জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার রায়ের তারিখ নির্ধারণ করে দেয় আদালত। খালেদার জামিন ওই তারিখ পর্যন্ত বাড়িয়ে বেলা ১২টায় এজলাস ত্যাগ করেন বিচারক আখতারুজ্জামান।

পরে আদালতের বাইরে খালেদার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, “প্রসিকিউশন আবেদনে যেসব কথা লিখেছে, সেসব কথা অনুসারেই আদেশ দিয়েছেন আদালত। আমাদের কোনো বক্তব্যই আমলে নেওয়া হয়নি।”

বারবার সময় পেছানোর বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে মাসুদ আহমেদ তালুকদার বলেন, “সময় দেওয়া যদি অযৌক্তিক হয়, সেটাতো দিয়েছেন বিচারক। অযৌক্তিক হলে এতোদিন তিনি দিলেন কেন?”

অন্যদিকে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, খালেদা জিয়ার পক্ষে তার আইনজীবীরা যুক্তিতর্ক উপস্থাপন না করে বারবার সময় চাওয়ায় গত আড়াই বছর ধরে মামলার কার্যক্রম আটকে আছে। এ কারণেই তারা রায়ের তারিখের জন্য আবেদন করেছেন। আদালত তা মঞ্জুর করেছে।

কারাবন্দি খালেদাকে যেখানে শুনানিতে হাজির করা যায়নি, সেখানে রায়ের দিন তাকে কীভাবে হাজির করা হবে জানতে চাইলে কাজল বলেন, “যেভাবে হোক হাজির করা হবে।”

মামলা পরিক্রমা

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর ২০১০ সালের ৮ অগাস্ট দুর্নীতি দমন কমিশনের সহকারী পরিচালক হারুনুর রশিদ সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াসহ চার জনের বিরুদ্ধে জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা দায়ের করেন।

তেজগাঁও থানার এ মামলায় ক্ষমতার অপব্যবহার করে জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্টের নামে ৩ কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাত করার অভিযোগ আনা হয় আসামিদের বিরুদ্ধে।

তদন্ত কর্মকর্তা হারুন অর রশিদ ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি খালেদা জিয়াসহ চার জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। পরের বছরের ১৯ মার্চ অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আসামিদের বিচার শুরু হয়।

রাষ্ট্রপক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ২০১৭ সালের গত ১ ডিসেম্বর আদালতে উপস্থিত হয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনে নিজের বক্তব্য উপস্থাপন শুরু করেন খালেদা। সেখানে নিজেকে ‘সম্পূর্ণ নির্দোষ’ দাবি করে তিনি আদালতের কাছে সুবিচার চান।

তার আবেদনে কয়েক দফা এ মামলার বিচারক বদলে দেয় হাই কোর্ট। খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা নানাভাবে সময়ক্ষেপণ করে বিচার বিলম্বিত করছেন বলে অভিযোগ করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।

জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার কার্যক্রম গত ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বকশীবাজারে ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাসে এতিমখানা দুর্নীতি মামলার সঙ্গেই চলছিল।

৮ ফেব্রুয়ারি একই বিচারক এতিমখানা দুর্নীতি মামলার রায়ে খালেদা জিয়াকে ৫ বছরের কারাদণ্ড দিলে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

এর পরের সাত মাসে কারা কর্তৃপক্ষ খালেদাকে আদালতে উপস্থিত করতে না পারায় জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি দফায় দফায় পেছানো হয়। প্রতিবারই আদালতকে খালেদা জিয়ার অসুস্থতার কথা বলা হয়।  

এই পরিস্থিতিতে ৪ সেপ্টেম্বর ‘নিরাপত্তার কারণ’ দেখিয়ে কারাগারের ভেতরেই আদালত বসিয়ে এ মামলার শুনানি শেষ করার ব্যবস্থা করে সরকার। পরদিন ওই অস্থায়ী এজলাসে হাজির করা হলে খালেদা জিয়া বলেন, তিনি বার বার আদালতে আসতে পারবেন না, বিচারক তাকে ‘যতদিন খুশি’ সাজা দিতে পারেন। 

এরপর শুনানির দুটি নির্ধারিত দিনে কারা কর্তৃপক্ষ খালেদাকে আদালত কক্ষে আনতে ব্যর্থ হলে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে তার অনুপস্থিতিতেই বিচার চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত দেন বিচারক মো. আখতারুজ্জামান। খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাই কোর্টে গেলেও তাদের আবেদন ১৫ অক্টোবর খারিজ হয়ে যায়।

এদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা যুক্তিতর্কের শুনানিতে অংশ না নিয়ে খালেদা জিয়াকে হাসপাতালে পাঠানোসহ বিভিন্ন আবেদন নিয়ে শুনানি করতে থাকায় দুদকের আইনজীবী কাজল যুক্তিতর্ক ছাড়াই রায়ের তারিখ নির্ধারণের আবেদন করেন।

সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে মঙ্গলবার বিচারক আখতারুজ্জামান রায়ের জন্য ২৯ অক্টোবর দিন ঠিক করে দেন।

আসামিদের মধ্যে খালেদা জিয়া এ মামলায় জামিনে থাকলেও অন্য মামলায় গ্রেপ্তার থাকায় তার মুক্তি মেলেনি। বর্তমানে তিনি কারা তত্ত্বাবধানে বঙ্গবন্ধু মেডিকেলে চিকিৎসাধীন। 

এ মামলার আরেক আসামি খালেদার রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরী ২০০৭ সালে জরুরি অবস্থার সময় থেকে পলাতক। তিনি দেশের বাইরে আছেন বলে ধারণা করা হয়। সম্প্রতি ২১ অগাস্ট মামলার রায়ে তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয়েছে।

অপর দুই আসামি জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং মনিরুল ইসলাম খান দীর্ঘদিন জামিনে থাকার পর গত সেপ্টেম্বরে তাদের জামিন বাতিল করে কারাগারে পাঠান বিচারক।

]]>
1452012 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/01/25/01_khaleda_zia_250118_0002.jpg/ALTERNATES/w300/01_Khaleda_zia_250118_0002.jpg ফাইল ছবি 1522585 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/07/25/khaleda-zia-bangabandhu-sheikh-mujib-medical-university-070418-0010.jpg/ALTERNATES/w300/Khaleda-Zia-Bangabandhu-Sheikh-Mujib-Medical-University-070418-0010.jpg ফাইল ছবি 1538983 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/09/12/khaleda-court-in-jail-01.jpg/ALTERNATES/w300/Khaleda-court-in-Jail-01.jpg
6 2 Home politics_bn রাজনীতি news-bn 198 1550762 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 16:47:31.0 2018-10-16 18:04:37.0 কামাল-বিএনপি জোটের প্রথম সমাবেশ সিলেটে কামাল-বিএনপি জোটের প্রথম সমাবেশ সিলেটে নির্বাচন সামনে রেখে সাত দফা দাবিতে জনমত গঠনে সিলেটে প্রথম সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে ড. কামালের নেতৃত্বে নবগঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। নির্বাচন সামনে রেখে সাত দফা দাবিতে জনমত গঠনে সিলেটে প্রথম সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে ড. কামালের নেতৃত্বে নবগঠিত জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। false https://bangla.bdnews24.com/politics/article1550762.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/abdur-rab-16102018-0002.jpg/ALTERNATES/w300/abdur-rab-16102018-0002.jpg জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রথম কর্মসূচির ঘোষণা নিয়ে সাংবাদিকদের সামনে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব। মঙ্গলবার ঢাকার উত্তরায় তার বাড়িতে জোট নেতাদের প্রথম বৈঠক হয়।
রাজধানীর উত্তরায় নিজ বাসায় আড়াই ঘণ্টার রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষে বেলা আড়াইটায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সভাপতি আসম আবদুর রব কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ঘোষণা অনুযায়ী, ২৩ অক্টোবর হযরত শাহ জালাল ও হযরত শাহ পরানের মাজার জিয়ারতের পর সেখানে সিলেটে সমাবেশ করবে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

বৈঠকে দুটি সিদ্ধান্ত হয়েছে জানিয়ে রব সাংবাদিকদের বলেন, “একটি শরিকদের নিয়ে লিয়াজোঁ কমিটি গঠন। অপরটি হচ্ছে সমাবেশ, মহাসমাবেশ অনুষ্ঠান।

“মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ভিত্তিতে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার, জনগণের অধিকার, কর্তৃত্ব, জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠা করার জন্য জনগণ ও ফ্রন্টের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে আমরা প্রথম কর্মসূচি দিচ্ছি আগামী ২৩ অক্টোবর সিলেটে প্রোগ্রাম হবে। এটি সমাবেশ-মহাসমাবেশ-গণসমাবেশ হবে। এর আগে অবশ্যই আমরা হযরত শাহ জালালের মাজার জিয়ারত করব।”

সিলেটের পর পর্যায়ক্রমে চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, রংপুরসহ বিভাগীয় শহর ও মহানগরে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট সমাবেশের কর্মসূচি পালন করবে বলে তিনি জানান।

জেএসডি সভাপতি বলেন, “আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে আমরা যাতে শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি করতে পারি সেজন্য সরকার ও প্রশাসনের কাছে আমরা সহযোগিতা চাই।”

বুধবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক শেষে জোটের লিয়াজোঁ কমিটির নেতৃবৃন্দের নাম গণমাধ্যমকে জানানো হবে বলে তিনি জানান।

রবের বাসায় এই বৈঠক শুরুর হয় বেলা ১২টায়। বৈঠক শুরুর দেড় ঘণ্টা পর আসেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, চেয়ারপারসনের উপষ্টো কাউন্সিলের সদস্য মনিরুল হক চৌধুরী, জেএসডির সহসভাপতি তানিয়া রব, সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, গণফোরামের কার্যনির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

বিএনপিপন্থি পেশাজীবী নেতা ডা. জাফরুল্লাহ ও ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মো. মনসুরও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

গত ১৩ অক্টোবর জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ৭ দফা ও ১১ দফা লক্ষ্য নিয়ে গণফোরাম সভাপতি কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আত্মপ্রকাশ হয়।

সরকারবিরোধী নতুন জোটে বিএনপি, জেএসডি, নাগরিক ঐক্য, গণফোরাম রয়েছে। মতভিন্নতার কারণে অধ্যাপক একিউএম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর বিকল্পধারা এখানে নেই।

]]>
1550782 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/abdur-rab-16102018-0002.jpg/ALTERNATES/w300/abdur-rab-16102018-0002.jpg জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রথম কর্মসূচির ঘোষণা নিয়ে সাংবাদিকদের সামনে জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব। মঙ্গলবার ঢাকার উত্তরায় তার বাড়িতে জোট নেতাদের প্রথম বৈঠক হয়। 1550781 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/mirza-fakhrul-islam-alamgir-16102018-0002.jpg/ALTERNATES/w300/mirza+fakhrul+islam+alamgir-16102018-0002.jpg ঢাকার উত্তরায় জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রথম বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
7 2 Home economy_bn অর্থনীতি news-bn 202 1550818 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 18:28:48.0 2018-10-16 20:45:23.0 ভোটের আগে বাড়ছে না গ্যাসের দাম ভোটের আগে বাড়ছে না গ্যাসের দাম তোড়জোড় চললেও নির্বাচনের আগে শিল্প খাতে গ্যাসের দাম বাড়ানোর পদক্ষেপ থেকে সরে এসেছে সরকার। তোড়জোড় চললেও নির্বাচনের আগে শিল্প খাতে গ্যাসের দাম বাড়ানোর পদক্ষেপ থেকে সরে এসেছে সরকার। false https://bangla.bdnews24.com/economy/article1550818.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2015/06/07/gasprice.jpg/ALTERNATES/w300/Gas%2BPrice.jpg
মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন ডেকে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম বলেছেন, তারা এখন গ্যাসের দাম বাড়াবেন না।

আগামী ডিসেম্বরে একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি চলছে। তার আগে গ্যাসের দাম বাড়ানোর মতো সিদ্ধান্ত নিলে ভোটে তার বিরূপ প্রভাব পড়বে বলে তার বিরোধিতা করছিলেন ক্ষমতাসীন দলের সংসদ সদস্যরা।

এলএনজি আমদানির প্রেক্ষাপটে আবাসিক ও বাণিজ্যিক সংযোগ বাদে অন্য ক্ষেত্রে গ্যাসের দাম বাড়ানোর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১১ থেকে ২৫ জুন শুনানি করে বিইআরসি। শুনানির প্রায় চার মাস পর দাম না বাড়ানোর সিদ্ধান্ত এল।

তবে উচ্চমূল্যে এলএনজি আমদানি করায় গ্যাসের দাম সমন্বয় না করার কারণে সরকারের চলতি অর্থবছরে প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি গুনতে হবে বলে কমিশন হিসাব দেখিয়েছে।

গ্যাসের দাম না বাড়ানোর কারণ দেখিয়ে মনোয়ার ইসলাম বলেন, “গ্যাসের উৎপাদন, এলএনজি আমদানি, সঞ্চালন ও বিতরণ ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়া সত্ত্বেও সার্বিক বিষয় বিবেচনা করে ভোক্তা পর্যায়ে বিদ্যমান মূল্যহার পরিবর্তন না করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।”

তিনি বলেন, দাম বাড়ানোর জন্য বিতরণ কোম্পানিগুলো ও পেট্রোবাংলার আবেদনে এক হাজার মিলিয়ন ঘনফুট এলএনজি আমদানির কথা উল্লেখ করা হয়েছিল। বর্তমানে ৩০০ মিলিয়নের মতো হচ্ছে। এছাড়া জাতীয় রাজস্ব বোর্ড হতে গত তিন অক্টোবর পৃথক দুটি এসআরওর মাধ্যমে প্রাকৃতিক গ্যাসের উৎপাদন পযায়ে সম্পূরক শুল্ক এবং আমদানি পযায়ে অগ্রিম কর ও অগ্রিম মূসক প্রত্যাহার করা হয়েছে।        

এছাড়া বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিতরণ কোম্পানিগুলোর জামানত কমিয়ে কোম্পানিগুলোর উপাদন খরচ কমিয়ে দেওয়ার কারণে এখনই গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রয়োজন মনে করছেন না বিইআরসি চেয়ারম্যান।

বিইআরসির সদস্য আবদুল আজিজ খান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “চলতি অর্থবছরের শেষের দিকে ১০০০ মিলিয়ন ঘনফুট এলএনজি আমদানি হতে পারে। তখন বিতরণ কোম্পানিগুলো প্রয়োজন মনে করলে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিলে আমরা বিবেচনা করব।”

বর্তমানে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের গড় ভারিত মূল্য সাত টাকা ৩৯ পয়সা। এটা ১ টাকা ৪৬ পয়সা বাড়ানোর প্রয়োজন রয়েছে মনে করেন কমিশন চেয়ারম্যান।

তা না বাড়ানোয় চলতি অর্থবছরে তিন হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি লাগবে বলে জানান আজিজ খান।

গত জুনে এলএনজি আমদানি চূড়ান্ত হওয়ার পরই গ্যাসের দাম বাড়ানোর তোড়জোড় শুরু হয়। উত্তোলন ও বিতরণ কোম্পানিগুলোর পক্ষ থেকে আবাসিক ও বাণিজ্যিক ছাড়া সব ক্ষেত্রে গ্যাসের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়।

জুনের ১১ তারিখ থেকে দাম বাড়ানোর উপর শুনানি শুরু করে বিইআরসি।

প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের গড় দাম ৭ টাকা ৩৯ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১২ টাকা ৯৫ পয়সা করার প্রস্তাব করে কোম্পানিগুলো। অর্থাৎ বর্তমানের তুলনায় ৭৩ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়।

এর যুক্তি হিসেবে পেট্রোবাংলার পক্ষ থেকে বিইআরসিতে দেওয়া এক উপস্থাপনায় দেখানো হয়েছে, ২৫ টাকা ১৭ পয়সা দরে কিনে এর সঙ্গে ভ্যাট, ব্যাংক চার্জ, রিগ্যাসিফিকেশন চার্জসহ নানা ধরনের চার্জ যোগ করে আমদানি করা এলএনজির বিক্রয়মূল্য মূল্য দাঁড়াবে ৩৩ টাকা ৪৪ পয়সা। এই অঙ্ক দেশে বর্তমানে বিক্রিত গ্যাসের চার গুণ বেশি।

নতুন গ্যাস সরবরাহে পাইপলাইন নির্মাণে বিনিয়োগের কথা উল্লেখ করে জিটিসিএল প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের সঞ্চালন চার্জ দশমিক ২৬৫৪ পয়সা থেকে বাড়িয়ে দশমিক ৪৪৭৬ পয়সা অর্থাৎ ৬৮ দশমিক ৬৫ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাবের ওপর শুনানি হয়।

অন্যদিকে জ্বালানি খাতে দুর্নীতি ও অপচয় রোধ করা গেলে প্রচলিত দাম বহাল রেখেই আমদানি করা এলএনজির দাম সমন্বয় সম্ভব বলে মত দেন ভোক্তা অধিকার সংগঠন ক্যাবের জ্বালানি উপদেষ্টা অধ্যাপক এম শামসুল আলম।

গ্যাসের দাম না বাড়িয়েও বিতরণ কোম্পানির ব্যয় কমানোর জন্য বেশ কয়েকটি আদেশে পরিবর্তন এনেছে বিইআরসি।

এরমধ্যে রয়েছে-শিল্প, চা-বাগান, বাণিজ্যিক এবং গৃহস্থালি গ্রাহক শ্রেণির ক্ষেত্রে তিন মাসের পরিবর্তে দুই মাসের এবং ছয় মাসের পরিবর্তে চার মাসের বিলের সমপরিমাণ অর্থ নিরাপত্তা জামানত হিসেবে রাখতে হবে।

নিরাপত্তা জামানত দেওয়ার ক্ষেত্রে ক্যাপটিভ পাওয়ার, শিল্প ও চা-বাগান গ্রাহকশ্রেনীর ক্ষেত্রে এক তৃতীয়াংশ নগদের পরিবর্তে ৫০ শতাংশ নগদ এবং দুই তৃতীয়াং ব্যাংক গ্যারিান্টির পরিবর্তে ৫০ শতাংশ ব্যাংক গ্যারান্টি বা অন্য কোন গ্রহণযোগ্য ইন্সট্রুমেন্টের মাধ্যমে নিরাপত্তা জামানত রাখা যাবে।

এছাড়া পি-প্রেইড মিটার গ্রাহকদের ক্ষেত্রে কোনো নিরাপত্তা জামানত রাখা লাগবে না।

]]>
8 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550894 আদালত প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম আদালত প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 21:58:57.0 2018-10-16 21:58:57.0 জাফরুল্লাহর মামলা আদালতে জাফরুল্লাহর মামলা আদালতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে থানায় করা মামলাটি গ্রহণ করেছে ঢাকার হাকিম আদালত। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি জাফরুল্লাহ চৌধুরীর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগে থানায় করা মামলাটি গ্রহণ করেছে ঢাকার হাকিম আদালত। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550894.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/13/zafrullah-13102018-02.jpg/ALTERNATES/w300/Zafrullah-13102018-02.jpg
মঙ্গলবার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আতিকুল ইসলাম তা গ্রহণের পর তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আগামী ১৪ নভেম্বর দিন ঠিক করেছেন বলে আদালত পুলিশের পরিদর্শক মো. আসাদুজ্জামান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান।

সেনাপ্রধানকে নিয়ে টেলিভিশন আলোচনা অনুষ্ঠানে ভুল বক্তব্যের জন্য রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ এনে জাফরুল্লাহর বিরুদ্ধে ঢাকার আশুলিয়া থানায় সোমবার মামলা করেন মানিকগঞ্জের মোহাম্মদ আলী নামে এক ব্যক্তি।

মামলায় গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. দেলোয়ার হোসেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের নির্বাহী পরিচালক মো. সাইফুল ইসলাম শিশির ও আওলাদ হোসেনসহ অজ্ঞাতনামা আরও ৩/৪ জনকে আসামি করা হয়।

বিএনপি সমর্থক পেশাজীবী নেতা হিসেবে পরিচিত জাফরুল্লাহর কর্মক্ষেত্র গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রধান দপ্তর আশুলিয়ায়, এই ট্রাস্টের অধীনে পরিচালিত গণ বিশ্ববিদ্যালয়ও সেখানে।

মোহাম্মদ আলীর অভিযোগ, আশুলিয়া থানার পাথালিয়া ইউনিয়নে তার ও তার শরিকদের ৪ দশমিক ২৪ একর সম্পত্তি গণস্বাস্থ্যের নামে লিখে দিতে জাফরুল্লাহসহ অন্য আসামিরা চাপ দিয়ে আসছেন। জমিটি এতদিন ধরে না দেওয়ায় এক কোটি টাকা চাঁদাও দাবি করেন।

]]>
1549716 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/13/zafrullah-13102018-02.jpg/ALTERNATES/w300/Zafrullah-13102018-02.jpg
9 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550756 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 16:30:45.0 2018-10-16 16:31:29.0 মতানৈক্যে কাজে প্রভাব পড়বে না: সিইসি মতানৈক্যে কাজে প্রভাব পড়বে না: সিইসি পাঁচ সদস্যের কমিশনে মতানৈক্যে কাজে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে মন্তব্য করেন সিইসি কে এম নূরুল হুদা। নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদারের কমিশন সভা বর্জন নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চান না প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550756.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/cec-16102018.jpg/ALTERNATES/w300/CEC-16102018.jpg
একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে মঙ্গলবার নির্বাচন ভবনে মাঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে সোমবারের ওই ঘটনা নিয়ে কিছু বলতে চাননি সিইসি।

তবে নিজেদের মধ্যে মতানৈক্যের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়ে বলেছেন, এতে নির্বাচন কমিশনের কাজে কোনো প্রভাব পড়বে না, নির্বাচন করাও কঠিন হবে না।

সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়ে সোমবার ‌‘বক্তব্য রাখতে না দেওয়ার’ প্রতিবাদে নোট অব ডিসেন্ট দিয়ে সভা বর্জন করেন মাহবুব তালুকদার। বাক স্বাধীনতা খর্ব করা হয়েছে বলেও অভিযোগ তোলেন তিনি।

পরে সংবাদ সম্মেলন এসে বলেন, বক্তব্য উপস্থাপন করতে না দেওয়ায় তিনি অপমানিত বোধ করেছেন বলে সভা বর্জন করেছেন।

মাহবুব তালুকদারের কমিশন সভা বর্জন নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে মঙ্গলবার সিইসি নূরুল হুদা বলেন, “ওটা গতকালের ঘটনা, এ নিয়ে তো গণমাধ্যমে সব রিপোর্ট হয়েছে। ওটা নিয়ে আমি কথা বলব না। আমাকে আর ইনসিস্ট করবেন না।”

সংসদ নির্বাচনের আগে নিজেদের মধ্যে মতানৈক্য থাকলেও তাতে কাজে কোনো প্রভাব পড়বে না বলে মনে করেন তিনি।

‍একজন নির্বাচন কমিশনারের সভা বর্জন ও মতানৈক্যে একাদশ সংসদ নির্বাচনে কোনো প্রভাব পড়বে কিনা বা কাজ করা কঠিন হবে কিনা- জানতে চাইলে সিইসি বলেন, “না, কঠিন হবে না।”

মঙ্গলবার মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে সিইসি ও চার নির্বাচন কমিশনার ছিলেন।

ইসি কর্মকর্তাদের পদোন্নতির সুপারিশ করায় এ সংক্রান্ত কমিটির আহ্বায়ক মাহবুব তালুকদারকে বৈঠকে ধন্যবাদ জানান সিইসি।

গেল বছরের ফেব্রুয়ারিতে পাঁচ সদস্যের কমিশন যোগ দেওয়ার পর কয়েক দফা নোট অব ডিসেন্ট ও আনঅফিসিয়াল নোট দিয়ে সভা বর্জন করায় আলোচিত নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

সর্বশেষ ৩০ অগাস্ট ও ১৫ অক্টোবর দুই বার কমিশন সভায় অংশ নিয়ে ১০ মিনিটের মাথায় নোট অব ডিসেন্ট দিয়ে সভা বর্জন করেন। এরই মধ্যে সিইসি ও ইসি সচিবের একক কর্তৃত্ব নিয়েও অসন্তোষ জানান মাহবুব তালুকদারসহ অন্যরা।

অবশ্য পরে এ নির্বাচন কমিশনার জানান, তাদের নিজেদের মধ্যে ভিন্নমত থাকতে পারে; তা কোনোভাবেই মতবিরোধ নয়।

]]>
1550755 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/cec-16102018.jpg/ALTERNATES/w300/CEC-16102018.jpg
10 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550810 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 18:17:13.0 2018-10-16 18:17:13.0 ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ ঢাবি ‘ঘ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে, যাতে ২৬ দশমিক ২১ শতাংশ শিক্ষার্থী ভর্তির যোগ্য বিবেচিত হয়েছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে, যাতে ২৬ দশমিক ২১ শতাংশ শিক্ষার্থী ভর্তির যোগ্য বিবেচিত হয়েছেন। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550810.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/09/28/du-admission-test-28082018-0006.jpg/ALTERNATES/w300/du-admission-test-28082018-0006.jpg ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়।
ভর্তি পরীক্ষায় যোগ্য বিবেচিত ১৮ হাজার ৪৬৪ জনের মধ্যে ১ হাজার ৬১৫ জন শিক্ষার্থী শেষ পর্যন্ত সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, ব্যাবসায় শিক্ষা অনুষদ, কলা অনুষদ ও শর্ত সাপেক্ষে বিজ্ঞান অনুষদের অধীনে বিভাগগুলোতে লেখাপড়া করার সুযোগ পাবেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপার্চায অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টায় বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনিক ভবনের কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে সংবাদ সম্মেলন করে এই ফলাফল ঘোষণা করেন।

উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহম্মদ সামাদ, ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার সমন্বয়ক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক সাদেকা হালিম এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন ভর্তি কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক হাসিবুর রশি এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য ৯৫ হাজার ৩৪১ জন আবেদন করলেও শেষ পর্যন্ত গত ১২ অক্টোবর পরীক্ষা দেন ৭০ হাজার ৪৪০ জন। তাদের মধ্যে যারা ন্যূনতম ৪৮ পেয়েছেন, তাদেরই ভর্তির যোগ্য বিবেচনা করা হয়েছে।

উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নম্বর, বোর্ডের নাম, পাসের সাল এবং মাধ্যমিক পরীক্ষার রোল নম্বরের মাধ্যমে admission.eis.du.ac.bd ওয়েবসাইট থেকে ভর্তিচ্ছুরা তাদের ফল জানতে পারবেন।

এছাড়া যে কোনো মোবাইল ফোন থেকে DU<>GHA<>Roll টাইপ করে ১৬৩২১ নম্বরে এসএমএস পাঠিয়েও ফলাফল জানা যাবে।

উত্তীর্ণদের সবাই ২২ অক্টোবর থেকে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে গিয়ে ‘চয়েস ফরম’ পূরণ করতে পারবেন।

কোটায় আবেদনকারীরা ১৭ অক্টোবর থেকে ২৪ অক্টোবরের মধ্যে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অফিস থেকে ফর্ম সংগ্রহ করে সেখানেই জমা দিতে পারবেন।

ফলাফল নিরীক্ষণের জন্য নির্ধারিত ফি দিয়ে ১৭ অক্টোবর থেকে ২২ অক্টোবরের মধ্যে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অফিসে আবেদন করতে হবে।

এছাড়া অন্যান্য তথ্যের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি সংক্রান্ত ওয়েবসাইট দেখতে বলা হয়েছে।

গত শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ও ক্যাম্পাসের বাইরে ৮১টি কেন্দ্রে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া হয়। পরীক্ষা শুরুর ৩১ মিনিট পরই হাতে লেখা প্রশ্নপত্রের ১৪টি ছবি সাংবাদিকদের হাতে আসে।

পরে যাচাই করে দেখা যায়, এ প্রশ্নপত্র পরীক্ষা শুরু হওয়ার ৪৩ মিনিট আগে (সকাল ৯টা ১৭ মিনিটে) এক শিক্ষার্থীর মোবাইল ফোনে আসে।

‘প্রশ্নফাঁসের’ অভিযোগ ওঠার পর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলে।

তদন্ত কমিটির সদস্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক মাকসুদুর রহমান মঙ্গলবার সকালে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমরা গতকাল সন্ধ্যায় উপাচার্যের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছি। তার ভিত্তিতেই আজ ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করা হচ্ছে। "

‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসে জড়িত সন্দেহে এ পর্যন্ত ছয়জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ও পাবলিক পরীক্ষা আইনে একটি মামলাও করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

]]>
1544568 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/09/28/du-admission-test-28082018-0006.jpg/ALTERNATES/w300/du-admission-test-28082018-0006.jpg ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়।
11 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550792 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 18:05:19.0 2018-10-16 18:05:19.0 ফরহাদ খাঁ দম্পতি হত্যা: ২ আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন ফরহাদ খাঁ দম্পতি হত্যা: ২ আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ ও তার স্ত্রীকে হত্যার মামলায় বিচারিক আদালতে প্রাণদণ্ড পাওয়া দুই আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে হাই কোর্ট। সাংবাদিক ফরহাদ খাঁ ও তার স্ত্রীকে হত্যার মামলায় বিচারিক আদালতে প্রাণদণ্ড পাওয়া দুই আসামির সাজা কমিয়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে হাই কোর্ট। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550792.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2014/03/09/hc.jpg2/ALTERNATES/w300/HC.jpg
আসামিরা হলেন- ফরহাদ খাঁর ভাগ্নে নাজিমুজ্জামান ইয়ন ও তার বন্ধু রাজু আহমেদ।

বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি এ এস এম আবদুল মবিনের হাই কোর্ট বেঞ্চ মঙ্গলবার এ রায় দেয়।

গত ১১ অক্টোবর মৃত্যুদণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে আসামিদের করা আপিল ও তাদের ডেথ রেফারেন্সের ওপর (মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য অবেদন) শুনানির পর মঙ্গলবার রায়ের জন্য রেখেছিল আদালত।  

এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মনিরুজ্জামান রুবেল ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আবুল কালাম আজাদ খান।

আসামি ইয়ন ও রাজুর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মনসুরুল হক চৌধুরী, আব্দুল মতিন খসরু, আহছান উল্লাহ ও সুব্রত সাহা।

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মনিরুজ্জামান রুবেল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “হত্যা সংগঠিত করার সময় আসামি ইয়ন ও তার বন্ধু রাজুর বয়স ছিল ২০-২১ বছর, অর্থাৎ তারা তখন কৈশোর উত্তীর্ণ যুবক।

“তাই অপরাধ প্রমাণ হওয়ার পরও আদালত তাদের বয়স ও সময় বিবেচনায় নিয়ে মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে যাবজ্জীবন দিয়েছেন। আমরা এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করব।”

তিনি আরো বলেন, “পুলিশ প্রধানের প্রতি একটি ইনকোয়্যারি দেওয়া হয়েছে রায়ে। সেটি হল- ফরহাদ খাঁর মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে শফিকুল ইসলাম সুজন (১৮) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছিল র‌্যাব-৩। থানায় নেওয়ার পর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

“এই যুবক সম্পর্কে চার্জশিটে কিছুই উল্লেখ নেই। কেন তাকে ধরা হল বা কেন তাকে ছেড়ে দেওয়া হল বা তার কোনো সংশ্লিষ্টতা ছিল কিনা সে বিষয়টি পুলিশ প্রধানকে ইনকোয়্যারি করতে বলা হয়েছে।”

২০১১ সালের ২৮ জানুয়ারি নয়াপল্টনের ভাড়া বাসায় খুন হন ফরহাদ খাঁ ও তার স্ত্রী রহিমা খানম। পুলিশ বাসার শয়নকক্ষ থেকে ওই দম্পতির গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে।

তখন ফরহাদ খাঁ ছিলেন দৈনিক জনতার জ্যেষ্ঠ সহ-সম্পাদক। হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ওই দিনই তার ছোটোভাই আব্দুস সামাদ খাঁ অজ্ঞাতদের আসামি করে পল্টন থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার পরপরই পল্টন থানার এসআই জিল্লুর রহমান তদন্ত শুরু করেন। ঘটনাটি চাঞ্চল্যকর হওয়ায় পরবর্তীতে তদন্তের ভার দেওয়া হয় গোয়েন্দা পুলিশকে।

ঘটনার পরপরই আসামি ইয়নকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তার স্বীকারোক্তির সূত্র ধরে রাজুকেও গ্রেপ্তার করা হয়। রাজু ঘটনার দায় স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিও দেন।

আসামিদের জবানবন্দি পেয়ে সাংবাদিক ফরহাদ খাঁর ব্যবহৃত মোবাইল ফোন, টাকা, স্বর্ণালঙ্কার, রক্তমাখা জামাকাপড় ও হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত দুটি চাকু উদ্ধার করে পুলিশ।

২০১২ সলের ২৮ ফেব্রুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত। অভিযোগপত্রে ৪৯ জনকে সাক্ষী করা হয়। তাদের মধ্যে থেকে ৩৩ জনের সাক্ষ্য নেয় আদালত।

২০১২ সালের ১০ অক্টোবর ঢাকার ৩ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল রায়ে ফরহাদ খাঁর ভাগনে নাজিমুজ্জামান ইয়ন ও তার বন্ধু রাজু আহমেদকে মৃত্যুদণ্ড দেয়।

এই মৃত্যুদণ্ড অনুমোদনের জন্য হাই কোর্টে ডেথ রেফারেন্স পাঠানো হয়। একইসঙ্গে দুই আসামি আপিল করেন।

গত ৭ অগাস্ট আপিল ও ডেথ রেফান্সের শুনানি শুরু হয়। শুনানিতে মামলার পেপারবুক থেকে এজাহার, অভিযোগপত্র, আসামি, সাক্ষীদের জবানবন্দি ও নিম্ন আদালতের রায় উপস্থাপন করেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।

]]>
754905 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2014/03/09/hc.jpg2/ALTERNATES/w300/HC.jpg
12 2 Home cricket_bn ক্রিকেট news-bn 212 1550882 ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ক্রীড়া প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 20:35:21.0 2018-10-16 20:35:21.0 বাংলাদেশে আসছে বিশ্বকাপের ট্রফি বাংলাদেশে আসছে বিশ্বকাপের ট্রফি বাংলাদেশের তিনটি শহরে নেওয়া হবে আইসিসি ওয়ানডে বিশ্বকাপের ট্রফি। ওয়ানডে ক্রিকেটের বিশ্বসেরা হওয়ার লড়াই বসবে আগামী মে মাসে ইংল্যান্ডে। তার আগেই কাছ থেকে বিশ্বকাপের ট্রফি দেখার সুযোগ পাচ্ছেন বাংলাদেশের দর্শক-সমর্থকেরা। বিশ্ব পরিভ্রমণের পালায় বিশ্বকাপের ট্রফি ঢাকায় আসছে বুধবার সকালে। false https://bangla.bdnews24.com/cricket/article1550882.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/icc-cricket-world-cup.jpg/ALTERNATES/w300/ICC-Cricket-World-Cup.jpg ছবি: আইসিসি
চার দিনে বাংলাদেশের তিনটি শহরে নেওয়া হবে প্রায় ১১ কেজি ওজনের সুদৃশ্য ট্রফিটি। বুধবার ঢাকায় ট্রফিকে ঘিরে কার্যক্রম মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে। ইউনিসেফের উদ্যোগে সুবিধাবঞ্চিত শিশুরা ট্রফির সঙ্গে ফটোসেশনের সুযোগ পাবে সকাল সাড়ে দশটায়। দুপুর সাড়ে ১২টায় সেই সুযোগ পাবেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

ঢাকার সাধারণ দর্শকেরা ট্রফি দেখার সুযোগ পাবেন বৃহস্পতিবার। যমুনা ফিউচার পার্কের সেন্টার কোর্টে ট্রফিটি রাখা হবে সকাল ১১টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত।

শুক্রবার ট্রফির গন্তব্য সিলেট। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সকাল সাড়ে ১০টায় সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সুযোগ মিলবে আগে। সকাল ১১টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে সাধারণ দর্শকের জন্য। বিকেল সাড়ে চারটায় ট্রফি যাবে সিলেট ক্যাডেট কলেজে।

শনিবার ট্রফি যাবে চট্টগামে। যথারীতি সকাল সাড়ে ১০টায় সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের সুযোগ। সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সুযোগ সাধারণ দর্শকের। দুটিরই ভেন্যু শহরের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম।

১০ দলের বিশ্বকাপ হলেও এই ট্রফি ঘুরবে ৫টি মহাদেশের ২১টি দেশের ৬০টি শহরে। বিশ্বকাপ ট্রফির ইতিহাসে সবচেয়ে লম্বা পরিভ্রমণ এবারই।   

গত ২৭ অগাস্ট দুবাইয়ে আইসিসির সদর দপ্তর থেকে শুরু হয়েছে ট্রফির ভ্রমণ। ক্রিকেটকে ছড়িয়ে দিতে প্রথাগত ক্রিকেট খেলুড়ে দেশের বাইরের অনেক দেশেও এবার যাচ্ছে বিশ্বকাপের ট্রফি।

বাংলাদেশে আসার আগে ট্রফিটি ঘুরে এসেছে ওমান, যুক্তরাষ্ট্র, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। বাংলাদেশ থেকে যাবে নেপালে। সেখান থেকে পর্যায়ক্রমে ট্রফির দেখা পাবে ভারত, নিউ জিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, কেনিয়া, রুয়ান্ডা, নাইজেরিয়া, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস ও জার্মানি। আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি ট্রফি পৌঁছবে বিশ্বকাপের স্বাগতিক ইংল্যান্ডে।

]]>
1550881 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/icc-cricket-world-cup.jpg/ALTERNATES/w300/ICC-Cricket-World-Cup.jpg ছবি: আইসিসি
13 2 Home politics_bn রাজনীতি news-bn 198 1550838 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 18:59:05.0 2018-10-16 18:59:05.0 সরকারের নির্দেশেই রায়ের তারিখ: ফখরুল সরকারের নির্দেশেই রায়ের তারিখ: ফখরুল বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের তারিখ ‘সরকারের নির্দেশেই’ ঠিক করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়ের তারিখ ‘সরকারের নির্দেশেই’ ঠিক করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। false https://bangla.bdnews24.com/politics/article1550838.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/mirza-fakhrul-islam-alamgir-16102018-0003.jpg/ALTERNATES/w300/mirza+fakhrul+islam+alamgir-16102018-0003.jpg
বিকালে উত্তরায় জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সভাপতি আ স ম আবদুর রবের বাসায় জাতীয় ঐক্য ফ্রন্টের বৈঠক শেষে বেরিয়ে সাংবাদিকদের কাছে এই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন তিনি।

ফখরুল বলেন, “রায়ের যে তারিখ ঘোষণা করা হয়েছে এটা একেবারেই সরকারের নির্দেশে করা হয়েছে। প্রথম থেকেই যে চেষ্টাটা করা হচ্ছে, বিনা বিচার, ন্যায় বিচার ছাড়াই দেশনেত্রীকে সাজা দেওয়ার সিদ্ধান্ত সরকার নিয়েছে। এখানে আদালতে সেটাই নিয়ে আসতে চায়।

“এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয় বাংলাদেশে বিচার ব্যবস্থা সম্পূর্ণ ভেঙে পড়েছে, সরকার যে নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে এটা তারই একটি প্রমাণ।”

ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ মো. আখতারুজ্জামান  মঙ্গলবার জিয়া দাতব্য  ট্রাস্টের নামে অবৈধভাবে সোয়া তিন কোটি টাকা লেনদেনের মামলার রায় ঘোষণার ২৯ অক্টোবর দিন রেখেছেন।

এ মামলার শেষ পর্যায়ের কার্যক্রম চলছে ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতরে বসানো জজ আদালতের অস্থায়ী এজলাসে।

জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড নিয়ে খালেদা জিয়া এ কারাগারেই বন্দি আছেন গত ফেব্রুয়ারি থেকে।

দাতব্য ট্রাস্টের মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে তার সাত বছর কারাদণ্ড হতে পারে।

মির্জা ফখরুল বলেন, “তার (খালেদা জিয়া) অনুপস্থিতিতে বিচারকার্য  পরিচালনা করা, এটাও সম্পূর্ণ বেআইনি কাজ এবং তার অনুপস্থিতিতে বিচারের রায় ঘোষণা করাও সম্পূর্ণ বেআইনি।”

তিনি আরো বলেন, “যুক্তিতর্ক, আত্মপক্ষ সমর্থনসহ অন্যান্য বিষয়গুলো বাকি ছিল। কোনোটাই তারা নেয়নি। আমরা মনে করি এটা ন্যায় বিচারের পরিপন্থি। আমরা এটার প্রতিবাদ জানাচ্ছি।”

]]>
1550836 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/mirza-fakhrul-islam-alamgir-16102018-0003.jpg/ALTERNATES/w300/mirza+fakhrul+islam+alamgir-16102018-0003.jpg
14 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1550776 রাজশাহী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম রাজশাহী প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 17:14:34.0 2018-10-16 17:38:40.0 এমপির বাড়িতে হামলার দায়ে বিএনপি নেতার ১০ বছর জেল এমপির বাড়িতে হামলার দায়ে বিএনপি নেতার ১০ বছর জেল চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানীর বাড়িতে হামলার দায়ে বিএনপির পাঁচ নেতাকর্মীকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানীর বাড়িতে হামলার দায়ে বিএনপির পাঁচ নেতাকর্মীকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1550776.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2017/09/25/justice-tm.jpg2/ALTERNATES/w300/justice-tm.jpg
ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার মঙ্গলবার এ রায় ঘোষণা করেন।

এছাড়া আদালত তাদের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। জরিমানা না দিলে তাদের আরও এক বছর কারাগারে থাকতে হবে।

সাজাপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট ইউনিয়নের রবিউল ইসলাম ওরফে টুটুল, সেতাউর রহমান, শরীফুল ইসলাম, মৃণাল হোসেন ও ইয়াসির আরাফত।

তাদের মধ্যে টুটুল ইউনিয়ন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক। অন্যরা বিএনপি ও ছাত্রদলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী।

রায় ঘোষণার সময় সব আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এ মামলার আরও ১৪ আসামিকে বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এনতাজুল হক বাবু মামলার নথির বরাতে বলেন, ২০১৩ সালের ২ ডিসেম্বর দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিনে সংসদ সদস্য গোলাম রাব্বানীর বাড়িতে হামলা হয়।

“কানসাটের পুকুরিয়া এলাকায় রাব্বানীর বাড়ি ও তার বড় ভাই আবু বাক্কার সিদ্দিকীর বাড়িতে আগুন দেওয়ার পাশাপাশি ভাঙচুর ও বোমা বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।”

এ ঘটনায় শিবগঞ্জ থানার এসআই ইসরাইল সন্ত্রাস ও বিস্ফোরক আইনে মামলা করেন। পুলিশ তদন্ত করে ১৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয় আদালতে।

পরে মামলাটি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়।

]]>
15 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1550794 শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 18:09:09.0 2018-10-16 18:09:09.0 শাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ শাবি শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এক শিক্ষককে সহকারী প্রক্টরের পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এক শিক্ষককে সহকারী প্রক্টরের পদ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1550794.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/sust-ploabon-chandro-saha.jpg/ALTERNATES/w300/Sust-ploabon-chandro-saha.jpg
এছাড়া তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে এবং তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সিন্ডিকেট সদস্য কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড পলিমার সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক মস্তাবুর রহমান জানান, এক ছাত্রীর অভিযোগ পেয়ে সোমবার ২১০তম সিন্ডিকেট সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক প্লাবনচন্দ্র সাহার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠেছে।

প্লাবন সাহা ২০১৬ সাল থেকে সহকারী প্রক্টরের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

মস্তাবুর রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সহাকরী প্রক্টর পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পাশাপাশি অভিযোগ তদন্তের জন্য ‘যৌন নিপীড়ন নিরোধ কেন্দ্র’র সদস্যদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি তাকে শোকজ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

“তদন্ত শেষে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এ বিষয়ে প্লাবন সাহার মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি সাড়া দেননি।

এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদের কাছে জানতে চাইলে তিনি রেজিস্ট্রার মো. ইশফাকুল হোসেনের সঙ্গে যোগোযোগ করতে বলেন।

রেজিস্ট্রার মো. ইশফাকুল হোসেনের মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি সাড়া দেননি।

তদন্তের দায়িত্বে থাকা যৌন নিরোধ কেন্দ্রের সভাপতি অধ্যাপক নাজিয়া চৌধুরীর মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করে তা বন্ধ পাওয়া গেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর জহীর উদ্দিন আহমদ বলেন, “এক শিক্ষার্থীর অভিযোগ পেয়ে সিন্ডিকেট এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তদন্তের পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।”

]]>
1550793 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/sust-ploabon-chandro-saha.jpg/ALTERNATES/w300/Sust-ploabon-chandro-saha.jpg
16 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550775 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 17:11:43.0 2018-10-16 17:11:43.0 সম্পাদক পরিষদের দাবিতে সুপ্রিম কোর্ট বারের সমর্থন সম্পাদক পরিষদের দাবিতে সুপ্রিম কোর্ট বারের সমর্থন সম্পাদক পরিষদের সাত দফা দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে সংসদের শেষ অধিবেশনে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের আলোচিত নয়টি ধারার সংশোধন ও বাতিল চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি।  সম্পাদক পরিষদের সাত দফা দাবির প্রতি সমর্থন জানিয়ে সংসদের শেষ অধিবেশনে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের আলোচিত নয়টি ধারার সংশোধন ও বাতিল চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি।  false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550775.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/15/digital-ruls.jpg/ALTERNATES/w300/digital-ruls.jpg
সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবির কথা জানান সমিতির সভাপতি জয়নুল আবেদীন, যিনি বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যানও।

তার দল বিএনপিও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের বিরোধিতা করে আসছে।

আইনটিকে নিবর্তনমূলক আখ্যা দিয়ে লিখিত বক্তব্যে জয়নুল আবেদীন বলেন, “জাতীয় সংসদে সদ্য পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনটি সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার প্রতি বাস্তব হুমকি বলে আমরা মনে করি।

“অতি সম্প্রতি বিভিন্ন মহলের ব্যাপক আপত্তি ও মতামত উপেক্ষা করে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন নিয়ে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। এই আইন নিয়ে জনমনে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।”

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩২, ৪৩ ও ৫৩ ধারা স্বাধীন সাংবাদিকতা ও মুক্ত গণমাধ্যমের পরিপন্থি দাবি করে আপত্তি জানিয়ে সম্পাদক পরিষদসহ সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন। তাদের আপত্তির সুরাহা না করেই গত ১৯ সেপ্টেম্বর সংসদে ওই আইন পাস করা হয়।

প্রতিবাদে ২৯ সেপ্টেম্বর মানববন্ধনের কর্মসূচি দেয় সম্পাদক পরিষদ। তবে পরে সরকারের অনুরোধে কর্মসূচি স্থগিত করে তারা সচিবালয়ে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে বৈঠক করেন।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কয়েকটি ধারা বাতিলের দাবিতে সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সম্পাদক পরিষদের মানববন্ধন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কয়েকটি ধারা বাতিলের দাবিতে সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সম্পাদক পরিষদের মানববন্ধন

সেখানে আইনের নয়টি ধারা নিয়ে সম্পাদক পরিষদের আপত্তির বিষয়ে আলোচনা হয়। সভায় সিদ্ধান্ত হয়, তাদের আপত্তির বিষয়গুলো মন্ত্রিসভায় আলোচনার জন্য তোলা হবে।

এরপর গত ৮ অক্টোবর রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংসদে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা বিলে সই করলে তা আইনে পরিণত হয়।

কিন্তু বিষয়টি মন্ত্রিসভায় না ওঠায় সোমবার ঢাকায় মানববন্ধন করে সম্পাদক পরিষদ।

তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার চেয়েও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নয়টি ধারাকে বেশি উদ্বেগজনক বলেন জয়নুল আবেদীন।

“এ আইনে শুধুমাত্র সাংবাদিক সমাজেই নয়, আইনজীবীসহ অন্যান্য শ্রেণি-পেশার মানুষেরাও এই আইনের ব্যাপারে ক্ষোভ ও উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

“তাই আমরা দেশ ও গণতন্ত্র, সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এবং মানুষের সাংবিধানিক অধিকার রক্ষার লক্ষ্যে এই আইনের নিবর্তনমূলক ধারা অনতিবিলম্বে বাতিলের জোর দাবি করছি।”

সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সম্পাদক মাহবুব উদ্দিন খোকন, সহ-সভাপতি মো. গোলাম মোস্তফা ও মো. গোলাম রহমান ভূঁইয়া, সহ-সম্পাদক কাজী মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীনসহ সমিতির বিএনপিপন্থী সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের নয়টি ধারা সংশোধন চেয়ে সরকারকে আইনি নোটিস দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এস এম জুলফিকার আলী জুনু।

আইনটির ৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩১, ৪৩ ও ৫৩ ধারা সংশোধনের উদ্যোগ না নিলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে নোটিসে বলা হয়েছে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে আইনজীবী জুলফিকার বলেন, “মঙ্গলবার রেজিস্ট্রি ডাকযোগে তথ্যমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী, মন্ত্রী পরিষদ সচিব, তথ্য সচিব, আইন সচিব বরাবর নোটিসটি পঠানো হয়েছে।

“তারা ৩০ দিনের মধ্যে এই নয়টি ধারা সংশোধনের উদ্যোগ না নিলে সংবিধানের ১০২ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী জনস্বার্থে রিট মামলা করা হবে।”

]]>
17 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1550710 কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 14:37:34.0 2018-10-16 17:45:43.0 কিশোরগঞ্জে জোড়া খুনে চারজনের ফাঁসির রায় কিশোরগঞ্জে জোড়া খুনে চারজনের ফাঁসির রায় কিশোরগঞ্জে ছয় বছর আগের এক জোড়া খুনের মামলায় চারজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং ২১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। কিশোরগঞ্জে ছয় বছর আগের এক জোড়া খুনের মামলায় চারজনকে মৃত্যুদণ্ড এবং ২১ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1550710.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/kishoreganj-judgement.jpg/ALTERNATES/w300/Kishoreganj-Judgement.jpg
জেলার তৃতীয় অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আবু তাহের মঙ্গলবার এ রায় দেন।

দণ্ডিত ২৫ আসামির সবাই রায়ের সময় কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পরপরই তাদের কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

সর্বোচ্চ সাজার আদেশ পাওয়া চার আসামি হলেন- আলামিন, মিজানুর রহমান, নাজমুল ও স্বপন মিয়া।

বিচারক ২৫ আসামির সবাইকে পাঁচ লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও দুই বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন রায়ে।

২০১২ সালের ২৪ আগস্ট করিমগঞ্জ উপজেলার দেহুন্দা গ্রামের কোবাদ মিয়া ও জাকারুলকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় এ মামলা করা হয়।

জজ আদালতের পিপি শাহ আজিজুল হক মামলার নথির বরাতে বলেন, কোবাদ মিয়ার ভাতিজার মোবাইল ফোন চুরি হলে চোর খুঁজতে গিয়ে দ্বন্দ্ব বাধে। এর জেরে কোবাদ ও জাকারুলকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত ও মারধর করে গুরুতর আহত করা হয়। হাসপাতালে নেওয়ার পর তারা মারা যান।

এ ঘটনায় কোবাদ মিয়ার স্ত্রী সুজাতা আক্তার থানায় ২৭ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ তদন্ত শেষে ২৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেয়।

পিপি আজিজুল বলেন, “সাক্ষ্য-প্রমাণে ২৫ আসামির সবাইকে দোষী সাব্যস্থ করে আদালত এই রায় দিয়েছে।”

]]>
1550728 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/kishoreganj-judgement.jpg/ALTERNATES/w300/Kishoreganj-Judgement.jpg
18 2 Home world_bn বিশ্ব news-bn 200 1550834 নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিউজ ডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 18:53:24.0 2018-10-16 22:14:52.0 সালমান-পম্পেও বৈঠক, সৌদি আরবের ওপর চাপ বাড়ছে পম্পেওর সফর, সৌদি আরবের ওপর চাপ বাড়ছে সাংবাদিক জামাল খাসোগির অন্তর্ধান নিয়ে সৌদি আরবের বাদশাহ সালমানের সঙ্গে রিয়াদে বৈঠক করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। সাংবাদিক জামাল খাসোগির অন্তর্ধান রহস্যের জবাব পেতে সৌদি আরব সফর করছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। সেখানে তিনি বাদশাহ সালমানসহ অন্যান্য শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে এ বিষয়টি নিয়ে বৈঠক করেছেন। false https://bangla.bdnews24.com/world/article1550834.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/riyadh-meeting.jpg/ALTERNATES/w300/Riyadh-meeting.jpg
মঙ্গলবার বাদশাহের সঙ্গে ১৫ মিনিট সাক্ষাতের পর তার ছেলে সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহম্মদ বিন সালমানের সঙ্গেও প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ মিনিটের মত বৈঠক করেছেন পম্পেও। ভোজের পর আরো একবার তার সঙ্গে আলোচনায় বসার কথা রয়েছে পম্পেওর।

খাসোগির বিষয়টি জানানোর জন্য প্রচণ্ড আন্তর্জাতিক চাপে আছে সৌদি আরব। এর মধ্যে দেশটিতে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এ সফরে খাসোগির ভাগ্যে কি ঘটেছে তার ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য দেশটির ওপর চাপ আরো বাড়ছে।

দু’সপ্তাহ আগে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে শেষবারের মতো দেখা গিয়েছিল সৌদি সাংবাদিক খাসোগিকে।

তুরস্কের ধারণা,  সৌদি আরবের রাজতন্ত্রের সমালোচক এ সাংবাদিককে সৌদি চররাই খুন করেছে। তবে সৌদি আরব এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

খাসোগি নিখোঁজের রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চলছে। ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে এরই মধ্যে তল্লাশি হয়েছে। আরো ব্যাপক পরিসরে তল্লাশির উদ্যোগ নিচ্ছে তুরস্ক। এর আওতায় তারা সৌদি কনসালের ইস্তাম্বুলের বাসভবনেও তল্লাশি চালাবে।

 সৌদি আরব সোমবার ঘটনাটি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে। খাসোগিকে কনসুলেট ভবনের ভেতরে হত্যা করার কথা স্বীকার করার বিষয়টি সৌদি আরব বিবেচনা করছে এমন খবরও পাওয়া যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যমগুলোতে।

এ পরিস্থিতিতেই সৌদি আরবে বৈঠক চালিয়ে যাচ্ছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী পম্পেও।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর জানিয়েছে,পম্পেও খাসোগির ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ এবং সচ্ছ্ব তদন্তের প্রতিশ্রুতি দেওয়ার জন্য বাদশাহ সালমানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

ওদিকে, খাসোগির পরিবার তার অন্তর্ধানের ঘটনা তদন্তের জন্য একটি স্বাধীন আন্তর্জাতিক কমিশন গঠনের আর্জি জানিয়েছে।

পম্পেওর সঙ্গে বৈঠকে সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানও খাসোগির ঘটনার ষুষ্ঠু তদন্তের প্রয়োজনীয়তার ব্যাপারে একমত পোষণ করেছেন।

খাসোগির বিষয়টি নিয়ে এর আগে সৌদি বাদশাহর সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের এক ফোনআলাপের পর পম্পেওকে সৌদি আরবে পাঠানো হয়েছে।এ সফরের পর তুরস্কে যাবেন তিনি।

ট্রাম্প এর আগে এক টুইটে বলেছিলেন, “বাদশাহ সালমানের সঙ্গে তার কথা হয়েছে এবং বাদশাহ খাসোগির ব্যাপারে কিছু জানা থাকার কথা জোরালভাবে অস্বীকার করেছেন। তার কথা শুনে মনে হয়েছে এ ঘটনায় দুর্বৃত্ত খুনিরা জড়িত থাকতে পারে।”

তবে এর কোনো প্রমাণ দিতে পারেন নি তিনি। বিষয়টি সম্পর্কে বাদশাহর কাছ থেকে স্পষ্ট করে কিছু জানাটাও ছিল পম্পেওর সৌদি আরব সফরের উদ্দেশ্য।

]]>
1550742 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/riyadh-meeting.jpg/ALTERNATES/w300/Riyadh-meeting.jpg
19 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1550726 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 15:07:00.0 2018-10-16 15:07:00.0 দেবীর শক্তি রূপের আরাধনায় অসুর বধের প্রত্যয় দেবীর শক্তি রূপের আরাধনায় অসুর বধের প্রত্যয় আত্মশক্তির উত্থান, প্রাণশক্তির জাগরণ, ষড়রিপুর গ্রাস থেকে মুক্তির আশায় সপ্তমী তিথিতে দেবী দুর্গার বন্দনা চলছে মণ্ডপে মণ্ডপে। আত্মশক্তির উত্থান, প্রাণশক্তির জাগরণ, ষড়রিপুর গ্রাস থেকে মুক্তির আশায় সপ্তমী তিথিতে দেবী দুর্গার বন্দনা চলছে মণ্ডপে মণ্ডপে। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1550726.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/durga-puja-saptami-khamarbari-16102018-0013.jpg/ALTERNATES/w300/durga-puja-saptami-Khamarbari-16102018-0013.jpg মহাসপ্তমীতে দেবী দুর্গার আরাধনায় এক শিশু। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি
শাস্ত্র অনুযায়ী মঙ্গলবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে দুর্গা দেবীর নবপত্রিকা প্রবেশ ও স্থাপনের মধ্য দিয়ে সপ্তামাদি কল্পারম্ভ শুরু হয়।

ঢাকেশ্বরী মন্দিরের প্রধান পুরোহিত রঞ্জিত চক্রবর্তী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এই আচারের মধ্যে দিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা কৃষি, খনিজ, বনজ, জলজ, প্রাণিজ ও ভূমি সম্পদ রক্ষার জন্য দেবীর কাছে প্রার্থনা করেন।

“সমাজের সর্বস্তরের মানুষের অংশগ্রহণে বিশ্ব সংহতি সমুন্নত রাখার আহ্বান জানিয়েছি দেবীকে। চলমান প্রেক্ষাপটে জাতিগত বিরোধ নিষ্পত্তির প্রার্থনা করেছি।”

ওয়ারীর দক্ষিণ মৈশুণ্ডী মণ্ডপে নৈবদ্য দিতে আসা অনন্যা রায় বললেন, ‘মাতৃশক্তির’ প্রতীক দেবী দুর্গার কাছে নারীর নিরাপত্তা আর অগ্রযাত্রা চেয়ে প্রার্থনা করেছেন তিনি।

মেরুল বাড্ডার নিমতলি মন্দিরে দেবী বন্দনা করতে আসা সুবিমল দেব বলেন, “মায়ের চরণে আজ প্রার্থনা করেছি, এ দেশে যেন অসাম্প্রদায়িক পরিবেশে আমরা বাস করতে পারি।”

ঢাকেশ্বরী মন্দিরে দেবী প্রতিমার চরণে পুষ্পাঞ্জলী দিয়ে সপ্তর্ষী রায় বলেন, “অসুর নিধনের প্রার্থনা করেছি। সে অসুর হোক পথেঘাটে কিংবা মনে। নিরাপদে থাকুক সকলে। মনের অন্ধকার দূর করে আলো জ্বলুক সবার হৃদয়ে।”  

ঢাকেশ্বরী মন্দিরের পুরোহিত নারায়ণ চক্রবর্তী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সপ্তমী লগ্নে নবপত্রিকা প্রবেশ একটি ‘প্রতীকী’ পূজা।

‘নবপত্রিকা’ শব্দটির আক্ষরিক অর্থ নয়টি গাছের পাতা। এ পূজায় কদলী বা রম্ভা (কলা), কচু, হরিদ্রা (হলুদ), জয়ন্তী, বিল্ব (বেল), দাড়িম্ব (দাড়িম), অশোক, মান ও ধান এই নয়টি উদ্ভিদকে পাতাসহ একটি কলাগাছের সঙ্গে একত্র করা হয়।

পরে একজোড়া বেলসহ শ্বেত অপরাজিতা লতা দিয়ে বেঁধে লালপাড় সাদা শাড়ি জড়িয়ে ঘোমটা দেওয়া বধূর আকার দেওয়া হয়। তার কপালে সিঁদুর দিয়ে সপরিবার দেবীপ্রতিমার ডান দিকে দাঁড় করিয়ে পূজা করা হয়। প্রচলিত ভাষায় নবপত্রিকার নাম ‘কলাবউ’।

হিন্দু বিশ্বাসে নবপত্রিকার নয়টি উদ্ভিদকে দেবী দুর্গার নয়টি বিশেষ রূপের প্রতীক বিবেচনা করা হয়। এই নয় দেবী একত্রে ‘নবপত্রিকাবাসিনী নবদুর্গা’ নামে ‘নবপত্রিকাবাসিন্যৈ নবদুর্গায়ৈ নমোঃ’ মন্ত্রে পূজিতা হন।

নবপত্রিকা প্রবেশের পর দর্পণে দেবীকে মহাস্নান করানো হয়। দুর্গাপ্রতিমার সামনে একটি দর্পণ বা আয়না রেখে সেই দর্পণে প্রতিফলিত প্রতিমার প্রতিবিম্বে বিভিন্ন উপচারে দেবীকে স্নান করানো হয়।

দুর্গোৎসবের মহাসপ্তমীতে রাজধানীর ফার্মগেইট খামারবাড়ি মণ্ডপে পূজার উপাচার নিচ্ছেন পুণ্যার্থীরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

দুর্গোৎসবের মহাসপ্তমীতে রাজধানীর ফার্মগেইট খামারবাড়ি মণ্ডপে পূজার উপাচার নিচ্ছেন পুণ্যার্থীরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি

সোমবার সন্ধ্যায় মহাষষ্ঠী তিথিতে বেলতলায় দেবী দুর্গার বোধন ও পরে সন্ধ্যায় মূল প্রতিমায় দেবী ও তার সন্তানদের প্রাণপ্রতিষ্ঠা ও চক্ষুদানের মাধ্যমে শুরু হয় দুর্গোৎসবের মূল আচার।

১৭ অক্টোবর অষ্টমী পূজার দিন হবে সন্ধিপূজা। রামকৃষ্ণ মিশন ও মঠে হবে কুমারী পূজা। ১৯ অক্টোবর সকালে বিহিত পূজার মাধ্যমে হবে নবমী পূজা। ২০ অক্টোবর সকালে দর্পন বিসর্জনের পর প্রতিমা বিসর্জনের মাধ্যমে শেষ হবে দুর্গোৎসবের আনুষ্ঠানিকতা।

সেদিন বিকাল ৩টায় রাজধানীর ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে বের হবে ঢাকায় প্রতিমা বিসর্জনের মূল শোভাযাত্রা। নগরীর ওয়াইজঘাট, তুরাগ, ডেমরা, পোস্তগোলা ঘাটে হবে প্রতিমা বিসর্জন।

ঢাকা মহানগরীতে ২০ অক্টোবর রাত ১০টার মধ্যে নিরঞ্জন (প্রতিমা বিসর্জন) সমাপ্ত করার নির্দেশনা দিয়েছে পূজা উদযাপন পরিষদ।

দুর্গোৎসব উপলক্ষে কক্সবাজারে কুতুপালংয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে হিন্দু রোহিঙ্গা নাগরিকদের জন্য পূজার আয়োজন করেছে সরকার।

এছাড়া উৎসব উপলক্ষে মন্দিরে মন্দিরে আরতি ও সংগীত প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বিশেষ প্রসাদ বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের তথ্য অনুযায়ী, এ বছর সারা দেশে ৩১ হাজার ২৭২টি মণ্ডপে দুর্গোৎসব চলছে, যা গতবারের তুলনায় ১১৯৫টি বেশি। এর মধ্যে রাজধানীতে রয়েছে ২৩৪টি মণ্ডপ।

]]>
1550709 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/durga-puja-saptami-khamarbari-16102018-0013.jpg/ALTERNATES/w300/durga-puja-saptami-Khamarbari-16102018-0013.jpg মহাসপ্তমীতে দেবী দুর্গার আরাধনায় এক শিশু। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি 1550725 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/durga-puja-saptami-khamarbari-16102018-0017.jpg/ALTERNATES/w300/durga-puja-saptami-Khamarbari-16102018-0017.jpg 1550699 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/10/16/durga-puja-saptami-khamarbari-16102018-0007.jpg/ALTERNATES/w300/durga-puja-saptami-Khamarbari-16102018-0007.jpg দুর্গোৎসবের মহাসপ্তমীতে রাজধানীর ফার্মগেইট খামারবাড়ি মণ্ডপে পূজার উপাচার নিচ্ছেন পুণ্যার্থীরা। ছবি: আসিফ মাহমুদ অভি
20 2 Home politics_bn রাজনীতি news-bn 198 1550717 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-10-16 14:53:18.0 2018-10-16 15:01:03.0 ক্ষমতা নয়, হাসিনাকে হটাতে চান ড. কামাল: কাদের ক্ষমতা নয়, হাসিনাকে হটাতে চান ড. কামাল: কাদের ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নয়, বরং শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে হটানোর জন্য ড. কামাল হোসেন বিএনপিকে নিয়ে ঐক্য করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নয়, বরং শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে হটানোর জন্য ড. কামাল হোসেন বিএনপিকে নিয়ে ঐক্য করেছেন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। false https://bangla.bdnews24.com/politics/article1550717.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2016/09/19/31_obaidul-quader_19092016_0001.jpg/ALTERNATES/w300/31_Obaidul+Quader_19092016_0001.jpg ওবায়দুল কাদের (ফাইল ছবি)
মঙ্গলবার সকালে বনানীতে নির্মিত বিআরটিএর নতুন ভবন পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে একথা বলেন।

তিনি বলেন, “কামাল হোসেনের আসলে শেখ হাসিনাকে হটানোর জন্য তারেক জিয়ার নেতৃত্ব মেনে নিতেও কোনো আপত্তি আছে বলে মনে করি না। কারণ এই ধরনের ঐক্যটা আসলে কে চালাবে? মূল দল হচ্ছে বিএনপি। আর বিএনপি চালায় কে?

“তারেক রহমানের অঙ্গুলি হেলনেই চলবে এটা। লন্ডন থেকে দলেরও নেতৃত্ব দিচ্ছে এবং এই জোটেরও নেতৃত্ব কলকাঠি নাড়বেন তারেক রহমান। সেখান ড. কামাল হোসেন সাহেব এটা নিজে ভাল করেই জানেন।“

দুই দশক আগে আওয়ামী লীগের শাসনামলে জামায়াত, বিজেপি ও ইসলামী ঐক্যজোটকে নিয়ে চারদলীয় ঐক্যজোট গঠন করেছিল বিএনপি।

২০১২ সালে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে আওয়ামী লীগ সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনের লক্ষ্যে চারদলীয় জোটের পরিসর বাড়িয়ে ১৮ দলীয় জোট গঠন করেছিল বিএনপি। পরে আরও দুটি দল তাতে যোগ দেয়।

একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে ২০ দলীয় জোট রেখেই কামাল হোসেন, আ স ম আবদুর রব ও মাহমুদুর রহমান মান্নার সঙ্গে নতুন জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দিল বিএনপি।

জামায়াতের সঙ্গ না ছাড়ায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেয়নি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর দল বিকল্প ধারা। অন্যদিকে জামায়াতের সঙ্গে আরেক জোটে থাকা বিএনপিকে নিজের জোটে নিলেও জামায়াত নিয়ে আপত্তির কথা বলেছিলেন গণফোরাম সভাপতি কামাল।

ওবায়দুল কাদের বলেন, “কামাল হোসেনের টার্গেট সম্ভবত ক্ষমতায় যাওয়া নয়, তার টার্গেট হল শেখ হাসিনাকে ছলে- বলে যেভাবেই হোক ক্ষমতায় মঞ্চ থেকে হঠানো।

“সেজন্য তারেক রহমানের মতো যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির নেতৃত্ব মেনে নিতে তার আপত্তি আছে বলে মনে করি না।”

এই জোট থেকে ইতোমধ্যে বদরুদ্দোজা চৌধুরীকে বের করে দেওয়া হয়েছে মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সম্পাদক বলেন, এ ধরণের ঐক্য তেলে আর জলে মেশানোর অপচেষ্টা মাত্র, এই অপচেষ্টা ব্যর্থ হবে।

“ড. কামাল হোসেন গণফোরাম করেও সাড়া পায়নি এখানে বিএনপির সাথে ঐক্য করেও সাড়া পাবেন না।”

নির্বাচন কমিশনের বৈঠক থেকে একজন নির্বাচন কমিশনার বৈঠক বর্জন করার বিষয়টি দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ওবায়দুর কাদের বলেন, “ওনাকেও মহামান্য রাষ্ট্রপতি সার্চ কমিটির মাধ্যমে নিয়োগ দিয়েছেন। বিএনপির কথামতই করা হয়েছে। আর নোট অব ডিসেন্ট যে কেউ দিতে পারে। নিরাপত্তা পরিষদে পাঁচজন সদস্য আছে এর মধ্যে একজন বিরোধীতা করতেই পারে।

“মেজরিটি যা বলবে তাইতো বৈঠকের সিদ্ধান্ত হবে, এটাই স্বাভাবিক। আর কেউ বিরোধিতা করবে এটাই তো গণতন্ত্র। এটা কোনো প্রতিবন্ধকতা নয়। আর এটার জন্য নির্বাচন কমিশনের পুনর্গঠনের কোন যৌক্তিক কথা নয়।”

]]>
1215352 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2016/09/19/31_obaidul-quader_19092016_0001.jpg/ALTERNATES/w300/31_Obaidul+Quader_19092016_0001.jpg ওবায়দুল কাদের (ফাইল ছবি)