bdnews24.com - Home https://bangla.bdnews24.com/ The RSS feed of bdnews24.com en Bangladesh News 24 Hours Ltd. 2017-09-13 09:34:43.0 2017-09-13 09:34:43.0 Home customGroupedContent 1 2 Home ctg চট্টগ্রাম news-bn 10023 1485358 চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম চট্টগ্রাম ব্যুরো, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 20:33:12.0 2018-04-19 21:00:05.0 পেটানোর ভিডিও ভাইরাল, ছাত্রলীগ নেতা রনির পদত্যাগ পেটানোর ভিডিও ভাইরাল, চট্টগ্রামের ছাত্রলীগ নেতা রনির পদত্যাগ এক কোচিং সেন্টারের পরিচালককে ‘চাঁদার জন্য’ মারধরের ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর সংগঠন থেকে পদত্যাগ করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি। এক কোচিং সেন্টারের পরিচালককে ‘চাঁদার জন্য’ মারধরের ভিডিও ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর সংগঠন থেকে পদত্যাগ করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নুরুল আজিম রনি। false https://bangla.bdnews24.com/ctg/article1485358.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ctg_allegation_bcl_secretary_01.jpg/ALTERNATES/w300/ctg_allegation_bcl_secretary_01.jpg ভিডিও থেকে নেওয়া ছবি
গত ১৭ ফেব্রুয়ারি জিইসি মোড়ের ইউনিএইড নামের ওই কোচিং সেন্টারের পরিচালক রাশেদ মিয়াকে তার কার্যালয়ে মারধরের একটি ভিডিও ঘুরছে ফেইসবুকে।

রাশেদ মিয়া বলছেন, ওই ঘটনার পর গত ১৩ এপ্রিল রনি ও তার সহযোগীরা ফের তাকে মারধর করেন। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার পাঁচলাইশ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন তিনি।

অভিযোগ পাওয়ার কথা জানিয়ে থানার ওসি মহিউদ্দিন মাহমুদ বলেন, “বিষয়টি আমরা তদন্ত করছি। ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেলে সেটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হবে।”

অভিযোগে রনির সঙ্গে নোমান চৌধুরী রাকিব (২৪) নামে আরেক যুবকের নামও উল্লেখ করা হয়েছে।

অভিযোগে রাশেদ মিয়া বলেছেন, রনি এবং তার সহযোগীরা জিইসি মোড়ে তার কার্যালয়টি ব্যবহার করতেন। তাদের নিষেধ করায় রনি ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি ওই কার্যালয়ে গিয়ে তাকে মারধর করে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন।

ফেইসবুকে আসা ভিডিওতে দেখা যায়, সিগারেট হাতে রনি ক্ষুব্ধ ভঙ্গিতে কথা বলার এক পর্যায়ে রাশেদ মিয়ার ওপর চড়াও হন; একের পর এক চড় মারতে থাকেন, মাঝে মাঝে রাশেদের চুল ধরে মারতে দেখা গেছে। মারধরের ঘটনাটি ওই কার্যালয়ের সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়ে। 

১৭ ফেব্রুয়ারির ঘটনাকে একটি ‘অপ্রীতিকর ঘটনা’ বললেও চাঁদা দাবির কথা অস্বীকার করেছেন রনি।

তার দাবি, ওই কোচিং সেন্টারে তার অংশীদারিত্ব রয়েছে এবং এ নিয়ে দ্বন্দ্বের জেরে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে।

রাশেদ মিয়া অভিযোগে বলেছেন, দাবি করা চাঁদার টাকার জন্য গত ১৩ এপ্রিল রনি, নোমানসহ আরও কয়েকজন গত ১৩ এপ্রিল তাকে তুলে নিয়ে গিয়ে আবারো মারধর করেন।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ওইদিন সুগন্ধার বাসা থেকে বের হয়ে মোহাম্মদপুর মাজার এলাকায় গেলে রনি, নোমানসহ আরও কয়েকজন মিলে তাকে মুরাদপুর বুড়িপুকুর পাড় অ্যালুমিনিয়াম গলিতে তাদের কার্যালয়ে নিয়ে গিয়ে টাকা দাবি করে।

টাকা দিতে না পারায় তাকে হকিস্টিক দিয়ে পেটানো হয় এবং নোমান ও এক সহযোগীসহ রাশেদকে সুগন্ধার বাসায় পাঠিয়ে নগদ ৩৫ হাজার টাকা, তার ও স্ত্রীর পাসপোর্ট নিয়ে আসা হয়।

পরে তাকে আবার মোটরসাইকেলে করে নিয়ে চট্টগ্রাম কলেজের পশ্চিম গেইটে রেখে আসে বলে অভিয়োগ করেন রাশেদ।

এদিকে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের প্যাডে পাঠানো এক বিবৃতিতে ছাত্রলীগনেতা রনি পুরো ঘটনার ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, রাশেদের সঙ্গে মিলে তিনি ইউনিএইড নামের বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং সেন্টারটি পরিচালনা করতেন।

রনির দাবি, চকবাজার থানার সাবেক ওসি আজিজ আহমেদের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন নিয়ে রাশেদের বিরোধ হলে দু’টি চেকের মাধ্যমে তিনি রাশেদকে সাড়ে নয় লাখ টাকা ধার দিয়েছিলেন।

টাকার জন্য রাশেদের সঙ্গে তার বিরোধ না হলেও গত ১৬ ফেব্রুয়ারি তিনি ইউনিএইড কার্যালয়ে গিয়ে সেখানে এক শিক্ষককে কোচিং ক্লাস করাতে দেখেন। বিষয়টি তিনি রাশেদকে জানান।

পরিদন ১৭ ফেব্রুয়ারি রাশেদ ইউনিএইড কার্যালয়ে গিয়ে আমাকে ‘সেঙ্গুইন প্লাস’ নামে একটি কোচিং সেন্টারের এক শিক্ষককে ভাড়া দেওয়ার কথা জানায়। এ নিয়ে দুইজনের মধ্যে ‘অপ্রীতিকর’ কিছু ঘটনা ঘটলেও নিজেরা আবার মীমাংসা করে ফেলেন বলেও রনি বিবৃতিতে দাবি করেন।

১৩ এপ্রিল রাশেদকে ধরে নিয়ে মারধর করার বিষয়ে রনির ভাষ্য, তার কাছ থেকে নেওয়া ধারের টাকা গত ১০ এপ্রিল রাশেদের ফেরত দেওয়ার কথা ছিল। ১৩ এপ্রিল রাশেদ তার কাছে ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে বাকি টাকা পরদিন দেওয়ার আশ্বাস দেন।

রনির অভিযোগ, কয়েকদিন ধরে রাশেদ নিজের মোবাইল ফোন বন্ধ রেখে বৃহস্পতিবার চকবাজার এলাকার যুবলীগ নেতা পরিচয় দেওয়া নুরুল মোস্তফা টিনুকে নিয়ে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের সঙ্গে দেখা করেন। পরে সেখান থেকে পাঁচলাইশ থানায় গিয়ে একটি অভিযোগ দাখিল করেন।

নিজেদের প্রতিষ্ঠানের বিরোধের বিষয় নিয়ে কিছু রাজনীতিবিদ বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন বলে রনির অভিযোগ।

ঘটনার বিষয়ে জানতে রাতে রনির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিস্তারিত কিছু বলতে রাজি হননি।

বিবৃতিতে যা বলেছেন, সেটাই তার বক্তব্য বলে জানান তিনি।

রনির বিবৃতি

এদিকে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের প্যাডে পাঠানো এক বিবৃতিতে ছাত্রলীগনেতা রনি পুরো ঘটনার ব্যাখ্যা দিয়ে বলেছেন, রাশেদের সঙ্গে মিলে তিনি ইউনিএইড নামের বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং সেন্টারটি পরিচালনা করতেন।

রনির দাবি, চকবাজার থানার সাবেক ওসি আজিজ আহমেদের সঙ্গে আর্থিক লেনদেন নিয়ে রাশেদের বিরোধ হলে দু’টি চেকের মাধ্যমে তিনি রাশেদকে সাড়ে নয় লাখ টাকা ধার দিয়েছিলেন।

টাকার জন্য রাশেদের সঙ্গে তার বিরোধ না হলেও গত ১৬ ফেব্রুয়ারি তিনি ইউনিএইড কার্যালয়ে গিয়ে সেখানে এক শিক্ষককে কোচিং ক্লাস করাতে দেখেন। বিষয়টি তিনি রাশেদকে জানান।

পরিদন ১৭ ফেব্রুয়ারি রাশেদ ইউনিএইড কার্যালয়ে গিয়ে আমাকে ‘সেঙ্গুইন প্লাস’ নামে একটি কোচিং সেন্টারের এক শিক্ষককে ভাড়া দেওয়ার কথা জানায়। এ নিয়ে দুইজনের মধ্যে ‘অপ্রীতিকর’ কিছু ঘটনা ঘটলেও নিজেরা আবার মীমাংসা করে ফেলেন বলেও রনি বিবৃতিতে দাবি করেন।

১৩ এপ্রিল রাশেদকে ধরে নিয়ে মারধর করার বিষয়ে রনির ভাষ্য, তার কাছ থেকে নেওয়া ধারের টাকা গত ১০ এপ্রিল রাশেদের ফেরত দেওয়ার কথা ছিল। ১৩ এপ্রিল রাশেদ তার কাছে ৩৫ হাজার টাকা দিয়ে বাকি টাকা পরদিন দেওয়ার আশ্বাস দেন।

রনির অভিযোগ, কয়েকদিন ধরে রাশেদ নিজের মোবাইল ফোন বন্ধ রেখে বৃহস্পতিবার চকবাজার এলাকার যুবলীগ নেতা পরিচয় দেওয়া নুরুল মোস্তফা টিনুকে নিয়ে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের সঙ্গে দেখা করেন। পরে সেখান থেকে পাঁচলাইশ থানায় গিয়ে একটি অভিযোগ দাখিল করেন।

নিজেদের প্রতিষ্ঠানের বিরোধের বিষয় নিয়ে কিছু রাজনীতিবিদ বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন বলে রনির অভিযোগ।

ঘটনার বিষয়ে জানতে রাতে রনির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিস্তারিত কিছু বলতে রাজি হননি।

বিবৃতিতে যা বলেছেন, সেটাই তার বক্তব্য বলে জানান তিনি।

সন্ধ্যায় পদত্যাগ

ঘটনা নিয়ে আলোচনার মধ্যে সন্ধ্যায় সংগঠন থেকে পদত্যাগ করার বিষয়টি নিজের ফেইসবুক পেইজে জানান নুরুল আজিম রনি।

মহানগর ছাত্রলীগের প্যাডে লেখা অব্যাহতিপত্রটি রনি ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবর লিখেছেন।

অব্যাহতিপত্রে রনি উল্লেখ বলেছেন, “পিতা মুজিবুরের হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ চট্টগ্রাম মহানগরের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে সজ্ঞানে অব্যাহতি নিলাম। একান্ত ব্যক্তিগত কারণে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি।

“এমতাবস্থায় সংগঠনের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তগীর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করবেন এবং এ প্রেক্ষিতে যাবতীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের প্রতি আবেদন করছি।”

চিঠির শেষে রনি বলেন, “প্রাণের ছাত্রলীগ ভালো থেকো, স্বকীয়তা নিয়ে লড়াই করার সৎ সাহস রেখো। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।”

অব্যাহতির বিষয়ে জানতে রনির মোবাইল ফোনে একাধিকবার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বিভিন্ন সময়ে আলোচিত ছাত্রলীগনেতা নুরুল আজিম রনি চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র প্রয়াত এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

গত কয়েক বছরে এইচএসসি ও এসএসসিতে অতিরিক্ত ফি আদায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে আসছিলেন রনি।

তার নেতৃত্বে গড়ে ওঠা আন্দোলনের কারণে নগরীর বিভিন্ন বেসরকারি স্কুল-কলেজ কর্তৃপক্ষ এএসসি ও এইচএসসিতে নেওয়া অতিরিক্ত ফি ফেরত দিতে বাধ্য হয়। এছাড়া বিভিন্ন স্কুলে ভর্তির ক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত ফির চেয়ে অতিরিক্ত অর্থ আদায়ের বিরুদ্ধেও তার নেতৃত্বে চট্টগ্রামে আন্দোলন করে ছাত্রলীগ।

সম্প্রতি এইচএসসিতে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ ওঠা চট্টগ্রাম বিজ্ঞান কলেজের অধ্যক্ষকে মারধরের অভিযোগে মামলা হয় রনির বিরুদ্ধে।

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরী, নাসিম আহমেদ সোহেল এবং সুদীপ্ত হত্যার পর সেসব ঘটনার বিচার দাবিতে সোচ্চার ছিল রনি ও তার অনুসারীরা।

২০১৬ সালে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে হাটহাজারীতে ভোট কেন্দ্রের বাইরে অস্ত্রসহ গ্রেপ্তারের পর ভ্রাম্যমাণ আদালত রনিকে দুই বছরের সাজা দেয়। পরে জামিনে মুক্তি পান তিনি।

সবশেষ গত বছর এম এ আজিজ আউটার স্টেডিয়ামে সুইমিং পুল নির্মাণ প্রকল্পে নেতা মহিউদ্দিনকে অনুসরণ করে সিটি মেয়র নাছিরের বিরোধীতা করেন রনি।

]]>
1485353 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ctg_allegation_bcl_secretary_01.jpg/ALTERNATES/w300/ctg_allegation_bcl_secretary_01.jpg ভিডিও থেকে নেওয়া ছবি 1485354 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ctg_allegation_bcl_secretary_02.jpg/ALTERNATES/w300/ctg_allegation_bcl_secretary_02.jpg ভিডিও থেকে নেওয়া ছবি 1485382 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/roni-resignation.jpg/ALTERNATES/w300/roni-resignation.jpg 1485381 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/rony-statement.jpg/ALTERNATES/w300/rony-statement.jpg 1485352 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ctg_allegation_bcl_secretary_03.jpg/ALTERNATES/w300/ctg_allegation_bcl_secretary_03.jpg ভিডিও থেকে নেওয়া ছবি
2 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1485420 রাঙামাটি প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম রাঙামাটি প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 22:27:17.0 2018-04-19 22:27:17.0 পাওয়া গেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীকে পাওয়া গেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীকে ‘অপহরণের’ প্রায় এক মাস পর সন্ধান মিলেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীর। ‘অপহরণের’ প্রায় এক মাস পর সন্ধান মিলেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীর। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1485420.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2018/03/23/rangamati-two-women-leader.jpg/ALTERNATES/w300/Rangamati-two-women-leader.jpg
এরা হলেন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট ইউপিডিএফের সহযোগী সংগঠটির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মন্টি চাকমা ও জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক দয়াসোনা চাকমা।

বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ৮টায় খাগড়াছড়ি শহরের এপিবিএন স্কুল গেইট থেকে অপহরণকারীরা তাদের মুক্তি দেয় বলে ইউপিডিএফ নেতা মাইকেল চাকমা জানিয়েছেন।

গত ১৮ মার্চ সকালে রাঙামাটি সদর উপজেলার কুতুকছড়ি এলাকায় ইউপিডিএফের একটি মেসে সশস্ত্র হামলা চালিয়ে তাদের অপহরণ করা হয়েছে বলে সংগঠনটির জেলা সংগঠক সচল চাকমা এক বিবৃতিতে জানিয়েছিলেন।

এ ঘটনায় পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএন লারমা) সহ-সভাপতি নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শকিক্তমান চাকমাও ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিকের সভাপতি তপন জ্যোতি চাকমাসহ ১৯ জনকে আসামি রাঙামাটি কোতোয়ালি থানায় মামলা করেন দয়াসোনা চাকমার বাবা বৃষধন চাকমা।

এ ঘটনায় ইউপিডিএফ ভেঙে গঠিত হওয়া ‘ইউপিডিএফ-গণতান্ত্রিককে’ দায়ী করে ইউপিডিএফ। তবে ইউপিডিএফ (গনতান্ত্রিক) বরাবরই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছিল।

মুক্তি পাওয়ার বিষয়টি মন্টি চাকমার বড় ভাই সুভাষ চাকমাও নিশ্চিত করেছেন।

মাইকেল চাকমা বলেন, রাত পৌনে ৮টায় খাগড়াছড়ি শহরের এপিবিএন স্কুল গেট থেকে তাদের মুক্তি দেওয়া হয়েছে। তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করার হয়েছে।

ছাড়া পাওয়ার পর তারা অভিভাবকদের সঙ্গে বাড়ির পথে রওনা দিয়েছেন বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে ইউপিডিএফের প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগের দায়িত্বরত নিরন চাকমা বলেন, “তাদেরকে পরিবার ও জনপ্রতিনিধিদের কাছে মুক্তি দেয়া হয়েছে। এই বিষয়ে এখন আর কিছু বলতে চাই না।”

সুভাষ চাকমা বলেন, “তারা বাড়ি না পৌঁছা পর্যন্ত এই বিষয়ে কথা বলতে চাচ্ছি না। বিস্তারিত সকালে জানাব।”

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের দুই নেত্রীর মুক্তির খবর জানেন না জানিয়ে রাঙামাটির পুলিশ সুপার আলমগীর কবীর বলেন, “আমরা আপনাদের মাধ্যমেই খবর পেলাম। এ বিষয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছি।”

]]>
1474541 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/bangla-media/2018/03/23/rangamati-two-women-leader.jpg/ALTERNATES/w300/Rangamati-two-women-leader.jpg
3 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485406 রিয়াজুল বাশার, লন্ডন থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম রিয়াজুল বাশার, লন্ডন থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 22:07:17.0 2018-04-20 00:30:00.0 কমনওয়েলথে সংস্কারের প্রস্তাব শেখ হাসিনার কমনওয়েলথে সংস্কারের প্রস্তাব শেখ হাসিনার সদস্য দেশগুলোর পরিবর্তনশীল চাহিদা ও প্রত্যাশা পূরণে কমনওয়েলথের বিভিন্ন সংস্থার ভূমিকা ও কার্যক্রম পুনর্নির্ধারণ ও পুনর্গঠনের প্রস্তাব তুলেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সদস্য দেশগুলোর পরিবর্তনশীল চাহিদা ও প্রত্যাশা পূরণে কমনওয়েলথের বিভিন্ন সংস্থার ভূমিকা ও কার্যক্রম পুনর্নির্ধারণ ও পুনর্গঠনের প্রস্তাব তুলেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485406.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/pm-1st-session-01.jpg/ALTERNATES/w300/pm-1st-session-01.jpg
একইসঙ্গে কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের সম্মেলনে নির্ধারিত লক্ষ্যসমূহ অর্জনে সংস্থাটির সচিবালয়ের আমূল সংস্কারের উপরও জোর দিয়েছেন তিনি।

তিনি বিশেষজ্ঞ ব্যক্তিদের নিয়ে একটি গ্রুপ গঠনের পরামর্শ দেন; যে গ্রুপটি কমনওয়েলথ সচিবালয়ের ব্যাপক সংস্কারের বিষয়টি দেখভাল করবে।

বৃহস্পতিবার লন্ডনে কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর সরকার প্রধানদের শীর্ষ সম্মেলন উদ্বোধনের পর একটি অধিবেশনে বক্তৃতায় কমনওয়েলথ সংস্কারের প্রস্তাব জানান শেখ হাসিনা।

বাকিংহাম প্যালেসে কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের শীর্ষ সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর ল্যানক্যাস্টার হাউজে অনুষ্ঠিত এ অধিবেশনের বিষয় ছিল- ’টুয়ার্ডস এ কমন ফিউচার, ইনক্লুডিং:- এ ফেইরার ফিউচার’।

শেখ হাসিনা বলেন, কমনওয়েলথ সচিবালয়ের উচিত সংস্থাটির ঘোষিত কানেকটিভি, সাইবার নিরাপত্তা, সুশাসনের বিষয়ে একটি অ্যাকশন প্ল্যান তৈরি করা।

নাজুক দেশের পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার ক্ষেত্রে কমনওয়েলথ মিনিস্ট্রিয়াল অ্যাকশন গ্রুপের ভুমিকা স্পর্শকাতর বলে মনে করেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

এ ধরনের পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার ক্ষেত্রে ভালোভাবে বুঝে এবং কমনওয়েলথের ঐক্যের চেতনাকে সামনে রেখে পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন বলে মত দেন তিনি।

অধিবেশনে বক্তব্য রাখছেন শেখ হাসিনা

অধিবেশনে বক্তব্য রাখছেন শেখ হাসিনা

শেখ হাসিনা বলেন, গণতন্ত্র, সুশাসন, আইনের শাসনের পক্ষে থাকতে হবে; কারণ এগুলোই হলো টেকসই শান্তি ও স্থিতিশীলতার মূল ভিত্তি।

সদস্যদেশগুলোর বাণিজ্য, অর্থনীতি ও টেকসই উন্নয়নের দিকে কমনওয়েলথ মনোযোগ দেবে বলে আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী।

কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে অন্তর্ভুক্তিমূলক ও বহুমুখী বাণিজ্য ব্যবস্থা তৈরির উপর গুরুত্বারোপ করেন প্রধানমন্ত্রী।

নিয়মভিত্তিক, স্বচ্ছ, অন্তর্ভুক্তিমূলক ও ন্যায্য বাণিজ্য ব্যবস্থার উন্নয়নের পক্ষে বাংলাদেশ কথা বলে আসছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

শেখ হাসিনা সার্বিক স্থিতিশীলতা, শান্তি ও গ্রগতির জন্য যোগাযোগ বাড়ানোর উপরও গুরুত্বারোপ করেন। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের সঙ্গে তার প্রতিবেশী দেশগুলোর যোগাযোগ বাড়ানোর উদ্যোগের কথাও তুলে ধরেন তিনি।

কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের শীর্ষ সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীসহ ৫৩টি সদস্য দেশের ৪৬ জন সরকার ও রাষ্ট্র প্রধানরা অংশ নেন।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় বাকিংহাম প্যালেসে সম্মেলনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ।

দুই বছর পর পর কমনওয়েলথের সরকার প্রধানদের সভা অনুষ্ঠিত হয়। এবারে ২৫তম সম্মেলনের প্রতিপাদ্য ‘টুয়ার্ডস এ কমন ফিউচার’।

দুই দিনের এ সম্মেলনে সদস্য দেশের নেতারা সমুদ্র সংরক্ষণ, সাইবার নিরাপত্তা ও বাণিজ্য নিয়ে আলোচনা করবেন। 

শেখ হাসিনাকে অভ্যর্থনায় যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে

শেখ হাসিনাকে অভ্যর্থনায় যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে

সকাল থেকেই বাকিংহাম প্যালেসে বিভিন্ন দেশের সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধানরা আসতে শুরু করেন। বলরুমে রানি প্রবেশ করেন রাজ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে। সম্মেলন ঘিরে বাকিংহাম প্যালেসের বাইরের দিকটা সেজেছে রাজকীয় সাজে।

সম্মেলনের শুরুতেই স্বাগত বক্তব্য দেন প্রিন্স চার্লস। এরপর সম্মেলনের যৌথ আয়োজক দেশ যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে বক্তব্য দেন।

কমনওয়েলথের বিদায়ী চেয়ারম্যান মাল্টার প্রধানমন্ত্রী জোসেফ মাসকাটের বক্তব্যের পর সম্মেলনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য দেন কমনওয়েলথের মহাসচিব প্যাট্রিসিয়া স্টকল্যান্ড।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাখা হয় সংগীত, নৃত্যসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক আয়োজন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ও কমনওয়েলথ মহাসচিব সরকার প্রধানদের আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাগত জানান।

সম্মেলনের ফাঁকে বিকালে শেখ হাসিনার সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দ্বি-পক্ষীয় বৈঠক হয়।

সন্ধ্যায় সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্যের ওপর আরেকটি অধিবেশনে অংশ নেওয়ার পর রানির দেওয়া নৈশভোজে অংশ নেন শেখ হাসিনা।

]]>
1485405 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/pm-1st-session-01.jpg/ALTERNATES/w300/pm-1st-session-01.jpg 1485404 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/pm-1st-session-02.jpg/ALTERNATES/w300/pm-1st-session-02.jpg
4 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485453 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-20 00:24:06.0 2018-04-20 01:50:00.0 সুফিয়া কামালের শিক্ষার্থীদের হয়রানির অভিযোগ সুফিয়া কামালের শিক্ষার্থীদের হয়রানির অভিযোগ কোটা সংস্কারের আন্দোলনের মধ্যে ছাত্রলীগ নেত্রী ইফফাত জাহান এশাকে হেনস্তার ঘটনা তদন্তে কবি সুফিয়া কামাল হল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। কোটা সংস্কারের আন্দোলনের মধ্যে ছাত্রলীগ নেত্রী ইফফাত জাহান এশাকে হেনস্তার ঘটনা তদন্তে কবি সুফিয়া কামাল হল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের হয়রানির অভিযোগ উঠেছে। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485453.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/20/sufia-kamal-hall.jpg/ALTERNATES/w300/Sufia+Kamal+Hall.jpg মধ্যরাতে হলে এসে এক শিক্ষার্থীকে নিয়ে যাচ্ছেন তার অভিভাবক
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে হল কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন শিক্ষার্থীকে ডেকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ, ফোন কেড়ে নেওয়ার পাশাপাশি কয়েকজনকে হল থেকে বের করে দিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কয়েকজন শিক্ষার্থীকে তাদের স্থানীয় অভিভাবকের কাছে তুলে দেওয়ার কথা বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের জিজ্ঞাসায় স্বীকার করেছেন ছাত্রী হলটির আবাসিক শিক্ষক আফরোজা বুলবুল।

কেন দেওয়া হয়েছে- জানতে চাইলে সে বিষয়ে কিছু বলতে রাজি হননি তিনি।

বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক সবিতা রেজওয়ানা রহমানকে অনেকবার ফোন করা হলেও তিনি তা ধরেননি।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান হয়রানির অভিযোগটিকে ‘গুজব’ বলে উড়িয়ে দেন।

জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “তদন্ত কমিটি হয়েছে, তদন্তের প্রয়োজনে জিজ্ঞাসাবাদ তো করতেই পারে।”

গত ১০ এপ্রিলের ঘটনার জের ধরে এই তদন্ত চলছে। সেদিন কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীরা হল ছাত্রলীগের সভাপতি এশার বিরুদ্ধে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন।

১০ এপ্রিল রাতে সুফিয়া কামাল হল প্রাঙ্গণে বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা (ফেইসবুকে আসা ছবি)

১০ এপ্রিল রাতে সুফিয়া কামাল হল প্রাঙ্গণে বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা (ফেইসবুকে আসা ছবি)

আন্দোলনকারীদের হাত থেকে এশাকে উদ্ধারের পাশাপাশি তাকে তখন সাময়িক বহিষ্কারের কথা জানিয়েছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী।

পরে তদন্তের ভিত্তিতে এশার কোনো দোষ না পাওয়ার কথা জানিয়ে তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

পাশাপাশি বুধবার অনুষ্ঠিত ডিসিপ্লিনারি বোর্ডের বৈঠকে এশাকে হেনস্তার জন্য ২৬ শিক্ষার্থীকে চিহ্নিত করে কারণ দর্শানোর নোটিস দেয়।

এরপরই হল কর্তৃপক্ষ হলের শিক্ষার্থীদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে।

শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেছেন, তাদের ধমক দিয়ে স্বীকারোক্তি নেওয়ার চেষ্টা চলছে।

এর মধ্যেই বিভিন্ন শিক্ষার্থীর স্থানীয় অভিভাবকদের ডাকা হয় হল প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

সন্ধ্যার পর থেকে বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে ব্যাগ নিয়ে হল থেকে বের হতে দেখার কথা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন একজন দারোয়ান।

আবদুল আউয়াল নামে এক অভিভাবক রাত ১০টার দিকে সাংবাদিকদের বলেন, “আমি আমার বোনকে ফোন দিয়েছিলাম। সে না ধরে তার এক শিক্ষক ধরেন। তিনি আমাকে আসতে বলেন।”

রাত ১২টার দিকে গণিত তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী শারমিনকে নিয়ে তার স্থানীয় অভিভাবক হল থেকে বেরিয়ে আসেন।

সাংবাদিকদের সঙ্গে তারা কোনো কথা বলতে চাননি। শারমিনের অভিভাবক বলেন, তাদের কোনো কথা বলতে মানা করা হয়েছে।  

রাত ১২টা ২০ মিনিটের দিকে আরেক ছাত্রীকে নিয়ে তার অভিভাবক বেরিয়ে আসেন। সাংবাদিকরা এগিয়ে গেলে তারা কোনো কথা না বলে দ্রুত মোটর সাইকেলে চলে যান। 

মো. ফারুক নামে একজন অভিভাবককে রাত সাড়ে ১২টার দিকে হলের সামনে দেখা যায়। ঢাকার ধামরাই উপজেলা থেকে মেয়েকে নিতে আসেন তিনি। তার সঙ্গে ছিল ভাই কামরুল আহসান।

ফারুক সাংবাদিকদের বলেন, “রাত ৮টার দিকে আমাকে ফোন করে মেয়েকে নিয়ে যেতে বলা হয়। সেজন্য ঝড়-বৃষ্টির মধ্যে আমাকে আসতে হয়েছে।”

তবে রাত সোয়া ১টার দিকে ফারুক বের হলেও তার মেয়ে হলেই ছিলেন। ফারুক সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলতে চাননি। অনেক বলার পর কামরুল বলেন, তার ভাতিজি আন্দোলনে যেন আর না যায়, সেকথা তাদেরকে বলা হয়েছে। তিনিও তার ভাতিজিকে বুঝিয়েছেন।

রাত ১০টার পর থেকে হলের ভেতরে শিক্ষার্থীদের জটলা দেখা গেলেও ২টার পর তাদের কক্ষে কক্ষে যান।

এদিকে হয়রানির প্রতিবাদ এবং সুফিয়া কামাল হলের প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগ দাবিতে রাত দেড়টার দিকে হলটির ফটকে অবস্থান নিয়েছেন ইয়াসিন আরাফাত নামে এক ছাত্র।

]]>
1485456 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/20/sufia-kamal-hall.jpg/ALTERNATES/w300/Sufia+Kamal+Hall.jpg মধ্যরাতে হলে এসে এক শিক্ষার্থীকে নিয়ে যাচ্ছেন তার অভিভাবক 1481910 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/11/sufia-kamal-hall-protest.jpg/ALTERNATES/w300/Sufia+Kamal+Hall+Protest.jpg ১০ এপ্রিল রাতে সুফিয়া কামাল হল প্রাঙ্গণে বিক্ষোভে শিক্ষার্থীরা (ফেইসবুকে আসা ছবি)
5 2 Home business_bn বাণিজ্য news-bn 213 1485181 empty empty 2018-04-19 15:51:53.0 2018-04-19 16:13:48.0 বিজ্ঞাপন-বার্তা: তিন দেশের ৯০ টিভি ভোডাফোনের অ্যাপে তিন দেশের ৯০ টিভি ভোডাফোনের অ্যাপে কাতারে ‘পকেট টিভি’ নামে একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ চালু করেছে ভোডাফোন, যার মাধ্যমে মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই স্বল্প খরচে বাংলাদেশি, ভারতীয় ও নেপালি টিভি দেখা যাবে যতক্ষণ খুশি। কাতারে ‘পকেট টিভি’ নামে একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ চালু করেছে ভোডাফোন, যার মাধ্যমে মোবাইল ফোনের মাধ্যমেই স্বল্প খরচে বাংলাদেশি, ভারতীয় ও নেপালি টিভি দেখা যাবে যতক্ষণ খুশি।  false https://bangla.bdnews24.com/business/article1485181.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/bd-news-screenshot.jpg/ALTERNATES/w300/BD-News-screenshot.jpg
এই অ্যাপের মাধ্যমে এটিএন বাংলা, বাংলা ভিশন, এসএ টিভি, বিফোরইউ মুভিজ, সাহারা ওয়ান ও জিং টেলিভিশনসহ ৯০টির বেশি টেলিভিশনের লাইভ স্ট্রিমিং দেখার সুযোগ থাকছে।

সেই সঙ্গে শোনা যাচ্ছে বাংলা, হিন্দি, তেলেগু, মালায়ালাম ও নেপালি ভাষার শতাধিক এফএম রেডিও।  

ভোডাফোনের একজন মুখপাত্র জানান, এই অ্যাপের মাধ্যমে আনলিমিটেড লাইভ টেলিভিশন, সিনেমা, মিউজিক, খেলা, সংবাদ এবং অডিও স্ট্রিমিং উপভোগ করতে ইন্টারনেটের বাড়তি কোনো খরচ লাগবে না। কেবল সাবস্ক্রিপশন ফি দিলেই চলবে।

ভোডাফোন গ্রাহকরা এই অ্যাপের মাধ্যমে তিনটি মেয়াদী প্যাকেজ থেকে নিজের পছন্দের প্যাকেজটি বেছে নিতে পারবেন। 

২৪ ঘণ্টার প্যাকেজের জন্য ৩ কাতারি রিয়াল, সাত দিনের প্যাকেজে ১৫ কাতারি রিয়াল এবং ৩০ দিনের প্যাকেজের জন্য ৪৫ কাতারি রিয়াল খরচ হবে।

ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা, হিন্দি ও নেপালি ভাষায় এই অ্যাপ ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছেন ভোডাফোনের মুখপাত্র।

পকেট টিভি চালু করতে যা করতে হবে-

১. প্রয়োজন হবে ভোডাফোনের একটি সিমকার্ড

২. প্লে স্টোর থেকে ভোডাফোন পকেট টিভি অ্যাপটি (https://play.google.com/store/apps/details?id=com.osolutions.otv&rdid=com.osolutions.otv&pli=1) ডাউনলোড করতে হবে মোবাইলে। 

৩. গ্রাহকের পছন্দের ভাষাটি সিলেক্ট করতে হবে।

৪. গ্রাহকের পিন নম্বরটি প্রবেশ করাতে হবে অ্যাপে।

৫. তিনটি প্যাকেজের মধ্যে বেছে নিতে হবে একটি।

৬. নিবন্ধন হয়ে গেছে! এখন বাংলাদেশি, ভারতীয় আর নেপালের টেলিভিশন উপভোগ করা যাবে ইচ্ছে মত।

 

ডিসক্লেইমার

এটি একটি বিজ্ঞাপনী বার্তা; সংবাদ প্রতিবেদন নয়। এর কোনো কনটেন্টের দায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের নয়।

]]>
1485180 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/bd-news-screenshot.jpg/ALTERNATES/w300/BD-News-screenshot.jpg
6 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485373 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 20:41:34.0 2018-04-19 21:11:15.0 ছাত্রলীগের তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন বহিষ্কৃত মুনের ছাত্রলীগের তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন বহিষ্কৃত মুনের ইফফাত  জাহান এশাকে হেনস্তার সঙ্গে কোনোভাবেই জড়িত ছিলেন না বলে দাবি করেছেন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক খালেদা হোসেন মুন। ইফফাত  জাহান এশাকে হেনস্তার সঙ্গে কোনোভাবেই জড়িত ছিলেন না বলে দাবি করেছেন ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক খালেদা হোসেন মুন। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485373.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/moon-press-ed.jpg/ALTERNATES/w300/moon-press-ed.jpg
তাকে বহিষ্কারে সংগঠনের তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলে ছাত্রলীগের ওই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিও জানিয়েছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানান মুন।

তিনি বলেন, “সম্প্রতি কবি সুফিয়া কামাল হলের একটি অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনায় আমাকে অগঠনতান্ত্রিকভাবে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।”

কোটা সংস্কারের আন্দোলনকারীদের উপর নির্যাতনের অভিযোগ তুলে গত ১০ এপ্রিল সুফিয়া কামাল হলে ছাত্রীরা বিক্ষোভ শুরু করলে ওই হল ছাত্রলীগের সভাপতি এশাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করা হয়।

পরে ছাত্রলীগ তদন্ত করে এশার বিরুদ্ধে সত্যতা না পাওয়ার কথা জানিয়ে  তার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে। সেদিন এশাকে হেনস্তার অভিযোগে এরপর মুনসহ ২৪ জনকে বহিষ্কার করে ছাত্রলীগ।

এশার আগে ওই হল ছাত্রলীগের সভাপতি থাকা মুন বলেন, “যে তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে আমাকে বহিষ্কার করা হয়েছে, সেই তদন্ত কমিটি তদন্তকালীন সময়ে আমার সঙ্গে কোনো যোগাযোগ বা আমার বক্তব্য নেয়নি। ফলে আমার দোষ কী, তা নিয়ে আমি অন্ধকারে রয়েছি।”

তিনি বলেন, “ওই ঘটনায় হল সভাপতি ইফফাত জাহান এশাকে যেভাবে লাঞ্ছিত করা হয়েছে তাতে আমিও ব্যথিত হয়েছি। এই ঘটনায় প্রকৃত দোষী যারা, তাদের শাস্তি দাবি করছি।

“কিন্তু যে ঘটনার সাথে আমার কোনো সম্পৃক্ততাই নেই, সেখানে অসম্পূর্ণ তদন্তে আমাকে দোষী সাব্যস্ত করে অগঠনতান্ত্রিকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। আমার যে সম্মানহানি করা হয়েছে, তা পুনরায় তদন্ত সাপেক্ষে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের জোর দাবি জানাচ্ছি।”

মুন বলেছেন, সেদিন তিনি হলেই ছিলেন না। বহিষ্কৃত আরও একজন রয়েছেন বিদেশে।

“আমি ছাড়াও যাদের বহিষ্কার করা হয়েছে তালিকায় তাদের পূর্ণ নাম নেই, এমনকি কয়েকজনের বিভাগের নামেও ভুল। এ থেকে বোঝা যায়, ঠিকভাবে তদন্ত না করে অনুমানের ভিত্তিতেই বহিষ্কার করা হয়েছে।

“বহিষ্কৃতদের মধ্যে মনিরা নামের একজন ঘটনার আগে থেকে এখন পর্যন্ত ভারতে রয়েছে। আর আয়েশা সিদ্দিকা আশা নামের একজন ঘটনার আগে থেকে হাত ভেঙে যায়। তারা কীভাবে এই ঘটনায় সম্পৃক্ত হন?”

]]>
1485372 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/moon-press-ed.jpg/ALTERNATES/w300/moon-press-ed.jpg
7 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485459 রিয়াজুল বাশার, লন্ডন থেকে, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম রিয়াজুল বাশার, লন্ডন থেকে, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-20 00:52:40.0 2018-04-20 01:13:45.0 লন্ডনে মোদী-হাসিনা বৈঠক লন্ডনে মোদী-হাসিনা বৈঠক কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের সম্মেলনের ফাঁকে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের সম্মেলনের ফাঁকে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485459.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/20/modi-hasina-2.jpg/ALTERNATES/w300/Modi-Hasina-2.jpg
বৃহস্পতিবার লন্ডনের ন্যানক্যাস্টার হাউজে দুই নেতার বৈঠক হয় বলে পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক জানিয়েছেন।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে বিভিন্ন ইস্যু ও দ্বিপক্ষীয় বিষয় নিয়ে আলাপ হয়েছে।”

রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে দুই প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে আলোচনা হয়েছে কি না জানতে চাওয়া হলে সরাসরি এর জবাব দেননি পররাষ্ট্র সচিব।

ভারতের অবস্থান ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, “রোহিঙ্গা ইস্যুতে ভারত তাদের অবস্থান অনেক পরিবর্তন করেছে। তারা আমাদের অনেক কাছের। তাদের (রোহিঙ্গাদের) পুর্নবাসনে সহায়তা করছে।”

আগামী মে মাসের শেষে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিশ্বভারতী বিশ্ববিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বাংলাদেশ ভবন’ উদ্বোধন হবে। ওই সময় বিশ্ববিদ্যালয়টির সমাবর্তনে নরেন্দ্র মোদীর যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে। বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধন করতে শেখ হাসিনাকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী গেলে ওই সময় দুই নেতার মধ্যে আবারও সাক্ষাৎ হবে বলে আলোচনায় উঠে আসার বিষয়টি বৈঠকে উপস্থিত একজন জানিয়েছেন।

২০০৯ সালের পর কোনও ভারতীয় সরকার প্রধান হিসেবে নরেন্দ্র মোদী কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের সভায় এসেছেন।

আলোচনায় রোহিঙ্গা

সকালে বাকিংহাম প্যালেসে কমনওয়েলথ সরকার প্রধানদের বৈঠকের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর বিভিন্ন সেশনে অংশ নেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী।

পররাষ্ট্র সচিব বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে অনেকক্ষণ কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। জাতিসংঘে যে পাঁচ দফা প্রস্তাব দিয়েছিলেন সেটারও পুনরুল্লেখ করেছেন তিনি।

এ বিষয়ে কমনওয়েলথের সমর্থন প্রত্যাশার পাশাপাশি রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমারের ওপর রাজনৈতিক চাপ সৃষ্টির আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোসহ অনেক নেতাই রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে সম্মেলনে কথা বলেছেন বলে জানান শহীদুল হক।

]]>
1485457 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/20/modi-hasina-2.jpg/ALTERNATES/w300/Modi-Hasina-2.jpg 1485458 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/20/modi-hasina-5.jpg/ALTERNATES/w300/Modi-Hasina-5.jpg
8 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485454 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-20 00:35:39.0 2018-04-20 01:14:03.0 টাইমের প্রভাবশালীদের তালিকায় শেখ হাসিনা টাইমের প্রভাবশালীদের তালিকায় শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক টাইম ম্যাগাজিনের করা বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তিত্বের মধ্যে আছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক টাইম ম্যাগাজিনের করা বিশ্বের প্রভাবশালী ১০০ ব্যক্তিত্বের মধ্যে আছেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485454.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/12/41_sheikh-hasina_rohingya_kutupalong-refugee-camp_120917_0009.jpg/ALTERNATES/w300/41_Sheikh+Hasina_Rohingya_Kutupalong+refugee+camp_120917_0009.jpg কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, গত বছর ১২ সেপ্টেম্বরের ছবি
বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এ তালিকায় নেতা ক্যাটাগরিতে শেখ হাসিনার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিন পিং, কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রো, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে, সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান ও  উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উনেরও নাম রয়েছে।

তালিকার এ ক্যাটাগরিতে প্রিন্স হ্যারি ও তার হবু বধূ মেগান মার্কলের নাম থাকলেও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নেই।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে সেখানে লেখা হয়েছে, বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের নেতৃত্ব দেওয়া বাবার উত্তরাধিকার বয়ে চলা হাসিনা কখনও সংগ্রামকে ভয় পান না।

“তাই যখন গত অগাস্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংসতা থেকে বাঁচতে লাখ লাখ রোহিঙ্গা শরণার্থী বাংলাদেশে আসতে শুরু করে, তিনি এই মানবিক চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করেন।”

এতে বলা হয়, এর আগে বাংলাদেশ এভাবে শরণার্থীদের ঠাঁই না দিলেও ‘জাতিগত নিধনের’ শিকার রোহিঙ্গাদের থেকে শেখ হাসিনা মুখ ফিরিয়ে নেননি।

মিয়ানমারের রাখাইনে জাতিগত নিপীড়নের শিকার রোহিঙ্গাদের পাশে দাঁড়ানোয় শেখ হাসিনার প্রশংসা হয়েছিল ফোর্বস ম্যাগাজিন থেকেও। যুক্তরাষ্ট্রের অর্থ-বাণিজ্যের সাময়িকীটির করা ২০১৭ সালের ক্ষমতাধর ১০০ নারীর তালিকায় তার অবস্থানের উন্নতি হয়েছিল।

ফোর্বসের প্রতিবেদনে শেখ হাসিনাকে ‘লেডি অব ঢাকা’ অভিহিত করে বলা হয়েছিল, অং সান সু চির বিপরীত অবস্থানে দাঁড়িয়ে শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সহায়তা করার অঙ্গীকার করেছেন; তাদের আশ্রয়ের জন্য ২০০০ একর জমি বরাদ্দ দিয়েছেন। 

টাইম ম্যাগাজিনের তালিকায় প্রভাবশালীদের মধ্যে মার্কিন অভিনেত্রী-সংগীতশিল্পী জেনিফার লোপেজ, বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন, হলিউড অভিনেত্রী নিকোল কিডম্যান, যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত টিভি ব্যক্তিত্ব অপরাহ উইনফ্রে, টেনিস তারকা সুইজারল্যান্ডের রজার ফেদেরার, ভারতের ক্রিকেট দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলিও আছেন।

]]>
1393386 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/09/12/41_sheikh-hasina_rohingya_kutupalong-refugee-camp_120917_0009.jpg/ALTERNATES/w300/41_Sheikh+Hasina_Rohingya_Kutupalong+refugee+camp_120917_0009.jpg কক্সবাজারের শরণার্থী শিবিরে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, গত বছর ১২ সেপ্টেম্বরের ছবি
9 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485465 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-20 01:44:53.0 2018-04-20 01:50:18.0 আ. লীগের চাপে নয়, বাস্তবতা বিবেচনায় বিধি সংশোধন: ইসি সচিব আ. লীগের চাপে নয়, বাস্তবতা বিবেচনায় বিধি সংশোধন: ইসি সচিব নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের আপত্তি সত্ত্বেও সংসদ সদস্যদের সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচারে নামার সুযোগ দেওয়ার পক্ষে সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের আপত্তি সত্ত্বেও সংসদ সদস্যদের সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রচারে নামার সুযোগ দেওয়ার পক্ষে সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485465.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/10/17/06_election-commission_bhaban_md-pramanik_171017_0002.jpg/ALTERNATES/w300/06_Election+Commission_Bhaban_Md+Pramanik_171017_0002.jpg নির্বাচন কমিশন ভবন
বৃহস্পতিবার কমিশন সভায় ওই সিদ্ধান্তের পর ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেছেন, ক্ষমতাসীন দলের চাপে নয়, বাস্তবতা বিবেচনায় নিয়ে আচরণবিধি হালনাগাদ করার জন্য এ সংশোধন আনা হচ্ছে।

বিকালে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে চার নির্বাচন কমিশনার, ইসি সচিবসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ‘সিটি করপোরেশন (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা ২০১৬’ সংশোধন নিয়ে ওই বৈঠক হয়।

সেখানে আচরণ বিধিতে প্রয়োজনীয় সংশোধনীর জন্য ইসির আইন সংস্কার কমিটিকে দ্রুত সময়ের প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

বৈঠকের পর ইসি সচিব সাংবাদিকদের বলেন, বিধি সংশোধন হলে আসন্ন গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সংসদ সদস্যরা তার সুবিধা পাবেন কি না তা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়নি।

“আসন্ন নির্বাচনে ইমপ্লিমেন্ট হতেও পারে; নাও হতে পারে।”

২০১৫ সালে দলভিত্তিক স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্তের পর মন্ত্রী-এমপিদের প্রচারের সুযোগ দেওয়া না দেওয়া নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়ে তৎকালীন কাজী রকিবউদ্দীন কমিশন।

প্রাথমিকভাবে মন্ত্রী-এমপিদের নাম উল্লেখ না করে সরকারি সুবিধাভোগীদের প্রচারের (সরকারি যানবাহন, প্রচারযন্ত্র বাদ দিয়ে) সুযোগ করে দিয়ে বিধির খসড়া তৈরি হয়। এ নিয়ে তুমুল সমালোচনার মধ্যে সরকারি সুবিধাভোগীদের সফর ও প্রচারণায় অংশ নেওয়ায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে আচরণবিধি চূড়ান্ত করা হয়।

এর ধারাবাহিকতায় সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও মন্ত্রী-সাংসদের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণার নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে আচরণবিধি করা হয়। এ নিয়ে শুরু থেকেই ক্ষোভ করে আসছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর গেল সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে গিয়ে সংসদ সদস্যদের ভোটের প্রচারে নামার সুযোগ দেওয়ার দাবি জানান।

তবে সাংসদসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সিটি ভোটে প্রচারের সুযোগ দেওয়ার বিপক্ষে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ সংস্থাগুলোর জোট ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপের (ইডব্লিউজি) পরিচালক আব্দুল আলীম।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “নতুন করে সংশোধনী এনে সাংসদদের প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণার সুযোগ দেওয়া হলে তাতে বৈষম্য বাড়বে। স্থানীয় প্রশাসন কখনই গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের উপেক্ষা করতে পারবে না। বিশেষ দল যেন সুবিধা না পায় সেটা দেখতে হবে।”

ক্ষমতাসীন দল সুবিধা পেলে অন্য প্রার্থীরা সুযোগ বঞ্চিত হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এরপর নির্বাচন কমিশনের বৈঠকে আচরণ বিধি সংশোধনের সিদ্ধান্ত এলো।

ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, “সিটি করপোরেশনের আচরণবিধিমালা পর্যালোচনা করা হয়েছে। তাতে দেখা গেছে যে, অতি সুবিধাভোগী অতি গুরুত্বপূর্ণ কারা কারা। সিটি একটা বড় এলাকা। পৌরসভা, ইউপি ছোট এলাকা। সংসদ সদস্যরা সিটি এলাকায় বসবাস করে থাকেন। যাওয়া আসা করে থাকেন।

“স্বাভাবিকভাবে নির্বাচনের তফসিল হলে পরে তাদের যাওয়া-আসাটা অনেকটা বন্ধ হয়ে যায়। আইনে বলা আছে, শুধুমাত্র ভোটের দিন ভোট দিতে পারবেন। অন্য সময় যেতে পারবেন না। যার ফলে নিজের এলাকার বাইরে থাকতে হয়। সেদিক বিবেচনা করে আলোচনাটা হয়েছে।”

তিনি বলেন, “সংসদ সদস্যরা কোনো অফিস হোল্ড করেন না। উনারা কোনো সরকারি গাড়ি ব্যবহার করেন না। তারা কোনো অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি কি না বা সুবিধাভোগী অতিগুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি কি না-এগুলো নিয়ে আলোচনা হয়েছে।”

হলফনামা নিরীক্ষা করবে না ইসি

হলফনামার তথ্য নিয়ে নানা অভিযোগ করছেন দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রার্থীরা। তবে হলফনামায় কোনো অসঙ্গতি রয়েছে কি না তা যাচাইয়ে যাচ্ছে না নির্বাচন কমিশন।

ইসি সচিব বলেন, “হলফনামা যখন প্রার্থী দেন, একজন এফিডেভিট দেন, এটা তার সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত। ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে যখন উনি এফিডেভিট করেন, এটার দায়িত্ব তখন তার। পরীক্ষা-নিরীক্ষার সুযোগ ইসির থাকে না।”

বাগেরহাট শূন্য আসনে ভোট জুনের শেষে

মেয়র প্রার্থী হতে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাংসদ তালুকদার আবদুল খালেকের ছেড়ে দেওয়া বাগেরহাট-৩ আসনে উপনির্বাচন জুনের শেষ সময়ে করতে চায় কমিশন।

কমিশন সভা শেষে ইসি সচিব জানান, মে মাসে এ আসনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। সেক্ষেত্রে জুনের শেষ সপ্তাহে বা জুলাইয়ের প্রথম সপ্তাহে ভোট করা হবে। আগামী কমিশন সভায় এ নিয়ে সিদ্ধান্ত আসবে।

]]>
1409083 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2017/10/17/06_election-commission_bhaban_md-pramanik_171017_0002.jpg/ALTERNATES/w300/06_Election+Commission_Bhaban_Md+Pramanik_171017_0002.jpg নির্বাচন কমিশন ভবন
10 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485331 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 19:38:44.0 2018-04-19 20:14:24.0 ঢাকায় ইয়াবা কারবারির গুলিতে তিন পুলিশ আহত ইয়াবা কারবারির গুলিতে তিন পুলিশ আহত রাজধানীর গেন্ডারিয়া থানা এলাকায় ইয়াবার চালান ধরতে গিয়ে গোলাগুলিতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। রাজধানীর গেন্ডারিয়া থানা এলাকায় ইয়াবার চালান ধরতে গিয়ে গোলাগুলিতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485331.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gandaria-police-drug-dealers-clash2.jpg/ALTERNATES/w300/Gandaria-police-Drug-dealers-clash2.jpg
বৃহস্পতিবার বিকালে গেন্ডারিয়ার সাধনাগলিতে এ ঘটনায় এক ইয়াবা কারবারিও গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেপ্তার হয়েছেন। সেখান থেকে দুই হাজার ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গুলিবিদ্ধ পুলিশ সদস্যরা হলেন- গেন্ডারিয়া থানার এএসআই মোশাররফ হোসেন ও মহসীন আলী এবং কনস্টেবল বশির উদ্দিন। তাদের ওই এলাকায় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলে গেন্ডারিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুবুল আলম জানিয়েছেন।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে সাধনাগলিতে ইয়াবার একটি চালান আসার খবর আসে। তখন ওই দুই এএসআই দুইজন কনস্টেবল নিয়ে মটরসাইকেলে করে ঘটনাস্থলে যান।

“তারা পৌঁছানোর সাথে সাথে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলিবর্ষণ করে। তখন পুলিশও পাল্টা গুলি করে।”

পুলিশের ওয়ারি জোনের সহকারী কমিশনার শামসুজ্জামান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ইয়াবা কারবারিদের গুলিতে ওই দুই সহকারী উপ-পরিদর্শক এবং তাদের সঙ্গে থাকা কনস্টেবল বশির উদ্দিন আহত হন। তাদের হাত ও পায়ে গুলি লেগেছে।

এ সময় জুয়েল (১৯) নামে একজন মাদক ব্যবসায়ী পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। তার সঙ্গে সোনিয়া (২৭) নামের এক নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে ইয়াবা বড়িগুলো উদ্ধার করা হয়।

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, “পুলিশকে লক্ষ করে যে মাদক ব্যবসায়ী গুলি করছে সে অস্ত্রসহ পালিয়ে গেছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।”

]]>
1485334 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gandaria-police-drug-dealers-clash2.jpg/ALTERNATES/w300/Gandaria-police-Drug-dealers-clash2.jpg 1485332 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gandaria-police-drug-dealers-clash.jpg/ALTERNATES/w300/Gandaria-police-Drug-dealers-clash.jpg 1485333 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gandaria-police-drug-dealers-clash1.jpg/ALTERNATES/w300/Gandaria-police-Drug-dealers-clash1.jpg 1485335 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gandaria-police-drug-dealers-clash3.jpg/ALTERNATES/w300/Gandaria-police-Drug-dealers-clash3.jpg
11 2 Home samagrabangladesh সমগ্র বাংলাদেশ news-district 9945 1485351 গাজীপুর প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম গাজীপুর প্রতিনিধি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 20:29:26.0 2018-04-19 20:29:26.0 বন্দিদের জন্য বালিশ আসছে: কারা মহাপরিদর্শক বন্দিদের জন্য বালিশ আসছে: কারা মহাপরিদর্শক কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন বলেছেন, আগামী অর্থবছর থেকে সব সাধারণ বন্দিকে বালিশ দেওয়া হবে। কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সৈয়দ ইফতেখার উদ্দীন বলেছেন, আগামী অর্থবছর থেকে সব সাধারণ বন্দিকে বালিশ দেওয়া হবে। false https://bangla.bdnews24.com/samagrabangladesh/article1485351.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gazipur-kasimpur-jail-01.jpg/ALTERNATES/w300/Gazipur-Kasimpur-Jail-01.jpg
কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারের প্যারেড গ্রাউন্ডে বৃহস্পতিবার ৫১তম ব্যাচের কারারক্ষী প্রশিক্ষণ সমাপনী অনুষ্ঠান শেষে তিনি এ কথা বলেন।

ইফতেখার উদ্দীন বলেন, “সাধারণ কারাবন্দিদের বর্তমানে তিনটি করে কম্বল দেওয়া হলেও কোনো বালিশ দেওয়া হয় না।

“একটি কম্বল কমিয়ে তার পরিবর্তে তাদের একটা করে বালিশ দেওয়া হবে। টেন্ডারের কাজ চলছে। আশা করছি, আগামী অর্থবছরেই এটা দিতে পারব।”

বর্তমান শুধু ভিআইপি ও অসুস্থ বন্দিদের বালিশ দেওয়া হয়।

মহাপরিদর্শক বলেন, “ঔপনিবেশিক আমলের প্রিজন অ্যাক্টের মাধ্যমে আমরা পরিচালিত হচ্ছিলাম। আমাদের মধ্যে ঔপনিবেশিক মনোভাবও ছিল। আমরা তা ভুলে যেতে চাই। আমরা স্বাধীন বাংলাদেশের চেতনা ধারণ করে নতুনভাবে আমাদের কারাগারগুলো পরিচালনা করতে চাই।”

অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শক কর্নেল মো. ইকবাল হাসান, কারা উপ-মহাপরিদর্শক মো. বজলুর রশীদ, গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জীব কুমার দেবনাথ, কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার ১-এর জ্যেষ্ঠ জেল সুপার সুব্রত কুমার বালা, কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার ২-এর জেল সুপার প্রশান্ত কুমার বণিক অনুষ্ঠানে ছিলেন।

]]>
1485349 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gazipur-kasimpur-jail-01.jpg/ALTERNATES/w300/Gazipur-Kasimpur-Jail-01.jpg 1485350 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/gazipur-kasimpur-jail-02.jpg/ALTERNATES/w300/Gazipur-Kasimpur-Jail-02.jpg
12 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485221 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 16:21:19.0 2018-04-19 17:23:00.0 ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: ৬ ধারার সংশোধন চায় সম্পাদক পরিষদ ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন: ৬ ধারার সংশোধন চায় সম্পাদক পরিষদ প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ছয়টি ধারাকে ‘বাক স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থি’ হিসেবে বর্ণনা করে সেগুলো সংশোধনের দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন সংবাদপত্রের সম্পাদকদের একটি সংগঠন ‘সম্পাদক পরিষদ’। প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ছয়টি ধারাকে ‘বাক স্বাধীনতা ও স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থি’ হিসেবে বর্ণনা করে সেগুলো সংশোধনের দাবি জানিয়েছে বিভিন্ন সংবাদপত্রের সম্পাদকদের একটি সংগঠন ‘সম্পাদক পরিষদ’। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485221.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ministers-meeting.jpg/ALTERNATES/w300/Ministers-Meeting.jpg
সচিবালয়ে বৃহস্পতিবার আইনমন্ত্রী আনিসুল হক; ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে এক বৈঠকে ১২টি জাতীয় দৈনিকের সম্পাদকরা তাদের উদ্বেগের কথা তুলে ধরেন।

এই উদ্বেগের প্রেক্ষিতে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি ঠিক করেছে, তাদের হাতে পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য থাকা ওই আইনের খসড়া চূড়ান্ত করার আগে স্থায়ী কমিটির একটি বৈঠকে সম্পাদক পরিষদকে ডাকা হবে।

সম্পাদক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহফুজ আনাম, নিউজ টুডের সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন আহমেদ, নিউ এজের নূরুল কবির, প্রথম আলোর মতিউর রহমান, বাংলাদেশ প্রতিদিনের নঈম নিজাম, ইনকিলাবের এ এফ এম বাহাউদ্দিন এবং ফাইনানশিয়াল এক্সপ্রেসের সম্পাদক এ এইচ এম মোয়াজ্জেম হোসেন সভায় অংশ নেন।

যুগান্তরের সম্পাদক সাইফুল আলম, সংবাদের খন্দকার মনিরুজ্জামান, বণিক বার্তার দেওয়ান হানিফ মাহমুদ, কালের কণ্ঠের ইমদাদুল হক মিলন এবং নয়া দিগন্তের সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিনও অংশ নেন বৈঠকে।

এছাড়া ছিলেন লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মোহাম্মদ শহিদুল হক।

তিন মন্ত্রীর সঙ্গে দেড় ঘণ্টার রুদ্ধদার বৈঠক শেষে বেরিয়ে এসে মাহফুজ আনাম সাংবাদিকদের বলেন, “সম্পাদক পরিষদের অনুরোধে এই সভা হয়েছে। সত্যিকার অর্থে বলতে চাই, উনাদের (তিন মন্ত্রী) যে স্পিরিট আমরা দেখলাম, উনাদের যে সহযোগিতার স্পিরিট এবং আমাদের কনসার্নগুলো উনারা যেভাবে গ্রহণ করলেন এবং যে প্রস্তাব উনারা দিয়েছেন… স্থায়ী কমিটিতে যে আলোচনা হবে সেখানে উনারাই প্রস্তাব করবেন সম্পাদক পরিষদকে যেন ডাকা হয় এবং সেখানে যেসব কনসার্ন আছে আমরা তা তুলে ধরব।

প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ২১, ২৫, ২৮, ৩১, ৩২ ও ৪৩ ধারা নিয়ে সম্পাদক পরিষদের উদ্বোগের কথা জানিয়ে মাহফুজ আনাম বলেন, “আমরা মনে করছি, এগুলো বাক স্বাধীনতা এবং সাংবাদিকদের স্বাধীনতার পরিপন্থি।

“এবং এটা আমাদের যে স্বাধীন সাংবাদিকতা, যেটা নিয়ে বাংলাদেশে আমরা খুবই গর্ববোধ করি, সেটা খুব গভীরভাবে ব্যাহত হবে এবং এ কথাগুলো উনাদের বলেছি, উনারা খুবই সানন্দে গ্রহণ করেছেন।”

মাহফুজ আনাম আশা প্রকাশ করেন, যে আইনটি হবে, তা সত্যিকার অর্থেই সাইবার ক্রাইম ঠেকাতে ব্যবহার করা হবে, তাতে সাংবাদিকতার স্বাধীনতা খর্ব হবে না।

প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ছয়টি ধারা নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও সম্পাদক পরিষদ এ আইন প্রণয়নের পক্ষে বলে জানান সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক।

“আমরা এটাও বিশ্বাস করি যে সত্যিকার অর্থে একটা সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্ট বাংলাদেশে প্রয়োজন, কেননা এখন যে ধরনের সাইবার ক্রাইম হচ্ছে এবং আমরা দেখছি অনেক ক্ষেত্রে সোশ্যাল মিডিয়া এবং অনিয়ন্ত্রিত অনলাইন মিডিয়া… অনেকভাবে তারা উদ্যোগ নিচ্ছেন, যেটা আমাদের কনসার্ন বাড়ায়…।

“আইনটা হোক, সুষ্ঠু আইন, যে আইনটা আসলে তার পারপাস সার্ভ করবে এবং স্বাধীন সাংবাদিকতাকে কোনোভাবেই তারা ব্যাহত করবে না, এটাই আমাদের বিশ্বাস।”

সম্পাদকদের সঙ্গে ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে জানিয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, তারা যে আপত্তিগুলো তুলে ধরেছেন, সেগুলো ‘অনেকাংশে যৌক্তিক’ মনে করায় আগামী ২২ এপ্রিল সংসদীয় কমিটির সভায় এডিটরস কাউন্সিলকে রাখার প্রস্তাব করা হবে।

ওই সভার পর সম্পাদক পরিষদ তাদের উদ্বেগের বিষয়গুলো লিখিতভাবে স্থায়ী কমিটিকে দেবে।

সাইবার ক্রাইম নিয়ন্ত্রণের জন্য ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট করা হচ্ছে জানিয়ে আনিসুল বলেন, “এটা ফ্রিডম অব প্রেস বা ফ্রিডম অব স্পিচ বন্ধ করার জন্য না। সেইক্ষেত্রে এই আইনের মধ্যে যদি কোনো ত্রুটি থেকে থাকে, তাহলে পরে সেগুলো যেন অপসারণ করা যায়, সেইভাবে যেন আইনটা সংধোশন করা হয় সেই আলোকে এডিটরস কাউন্সিলের সাথে স্থায়ী কমিটির সেই আলোচনা হবে এবং এই আলোচনার প্রেক্ষিতে আমরা দুপক্ষই আশাবাদ ব্যক্ত করতে পারি, তাদের যে কনসর্ন, আমরা দূর করতে পারব।”

দেশের টেলিভিশনগুলোর সমাপ্দকদের আলাদা সংগঠন রয়েছে। তাছাড়া বিপুল সংখ্যক ইন্টারনেট সংবাদপত্র রয়েছে, এসব সংগঠনে যাদের প্রতিনিধিত্ব নেই।  

টিভি চ্যানেলের সম্পাদকদেরও স্থায়ী কমিটির ওই বৈঠকে ডাকা হবে কি না- সেই প্রশ্ন আইনমন্ত্রী বলেন, “এ বিষয়ে স্থায়ী কমিটির কাছে প্রস্তাব উপস্থাপন করব, তারা সিদ্ধান্ত নেবেন ডাকবেন কি ডাকবেন না। এমন একটা আইন করতে চাই যেটা গ্রহণযোগ্য না যুগপোযোগী হবে।

গত ২৯ জানুয়ারি ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। বহুল আলোচিত এই আইনের খসড়া আইনসভার অনুমোদনের জন্য গত ৯ এপ্রিল সংসদে উত্থাপন করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার।

খসড়া আইনটি পরীক্ষা করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য-প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়েছে।

সমালোচিত ৫৭ ধারাসহ কয়েকটি ধারা তথ্য প্রযুক্তি আইন থেকে সরিয়ে সেগুলো আরও বিশদ আকারে যুক্ত করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হচ্ছে।

এ আইন পাস হলে হ্যাকিং; ডিজিটাল মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ বা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বা জাতির পিতার বিরুদ্ধে ‘অপপ্রচার’; রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বিপন্ন করতে বা ভয়ভীতি সৃষ্টির জন্য কম্পিউটার বা ইন্টারনেট নেটওয়ার্কে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি এবং ডিজিটাল উপায়ে গুপ্তচরবৃত্তির মত অপরাধে ১৪ বছরের কারাদাণ্ডের পাশাপাশি কোটি টাকা পর্যন্ত অর্থদণ্ড বা উভয় দণ্ড দেওয়া যাবে।

আর ইন্টারনেটে কোনো প্রচার বা প্রকাশের মাধ্যমে ‘ধর্মীয় অনুভূতি বা মূল্যবোধে আঘাত’ করার শাস্তি হবে ১০ বছরের জেল, ২০ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ড।

খসড়া আইনটির মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পর থেকে বিভিন্ন মহলের সমালোচনার মুখে পড়ে। সাংবাদিকরাও প্রস্তাবিত আইনটির ৩২ ধারায় সমালোচনা করছেন। এই আইনের ফলে প্রকল্পে অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার পথ রুদ্ধ হবে বলে মনে করছেন তাদের অনেকে।

ওই ধারায় সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে কেউ যদি বেআইনিভাবে প্রবেশ করে কোনো ধরনের তথ্য উপাত্ত, যে কোনো ধরনের ইলেকট্রনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে গোপনে রেকর্ড করে, তাহলে সেটা গুপ্তচরবৃত্তির অপরাধ হবে এবং এ অপরাধে ১৪ বছর কারাদণ্ড ও ২০ লাখ টাকা জরিমানা বা উভয় দণ্ডর বিধান রাখা হয়েছে।

খসড়া আইনটির মাধ্যমে তথ্য প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের ৫৪, ৫৫, ৫৬, ৫৭ ও ৬৬ ধারা বিলুপ্ত হবে বলে ২৯ জানুয়ারি মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর জানিয়েছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

২০০৬ সালে হওয়া আইসিটি আইন ২০০৯ ও ২০১৩ সালে দুই দফা সংশোধন করা হয়। সর্বশেষ সংশোধনে সাজা বাড়িয়ে ১০ বছর থেকে ১৪ বছর কারাদণ্ড করা হয়। আর ৫৭ ধারার অপরাধকে করা হয় জামিনঅযোগ্য।

ওই ধারাকে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিপন্থি দাবি করে সেটি বাতিলের দাবি জানিয়ে আসছিলেন গণমাধ্যম ও মানবাধিকার কর্মীরা।

৫৭ ধারায় বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি যদি ইচ্ছাকৃতভাবে ওয়েবসাইটে বা অন্য কোনো ইলেকট্রনিক বিন্যাসে এমন কিছু প্রকাশ বা সম্প্রচার করেন, যা মিথ্যা ও অশ্লীল বা সংশ্লিষ্ট অবস্থা বিবেচনায় কেউ পড়লে, দেখলে বা শুনলে নীতিভ্রষ্ট বা অসৎ হতে উদ্বুদ্ধ হতে পারেন অথবা যার দ্বারা মানহানি ঘটে, আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটে বা ঘটার আশঙ্কা সৃষ্টি হয়, রাষ্ট্র ও ব্যক্তির ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় বা ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করে বা করতে পারে বা এ ধরনের তথ্যাদির মাধ্যমে কোনো ব্যক্তি বা সংগঠনের বিরুদ্ধে উসকানি প্রদান করা হয়, তাহলে এ কাজ অপরাধ বলে গণ্য হবে।

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলে আসছিলেন, তথ্য-প্রযুক্তি আইন থেকে ৫৭ ধারা বাদ দিয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে এ বিষয়ে ‘বিভ্রান্তি’ দূর করা হবে।

কিন্তু এখন তথ্যপ্রযুক্তি আইন থেকে সরিয়ে ওই ধারার বিষয়বস্তু আরও বিশদ আকারে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সন্নিবেশ করা হলে তাতে অপব্যবহারের সুযোগ বন্ধ হবে কি না, সে প্রশ্ন থেকেই যাবে বলে মনে করছেন অধিকারকর্মীরা।

]]>
1485154 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ministers-meeting.jpg/ALTERNATES/w300/Ministers-Meeting.jpg
13 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485173 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 13:36:14.0 2018-04-19 13:41:51.0 অযত্নে বিপথগামী হয় সন্তান, ইন্টারনেটে নয়: জব্বার অযত্নে বিপথগামী হয় সন্তান, ইন্টারনেটে নয়: জব্বার ইন্টারনেটের কারণে ছেলেমেয়েরা বিপথগামী হয়ে যায় বলে ভুল ধারণাকে খণ্ডন করে তার জন্য বাবা-মায়ের অবহেলাকে দায়ী করেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। ইন্টারনেটের কারণে ছেলেমেয়েরা বিপথগামী হয়ে যায় বলে ভুল ধারণাকে খণ্ডন করে তার জন্য বাবা-মায়ের অবহেলাকে দায়ী করেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485173.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ict-jabbar.jpg/ALTERNATES/w300/ICT-Jabbar.jpg https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/01/04/21_mustafa_jabbar_amo_040118_0015.jpg1/ALTERNATES/w300/21_Mustafa_Jabbar_AMO_040118_0015.jpg আ‌জিমপুর বা‌লিকা বিদ্যাল‌য়ে ডি‌জিটাল নিরাপত্তা বিষয়ক কর্মশালা
বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর আজিমপুর গার্লস স্কুল অ্যান্ড কলেজে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তায় মেয়েদের সচেতনতা’ শীর্ষক এক সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানে তিনি ভার্চুয়াল জগতে শিশুদের নিরাপত্তা বিষয়ে কথা বলেন।

জব্বার বলেন, “পৃথিবীর সবচেয়ে বড় লাইব্রেরি হচ্ছে ইন্টারনেট। এই ইন্টারনেট থেকে তাদের সরিয়ে রেখে আমরা তাদের কী শেখাব?  সন্তান বিপথগামী হয় বাবা মায়ের যত্নের অভাবে, পারিপার্শ্বিকতার কারণে।

“ইন্টারনেটে ঢুকে গেমস খেললে ছেলেমেয়েরা নষ্ট হয়ে যাবে, আমি এটা মনে করি না।”

আইসিটি অধিদপ্তরের ইলেকট্রনিক স্বাক্ষর সার্টিফিকেট প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ নিয়ন্ত্রক (সিসিএ) কার্যালয়ের উদ্যোগে এই সচেতনামূলক কার্যক্রমটি পরে দেশের ১০০টি স্কুলের ২৫ হাজার শিক্ষার্থীর মধ্যে পরিচালিত হবে।

আইসিটিমন্ত্রী বলেন, “প্রযুক্তির  ভালো দিকের পাশাপাশি অনেক খারাপ দিকও রয়েছে। আজকে কন্যা শিশুরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রবেশ করতে না করতেই সে হয়রানির শিকার হচ্ছে, তাকে নিয়ে কেউ বাজে মন্তব্য করছে, ছবি বিকৃত করছে বা ভিডিও করে নানভাবে প্রচার করছে।

“অপরাধীদের উদ্দেশ্যে বলব, এসব মুছে ফেললেও কেউ পারবে না। যতভাবেই লুকানোর চেষ্টা করুক না কেন, আমরা মাটি খুঁড়ে তাদের বের করে আনব। আমাদের এখন সেসব প্রযুক্তি রয়েছে।”

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে জব্বার বলেন, “ভার্চুয়াল জগতে তোমরা নিজেদের মোটেও অসহায় মনে করবে না।  সরকার এসব অপরাধের প্রতিকার করবে। সরকার তোমাদের পাশে রয়েছে।”

এসময় শিক্ষার্থীদের ভার্চুয়াল জগতে প্রবেশের আগে নিজেদের নিরাপত্তা বিষয়ে ভালোভাবে জেনে-বুঝে নেওয়ার পরামর্শ দেন তিনি।

‘ডিজিটাল নিরাপত্তায় মেয়েদের সচেতনতা’ শীর্ষক কর্মশালাটি নিয়ে মোস্তাফা জব্বার বলেন, “ভার্চুয়াল জগতে প্রতি মুহূর্তে যখন সাইবার অ্যাটাকের হুমকি রয়েছে, তখন আমরা সবার আগে মেয়েদের ডিজিটাল নিরাপত্তা বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে চাই। তারা নিজেরা সতর্ক হবে, পাশাপাশি তারা পরিবার ও আশপাশের অনেককে সচেতন করে তুলবে। ”

অনুষ্ঠানে সিসিএ কার্যালয়ের নিয়ন্ত্রক আবুল মানসুর মোহাম্মদ সার্ফ উদ্দিন স্বাগত বক্তব্য দেন, পরে ‘বি স্মার্ট’ শিরোনামে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন আইএসএসিএ-র ঢাকা চ্যাপ্টারের সাবেক সভাপতি এ কে এম নজরুল হায়দার।

]]>
1485172 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/ict-jabbar.jpg/ALTERNATES/w300/ICT-Jabbar.jpg আ‌জিমপুর বা‌লিকা বিদ্যাল‌য়ে ডি‌জিটাল নিরাপত্তা বিষয়ক কর্মশালা
14 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485425 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 22:41:22.0 2018-04-19 22:48:00.0 ঝড়-বৃষ্টির দাপট ‘কমবে কয়েক দিনে‘ ঝড়-বৃষ্টির দাপট ‘কমবে কয়েক দিনে‘ চৈত্রের মাঝামাঝি থেকেই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় দিন-রাতের কোনো এক সময় ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি হচ্ছে, যা আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই কমে আসবে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। চৈত্রের মাঝামাঝি থেকেই ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় দিন-রাতের কোনো এক সময় ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে বৃষ্টি হচ্ছে, যা আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই কমে আসবে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485425.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/03/30/gaibandha-rain.jpg/ALTERNATES/w300/gaibandha-rain.jpg ৩০ মার্চ ঝড়-বৃষ্টির মধ্যে বড় আকারের এই শিলা পড়ে উত্তরের জেলাগুলোতে
আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বৃহস্পতিবার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “এটা কালবৈশাখীর সময় চলছে। কোথাও না কোথাও হচ্ছে।

“তবে শনিবার থেকে ঝড়-বৃষ্টির প্রবণতা কমে আসবে। অবশ্য সিলেটে আরও কয়েকদিন তা অব্যাহত থাকবে।”

এবার বৈশাখ আসার সপ্তাহ দুয়েক আগেই কালবৈশাখীর ছোবলে শুরু হয়েছিল ঝড়-বৃষ্টির মওসুম। ৩০ মার্চ উত্তরের বেশ কয়েকটি জেলায় শিলার আঘাতে কয়েকজনের মৃত্যু হয়। ঝড়ে এত বড় শিলা পড়তে আগে কখনও দেখেননি বলে জানিয়েছিলেন ওই এলাকার বাসিন্দারা।     

কালবোশেখি, বজ্রঝড় ও শিলা বৃষ্টির এই দাপট চলছে দুই সপ্তাহ ধরেই। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকেও রাজধানীসহ আশপাশে ঝড় হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম, সিলেট বিভাগের অধিকাংশ এলাকায় এবং রাজশাহী, খুলনা ও রংপুরের দুয়েক জায়গায় বৃষ্টি হয়েছে।

শিলের আঘাতে ফুটো হয় টিনের চালা

শিলের আঘাতে ফুটো হয় টিনের চালা

এদিন দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টি হয়েছে কুতুবদিয়ায় ৭২ মিলিমিটার। আর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল সাতক্ষীরা ও যশোরে ৩৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

গেল বছর এপ্রিলে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছিল দেশজুড়ে। বিশেষ করে অসময়ের ভারি বর্ষণের সঙ্গে আকস্মিক বন্যায় ডুবেছিল সিলেট, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ ও নেত্রকোণার হাওর এলাকা।

এবারও এপ্রিল মাসের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে মাসের শেষার্ধে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে পাহাড়ি ঢলের কারণে আকস্মিক বন্যার শঙ্কার কথা বলা হয়েছে।

তবে আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলছেন, এবার অসময়ের ভারী বর্ষণের শঙ্কা করছেন না তিনি। শিগগিরই কমে আসবে ঝড়-বৃষ্টি।

শুক্রবারের পূর্বাভাসের বিষয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায়, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগের কিছু কিছুজায়গায় এবং বরিশাল বিভাগের দু-এক জায়গায় বিজলী চমকানোর সাথে অস্থায়ী দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলা বৃষ্টি হতে পারে।

আগামী পাঁচ দিনে তাপমাত্রা ধীরে ধীরে বাড়বে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

]]>
1477464 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/03/30/gaibandha-rain.jpg/ALTERNATES/w300/gaibandha-rain.jpg ৩০ মার্চ ঝড়-বৃষ্টির মধ্যে বড় আকারের এই শিলা পড়ে উত্তরের জেলাগুলোতে 1477369 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/03/30/lalmonirhat-rain-01.jpg/ALTERNATES/w300/lalmonirhat-rain-01.jpg
15 2 Home probash_bn প্রবাস news-bn 9556 1485318 সৌদি আরব প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম সৌদি আরব প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 19:19:06.0 2018-04-19 19:19:06.0 সৌদিতে অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ আরেকজনের মৃত্যু সৌদিতে অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ আরেকজনের মৃত্যু সৌদি আরবের হাইল জেলায় অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ আনিসুর রহমান বাবুলকে বাঁচাতে পারেননি চিকিৎসকরা। সৌদি আরবের হাইল জেলায় অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ আনিসুর রহমান বাবুলকে বাঁচাতে পারেননি চিকিৎসকরা। false https://bangla.bdnews24.com/probash/article1485318.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/anisur-rahman-saudi-arabia.jpg/ALTERNATES/w300/Anisur-Rahman-Saudi-Arabia.jpg
এক দিন আগের এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মোট সাত বাংলাদেশির মৃত্যু হল।

বুধবার ভোররাতে রিয়াদ থেকে প্রায় এক হাজার কিলোমিটার দূরে হাইল জেলার হোলাইফা শহরের এক বাসায় ওই অগ্নিকাণ্ড হয়। ঘটনাস্থল থেকেই উদ্ধার করা হয় ছয় বাংলাদেশির লাশ।

ওই বাসার আরেক বাসিন্দা আনিসুর রহমানকে দগ্ধ অবস্থায় ভর্তি করা হয় হাইলের কিং খালিদ হাসপাতালের আইসিইউতে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সেখানে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন বলে তার বড় ভাই আব্দুল লতিফ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান।

আনিসের গ্রামের বাড়ি ফেনি জেলার গাংরা গ্রামে, তার বাবার নাম খলিলুর রহমান।

নিহত বাকি ছয়জন হলেন- বসন্তপুর গ্রামের আবদুল হকের দুই ছেলে এমরানুল হক সোহেল (৩৪) ও ইমামুল হক মুন্না (২২); চৌদ্দগ্রামের গুণবতী ইউনিয়নের দক্ষিণ শ্রীপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে মো. সোহেল (৩০), ফেনীর বিরিঞ্চি এলাকার ইলিয়াস মেম্বারের বাড়ির রফিকুল ইসলামের ছেলে মহিউদ্দিন রাশেদ (৩৫) এবং লক্ষ্মীপুর জেলার কমলনগর উপজেলার করইতোলা বাজার সংলগ্ন চর লরেন্স গ্রামের নেছার আহম্মদের দুই ছেলে জসিম উদ্দিন (২৬) ও মো. ইব্রাহিম (২৩)।

হাইল থেকে প্রবাসী বাংলাদেশি আজিজ উল্লাহ সেলিম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সাতজন বাংলাদেশি ওই বাসায় ভাড়া থেকে শহরে চাকরি করতেন। মঙ্গলবার রাতে রান্না ও খাওয়া শেষে একই ঘরে তারা ঘুমিয়ে পড়েন।

“কেউ একজন রুমের বারান্দায় সিগারেট খেয়ে ফেলে দেয়। ওই আগুন বিদ্যুতের তারে লেগে পুরো রুমে ছড়িয়ে পড়ে।”

এর আগে গত সপ্তাহেও সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে একটি ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ছয় বাংলাদেশি নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়।

প্রবাস পাতায় আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাস জীবনে আপনার ভ্রমণ,আড্ডা,আনন্দ বেদনার গল্প,ছোট ছোট অনুভূতি,দেশের স্মৃতিচারণ,রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক খবর আমাদের দিতে পারেন। লেখা পাঠানোর ঠিকানা probash@bdnews24.com। সাথে ছবি দিতে ভুলবেন না যেন!
]]>
1485317 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/anisur-rahman-saudi-arabia.jpg/ALTERNATES/w300/Anisur-Rahman-Saudi-Arabia.jpg
16 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485300 লন্ডন প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম লন্ডন প্রতিনিধি, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 18:17:33.0 2018-04-19 18:27:52.0 লন্ডনে ক্রীড়া উপমন্ত্রী জয়কে বিএনপি নেতা-কর্মীদের হেনস্তা লন্ডনে ক্রীড়া উপমন্ত্রী জয়কে বিএনপি নেতা-কর্মীদের হেনস্তা কমনওয়েলথ সরকারপ্রধানদের শীর্ষ সম্মেলন উপলক্ষে লন্ডনে অবস্থানরত ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়কে হেনস্তা করেছে বিএনপির নেতা-কর্মীরা। কমনওয়েলথ সরকারপ্রধানদের শীর্ষ সম্মেলন উপলক্ষে লন্ডনে অবস্থানরত ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়কে হেনস্তা করেছে বিএনপির নেতা-কর্মীরা। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485300.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/arif-khan-joy-london.jpg/ALTERNATES/w300/Arif-Khan-Joy-london.jpg
বুধবার স্থানীয় সময় বিকালে ওয়েস্টমিনস্টারের দ্বিতীয় কুইন এলিজাবেথ কনফারেন্স সেন্টারের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

ওই সময় সম্মেলনস্থলের আশপাশে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমর্থনে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের মিছিল ছিল।

কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যেই যুক্তরাজ্য বিএনপি প্রতিদিনই বিক্ষোভ মিছিল করে আসছে।

ফেইসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, ওয়েস্টমিনস্টারের বার্কলেইজ ব্যাংকের সামনে বিএনপির কিছু নেতা-কর্মী উপমন্ত্রীকে ঘিরে রয়েছেন; উত্তেজিত অন্যদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করছেন।

ঘটনা নিয়ে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি ভিন্ন ভিন্ন বক্তব্য দিলেও ওই সময় বিএনপি সমর্থক দুজনকে পুলিশের গ্রেপ্তার করার কথা উভয় পক্ষই স্বীকার করেছে।

যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “বুধবার রাতেই তাদের আইনজীবিরা এই দুজনকে জামিনে মুক্ত করেছেন।

বিএনপির দাবি, উপমন্ত্রী মিছিলের পাশে ছবি তুলতে গেলে উত্তেজিত পরিস্থিতির মধ্যে হেনস্থার ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনাকে ন্যক্কারজনক আখ্যা দিয়ে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক বলেন, উপমন্ত্রী সম্মেলনস্থল থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় বিএনপি সমর্থকরা তাকে হেনস্থা করেন।পুলিশ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

“হামলা/হেনস্থা ইত্যাদি বিএনপির দ্বারাই সাজে, তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না।”

]]>
1485299 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/arif-khan-joy-london.jpg/ALTERNATES/w300/Arif-Khan-Joy-london.jpg
17 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485436 আদালত প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম আদালত প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 23:21:58.0 2018-04-19 23:21:58.0 তসলিমা নাসরিনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় মামলা তসলিমা নাসরিনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে ৫৭ ধারায় মামলা ‘ইসলাম অবমাননামূলক’ লেখা ইন্টারনেটে প্রকাশ করায় তসলিমা নাসরিনসহ চারজনের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় একটি মামলা হয়েছে। ‘ইসলাম অবমাননামূলক’ লেখা ইন্টারনেটে প্রকাশ করায় তসলিমা নাসরিনসহ চারজনের বিরুদ্ধে তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় একটি মামলা হয়েছে। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485436.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2015/10/17/taslima-nasreen.jpg/ALTERNATES/w300/Taslima-Nasreen.jpg তসলিমা নাসরিন (ফেইসবুক থেকে নেওয়া ছবি)
দৈনিক আল ইহসান ও মাসিক আল বায়্যিনাতের সম্পাদক মুহম্মদ মাহবুব আলমের করা এই মামলায় অন্য আসামিরা হলেন নারী বিষয়ক পোর্টাল উইমেন চ্যাপ্টারের সম্পাদক সুপ্রীতি ধর, ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক সুচিস্মিতা সীমন্তি ও উপদেষ্টা সম্পাদক লীনা হক।

মাহবুব আলম বৃহস্পতিবার ঢাকার সাইবার ক্রাইমস ট্রাইব্যুনালে মামলাটির আরজি নিয়ে যান।

বিচারক সাইফুল ইসলাম তা এজাহার হিসেবে গ্রহণ করে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে ঢাকার শাহজাহানপুর থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে ট্রাইবুনালের পেশকার শামীম আহমেদ জানিয়েছেন।

বাদী শাহজাহানপুর এলাকায় বসে ইন্টারনেটে তাদের লেখা পড়ে অভিযোগ করেছেন বলে তদন্তের দায়িত্ব ওই থানাকে দেওয়া হয়েছে।

‘উইমেন চ্যাপ্টার’ এ প্রকাশিত নির্বাসিত লেখক তসলিমা নাসরিনের ‘ধর্ষকের কাছে নারীর কোনো ধর্ম নেই’ শীর্ষক লেখার জন্য এই মামলাটি হলেও নারী পোর্টালটিতে অন্যরা প্রায়ই ইসলামবিরোধী লেখা লিখে আসছেন বলে বাদীর অভিযোগ।

]]>
1041238 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2015/10/17/taslima-nasreen.jpg/ALTERNATES/w300/Taslima-Nasreen.jpg তসলিমা নাসরিন (ফেইসবুক থেকে নেওয়া ছবি)
18 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485366 নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিজস্ব প্রতিবেদক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 20:36:02.0 2018-04-19 20:36:02.0 নিজের কর্মীদের দিকেও ‘নজর রাখবে’ দুদকের গোয়েন্দারা নিজের কর্মীদের দিকেও ‘নজর রাখবে’ দুদকের গোয়েন্দারা দুর্নীতি দমন কমিশনের গোয়েন্দারা কেবল বাইরের দুর্নীতিবাজদের পিছনে, নয় কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দিকেও নজর রাখছে বলে সতর্ক করেছেন দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। দুর্নীতি দমন কমিশনের গোয়েন্দারা কেবল বাইরের দুর্নীতিবাজদের পিছনে, নয় কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দিকেও নজর রাখছে বলে সতর্ক করেছেন দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485366.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/acc-meeting-ed.jpg/ALTERNATES/w300/acc-meeting-ed.jpg
বৃহস্পতিবার ঢাকার সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ের কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, বিভাগীয় কার্যালয় এবং প্রধান কার্যালয়ের মহাপরিচালক থেকে উপ-পরিচালক পদমর্যাদার কর্মকর্তাদের নিয়ে এক পর্যালোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

ইকবাল মাহমুদ বলেন, “এখন থেকে দুদকের গোয়েন্দা শাখা কেবল দুর্নীতিবাজদের পিছনেই গোয়েন্দাগিরি করবে না, কমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিষয়েও তথ্য সংগ্রহ করবে। তথ্যপ্রযুক্তিসহ সকল গোয়েন্দা টুলস ব্যবহার করে ঘরে-বাইরে সকল প্রকার দুর্নীতির তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে।”

সভায় দুদক চেয়ারম্যান জানান, প্রতারক চক্রের সদস্যরা দেশের বিভিন্ন স্থানে কমিশনের কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজি করছে বলে তারা তথ্য পেয়েছেন।

এ ধরনের প্রতাকদের বিরুদ্ধে ‘যথাযথ ব্যবস্থা’ নিতে কমিশনের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দিয়ে ইকবাল মাহমুদ বলেন, “তারা কমিশনের ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা করছে। তাই এ বিষয়ে তৃণমূল পর্যায়েও সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে, অপরাধীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।”

কমিশনের কর্মকর্তাদের উদ্দেশে চেয়ারম্যান বলেন, “এ প্রতিষ্ঠান আমাদের সকলের। এটি হৃদয়ে ধারণ করতে হবে এবং কর্মসম্পাদনেও এর প্রতিফলন থাকতে হবে। তবেই এ প্রতিষ্ঠানের ভাবমূর্তি আরও উজ্জ্বল হতে পারে।”

দুর্নীতি মামলার অনুসন্ধান ও তদন্ত কাজ গুরুত্ব দিয়ে করার আহ্বান জানিয়ে কর্মকর্তাদের তিনি বলেন, “প্রতিটি অনুসন্ধান বা তদন্তের গুণগত মান এমন হতে হবে যাতে প্রতিটি মামলায় প্রকৃত অপরাধীদের শতভাগ সাজা নিশ্চিত করা যায়।”

সভায় দুদকের বরিশাল বিভাগীয় কার্যালয়ের উপস্থাপিত প্রতিবেদনে মামলা, আসামি গ্রেপ্তার, আদালতে আত্মসমর্পণ ও পলাতক আসামিদের পরিসংখ্যান দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেন চেয়ারম্যান।

ওই বিভাগের কর্মকর্তাকে তিনি বলেন, “আপনার বিভাগে দুদকের মামলার অনেক আসামি আইন-আদালতে আত্মসমর্পণ না করে, আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে কীভাবে মুক্তভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছে? আপনাদের দায়িত্ব কী? যে কোনো বিষয়ে কমিশন সর্বোচ্চ দ্রুততার সঙ্গে সিদ্ধান্ত দেয়, তাহলে তা বাস্তবায়নে এত বিলম্ব কেন?”

কমিশনের পর্যবেক্ষণের সুবিধার জন্য মামলা হওয়ার পরপরই এজাহারের অনুলিপি কমিশনের আইন অনুবিভাগে পাঠাতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন ইকবাল মাহমুদ।

কর্মকর্তাদের তিনি বলেন, এখন থেকে প্রতিটি অনুসন্ধান বা তদন্ত নির্ধারিত সময়ের মধ্যে শেষ করতে হবে। প্রতিটি অনুসন্ধান বা তদন্তে আসামির ফৌজদারি অপরাধ পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে নিরুপণ করতে হবে।”

সেই সঙ্গে কাউকে ‘অহেতুক হয়রানি’ করার জন্য দুদকের মামলায় আসামি করা হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন তিনি।

মামলার সাক্ষী বা আসামিদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার না করা এবং নির্ধারিত সময়ে অফিসে উপস্থিত হতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নির্দেশ দেন দুদক চেয়ারম্যান।

দুদকের দুই কমিশনার নাসিরউদ্দীন আহমেদ ও এএফএম আমিনুল ইসলাম, সচিব মো. শামসুল আরেফিন, মহাপরিচালক (আইন) মো. মঈদুল ইসলাম, মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী, মহাপরিচালক (তদন্ত) মো. মোস্তাফিজুর রহমান, মহাপরিচালক (মানিলন্ডারিং) মো. আতিকুর রহমান খান, মহাপরিচালক (বিশেষ তদন্ত) মো. জয়নুল বারীসহ দুদকের বিভাগীয় কার্যালয়ের পরিচালক সভায় উপস্থিত ছিলেন।

]]>
1485365 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/acc-meeting-ed.jpg/ALTERNATES/w300/acc-meeting-ed.jpg
19 2 Home bangladesh_bn বাংলাদেশ news-bn 199 1485380 জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 20:51:23.0 2018-04-19 20:51:23.0 মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা আসছে: যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা আসছে: যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশ সফররত যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক দূত স্যাম ব্রাউনবেক বলেছেন, রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ‘জাতিগত নিধন’ নিয়ে তাদের তদন্ত চলছে এবং এর ভিত্তিতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা নেবে তার দেশ। বাংলাদেশ সফররত যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিষয়ক দূত স্যাম ব্রাউনবেক বলেছেন, রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ‘জাতিগত নিধন’ নিয়ে তাদের তদন্ত চলছে এবং এর ভিত্তিতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে আরও ব্যবস্থা নেবে তার দেশ। false https://bangla.bdnews24.com/bangladesh/article1485380.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/brownback.jpg/ALTERNATES/w300/Brownback.jpg
বৃহস্পতিবার ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,  “আপনারা আরও পদক্ষেপ দেখবেন।”

তিন দিনের সফরে বাংলাদেশে এসে বুধবার কক্সবাজারের কুতুপালং শরণার্থী শিবিরে গিয়ে রোহিঙ্গাদের মুখে তাদের নির্যাতনের কাহিনী শোনেন ব্রাউনবেক। 

রাখাইনে ‘গভীর উদ্বেগজনক’ ঘটনা ঘটেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, যেসব শিশুর সঙ্গে তার কথা হয়েছে তাদের প্রত্যেকে বলেছে, তাদের সামনেই পরিবারের কোনো সদস্য বা নিকটাত্মীয়কে ছুরিকাঘাত, গুলি বা হত্যা করা হয়েছে।

“একটি শিশু বলেছে, তার দাদা-দাদি দুজনকেই গুলি করে হত্যা করতে দেখেছে সে। এটা ভয়াবহ সহিংসতা। মায়ের সামনেই তার ১২ বছরের মেয়েকে কেটে ফেলা হয়েছে।”

ইমামকে পিটিয়ে নারীদের ধর্ষণের ঘটনা দেখতে বাধ্য করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্র আগেই এই ঘটনাকে ‘জাতিগত নিধন’ আখ্যায়িত করে ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং মিশন চালু করেছিল বলে জানান বিশেষ দূত ব্রাউনবেক।

গত ২৫ অগাস্ট থেকে রাখাইনে রোহিঙ্গাবিরোধী এই অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়া মিয়ানমারের জেনারেল মং মং সোয়েসহ কয়েকজন সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করে যুক্তরাষ্ট্র।

ব্রাউনবেক বলেন, রোহিঙ্গা শিবিরে আলোচনার সময় একজন ছাড়া সবাই বলেছে মুসলিম হওয়ার কারণেই তাদের দেশ থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা বিভাগের দায়িত্বে থাকায় সুনির্দিষ্টভাবে রোহিঙ্গাদের কাছে এই প্রশ্নের জবাব চেয়েছিলেন বলে জানান তিনি।

“এটা ধর্মীয় সংখ্যালঘুর বিরুদ্ধে জাতিগত নিধন। আমরা এর তদন্ত চালিয়ে যাব।”

তদন্ত এগিয়ে চলায় ‘নতুন পদক্ষেপ আসছে’ বলে জানান তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট বলেন, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন হতে হবে তাদের সম্মতি, নিরাপত্তা ও মর্যাদার সঙ্গে।

]]>
1485313 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/brownback.jpg/ALTERNATES/w300/Brownback.jpg
20 2 Home world_bn বিশ্ব news-bn 200 1485386 নিউজডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম নিউজডেস্ক, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম 2018-04-19 21:07:46.0 2018-04-19 21:12:57.0 শপথ নিলেন কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট দিয়াস-কানেল শপথ নিলেন কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট দিয়াস-কানেল নতুন প্রেসিডেন্টের আমলে কিউবার পররাষ্ট্র কৌশল ‘অপরিবর্তিত থাকবে’ এবং জরুরি প্রয়োজনে কোনো পরিবর্তন আনতে হলে শুধুমাত্র কিউবার জনগণই সে সিদ্ধান্ত নেবে। কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিয়েছেন মিগেল দিয়াস-কানেল। রাউল ক্যাস্ত্রোর স্থালাভিষিক্ত হয়েছেন তিনি। false https://bangla.bdnews24.com/world/article1485386.bdnews false https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/raul-castro.jpg/ALTERNATES/w300/Raul-castro.jpg
বৃহস্পতিবার শপথ নেওয়ার পর উদ্বোধনী ভাষণে মিগেল বলেন, তিনি উল্লেখযোগ্য ঐতিহাসিক ঘটনা হিসেবে কিউবা বিপ্লবের গুরুত্ব ধরে রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করতে চান।

তার আমলে কিউবার পররাষ্ট্র কৌশল ‘অপরিবর্তিত থাকবে’ এবং জরুরি প্রয়োজনে কোনো পরিবর্তন আনতে হলে শুধুমাত্র কিউবার জনগণই সে সিদ্ধান্ত নেবে।

“পুঁজিবাদ ফিরিয়ে আনার চক্রান্ত যারা করছে তাদের কিউবায় কোনো স্থান নেই,” বলেও সতর্ক করেন তিনি।

ভাই ফিদেল ক্যাস্ত্রো অসুস্থ হয়ে পড়ার পর ২০০৮ সালে কিউবার ক্ষমতায় এসেছিলেন রাউল। নতুন প্রেসিডেন্ট মিগেল দিয়াস-কানেল তার ঘনিষ্ঠ সহযোগী। গত পাঁচ বছর তিনি ভাইস প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন।

নতুন নেতৃত্ব বাছাইয়ের অধিবেশনে বুধবার কিউবার ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির সদস্যরা ৫৭ বছর বয়সী এ প্রকৌশলীকে প্রেসিডেন্ট পদের একমাত্র প্রার্থী হিসেবে বেছে নেন।

১৯৫৯ সালের বিপ্লবে মার্কিন মদদপুষ্ট একনায়ক বাতিস্তাকে উৎখাতের পর পাঁচ দশক কিউবা ছিল ফিদেলের নেতৃত্বে।

তিনি ১৯৭৬ পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী ছিলেন, সংবিধানে প্রেসিডেন্টের হাতে একচ্ছত্র ক্ষমতা দেওয়ায় ওই বছরই পদ বদলে বসেন রাষ্ট্রের শীর্ষপদে। যার পরিসমাপ্তি ঘটে ভাইয়ের হাতে দায়িত্ব হস্তান্তরের পর।

গত এক দশক ধরে দেশ পরিচালনা করা ৮৬ বছর বয়সী রাহুল সম্প্রতি ক্ষমতা থেকে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

তবে রাউল প্রেসিডেন্ট পদ থেকে সরে গেলেও ২০২১ সালের পরবর্তী কংগ্রেস পর্যন্ত কিউবার কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান থাকবেন তিনি। ফলে সরকার পরিচালনার ক্ষেত্রেও তার গুরুত্বপূর্ণ প্রভাব থাকবে বলে ধারণা পর্যবেক্ষকদের।

কাস্ত্রো ভ্রাতৃদ্বয়ের পর মিগেলই হলেন একদলীয় সোশালিস্ট রাষ্ট্র কিউবার নতুন প্রেসিডেন্ট, যার হাতে ক্ষমতা সঁপে দিয়ে নিশ্চিন্ত হতে চাইছেন কিউবা বিপ্লবের সময় সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া গেরিলা প্রজন্ম।

তুলনামূলক তরুণ এ নেতাকে রাউলের শুরু করা অর্থনৈতিক সংস্কার কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়াসহ প্রবৃদ্ধি বাড়ানো এবং ট্রাম্প প্রশাসনের নানামুখী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে বলে ধারণা করছেন পর্যবেক্ষকরা।

১৯৬০ সালে জন্ম নেওয়া মিগেল তরুণ বয়সেই যোগ দেন সান্তা ক্লারার ইয়াং কমিউনিস্ট লীগে। স্থানীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে তড়িৎ প্রকৌশল পড়ানোর সময় থেকে তার বিকাশ দৃশ্যমান হতে থাকে। ৩৩ বছর বয়সে তিনি ইয়াং কমিউনিস্ট লীগের দ্বিতীয় সম্পাদক নির্বাচিত হন।

মিগেলের ‘মতাদর্শগত দৃঢ়তা’র প্রশংসা শোনা গেছে রাউলের কণ্ঠেও।

ফিদেলের সময় যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনৈতিক দূরত্ব থাকলেও রাউল সে অবস্থা থেকে সরে এসে ওবামা প্রশাসনের সঙ্গে সম্পর্ক বৃদ্ধিতে উদ্যোগী হয়েছিলেন।

ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর কিউবানদের ওপর নানা ধরনের কড়াকড়ি আরোপ করলেও কূটনৈতিক সম্পর্কে এখনও বড় ধরনের রদবদল করেননি।

নতুন প্রেসিডেন্টকে ভেনেজুয়েলাসহ লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ককে এগিয়ে নিতে হবে, নজর দিতে হবে অর্থনৈতিক পুনর্গঠনেও।

গত মাসে নির্বাচিত ৬০৫ সাংসদ বুধবার হাভানার কনভেনশন সেন্টারের অধিবেশনে নতুন প্রেসিডেন্টের পাশাপাশি প্রভাবশালী স্টেট কাউন্সিলরদেরও নির্বাচিত করেছেন। এ কাউন্সিলররাই রাষ্ট্র ও সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শীর্ষপদে দায়িত্ব পালন করবেন।

]]>
1485118 https://d30fl32nd2baj9.cloudfront.net/media/2018/04/19/raul-castro.jpg/ALTERNATES/w300/Raul-castro.jpg